Jump to content

ফরেক্স নিউজ

  • entries
    1,349
  • comments
    18
  • views
    12,392

Contributors to this blog

  • মার্কেট আপডেট 1349

About this blog

ফরেক্স ট্রেডিং সংক্রান্ত সব নিউজ, অ্যানালাইসিস এবং মার্কেট আপডেট পাবেন এখানেই।

Entries in this blog

০.৮৫৫০ প্রাইসে বুলিশের চেষ্টায় EURGBP

গতকাল EURGBP পেয়ারের প্রাইস কমলেও আজ এশিয়ান সেশনে প্রাইস বৃদ্ধির চেষ্টা করছে। বর্তমানে পেয়ারটি ০.৮৫৫৫ প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছি। পেয়ারটি বিয়ারিশ চার্ট প্যাটার্নে মুভমেন্ট করছে। MACD ইনডিকেটর অনুযায়ী পেয়ার বুলিশ ট্রেন্ডে আসার চেষ্টা করছে।  ৫০ DMA অনুযায়ী পেয়ারের ক্ষেত্রে ০.৮৫৫৫ সাপোর্ট কাজ করছে। পেয়ারটি ০.৮৫৫০ প্রাইসের নিচে আসলে ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হতে পারে সেক্ষেত্রে মাসের নিন্ম প্রাইস ০.৮৪৫-তে যেতে পারে । পরবর্তী সাপোর্ট হতে পারে জুলাই মাসের নিন্ম প্রাইস ০.৮৫০০। অপরদিকে

১.১৮০০ প্রাইসের নিচে মুভমেন্ট করছে EURUSD

আজ বৃহস্পতিবার এশিয়ান সেশনের  শুরুর দিকে EURUSD পেয়ারের প্রাইস কমে ১.১৮০০ এর নিচে ১.১৭৭০ প্রাইসে অবস্থান করছে। যদিও গত চারদিন EURUSD বছরের নিন্ম প্রাইস থেকে আপট্রেন্ড অব্যাহত রেখে সর্বোচ্চ ১.১৭৪৪ প্রাইসে উঠেছিল। RSI ইনডিকেটর অনুযায়ী পেয়ার ৫০ পয়েন্টের নিচে অবস্থান করছে। পেয়ার ২০ DMA ১.১৮০০ প্রাইসের নিচে অবস্থান করছে। সুতরাং ১.১৮০০ প্রাইস অতিক্রম পর্যন্ত সেলারদের সুযোগ রয়েছে। পেয়ারটি ১.১৮০০ প্রাইস অতিক্রমে আপট্রেন্ড শক্তিশালী হতে পারে সেক্ষেত্রে ১.১৯০০ প্রাইসে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকতে পার

কমার্জব্যাংকের আলোচনায় সিলভারের সাপোর্ট ও রেজিস্ট্যান্স

কমার্জব্যাংক অ্যানালাইসিস্ট প্রধান কারেন জনস সিলভারের (XAG/USD) কিছু সাপোর্ট ও রেজিস্ট্যান্স নির্ধারণ করেছে।  গত দুদিন সিলভারের প্রাইস বৃদ্ধি পেলেও আজকের সেশনে প্রাইস কমছে। বর্তমানে সিলভারের প্রাইস কমে ২৩.৭০ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে।  সিলভারের ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হলে সেক্ষেত্রে ২২.৮৫ প্রাইসে যেতে পারে।  ধাতব পদার্থের পরবর্তী সাপোর্ট হতে পারে ২১.৬৭।  ২০২০ সালের নভেম্বরে সিলভারের প্রাইস কমে ২১.৮৭ এর কাছাকাছি এসেছিল। অপরদিকে সিলভারের আপট্রেন্ড শক্তিশালী হলে ২৭ জুলাইয়ের নিন্ম প্রা

