Jump to content

ফরেক্স নিউজ

  • entries
    111
  • comments
    3
  • views
    537

Contributors to this blog

  • মার্কেট আপডেট 111

About this blog

ফরেক্স ট্রেডিং সংক্রান্ত সব নিউজ, অ্যানালাইসিস এবং মার্কেট আপডেট পাবেন এখানেই।

Entries in this blog

সেশনের সর্বনিন্ম প্রাইসে GBPUSD

দ্বিতীয় দিনের মতো GBPUSD পেয়ার ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে।  আজ সেশনের শুরুর দিকে GBPUSD পেয়ারেরর প্রাইস বৃদ্ধি পেলেও বর্তমানে কমতে শুরু করেছে। বর্তমানে পেয়ারটি ১.৩৮৫০ প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করছে।  ব্রিটিশ ফান্ডামেন্টাল ডাটাগুলোর পাশাপাশি কোভিড-১৯ সংক্রামণ বৃদ্ধি এবং ব্রেক্সিট বিলের আকার নিয়ে নতুন বিতর্ক উত্তেজনা ব্রিটিশ পাউন্ডের প্রাইস কমাতে সহায়তা করছে। যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন গতকাল নিশ্চিত করেছেন যে ইংল্যান্ডে কোভিড-১৯ বিধিনিষেধ ১৯ জুলাই শেষ হবে। তবে জনগণের সত

সীমিত মুভমেন্টে GBPUSD

গত কয়েকদিন পেয়ারের মুভমেন্ট বৃদ্ধি পেলেও ফেড মিটিংয়ের পূর্বে সীমিত মনে হচ্ছে।  বিনিয়োগকারীদের নজর এফওএমসি মিটিংয়ের দিকে। গতকাল পেয়ারের প্রাইস কমে ১.৩৭৭২-তে আসলেও পরবর্তীতে রিকভার করে ১০০ ঘন্টার মুভিং অ্যাভারেজ অনুযায়ী ১.৩৮১৪ এসেছিল। বর্তমানে ১.৩৭৯০ প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট  করছে।  সেক্ষেত্রে পেয়ারের বর্তমান রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১.২৮১৪।  পেয়ারটি উক্ত রেজিস্ট্যান্স অতিক্রমে সক্ষম হলে ১.৩৪৪০ প্রাইসে যেতে পারে। অপরদিকে পেয়ারটি ১.৩৭৫০ প্রাইসের নিচে আসলে ডাউনট্রেন্ড শক্তিশা

সপ্তাহের সর্বোচ্চ প্রাইসে USDCAD

গত সপ্তাহে USDCAD পেয়ারের প্রাইস কমলেও চলতি সপ্তাহের শুরু থেকে বৃদ্ধি পাচ্ছে। বর্তমানে পেয়ারটি সপ্তাহের সর্বোচ্চ প্রাইস ১.২৩৮৫-তে অবস্থান করছে। কানাডিয়ান ডলারের প্রাইস কমার পেছনে তেলের প্রাইস কাজ করছে।  ওয়েস্ট টেক্সাস ইন্টারমিডিয়েটের ব্যারেল ১.৬৫% হ্রাস পেয়ে প্রতি ব্যারেল ৭২.৩৫ ডলারের কাছাকাছি অবস্থান করছে।  যা কানাডিয়ান ডলারের প্রাইস কমামে সহায়তা করছে। অপরদিকে মার্কিন ডলারের প্রাইস ০.২৩% বৃদ্ধি পেয়ে ২১.১০ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে।  বিনিয়োগকারীদের বর্তমান নজর থাকবে মার্কিন হাউজ

সপ্তাহের সর্বোচ্চ প্রাইসে USDCAD

আজ বৃহস্পতিবার ইউরোপিয়ান সেশনে USDCAD পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে ১.২৪০০ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে।  পেয়ারের পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১.২৪৩০। চার ঘন্টার চার্টে MACD ইনডিকেটর অনুযায়ী পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পেতে পারে।  USDCAD হলুদ কালারের ট্রেন্ড লাইনটি অতিক্রমে সক্ষম হলে আপট্রেন্ড শক্তিশালী হতে পারে।  অপরদিকে সবুজ কালারের ট্রেন্ড লাইন ৫০ EMA অতিক্রমে সক্ষম হলে ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হতে পারে। পেয়ারের পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে জুন মাসের সর্বোচ্চ প্রাইস ১.২৪৯০।  পেয়ারটি ১.২৪৯০ অতি

