Jump to content

ফরেক্স নিউজ

  • entries
    111
  • comments
    3
  • views
    530

Contributors to this blog

  • মার্কেট আপডেট 111

About this blog

ফরেক্স ট্রেডিং সংক্রান্ত সব নিউজ, অ্যানালাইসিস এবং মার্কেট আপডেট পাবেন এখানেই।

Entries in this blog

USDJPY সাপ্তাহিক ফরেকাস্ট ( ১৯ – ২৩ জুলাই, ২০২১)

USDJPY পেয়ারের সাপ্তাহিক চার্টের তাকালে দেখা যাচ্ছে, গত সপ্তাহে পেয়ারটি ১১০.১০ প্রাইসে ওপেন হয়ে ১১০.০৬ প্রাইসে ক্লোজ হয়েছে।  সপ্তাহজুড়ে পেয়ারের মুভমেন্ট ব্যাপক থাকলেও শেষের দিকে সীমিত হয়ে পড়েছিল। পেয়ারটি তৃতীয় সপ্তাহের মতো ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে। ব্যাংক অব জাপান এবং ফেডারেল রিজার্ভ তাদের মিটিংয়ে কোন পরিবর্তন করেনি।  জাপানের কেন্দ্রীয় ব্যাংক ইন্টারেস্ট রেট ০.১০%-এ অপরিবর্তনীয় রেখেছিল।  দেশটির প্রস্তাবিত প্রবৃদ্ধি ২০২১ সালে ৪% থেকে কমিয়ে ১.৮% এনেছে।  এদিকে ফেডারেল রিজার্ভও একই ধাচে হাটছে

USDCAD সাপ্তাহিক ফরেকাস্ট ( ১৯ – ২৩ জুলাই, ২০২১)

চতুর্থ সপ্তাহের মতো USDCAD পেয়ার আপট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে।  গত সপ্তাহে পেয়ার ১.২৬০০ প্রাইস অতিক্রম করে চলতি সপ্তাহেও ১.২৬০০ প্রাইসের উপরে অবস্থান করছে।  ব্যাংক অব কানাডা এবং ফেডারেল রিজার্ভের মধ্যে পার্থক্য স্পষ্ট, যা পেয়ারকে বুলিশ অবস্থানের নির্দেশ করছে। এ সপ্তাহে কানাডা এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পেয়ারকে প্রভাবিত করার মতো তেমন কোন ইভেন্ট নেই।  প্রত্যাশা করা হচ্ছে, চলতি সপ্তাহেও পেয়ারটি আপট্রেন্ড অব্যাহত রাখতে পারে।  মার্কেট ঝুকি এবং তেলের প্রাইস পেয়ারের মুভমেন্টে কাজ করতে পারে।

NZDUSD সাপ্তাহিক ফরেকাস্ট ( ১৯ – ২৩ জুলাই, ২০২১)

গত সপ্তাহের শুরর দিকে নিউজিল্যান্ড ডলারের প্রাইস বাড়লেও শেষের দিকে মার্কিন ডলারের প্রাইস বেড়েছিল।  এর ফলে পেয়ারটি প্রায় ডজি ক্যান্ডেলের মতো ছিল। যদিও কিছুটা আপট্রেন্ডে রয়েছে।  সপ্তাহের শেষের দিন পেয়ারটি ০.৭০৪৫ থেকে কমে ০.৭০০০ এর কাছাকাছি ক্লোজ হয়েছিল। নিউজিল্যান্ডের দ্বিতীয় প্রান্তিকের মুদ্রাস্ফীতি রিপোর্ট গত সপ্তাহে ভাল আসার ফলে মার্কিন ডলার নিউজিল্যান্ড ডলারের উপর তেমনভাবে চেপে বসতে পারেনি।  দ্বিতীয় প্রান্তিকে ‍মুদ্রাস্ফীতি ৩.৩% বৃদ্ধি পেয়েছে। গত সপ্তাহের শুরুর দিকে রিজার্ভ ব

USDCHF সাপ্তাহিক ফরেকাস্ট (১৯ – ২৩ জুলাই, ২০২১)