সপ্তাহের নিন্ম প্রাইসের কাছাকাছি মার্কিন ডলার

অত্যন্ত সংক্রামক ডেল্টা করোনাভাইরাস বৈশ্বিক অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারকে বাধাগ্রস্ত করতে পারে এমন উদ্বেগের মধ্যে সেফ-হ্যাভেন ডলার এক সপ্তাহের সর্বোনিন্ম প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করছে। মার্কিন ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন ফাইজার এবং বায়োটেক কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন অনুমোদন পূর্ণমাত্রায় দেয়ার ফলে ডলারের প্রাইস কমছে।  ড অ্যান্টনি ফাউসি মঙ্গলবার বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র আগামী বছরের প্রথম দিকে ভোভিড-১৯ নিয়ন্ত্রণে আনতে পারে। বর্তমানে মার্কিন ডলার ৯২.৯৮ প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করছে।  যুক্তরাষ

১.৪০১৮ প্রাইসের যাওয়ার চেষ্টায় GBPUSD- কমার্জব্যাংক

GBPUSD পেয়ারের প্রাইস তৃতীয় দিনের মতো বৃদ্ধি পেয়ে বর্তমান ১.৩৭৩৮ প্রাইসে উঠেছিল।  গতকাল পেয়ারটি সর্বোচ্চ ১.৩৭৪৭ প্রাইসে উঠেছিল। পেয়ারের ক্ষেত্রে গতকালের সর্বোচ্চ প্রাইস ১.৩৭৪৭ রেজিস্ট্যান্স হতে পারে। কমার্জব্যাংক অ্যানালাইসিস্ট কারেন জনসনের মতে, GBPUSD পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে ১.৪০১৮-তে যেতে পারে। GBPUSD ১.৪০১৮ প্রাইসে যাওয়ার পূর্বে কিছু রেজিস্ট্যান্স লেভেলে বাধা হতে পারে।  সেক্ষেত্রে পেয়ারের পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১.৩৮০৬।  ৫৫ দিনের মুভিং অ্যাভারেজ অনুযায়ী পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হ

সংকুচিত হবে গোল্ডের আপট্রেন্ড?

কয়েক দিনের ধারাবাহিকতায় গোল্ড গতকাল ১৮১০ প্রাইসে উঠলেও পরবর্তীতে বিয়ারিশে এসেছিল।  আজকের সেশনে গোল্ডের প্রাইস কমে ১৭৯০ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে। বর্তমানে গোল্ডের প্রাইস কমলেও দিনের শেষে বৃদ্ধির সম্ভাবনা থেকে যাচ্ছে।  গোল্ডকে প্রভাবিত করার মতো আজকের ইভেন্টগুলোর মধ্যে অন্যতম জুলাই মাসের মার্কিন Durable Goods Order। প্রত্যাশা করা হচ্ছে, সেক্টরটি গতবারের থেকে খারাপ আসতে পারে। এ সুযোগে মার্কিন ডলারের প্রাইস কমতে পারে অপরদিকে গোল্ডের প্রাইস বৃদ্ধি পেতে পারে।  জুনে মার্কিন Durable Good

১০০ DMA অনুযায়ী ০.৯১৫০ প্রাইসে যাচ্ছে USDCHF

গত কয়েকদিন USDCHF পেয়ারের প্রাইস কমলেও আজকের সেশনে বৃদ্ধি পাচ্ছে। চলতি সপ্তাহে USDCHF পেয়ারের প্রাইস কমে ০.৯১০০ প্রাইসে গেলেও বর্তমানে রিকভার করে ০.৯১৪০ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে। গতকাল পেয়ার ১০০ DMA এর উপরে বুলিশ ডজি ক্যান্ডেল তৈরি করেছে।  ডজি ক্যান্ডেলের পরবর্তীতে আজকের সেশনে প্রাইস বৃদ্ধির চেষ্টা করছে। USDCHF পেয়ার ১০০ DMA ( ০.৯১১৫) প্রাইসের নিচে আসলে পুনরায় ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হতে পারে।  সেক্ষেত্রে পেয়ারের পরবর্তী সাপোর্ট হতে পারে ০.৯১০০।  ২০০ DMA অনুযায়ী সাপোর্ট হতে পারে ০.৯০৭৫