রিভিউ এবং সল্যুশন নিয়ে বাংলায় ফ্রি ওয়েবিনার আজ রাত ০৯:০০ টায়

এই ওয়েবিনার বিগত ২টি ওয়েবিনার পিভট পয়েন্ট কি ট্রেডিংয়ে কাজ করে এবং কারেন্সি কো-রিলেশন  এর সারাংশ নিয়ে আলোচনা করা হবে। তার সাথে কারো যদি কোন সমস্যা বা কোন প্রশ্ন থাকে তার উত্তর দেয়া হবে উদাহরণ সহ যাতে আপনাদের শেখাটা ভাল ভাবে হয়। যেসব বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হবেঃ পিভট পয়েন্ট কি ট্রেডিংয়ে কাজ করে? কারেন্সি কো-রিলেশন  যা যা শিখবেনঃ অংশগ্রহণকারীগণ সাম্প্রতিক ওয়েবিনার সংক্রান্ত তাদের সব প্রশ্নের উত্তর পাবেন অংশগ্রহণকারীগণ একটি স্পষ্ট ধারণা অর্জন করবেন সাম্প্রতিক

রিজার্ভ ব্যাংক অব অস্টেলিয়ার রেট ডিসিশনের পরবর্তীতে সপ্তাহের সর্বোচ্চ প্রাইসে AUDUSD

রিজার্ভ ব্যাংক অব অস্টেলিয়া ইন্টারেস্ট রেট ০.১০% এ অপরিবর্তনীয় রেখেছে।  যদিও ইন্টারেস্ট ০.১০% প্রত্যাশিত ছিল। এর ফলে ইভেন্টটি অস্টেলিয়ান ডলারকে তেমনভাবে প্রভাবিত করতে সক্ষম হয়নি। তবে মার্কিন ডলারের দুর্বলতাকে কেন্দ্র করে AUDUSD তৃতীয় দিনের মতো আপট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে।  অস্টেলিয়ায় করোনাভাইরাস সংক্রামণের কথা মাথায় রেখে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নীতি-নির্ধারকরা বর্তমান ডিসিশন নিয়েছেন। ABC নিউজ অনুসারে ৬ জুলাই দেশটিতে করোনা সংক্রামণ ৪৪ থেকে কমে ২৯ এসেছে।  তবে সিডনি, কুইন্সল্যান্ড এবং নিউ

যেসব কারণে GBPUSD পেয়ারের প্রাইস আরও কমতে পারে

গতকাল প্রকাশিত ব্রিটিশ জিডিপি প্রত্যাশার অনেক নিচে এসেছিল এবং আজ প্রকাশিত ব্রিটিশ মেনুফেকচারিং পিএমআই প্রত্যাশাকে মিস করেছে। যা ব্রিটিশ পাউন্ডকে আরও দুর্বল করেছে। আজকের সেশনে GBPUSD পেয়ারের প্রাইস কমে ১১ সপ্তাহের নিচে ১.৩৭৬৪-তে এসেছিল। এদিকে মার্কিন ডলার ডেটা রিলিজকে কেন্দ্র করে আমাগী দু’দিন পজিটিভ মুডে থাকতে পারে। প্রত্যাশা করা হচ্ছে, মার্কিন বেকারত্ব হ্রাস অব্যাহত থাকবে।  এদিকে,যুক্তরাষ্ট্রের ISM মেনুফেকচারিং ৬০ পয়েন্টের উপরে থাকবে বলে প্রত্যাশা করা হয়েছে।  এর ফলে আমেরিকান ফ্