সপ্তাহের শেষের দিন USDCHF পেয়ারের প্রাইস সবচেয়ে বেশি বৃদ্ধি পেয়েছিল।  এর ফলে পেয়ার গত সপ্তাহের সর্বোচ্চ প্রাইসে উঠেছিল।  পেয়ারটি ০.৯২০০ প্রাইস অতিক্রমে সক্ষম হয়েছিল এবং আজকের সেশনের শুরুর দিকে পেয়ারের প্রাইস কমলেও পরবর্তীতে বৃদ্ধি পেয়ে ০.৯২০০ প্রাইসের উপরে অবস্থান করছে। এর ফলে নিরাপদ কারেন্সি হিসেবে সুইস ফ্রাঙ্কের বিপরীতে মার্কিন ডলারের চাহিদা বৃদ্ধি পাচ্ছে। মার্কিন ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি পেলেও কারেন্সি কয়েক সপ্তাহ ন্যারো রেঞ্জে মুভমেন্ট করছে।  যা USDCHF পেয়ারকে আরও উপরে তুলতে সক্ষম হবে কিনা

GOLD  সাপ্তাহিক ফরেকাস্ট ( ১৯- ২৩ জুলাই, ২০২১)

মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভের চেয়ারম্যান জেরেমি পাওয়েলের ডোবিশ মন্তব্য এবং বৈশ্বিক ইকোনমিক রিকভারের ধীরগতি চতুর্থ সপ্তাহের মতো গোল্ডকে আপট্রেন্ডে রেখেছে। ডেল্টা ভাইরাসের দ্বারা অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারের ধীরগতির উদ্বেগের মধ্যেও সপ্তাহের শেষের দিকে ডলারের বিপরীতে গোল্ডের প্রাইস দুর্বল হয়েছিল।  নতুন করোনাভাইরাস স্ট্রেন সংক্রমণের ক্ষেত্র আরও প্রকট হয়ে উঠেছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে কোভিড-১৯ বক্ররেখা বেশ কয়েক মাস অবনতির পরে পুনরায় বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে। ডেল্টা সংক্রামক রূপট

GBPUSD সাপ্তাহিক ফরেকাস্ট ( ১৯ – ২৩ জুলাই, ২০২১)

ব্যাংক অব ইংল্যান্ডের হাকিশ মন্তব্য দ্বারা সমর্থন থাকা সত্ত্বেও গত সপ্তাহে GBPUSD পেয়ারের প্রাইস কমেছিল।  আগস্টের MPC মিটিং মার্কেটে মুভমেন্ট বাড়িয়ে তুলতে পারে কারণ বর্তমান অর্থনৈতিক অবস্থার সাথে আরও ভালভাবে সামঞ্জস্য করার জন্য ব্যাংক অব ইংল্যান্ড তার আর্থিক নীতি পরিবর্তন করতে পারে। যুক্তরাজ্যে, প্রতিদিনের করোনাভাইরাস সংক্রামণ, হাসপাতালে ভর্তিকরণ এবং মৃত্যুর ফলে স্বাস্থ্য খাতের উপর আগের চিন্তাভাবনার চেয়ে বেশি প্রভাব পড়তে পারে।  স্বাস্থ্য খাতের উপর চাপ বৃদ্ধি পেতে থাকলে প্রধানমন্ত্রী একটি ই

EURUSD সাপ্তাহিক ফরেকাস্ট (১৯-২৩ জুলাই, ২০২১)

গত সপ্তাহে EURUSD পেয়ারের প্রাইস কমেছিল।  ইউরোজোন থেকে প্রাপ্ত সামষ্টিক অর্থনৈতিক প্রতিবেদন EURUSD পেয়ারকে প্রভাবিত করেছিল। ইউরোপিয়ান পরিসংখ্যান সংস্থা ইউরোস্ট্যাট থেকে চূড়ান্ত তথ্য অনুযায়ী, জুনে ইউরোজোন CPI ০.৩% বৃদ্ধি পেয়েছে।  বাৎসরিক CPI ২% থেকে কমে ১.৯% এসেছে।  রিপোর্টগুলো প্রত্যাশার সাথে মিলেছে।  কোর CPI মাসিক ব্যবধানে ০.৩% এবং বাৎসরিক ব্যবধানে ০.৯% এসেছে। জেরেমি পাওয়েলের ডোভিশ মন্তব্য সত্ত্বেও গত সপ্তাহে মার্কিন ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়েছিল এবং ডলার শুক্রবার ইউরোর বিপরীতে