US ডাটার পূর্বে ১.১৭০০ প্রাইসে যেতে পারে EURUSD

গত তিনদিন EURUSD পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পেলেও আজ পেয়ার বিয়ারিশে আসার চেষ্টা করছে।  বর্তমানে পেয়ারের প্রাইস কমে ১.১৭৩০ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে। জ্যাকসন হোল সিম্পোজিয়াম ইভেন্টের আগে কোভিডের প্রাদুর্ভাব এবং বিবর্ণ ভ্যাকসিনের আশাবাদ, সেই সাথে সতর্ক মেজাজ, মার্কিন ডলারের নিরাপদ আশ্রয়ের চাহিদাকে সমর্থন করছে। মার্কিন ডলারের প্রাইস গত তিনদিন কমলেও আজ বৃদ্ধির চেষ্টা করছে।  এছাড়াও ফ্রান্স এবং যুক্তরাজ্যে কোভিড-১৯ এর বৃদ্ধি মার্কেটে অনিশ্চয়তা সৃষ্টি করছে।  যা নিরাপদ কারেন্সি হিসেবে ডলারের চাহিদ

জ্যাকসোন হোল সিম্পোজিয়ামে প্রভাবিত হতে পারে EURGBP

আজ বুধবার এশিয়ান সেশনে EURGBP পেয়ারের প্রাইস কমে দিনের সর্বনিন্ম ০.৮৫৫৫ এর কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে।  প্রত্যাশা করা হচ্ছে, পেয়ারের প্রাইস খুব শীঘ্রই ০.৮৫৫০ এর দিকে যাবে। ফ্রান্সে কোভিড-১৯ সংক্রমণ দুমাসের সর্বোচ্চে উঠেছে যদিও জার্মান রিপোর্ট অনুযায়ী প্রত্যাশা করা হয়েছিল জার্মান ও ফ্রান্স সহ আশেপাশের সংক্রমণ দ্রুত হ্রাস পাবে।  গতকাল মঙ্গলবার ইতালিতে ৬০ জন কোভিড-১৯ আক্রান্তে মৃত্যুবরণ করেছে। এদিকে যুক্তরাজ্যে মৃত্যুর সংখ্যা বৃদ্ধির সাথে সাথে দৈনিক সংক্রমণ সপ্তাহের সর্বোচ্চ ৩ হাজারে পৌঁছেছে। পাউন

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের মন্তব্যের সাথে রিটেইল সেলস নিউজিল্যান্ড ডলারের প্রাইস বৃদ্ধিতে সহায়তা করছে

NZDUSD পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে ০.৬৯৪০ এর কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে।  দ্বিতীয় প্রান্তিকে নিউজিল্যান্ড রিটেইল সেলস ২.৮% থেকে বৃদ্ধি পেয়ে ৩.৩% এসেছে।  যা মার্কিন ডলারের বিপরীতে নিউজিল্যান্ড ডলারকে শক্তিশালী করছে। গত সপ্তাহে রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউজিল্যান্ড হঠাৎ ইন্টারেস্ট বৃদ্ধির ডিসিশন থেকে সরে আসে, যা নিউজিল্যান্ড ডলারকে ০.৬৮০৪ প্রাইসে নিয়ে এসেছিল। বিনিয়োগকারীদের অধিকাংশ মনে করেছিলেন, করোনা প্রাদুর্ভারের কারণে ব্যাংক রেট বাড়ানো থেকে সরে এসেছে। রিজার্ভ ব্যাংকের গর্ভন ব্লুমবার্গকে ব

AUDUSD পেয়ারের সাপোর্ট-রেজিস্ট্যান্স

AUDUSD পেয়ার তৃতীয় দিনের মতো ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে।  আজকের সেশনে পেয়ারের প্রাইস কমে সর্বনিন্ম ০.৭১০৫-তে গিয়েছিল।  বর্তমানে পেয়ারটি রিকভার করে ০.৭২৪৪ প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করছে। পেয়ারের বর্তমান রেজিস্ট্যান্স হিসেবে কাজ করছে ০.৭২৬৬। ফিবোনাসি রিট্রেসমেন্ট ২৩.৬% অনুযায়ী পেয়ারের পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ০.৭২৮৮।  আপট্রেন্ড স্থায়ী হলে ০.৭২৯১ অতিক্রমের পরবর্তীতে ০.৭৩১৫ রেজিস্ট্যান্সে যেতে পারে। অপরদিকে পেয়ারের বর্তমান সাপোর্ট ০.৭২০০ এবং পরবর্তী সাপোর্ট হতে পারে ০.৭১৪৮। ডা