যে বিষয়গুলো AUDUSD পেয়ারের প্রাইস কমতে সহায়তা করছে

AUDUSD পেয়ারের প্রাইস ক্রমাগত কমছে এবং পেয়ারটি পূর্বের আপট্রেন্ডের নিচে অবস্থান করছে।  বর্তমানে পেয়ারটি ০.৭৪৬০ প্রাইসের নিচে অবস্থান করছে। RBAগর্ভনরের বক্তব্যে প্রভাবিত হয়েছে AUDUSD AUDUSD পেয়ারের প্রাইস তৃতীয় দিনের মতো কমতে শুরু করেছে। পেয়ারের প্রাইস কমার পেছনে অস্টেলিয়ার করোনা প্রাদুর্ভাবের সাথে রিজার্ভ ব্যাংক অব অস্টেলিয়ার গর্ভনর ফিলিপ লোর বক্তব্য কাজ করেছে।  এর ফলে পেয়ারটি সপ্তাহের সর্বনিন্ম প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করছে। দেশটিতে করোনা সংক্রামণ বৃদ্ধি পেতে থাকলে AUDUSD

মিশ্র জব ডাটায় অস্টেলিয়ান ডলারের প্রাইস কমছে

আজ বৃহস্পতিবার সকালে প্রকাশিত অস্টেলিয়ান জব ডাটাকে কেন্দ্র করে AUDUSD পেয়ারের প্রাইস কমে দিনের সর্বনিন্ম ০.৭৪৫২ প্রাইসে এসেছিল। অস্টেলিয়ান জব জুন মাসে প্রত্যাশিত ৩০ হাজার থেকে কমে ২৯ হাজার ১ শত এসেছে।  তবে বেকারত্বের হার ৫.৫% থেকে কমে ৪.৯% এসেছে।  অস্টেলিয়ান মুদ্রাস্ফীতি জুলাই মাসে ৪.০% থেকে কমে ৩.৭% এসেছে।  মিশ্র জব ডাটা AUDUSD পেয়ারের উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে।  এছাড়াও কোভিড-১৯ এর ভয় ইকোনমিকে প্রভাবিত করছে।  ভ্যাকসিন বন্টন বিলম্বতা এবং কোভিড উদ্বেগ  AUDUSD  পেয়ারের মুভমেন্টের

মাসিক মার্কেট রিভিউ নিয়ে বাংলায় ফ্রি অনলাইন ওয়েবিনার আজ রাত ০৯:০০ টায়

এই ওয়েবিনারটি একটি বিশেষ ওয়েবিনার। এটা প্রতি মাসে এক বার হবে এবং তা মাসের শেষ দিকে হবে। এই ওয়েবিনারে আমরা মার্কেটের প্রধান কারেন্সি পেয়ার গুলো নিয়ে আলোচনা করবো এবং কারো যদি কোন সমস্যা বা কোন প্রশ্ন থাকে তার সমাধান দেয়া হবে যাতে আপনাদের শেখাটা আরো ভাল ভাবে হয় । যেসব বিষয়ে আলোচনা করা হবেঃ পিভট পয়েন্ট কি ট্রেডিংয়ে কাজ করে? কারেন্সি কো-রিলেশন ট্রেন্ড শনাক্ত করার ৫টি সর্বোত্তম টুলস কি? যা যা শিখবেনঃ মার্কেটের প্রধান কারেন্সি পেয়ার গুলো পর্যালোচনা করা হবে

মার্চ মাসের সর্বন্মি প্রাইসে যেতে পারে EURJPY- কমার্জব্যাংক

আজকের সেশনে EURJPY পেয়ারের প্রাইস কমে এপ্রিলের সর্বনিন্ম প্রাইস ১২৯.৬০-তে গিয়েছিল। কমার্জব্যাংক অ্যানালাইসিস্ট অ্যাক্সেল রুডলফের মতে, পেয়ারের প্রাইস কমে মার্চ মাসের সর্বনিন্ম প্রাইস ১২৮.২০ যেতে পারে। অপরদিকে পেয়ারটি ২৩ জুনের সর্বোচ্চ প্রাইস ১৩২.৫৯ অতিক্রমে সক্ষম হলে আপট্রেন্ড শক্তিশালী হতে পারে।  ২০০ দিনের মুভিং অ্যাভারেজ অনুযায়ী ১২৮.২৮ সাপোর্ট হিসেবে কাজ করতে পারে। অপরদিকে পেয়ারের বর্তমান রেজিস্ট্যান্স ২৯ জুনের সর্বনিন্ম প্রাইস ১৩১.২৮।  পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ২৩ জুনের