EURJPY প্রাইস অ্যানালাইসিস

তৃতীয় দিনের মতো EURJPY পেয়ার ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছিল।  তবে আজকের সেশনে  পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রত্যাশা করা হচ্ছে, পেয়ারটি ১২৯.৫০ প্রাইসের নিচে আসলে ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হতে পারে।   পেয়ারটি ১২৯.৫০ অতিক্রমে সক্ষম হলে ১২৮.৫৪ প্রাইসে যেতে পারে।  ২০০ দিনের মুভিং অ্যাভারেজ অনুযায়ী ১২৮.৩০ সাপোর্ট হিসেবে কাজ করতে পারে। EURJPY ডেইলি চার্ট XM ব্রোকারে জুলাই মাসে ডিপোজিটে ৫০% বোনাস

US রিটেইল সেলস ডলারকে প্রভাবিত করতে পারে

ডলারকে প্রভাবিত করার মতো আজকের ইভেন্টগুলোর মধ্যে অন্যতম মার্কিন রিটেইল সেলস ও মিশিগান কনজিউমার সেন্টিমেন্ট। জুন মাসের মার্কিন রিটেইল সেলস সন্ধ্যা ০৬:৩০ মিনিটের দিকে রিলিজ হবে।  মে মাসে সেলস -১.৩% কমলেও প্রত্যাশা করা হচ্ছে জুনে -০.৪% কমতে পারে। মার্কিন কনজিউমার সেন্টিমেন্ট রিপোর্ট রাত ০৮:৩০ মিনিটে রিলিজ হতে পারে। প্রত্যাশা করা হচ্ছে, জুলাই মাসে কনজিউমার সেন্টিমেন্ট ৮৫.৫ থেকে বৃদ্ধি পেয়ে ৮৬.৫ পয়েন্ট আসতে পারে।  যা ডলারের ক্ষেত্রে পজিটিভ হতে পারে। XM ব্রোকারে জুলাই মাসে ডিপো

করোনাভাইরাস মার্কিন ডলারের প্রাইস বৃদ্ধির পেছেনে কাজ করছে ?

আজ শুক্রবার ইউরোপিয়ান সেশনের শুরুর দিকে মার্কিন ডলার ফ্ল্যাট অবস্থানে দেখা যাচ্ছ। যদিও গতকাল ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়েছিল। বিশ্বব্যাপী করোনা সংক্রামণ ছড়িয়ে পড়ার কারণে নিরাপদ কারেন্সি হিসেবে ডলার অতিরিক্ত সুবিধা পাচ্ছে।  চলতি সপ্তাহে ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে ৯২.৬২ প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করছে।  মূলত দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া, ইউরোপে কোভিড-১৯ এর উত্থানে বিনিয়োগকারীদের উদ্বিগ্নতা বাড়িয়ে দিচ্ছে।   যা ডলারের প্রাইস বৃদ্ধিতে সহায়তা করছে।  অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ন, সিডনি লকডাউনের আওতায় এসেছে।

GBPUSD পেয়ারের ক্ষেত্রে ১.৩৮০০ রেজিস্ট্যান্স হিসেবে কাজ করছে

এখন পর্যন্ত GBPUSD পেয়ার সর্বোচ্চ ১.৩৮৪০ প্রাইসে  উঠলেও বর্তমানে ১.৩৮৩০ প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করছে। ব্রিটিশ পাউন্ড GBPUSD পেয়ারের প্রাইস গতকাল কমলেও পেয়ারটি ১.৩৮০০ প্রাইস অতিক্রমে সক্ষম হয়নি। আজকের সেশনেও পেয়ারের ক্ষেত্রে  ১.৩৮০০ শক্ত সাপোর্ট হিসেবে কাজ করছে। চার ঘন্টার চার্টে MACD ইনডিকেটর অনুযায়ী পেয়ারের প্রাইস কমার সম্ভাবনা রয়েছে।  অপরদিকে পেয়ারের বর্তমান রেজিস্ট্যান্স ১.৩৮৭৫ এবং ১.৩৯০০। পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ৩০ জুনের সর্বোচ্চ প্রাইস ১.৩৯২০ এবং ২০০ SMA অনুযায়ী ১.