২০০ DMA অনুযায়ী ১.২৫৫৩ প্রাইসে যেতে পারে USDCAD- ক্রেডিট সুইস

গত সপ্তাহে USDCAD ১.২৯৫০ প্রাইস থেকে পুনরায় ডাউনট্রেন্ডে আসতে শুরু করেছে।  ক্রেডিট সুইস অ্যানালাইসিস্টরা পেয়ারের দুর্বলতার সুযোগ দেখছেন।  ফিবোনাসি রিট্রেসমেন্ট ৩৮.২% অনুযায়ী জুন/আগস্ট মাসের আপট্রেন্ড স্থল ১.২৫৯০ সাপোর্ট হতে পারে। ২০০ দিনের মুভিং অ্যাভারেজ অনুযায়ী পেয়ারের পরবর্তী সাপোর্ট হতে পারে ১.২৫৫৩।  ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হলে ২০০ দিনের মুভিং অ্যাভারেজ অনুযায়ী ১.২৫৫০ সাপোর্ট হতে পারে। অপরদিকে পেয়ারের বর্তমান রেজিস্ট্যান্স ১.২৬৬০।  পরবর্তী রেজিস্ট্যান্সগুলো হতে পারে ১.২৭১১ এবং

মার্কিন ডলারের বিপরীতে শক্তিশালী হচ্ছে নিউজিল্যান্ড ডলার

আজ মঙ্গলবার ডলার স্থিতিশীল রয়েছে, যা আগের সেশনের পাঁচদিনের সর্বনিন্ম প্রাইসে ছিল। কারণ বিশ্বব্যাপী ডেল্টা ভেরিয়েন্ট সম্প্রসারণ নিয়ে উদ্বিগ্নতা কিছুটা কমতে শুরু করেছে।  এছাড়াও কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কাছ থেকে হকিস মন্তব্যের পর নিউজিল্যান্ড ডলার শক্তিশালী হতে শুরু করেছে। বর্তমানে ডলারের প্রাইস কমে ৯২.৯৬ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে।  বিনিয়োগকারীদের নজর জ্যাকসন হোল সিম্পোজিয়ামের দিকে।  প্রত্যাশা করা হচ্ছে, সেখানে ফেডারেল রিজার্ভের চেয়ারম্যান জেরেমি পাওয়েল আর্থিক উদ্দীপনার জন্য সম্ভাব্য  সময়রেখা সম্পর্

সেশনের সর্বোচ্চ প্রাইসে যাচ্ছে USDJPY

আজ মঙ্গলবার ইউরোপিয়ান সেশনে USDJPY পেয়ার পজিটিভ অবস্থানে রয়েছে এবং পেয়ারটি গতকালের সর্বোচ্চ প্রাইস ১১০.০০ এর দিকে যাচ্ছে। গতকাল USDJPY পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে ১১০.১৪-তে উঠলেও পরবর্তীতে ডজি ক্যান্ডেল তৈরি করেছিল।  আজকের সেশনেও পেয়ার আপট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে। নিরাপদ কারেন্সি হিসেবে ডলারের চাহিদা বৃদ্ধি পাচ্ছে। আজকের সেশনে পেয়ার ১০৯.৬৭ প্রাইসে ওপেন হলেও বর্তমানে সামন্য বৃদ্ধি পেয়ে ১০৯.৭৬ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে। USDJPY পেয়ারের বর্তমান রেজিস্ট্যান্স আজকের সেশনের সর্বোচ্

GBPUSD প্রাইস অ্যানালাইসিস

আজ মঙ্গলবার ইউরোপিয়ান সেশনের শুরুর দিকে ১.৩৭৪৫ প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করছে GBPUSD। আজকের সেশনে পেয়ারের প্রাইস সর্বনিন্ম ১.৩৭০০ প্রাইসে আসলেও বর্তমানে বৃদ্ধি পাচ্ছে। এর ফলে পেয়ার দ্বিতীয় দিনের মতো আপট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে।   ডেইলি চার্টে দেখা যাচ্ছে, ‍শুক্রবার পেয়ারের প্রাইস কমে সর্বনিন্ম ১.৩৬০০ আসলেও পরবর্তীতে আপট্রেন্ড শক্তিশালী হতে থাকে। ৩০ জুলাই GBPUSD সর্বোচ্চ ১.৩৯৮০ প্রাইসে দেখা গিয়েছিল।  পরবর্তীতে পেয়ার ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত রাখলেও গত দুদিন আপট্রেন্ড বেশ শক্তিশালী মনে হচ্