মার্চ মাসের সর্বনিন্ম প্রাইসে যেতে পারে EURUSD- কমার্জব্যাংক

কমার্জব্যাংক অ্যানালাইসিস্ট কারেন জনসের মতে, EURUSD পেয়ারের প্রাইস কমে মার্চ মাসের সর্বনিন্ম প্রাইস ১.১৭০৪-তে যেতে পারে। বর্তমানে পেয়ারটি ১.১৮২২ প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করছে।  পরবর্তীতে ডাউনট্রেন্ডে আসার সম্ভাবনা রয়েছে।  পেয়ারের বর্তমান রেজিস্ট্যান্স ১.১৮৩৬। পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১.১৯০০ এবং ১.১৯৬০। অপরদিকে EURUSD পেয়ারের বর্তমান সাপোর্ট লেভেল ১.১৭১৩ এবং পরবর্তী সাপোর্ট হতে পারে মার্চ মাসের নিন্ম প্রাইস ১.১৭০৪। XM ব্রোকারে জুলাই মাসে ডিপোজিটে ৫০% বোনাস

মার্কিন মুদ্রাস্ফীতি রিপোর্টের পূর্বে কেমন হচ্ছে ডলারের মুভমেন্ট

আজ সোমবার ইউরোপিয়ান সেশনের শুরুর দিকে ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি পাচ্ছে।  বিনিয়োগকারীদের নজর আগমীকালের মুদ্রাস্ফীতি এবং বৃহস্পতিবার ফেডারেল রিজার্ভ চেয়ারম্যান জেরেমি পাওয়েলের আলোচনার দিকে। গত সপ্তাহের বেশিরভাগ সময় মার্কিন ডলার শক্তিশালী অবস্থানে ছিল।  কোভিড-১৯ ভাইরাসের দ্রুত বিস্তারকারী ডেল্টা বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারে বাধাগ্রস্ত করতে পারে।  এর ফলে বিনিয়োগকারীদের মাঝে উদ্বিগ্নতা বৃদ্ধি পেয়েছিল।  যা ডলারকে নিরাপদ কারেন্সি হিসেবে প্রাইস বৃদ্ধিতে সহায়তা করেছিল। বৃহস্পতি ও শুক্রবার

মার্কিন ডাটার পূর্বে রিকভারের চেষ্টায় GBPUSD

গতকাল ব্যাংক অব ইংল্যান্ডের মনেটারী পলিসি ডিসিশনের মাধ্যমে GBPUSD পেয়ারের প্রাইস কমতে থাকে।  আজও পেয়ারের প্রাইস কমছে।  বর্তমানে পেয়ারটি ১.৩৯০০ প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। মার্কিন মুদ্রাস্ফীতি ডাটাকে কেন্দ্র করে মার্কিন ডলারের বিপরীতে ব্রিটিশ পাউন্ড শক্তিশালী হওয়ার চেষ্টা করছে।  শেষ পর্যন্ত কি হয় সেটা দেখার বিষয়। বিনিয়োগকারীরা মুদ্রাস্ফীতি সম্পর্কে ফেডের অবস্থানের মূল্যায়ন করেছেন কারণ কেন্দ্রীয় ব্যাংকের শীর্ষ অগ্রাধিকার হল অর্থনৈতিক বৃদ্ধি এবং শ্রমবাজারের উন্নতি।  মার্কিন ফে

মার্কিন ডাটার পূর্বে গোল্ডের প্রাইস বাড়ছে

গোল্ডের প্রাইস কমে দুমাসের নিন্ম ১৭৫০-তে আসলেও গত দুদিন বৃদ্ধির চেষ্টা করছে।  বর্তমানে গোল্ডের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে ১৭৭০ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে।  মার্কিন ডলারের প্রাইস বৃদ্ধির ফলে গোল্ডের বুলিশে কিছুটা অভাব রয়েছে। এছাড়াও ডেল্টা কোভিড স্ট্রেনের দ্রুত বিস্তারকে কেন্দ্র করে ক্রমবর্ধমান উদ্বেগ গোল্ডের প্রাইস কমার অন্যতম কারণ। তবে মার্কিন ননফার্ম পেরোলস রিপোর্ট প্রত্যাশার উপরে গোল্ডের ডাউনট্রেন্ড পুনরায় শক্তিশালী হতে পারে।  গোল্ডের পরবর্তী ডিরেকশন, মার্কিন ননফার্ম পেরোলস এবং মেনুফেকচারিং রিপোর্