১.১৮০০ প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে EURUSD

আজ শুক্রবার এশিয়ান সেশনের শুরুর দিকে EURUSD পেয়ার ১.১৮১০ প্রাইসের কাছাকাছি সাইডলাইনে রয়েছে।  মেজর পেয়ারটি গতকাল বিয়ারিশ ক্যান্ডেল তৈরি করার ফলে তিন মাসের নিন্ম প্রাইস থেকে রিকভারের সম্ভাবনা সন্দীহান হচ্ছে। MACD ইনডিকেটরে দেখা যাচ্ছে, পেয়ারটি ১.১৮০০ প্রাইসে উঠা-নামা করছে।  যাইহোক পেয়ারটি ১.১৭৬০ প্রাইস ব্রেকের অপেক্ষায় রয়েছে।  EURUSD উক্ত প্রাইস ব্রেক করতে সক্ষম হলে বছরের সর্বনিন্ম প্রাইস ১.১৭০০ যেতে পারে। এদিকে পেয়ারের আপসাইড মোমেন্ট পেয়ারকে ১.১৮৫০ প্রাইসে নিয়ে গেলে পরবর্তীতে ১.২০৫০ প্র

৫৫ DMA অনুযায়ী ১০৯.৮২ প্রাইসের নিচে যেতে পারে USDJPY- ক্রেডিট সুইস

ক্রেডিট সুইস অ্যানালাইসিস্ট টিমের মতে, ৫৫ দিনের মুভিং অ্যাভারেজ অনুযায়ী পেয়ারটি ১০৯.৮২ প্রাইসের নিচে ক্লোজ হতে পারে।  অপরদিকে পেয়ার ১১০.৭২ প্রাইসের ‍উপরে আসলে আপট্রেন্ড শক্তিশালী হতে পারে। USDJPY চলতি সপ্তাহের সর্বোচ্চ প্রাইস ১১০.৭২ যেতে ব্যর্থ হয়ে ১১০.০০ প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করছে।  ক্রেডিট সুইস অ্যানালাইসিস্ট টিমের মতে আজকের সেশনে পেয়ারটি ১০৯.৮২ প্রাইসের নিচে ক্লোজ হতে পারে। পেয়ারের পরবর্তী সাপোর্ট হতে পারে ১০৯.৫৩।  অপরদিকে পেয়ারের বর্তমান রেজিস্ট্যান্স ১১০.২০ এবং পেয়ারটি

চার সপ্তাহের সর্বোচ্চ প্রাইসের নিচে গোল্ড

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের চেয়ারম্যান জেরেমি পাওয়েল মুদ্রাস্ফীতি নিয়ে আলোচনা করলেও অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারের ক্ষেত্রে শক্তিশালী সমর্থন দিয়েছেন।  যা মার্কেটে মুভমেন্ট সৃষ্টি করছে। মার্কিন ডলারের প্রাইস কমার ফলে গোল্ডের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে চার সপ্তাহের সর্বোচ্চে গেলেও বর্তমানে কিছুটা নমনীয় মনে হচ্ছে। বর্তমানে গোল্ড ১৮৩৪ প্রাইস থেকে কমে ১৮২৫ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে। বুধবার হাউস অফ রিপ্রেজেন্টেটিভস ফিনান্সিয়াল সার্ভিসেস কমিটির সামনে দুই দিনের আলোচনার প্রথম দিন পাওয়েল বল