০.৮৫৫০ প্রাইসের নিচে মুভমেন্ট করছে EURGBP

গত কয়েকদিন EURGBP পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পেলেও গতকাল ডাউনট্রেন্ড শুরু হয়। ধারণা করা হচ্ছে, EURGBP ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত রাখতে চলেছে। বর্তমানে পেয়ার ওপেন প্রাইস ০.৮৫৫৩ থেকে কমে ০.৮৫৪৪ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে।  ডেইলি চার্টে দেখা যাচ্ছে, পেয়ার ২০ জুলাই সর্বোচ্চ ০.৮৬৬৯ প্রাইসে আসলেও পরবর্তীতে ডাউনট্রেন্ড আসতে থাকে এবং ১০ আগস্ট সর্বনিন্ম ০.৮৪৫০ প্রাইসে গিয়েছিল। বর্তমানে পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে ০.৮৫৪৪ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে।  ২০ দিনের সিম্পল মুভিং অ্যাভারেজ অনুযায়ী EURGBP পেয়ারের ক্

২০০ DMA অতিক্রমের পরবর্তীতে ১৩২.০০ প্রাইসে যেতে পারে EURJPY

EURJPY তৃতীয় দিনের মতো বৃদ্ধি পেয়ে ১২৮.৮৮ প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করছে।  পেয়ার ডাউনট্রেন্ড চ্যানের মধ্যে মুভমেন্ট করছে। বর্তমানে পেয়ারটি ২০০ দিনের মুভিং অ্যাভারেজ অনুযায়ী ১২৯.১০ প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে।  পেয়ারটি উল্লেখিত প্রাইস অতিক্রমে সক্ষম হলে আপট্রেন্ড শক্তিশালী হতে পারে। সেক্ষেত্রে ১৩২.০০ প্রাইসে যেতে পারে। EURJPY ১৩২.০০ প্রাইসে যাওয়ার পূর্বে ১৩০.০০ প্রাইসে বাধা পেতে পারে।  ১০০ দিনের মুভিং অ্যাভারেজ অনুযায়ী পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১৩ জুলাইয়ের সর্বোচ্চ প্রাইস ১৩১.

AUDUSD সাপ্তাহিক ফরেকাস্ট ( ২৩ – ২৭ আগস্ট, ২০২১)

AUDUSD পেয়ার তিন মাসের মতো ধারাবহিক ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে।  গত সপ্তাহে পেয়ারের প্রাইস কমে মাসের সর্বনিন্ম ০.৭১০৫-তে এসেছিল। এর ফলে পেয়ার ২০২১ সালের সর্বনিন্ম প্রাইস নতুনভাবে তৈরিতে সক্ষম হয়েছে। জুলাই মাসে চীনের ইন্ডাস্ট্রীয়াল প্রডাকশন এবং রিটেইল সেলস প্রত্যাশার তুলনায় দুর্বল এসেছে।  যা ইকোনমির ক্ষেত্রে দুর্বল সংকেত দিচ্ছে। যেহেতু অস্টেলিয়া চীনের সবথেকে বড় ইকোনমিক পার্টনার সেহেতু চীনের দুর্বলতা অস্টেলিয়ার ইকোনমিকে প্রভাবিত করছে।  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ১২০ বিলিয়ন ডলারের বন্ড ক্রয় ডলারক

USDCAD সাপ্তাহিক ফরেকাস্ট ( ২৩ – ২৭ আগস্ট, ২০২১)