মার্কিন ডলারের বিপরীতে নিউজিল্যান্ড ডলার শক্তিশালী হচ্ছে

NZDUSD পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে ০.৭০১৫ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে।  আজ রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউজিল্যান্ড ইন্টারেস্ট রেট ০.২৫% এ অপরিবর্তনীয় রেখেছে।  তবে ব্যাংক কর্মকর্তাদের হাকিশ আলোচনা পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধিতে সহায়তা করছে। MACD ইনডিকেটর অনুযায়ী পেয়ারের বুলিশ অবস্থান শক্তিশালী হচ্ছে।  ২০০ দিনের মুভিং অ্যাভাজের অনুযায়ী পেয়ারটি ০.৭০৭৫ প্রাইসে যেতে পারে। অপরদিকে পেয়ারের ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হওয়ার জন্য ০.৭০০০ সাপোর্ট অতিক্রম করা প্রয়োজন।  পরবর্তী সাপোর্ট হতে পারে ০.৬৯২০। XM ব্রো

মার্কিন ডলারের বিপরীতে অস্টেলিয়ান ও নিউজিল্যান্ড ডলার শক্তিশালী হচ্ছে

আজ মঙ্গলবার গ্রিনব্যাক অর্থাৎ মার্কিন ডলারের দুর্বলতাকে কেন্দ্র করে অ্যান্টিপোডিয়ান ( অস্টেলিয়ান ও নিউজিল্যান্ড) কারেন্সিগুলোর প্রাইস বৃদ্ধি পাচ্ছে। মিশ্র মার্কিন লেবার রিপোর্টের পরবর্তীতে আসন্ন ফেডারেল রিজার্ভ মিটিংয়ে উদ্দীপনা ট্রেপারিংয়ের বিষয়ে আলোচনা উঠতে পারে।  বিনিয়োগকারীরা এ ধরণের ক্লুর অপেক্ষা করছে। এদিকে ২য় প্রান্তিকে নিউজিল্যান্ড বিজনেস কনফিডেন্স বৃদ্ধি এবং নভেম্বরের শুরুর দিকে নিউজিল্যান্ড ইন্টারেস্ট রেট বৃদ্ধি করতে পারে, এমন সম্ভাবনাকে কেন্দ্র করে নিউজিল্যান্ড ডলারের

মার্কিন ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে ৩ মাসের সর্বোচ্চে যাচ্ছে

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের ফলে অস্টেলিয়ান ডলার এবং ব্রিটিশ পাউন্ডের প্রাইস কমছে।  তবে মার্কিন ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে ৩ মাসের সর্বোচ্চের দিকে যাচ্ছে। অস্ট্রেলিয়া করোনাভাইরাসের সংক্রামণ বৃদ্ধির ফলে বেশ কয়েকটি শহরে লকডাউন দিয়েছে।  সুইসকোটের সিনিয়র বিশ্লেষক ইপেক ওজকারডেস্কায়া বলেছেন, চলতি সপ্তাহের শুরুতে করোনাভাইরাসের নতুন সংক্রামণ এবং লকডাউনকে কেন্দ্র করে বেশ কিছু দেশের কারেন্সির প্রাইস কমতে পারে। বর্তমানে মার্কিন ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে ৯২.০০ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে। সংক্রা

মার্কিন জব রিপোর্টে বৃদ্ধি পাচ্ছে ডলারের প্রাইস

ডেল্টা করোনাভাইরাসের উদ্বেগ এবং মার্কিন জব ডাটার পূর্বে মার্কিন ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে মার্চ মাসের পরবর্তীতে সর্বোচ্চে অবস্থান করছে। চলতি মাসে মার্কিন ডলার ২.৫% বৃদ্ধি পেয়েছে।  ডলারের প্রাইস বৃদ্ধির পেছনে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভের ইন্টারেস্ট রেট সম্পর্কে ইতিবাচক আউটলুক কাজ করছে। বিনিয়োগকারীরা মনে করছেন মার্কিন জব ডাটা বৃদ্ধি পেলে নীতি নির্ধারকদের রেট বৃদ্ধির ক্লু হিসেবে কাজ করতে পারে।  যা ডলারের প্রাইসকে আরও বাড়িয়ে তুলতে পারে।  প্রত্যাশা করা হচ্ছে শুক