মিশ্র জব ডাটায় অস্টেলিয়ান ডলারের প্রাইস কমছে

আজ বৃহস্পতিবার সকালে প্রকাশিত অস্টেলিয়ান জব ডাটাকে কেন্দ্র করে AUDUSD পেয়ারের প্রাইস কমে দিনের সর্বনিন্ম ০.৭৪৫২ প্রাইসে এসেছিল। অস্টেলিয়ান জব জুন মাসে প্রত্যাশিত ৩০ হাজার থেকে কমে ২৯ হাজার ১ শত এসেছে।  তবে বেকারত্বের হার ৫.৫% থেকে কমে ৪.৯% এসেছে।  অস্টেলিয়ান মুদ্রাস্ফীতি জুলাই মাসে ৪.০% থেকে কমে ৩.৭% এসেছে।  মিশ্র জব ডাটা AUDUSD পেয়ারের উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে।  এছাড়াও কোভিড-১৯ এর ভয় ইকোনমিকে প্রভাবিত করছে।  ভ্যাকসিন বন্টন বিলম্বতা এবং কোভিড উদ্বেগ  AUDUSD  পেয়ারের মুভমেন্টের

EURCHF ১.০৮১৩ অতিক্রমে সক্ষম হলে ২১ সালের সর্বনিন্ম প্রাইসে যেতে পারে- কমার্জব্যাংক

কমার্জব্যাংক অ্যানালাইসিস্ট অ্যাক্সেল রুডলফ বলেন, EURCHF পেয়ার পাঁচ মাসের সর্বনিন্ম প্রাইস ১.০৮১৩ এর কাছাকাছি অবস্তান করছে। তার মতে, পেয়ার ১.০৮১৩ অতিক্রমে সক্ষম হলে ২০২১ সালের সর্বনিন্ম প্রাইস ১.০৭৩৭ যেতে পারে।  অপরদিকে পেয়ারের বর্তমান রেজিস্ট্যানস জুনু মাসের সর্বনিন্ম প্রাইস ১.০৮৭২ এবং পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১১ এবং ২৪ মে মাসের সর্বনিন্ম প্রাইস ১.০৯২৫।

দ্বিতীয় দিনের মতো ডলারের ডাউনট্রেন্ড বৃদ্ধি পাচ্ছে

আজ বৃহস্পতিবার এশিয়ান সেশনের শুরুর দিকে ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি পেলে বর্তমানে কমতে শুরু করেছে।  ফেডারেল রিজার্ভের চেয়ারম্যান জেরেমি পাওয়েলের ডোবিশ মন্তব্য পেয়ারের প্রাইস কমাতে সহায়তা করছে। গতকালের মিটিংয়ে পাওয়েল মুদ্রাস্ফীতি নিয়ে কথা বলেছিলেন।  বিনিয়োগকারীরা আজ দ্বিতীয় দফা আলোচনার অপেক্ষা করছেন।  যেহেতু গতকাল কিছুটা নেতিবাচক মন্তব্য এসেছে সেহেতু আজ কি হবে এ নিয়ে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে উদ্বিগ্নতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। জেরেমি পাওয়েলের আলোচনা শেষ হবার পরে বিনিয়োগকারীরা ১৯ জুলাইয়ের দিকে নজর রা

১.৩৮০০ প্রাইসের উপরে অবস্থান করছে GBPUSD

আজ বৃহস্পতিবার লন্ডন সেশন ওপেন হওয়ার  পূর্বে পেয়ার ১.৩৮৩৫ প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করছে।  মার্কিন ডলার গত কয়েক দিনের তুলনায় গতকাল সবথেকে বেশি কমেছিল। ফেডের চেয়ারম্যান জেরেমি পাওয়েল গতকাল বলেছেন, মুদ্রানীতি সামঞ্জস্য করার আগে নোটিশ দেয়া হবে।  যদিও প্রত্যাশা করা হয়েছিল, পাওয়েল মুদ্রাস্ফীতি সম্পর্কে তাৎক্ষণিক কোন পদক্ষেপের কথা বলবেন। যদিও করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবে ফেডের আর্থিক নীতি সমন্বয় নিয়ে ব্যাংক অব কানাডা এবং রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউজিল্যান্ড আগাচ্ছে।  তবে নিরাপদ কারেন্সি হিসেবে