অন্যান্য কারেন্সিগুলোর মতো গত সপ্তাহে মার্কিন ডলারের বিপরীতে কানাডিয়ান ডলার দুর্বল অবস্থানে ছিল। গত সপ্তাহে USDCAD ১০০ পিপসের মতো বৃদ্ধি পেয়েছিল।  বিদেশী রাজনৈতিক ঘটনা এবং ধীর ইকোনমিক উন্নয়নের উদ্বিগ্নতা USDCAD পেয়ারকে ৮ মাসের সর্বোচ্চে নিয়ে এসেছে। ডেল্টা ভেরিয়েন্ট এবং আন্তর্জাতিক রাজনৈতিক উদ্বিগ্নতা নিরাপদ কারেন্সি হিসেবে ডলারের চাহিদা বাড়িয়ে দিচ্ছে।  এর ফলে গত সপ্তাহে USDCAD পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে আট মাসের সর্বোচ্চে এসেছে এবং সপ্তাহিক হিসেবে ২.৪% বৃদ্ধি পেয়েছে। WTI তেলের প

GBPUSD সাপ্তাহিক ফরেকাস্ট ( ২৩ – ২৭ আগস্ট, ২০২১)

মহামারী ব্রিটিশ পাউন্ডকে প্রভাবিত করছে, এছাড়াও মার্কিন ডলারের শক্তিশালী অবস্থান GBPUSD পেয়ারকে গত সপ্তাহে বিয়ারিশে রেখেছিল। গত সপ্তাহে মার্কিন ডলারের প্রাইস বৃদ্ধির কারণে  GBPUSD এক্সচেঞ্জ রেট সেলিং প্রেসারে থেকে ২০০ পিপসের মতো কমেছিল। ফেডারেল রিজার্ভের টেপারিং বৃদ্ধির সম্ভাবনাকে কেন্দ্র করে GBPUSD বড় ধরণের সেলিং প্রেসারে রয়েছে। সপ্তাহের শেষের দিন পূর্বের দিনের তুলনায় ডাউনট্রেন্ড কিছুটা সীমিত ছিল। সর্বোপরি পেয়ার গত পাঁচ দিনের মধ্যে চারদিন ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছিল। যুক্তরাজ্যে

EURUSD সাপ্তাহিক ফরেকাস্ট ( ২৩ – ২৭ আগস্ট, ২০২১)

সপ্তাহজুড়ে EURUSD পেয়ারের প্রাইস কমলেও শেষের দিন বৃদ্ধি পেয়েছিল।  আজ সোমবার সপ্তাহের প্রথমদিন পেয়ার আপট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে।  গত সপ্তাহে EURUSD পেয়ারের প্রাইস কমে ২০২০ সালের নভেম্বরের সর্বনিন্ম প্রাইস ১.১৬৬০-তে গিয়েছিল। ফেড টেপারিং আলোচনা মার্কিন ডলার টেপারিং বৃদ্ধির সম্ভাবনা এবং করোনাভাইরাসের ডেল্টা ভেরিয়েন্টের প্রভাবে প্রভাবিত হচ্ছে।  এদিকে ফেডারেল রিজার্ভের পরবর্তী FOMC মিটিং মিনিটে টেপারিং বিষয়ে আলোচনা হবে। ফেড টেপারিং বৃদ্ধি করবে নাকি কমাবে সেটা মিটিংয়ের আলোচনায় ইঙ্গিত পাওয়া যাবে

মাসের নিন্ম প্রাইসে GBPJPY

GBPJPY সাত দিনের মতো ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে।  এর ফলে পেয়ার মাসের সর্বনিন্ম প্রাইস ১৪৯.১৭ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে। আর্টিকেল লেখার সময় পেয়ার ১৪৯.২৭ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে। আজকের সেশনে জাপানী ইয়েনের বিপরীতে ব্রিটিশ পাউন্ড দুর্বল হওয়ার অন্যতম কারণ রিটেইল সেলস রিপোর্ট। জুলাই মাসে ব্রিটিশ রিটেইল সেলস ০.৪% থেকে কমে -২.৫% এসেছে।  বাৎসরিক ব্যবধানে ৬% বৃদ্ধি প্রত্যাশা করা হলেও কমে ২.৪% এসেছে।  আজকের সেশনে ব্রিটিশ ইভেন্টগুলো পাউন্ডের বিপরীতে ছিল। XM সকলে জিতবে প্রমোশনে $5-$400