মার্কিন জব ডাটাকে কেন্দ্র করে ডলারের মুভমেন্ট তৈরি হতে পারে

আজ সোমবার বিনিয়োগকারীদের ফোকাস মার্কিন লেবার মার্কেটের দিকে।  ফেডারেল রিজার্ভ তার আর্থিক উদ্দীপনার বিষয়ে উদ্বেগ প্রশমিত করার কারণে ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি পাচ্ছে। বর্তমানে ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে ৯১.৮৪ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে।  প্রত্যাশা করা হচ্ছে, জুনে ননফার্ম পেরোলস ৫ লক্ষ ৫৯ হাজার থেকে বেড়ে ৬ লক্ষ ৭৫ হাজার আসতে পারে।  যা ডলারের উপর পজিটিভ প্রভাব ফেলতে পারে। এছাড়াও রিপোর্টে সর্বশেষ বেসরকারী বেতনভিত্তিক প্রতিবেদন শ্রমবাজার পুরোপুরি পুনরুদ্ধারে কতটা সময় নেবে তা সম্পর্কে কিছুটা

ব্রেক্সিট সমস্যায় বৃদ্ধি পেতে পারে EURGBP পেয়ারের প্রাইস

EURGBP পেয়ার গত দুসপ্তাহের মতো চলতি সপ্তাহের শুরুতেও প্রাইস বৃদ্ধির চেষ্টা করছে।  এর ফলে পেয়ারটি তৃতীয় দিনের মতো আপট্রেন্ডে রয়েছে।  আজ সোমবার পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে ০.৮৫৯৪ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে। যুক্তরাজ্যের ব্রেক্সিট সমস্যার ভয় ব্রিটিশ পাউন্ডের ঝুঁকি বাড়িয়ে দিচ্ছে।  ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন এবং যুক্তরাজ্য স্যাসেজ যুদ্ধকে কাটিয়ে উঠতে রাজি হওয়া সত্ত্বেও ব্রেক্সিট আলোচনা সামনে আসতে পারে। বিবিসির সর্বশেষ সংবাদ অনুযায়ী আইরিশ প্রধানমন্ত্রীর ইউনিয়ানবাদী পদক্ষেপগুলোর নিয়ন্ত্রণ প্রচেষ্ট

ব্রিটিশ ডাটায় প্রভাবিত হতে পারে ব্রিটিশ পাউন্ড

আজ শুক্রবার দুপুর ১২:০০ টার দিকে কয়েকটি ব্রিটিশ ইভেন্ট রয়েছে।  ইভেন্টগুলোর মধ্যে রয়েছে মে মাসের জিডিপি, মেনুফেকচারিং এবং ইন্ডাস্ট্রীয়াল প্রডাকশন। এপ্রিলে মাসিক জিডিপি ২.৩% বেড়েছিল।  বিনিয়োগকারীদের নিকট মে মাসের রিপোর্ট বেশ গুরুত্ব পাবে। কারণ কোভিড পুনরুত্থানের আশঙ্কায় ইকোনমিক রূপান্তর কিভাবে হয় তা দেখার বিষয়। প্রত্যাশা করা হচ্ছে, মে মাসে ব্রিটিশ জিডিপি ২.৩% থেকে কমে ১.৭% আসতে পারে।  ইন্ডাস্ট্রীয়াল এবং মেনুফেকচারিং প্রডাকশন এপ্রিলের তুলনায় ভাল আসতে পারে।  মে মাসে ইন্ডাস্ট্রীয়াল প