EURUSD প্রাইস অ্যানালাইসিস

আজ বৃহস্পতিবার EURUSD পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে ১.১৮৩৫ এর কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে।  গতকাল EURUSD এপ্রিল মাসের সর্বনিন্ম প্রাইস থেকে রিকভার করছে। MACD লাইনগুলো ক্রোসওভারে রয়েছে।  যা সিগন্যাল দিচ্ছে পেয়ারটি পজিটিভ রানে থাকতে পারে।  EURUSD ১.১৮৬০ লাইন অতিক্রমে সক্ষম হলে আপট্রেন্ড শক্তিশালী হতে পারে।  ২০০ SMA অনুযায়ী পেয়ারের পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১.১৯৮৫। EURUSD ১.১৯৮৫ প্রাইসে যাওয়ার পূর্বে ১.১৯০০ অতিক্রম করে জুন মাসের সর্বোচ্চ প্রাইস ১.১৯৭৫ রেজিস্ট্যান্স হতে পারে। অপরদিকে প

০.৭৪৫০ প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করছে AUDUSD

গত কয়েকদিন AUDUSD পেয়ারের প্রাইস কমলেও আজকের সেশনে বৃদ্ধি পাওয়ার চেষ্টা করছে। বর্তমানে পেয়ারটি ০.৭৪৫০ প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করছে। অস্ট্রেলিয়ার অন্যতম বৃহত্তম শহর সিডনি করোনাভাইরাসের ক্রমবর্ধমান পরিস্থি নিয়ে উদ্বিগ্ন। শহরটিকে আরও দুই সপ্তাহের জন্য লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানোর বিষয়ে ডিসিশন নেয়া হয়েছে।  লকডাউনের মেয়াদ ১৬ জুলাই সেশ হওয়ার কথা থাকলে বৃদ্ধি করে ৩০ জুলাই পর্যন্ত করা হয়েছে। অন্যদিকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভের চেয়ারম্যান জেরেমি পাওয়েলের আলোচন

ফেড প্রেসিডেন্টের আলোচনার পূর্বে মার্কিন ডলারের প্রাইস কমছে

নিউজিল্যান্ড কেন্দ্রীয় ব্যাংক বন্ড ক্রয়ের সমাপ্তি ঘোষণার পরে নিউজিল্যান্ড ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি পাচ্ছে। এছাড়াও কেন্দ্রীয় ব্যাংক বছরের শেষের দিকে ইন্টারেস্ট রেট বাড়াতে পারে এমন সম্ভাবনাও নিউজিল্যান্ড ডলারের প্রাইস বৃদ্ধিতে কাজ করছে। গতকাল মার্কিন মুদ্রাস্ফীতি রিপোর্টকে কেন্দ্র করে ইউরোর বিপরীতে ডলার তিন মাসের সর্বোচ্চে গিয়েছিল।  তবে বর্তমানে কিছুটা পিছিয়ে আছে। ফেডারেল রিজার্ভের চেয়ারম্যান জেরেমি পাওয়েলের দুদিনের আলোচনার প্রথম দিন আজ।  ধারণা করা হচ্ছে, তার আলোচনাকে কেন্দ্র করে ডলা

মার্কিন ডলারের বিপরীতে নিউজিল্যান্ড ডলার শক্তিশালী হচ্ছে

NZDUSD পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে ০.৭০১৫ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে।  আজ রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউজিল্যান্ড ইন্টারেস্ট রেট ০.২৫% এ অপরিবর্তনীয় রেখেছে।  তবে ব্যাংক কর্মকর্তাদের হাকিশ আলোচনা পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধিতে সহায়তা করছে। MACD ইনডিকেটর অনুযায়ী পেয়ারের বুলিশ অবস্থান শক্তিশালী হচ্ছে।  ২০০ দিনের মুভিং অ্যাভাজের অনুযায়ী পেয়ারটি ০.৭০৭৫ প্রাইসে যেতে পারে। অপরদিকে পেয়ারের ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হওয়ার জন্য ০.৭০০০ সাপোর্ট অতিক্রম করা প্রয়োজন।  পরবর্তী সাপোর্ট হতে পারে ০.৬৯২০। XM ব্রো