৯-১/২ মাসের সর্বোচ্চে মার্কিন ডলার

মেজর কারেন্সিগুলোর বিপরীতে ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে ৯-১/২ মাসের সর্বোচ্চে অবস্থান করছে।  ডেল্টা ভেরিয়েন্ট বৃদ্ধির ফলে বিশ্ব ইকোনমিক রিকভারে বিলম্ব হতে পারে।  যা মার্কিন ডলারের প্রাইস বাড়িয়ে দিচ্ছে। অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ড ডলারের প্রাইস দ্রুত হ্রাস পাচ্ছে।  মার্কিন ডলারের প্রাইস বেড়ে ৯৩.৬০ প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করছে।  নভেম্বরের পরবর্তীতে প্রথমবারের মতো পেয়ার ৯৩.৫৯ প্রাইসে উঠেছে। ফেডের মনোভাব নেতিবাচক হওয়ার পরও ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি পাচ্ছে।  মনে হচ্ছে বিনিয়োগকারীদের নিকট

ব্রিটিশ রিটেইল সেলস রিপোর্টের পূর্বে ১.৩৬০০ প্রাইসের কাছাকাছি GBPUSD

আজ শুক্রবার এশিয়ান সেশনে GBPUSD ১.৩৭৬০ থেকে কমে  ১.৩৬৩০ প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করছে।   ছয়টি প্রধান কারেন্সির বিপরীতে ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে ৯৩.৫৫ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে।  সর্বশেষ এফওএমসি সভায় ফেড কর্মকর্তারা এই বছরের শেষের দিকে উদ্দীপনা কমিয়ে আনতে পারে, লেবার মার্কেটের অবস্থার উল্লেখযোগ্য উন্নতি হবে এমন প্রত্যাশা করেছেন। ডেল্টা ভেরিয়েন্টের দ্রুত বিস্তার বৈশ্বিক ইকোনমিক রিকভারের পথে বাধা হচ্ছে, এর ফলে বিনিয়োগকারীরা নিরাপদ কারেন্সি হিসেবে মার্কিন ডলারের দিকে ছুটে যাচ্ছে।

USDCAD প্রাইস অ্যানালাইসিস

USDCAD পেয়ার ১.২৮৬০ প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করছে।  পেয়ার পঞ্চম দিনের মতো আপট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে। গত ১৪ মাসের মধ্যে গতকাল দৈনিক চার্টে প্রথমবারের মতো একদিনে পেয়ারের প্রাইস এতো বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে।  RSI ইনডিকেটর অনুযায়ী পেয়ার ওভারবটে রয়েছে।  সেক্ষেত্রে প্রাইস কমে ১.২৮২০ আসতে পারে। ফিবোনাসি রিট্রেসমেন্ট ৬১.৮% অনুযায়ী পরবর্তী গুরুত্বপূর্ণ রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১.২৮৮০।  আপট্রেন্ড শক্তিশালী হলে ১.৩০০০ রেজিস্ট্যান্স হতে পারে। অপরদিকে পেয়ার ১.২৮২০ সাপোর্ট অতিক্রমের পরবর্তীতে জুলাই মা

বিডিপিপস কি এবং কেন?

বিডিপিপস বাংলাদেশের সর্বপ্রথম অনলাইন ফরেক্স কমিউনিটি এবং বাংলা ফরেক্স স্কুল। প্রথমেই বলে রাখা জরুরি, বিডিপিপস কাউকে ফরেক্স ট্রেডিংয়ে অনুপ্রাণিত করে না। যারা বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, শুধুমাত্র তাদের জন্যই বিডিপিপস একটি আলোচনা এবং অ্যানালাইসিস পোর্টাল। ফরেক্স ট্রেডিং একটি ব্যবসা এবং উচ্চ লিভারেজ নিয়ে ট্রেড করলে তাতে যথেষ্ট ঝুকি রয়েছে। যারা ফরেক্স ট্রেডিংয়ের যাবতীয় ঝুকি সম্পর্কে সচেতন এবং বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, বিডিপিপস শুধুমাত্র তাদের ফরেক্স শেখা এবং উন্নত ট্রেডিংয়ের জন্য সহযোগিতা প্রদান করার চেষ্টা করে।

×
×
  • Create New...