ব্যাংক অব ইংল্যান্ডের ডোভিশ সুরে EURGBP প্রাইস বাড়ছে

ব্যাংক অব ইংল্যান্ড (DOE) দেশটির অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার এবং মুদ্রাস্ফীতির মাত্রাকে বহুলাংশে ক্ষণস্থায়ী হিসাবে দেখে আশ্চর্যজনকভাবে ডভিশ সুরে আঘাতের পর EURGBP পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমানে পেয়ারটি ০.৮৫৭০ প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। ব্যাংক অব ইংল্যান্ডের মনেটারী পলিসি কমিটি (MPC) এর মতে, মুদ্রাস্ফীতি অস্থায়ী সময়ের জন্য সমস্যা হতে পারে।  বর্তমানে এটা বৃদ্ধি পেলেও পরবর্তীতে পিছিয়ে পড়বে। এদিকে ইংল্যান্ডে ক্রমবর্ধমান কোভিড-১৯ সংক্রামণ মিশ্র অবস্থানে রয়েছে।  যা গতকাল ৪০% বৃদ্ধি পে

ফেড প্রেসিডেন্টের আলোচনার পূর্বে মার্কিন ডলারের প্রাইস কমছে

নিউজিল্যান্ড কেন্দ্রীয় ব্যাংক বন্ড ক্রয়ের সমাপ্তি ঘোষণার পরে নিউজিল্যান্ড ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি পাচ্ছে। এছাড়াও কেন্দ্রীয় ব্যাংক বছরের শেষের দিকে ইন্টারেস্ট রেট বাড়াতে পারে এমন সম্ভাবনাও নিউজিল্যান্ড ডলারের প্রাইস বৃদ্ধিতে কাজ করছে। গতকাল মার্কিন মুদ্রাস্ফীতি রিপোর্টকে কেন্দ্র করে ইউরোর বিপরীতে ডলার তিন মাসের সর্বোচ্চে গিয়েছিল।  তবে বর্তমানে কিছুটা পিছিয়ে আছে। ফেডারেল রিজার্ভের চেয়ারম্যান জেরেমি পাওয়েলের দুদিনের আলোচনার প্রথম দিন আজ।  ধারণা করা হচ্ছে, তার আলোচনাকে কেন্দ্র করে ডলা

ফান্ডামেন্টাল  ও টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিসে কমতে পারে EURUSD পেয়ারের প্রাইস

বুধবার শুরুর দিকে EURUSD শান্তভাবে মুভমেন্ট করলেও গতকাল ডলারের প্রাইস বৃদ্ধির কারণে EURUSD পেয়ারের প্রাইস কমে ১.১৮০০ প্রাইসের কাছাকাছি এসেছিল।  মূলত ফেড মিটিং মিনিটসকে কেন্দ্র করে পেয়ারের ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হয়েছে। ফেডের মিটিং থেকে বুঝা যাচ্ছে, ফেড মুদ্রাস্ফীতি নিয়ে তেমন উদ্বিগ্ন নয় এবং প্রত্যাশা করছেন খুব তাড়াতাড়ি মার্কিন লেবার মার্কেটের উন্নতি হবে। কোভিড যেভাবে EURUSD-কে প্রভাবিত করছে ইউরোজোন এবং যুক্তরাজ্যে নতুন ভাইরাস স্ট্রেনের প্রাদুর্ভাব বৃদ্ধি পাচ্ছে।  যা উক্ত দেশ

বিডিপিপস কি এবং কেন?

বিডিপিপস বাংলাদেশের সর্বপ্রথম অনলাইন ফরেক্স কমিউনিটি এবং বাংলা ফরেক্স স্কুল। প্রথমেই বলে রাখা জরুরি, বিডিপিপস কাউকে ফরেক্স ট্রেডিংয়ে অনুপ্রাণিত করে না। যারা বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, শুধুমাত্র তাদের জন্যই বিডিপিপস একটি আলোচনা এবং অ্যানালাইসিস পোর্টাল। ফরেক্স ট্রেডিং একটি ব্যবসা এবং উচ্চ লিভারেজ নিয়ে ট্রেড করলে তাতে যথেষ্ট ঝুকি রয়েছে। যারা ফরেক্স ট্রেডিংয়ের যাবতীয় ঝুকি সম্পর্কে সচেতন এবং বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, বিডিপিপস শুধুমাত্র তাদের ফরেক্স শেখা এবং উন্নত ট্রেডিংয়ের জন্য সহযোগিতা প্রদান করার চেষ্টা করে।

বিডিপিপস চ্যাট রুম

বিডিপিপস চ্যাট রুম

    চ্যাট করতে লগিন বা রেজিস্ট্রেশন করুন।
    ×
    ×
    • Create New...