BOC মিটিংয়ের পূর্বে ১.২৫০০ প্রাইসের কাছাকাছি USDCAD

সপ্তাহের প্রথমদিন USDCAD ডজি ক্যান্ডেল তৈরির পরবর্তীতে গতকাল প্রাইস বৃদ্ধি পেয়েছিল।  তবে ব্যাংক অব কানাডার ইন্টারেস্ট ডিসিশনের পূর্বে পেয়ারটি ১.২৫০০ প্রাইসের কাছাকাছি স্থবির রয়েছে। চার ঘন্টার চার্টে MACD ইনডিকেটর অনুযায়ী পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে।  কেন্দ্রীয় ব্যাংকের টেপারিং আলোচনাকে কেন্দ্র করে পেয়ারের মুভমেন্ট বৃদ্ধি পেতে পারে। পেয়ারের বর্তমান সাপোর্ট লেভেল ১.২৪৪৫ এবং ১০০ SMA অনুযায়ী পেয়ারের পরবর্তী সাপোর্ট হতে পারে ১.২৪৪৫।  পেয়ারের ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হলে সেক্ষেত্রে

দ্বিতীয় দিনের মতো GBPJPY পেয়ারের প্রাইস কমছে

দ্বিতীয় দিনের মতো GBPJPY পেয়ারের প্রাইস কমে ১৫২.৭০ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে।  পেয়ারটি বর্তমানে আজকের সর্বনিন্ম প্রাইস অতিক্রম করে গতকালের নিন্ম প্রাইসের দিকে যাচ্ছে। সম্প্রতি করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ হতাশা ব্রিটিশ পাউন্ডকে প্রভাবিত করার অন্যতম কারণ।  ব্রিটিশ CPI ডাটা এবং ব্রেক্সিট নাটকীয়তার পূর্বে পেয়ারটি নেতিবাচক অবস্থানে থাকার সম্ভাবনা রয়েছে।  এপ্রিলের পরবর্তীতে যুক্তরাজ্যে সবচেয়ে বেশি লোকের করোনায় মৃত্যু হয়েছে।  ব্রিটিশ বিশেষজ্ঞদের বরাত দিয়ে দ্যা সান রিপোর্টে প্রকাশ করা হয়েছে, বি

১.১৭৬০ প্রাইসে যাচ্ছে EURUSD

আজ বুধবার এশিয়ান সেশনের শুরুর দিকে EURUSD পেয়ারের প্রাইস কমে এপ্রিলের সর্বনিন্ম প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করছে। মার্কিন সিপিআই ডাটা প্রত্যাশার থেকে ভাল আসায় EURUSD পেয়ার জুন মাসের পরবর্তীতে সবথেকে বড় ড্রপ হয়েছে। বর্তমানে পেয়ারটি ১.১৭৭৫ প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করছে। RSI ইনডিকেটর অনুযায়ী পেয়ারটি ওভারসোল্ডের কাছাকাছি অবস্থান করছে। সেক্ষেত্রে ১.১৭৬০ প্রাইসে যাওয়া চ্যালেঞ্জ। অপরদিকে পেয়ারের বর্তমান রেজিস্ট্যান্স লেভেল ১.১৮০০ এবং পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১.১৮৬৫। পরবর্তী রেজিস্ট্যান্

বিডিপিপস কি এবং কেন?

বিডিপিপস বাংলাদেশের সর্বপ্রথম অনলাইন ফরেক্স কমিউনিটি এবং বাংলা ফরেক্স স্কুল। প্রথমেই বলে রাখা জরুরি, বিডিপিপস কাউকে ফরেক্স ট্রেডিংয়ে অনুপ্রাণিত করে না। যারা বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, শুধুমাত্র তাদের জন্যই বিডিপিপস একটি আলোচনা এবং অ্যানালাইসিস পোর্টাল। ফরেক্স ট্রেডিং একটি ব্যবসা এবং উচ্চ লিভারেজ নিয়ে ট্রেড করলে তাতে যথেষ্ট ঝুকি রয়েছে। যারা ফরেক্স ট্রেডিংয়ের যাবতীয় ঝুকি সম্পর্কে সচেতন এবং বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, বিডিপিপস শুধুমাত্র তাদের ফরেক্স শেখা এবং উন্নত ট্রেডিংয়ের জন্য সহযোগিতা প্রদান করার চেষ্টা করে।

বিডিপিপস চ্যাট রুম

বিডিপিপস চ্যাট রুম

    চ্যাট করতে লগিন বা রেজিস্ট্রেশন করুন।
    ×
    ×
    • Create New...