Jump to content

BDPIPS - Forex Bangladesh

বিয়ারিশ শক্তিশালী হয়ে ১.১৯৩০ প্রাইসে যাচ্ছে GBPUSD

ডেইলি চার্টে দেখা যাচ্ছে, GBPUSD টানা চতুর্থদিন ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত রেখে আজ মঙ্গলবার এশিয়ান সেশনে ১.২০০০ প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। ইতিমধ্যে আজকের সেশনে GBPUSD পেয়ার ২১-DMA অতিক্রমে সক্ষম হয়। এক্ষেত্রে ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হওয়ার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পাচ্ছে। RSI ইনডিকেটর অনুযায়ী কয়েনটি ৫০ পয়েন্ট অতিক্রমে সক্ষম হয়েছে। যা বিয়ারিশের সম্ভাবনা বাড়িয়ে দিচ্ছে। GBPUSD-এর বর্তমান সাপোর্ট হিসেবে দেখা হচ্ছে ১.১৯৩০। পেয়ারটি ১.১৯৩০ অতিক্রমে সক্ষম হলে এক্ষেত্রে বছরের নিন্ম প্রাইস ১.১৭৬০-তে যেতে প

স্কাইব্রিজের প্রতিষ্ঠাতা বিটকয়েন ৬ বছরে ৩ লক্ষ ডলারে পৌঁছাবে

গ্লোবাল অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট ফার্ম স্কাইব্রিজ ক্যাপিটালের প্রতিষ্ঠাতা এবং ম্যানেজিং পার্টনার অ্যান্টনি স্কারমুচি শুক্রবার CNBC-এর সাথে সাক্ষাৎকারে বিটকয়েন ও ইথেরিয়ামের ক্ষেত্রে দৃষ্টিভঙ্গি শেয়ার করেছেন। ক্রিপ্টো ডাউনট্রেন্ড শেষ হয়েছে কিনা এমন প্রশ্নের উত্তরে বলেন: গত সপ্তাহে প্রকাশিত মুদ্রাস্ফীতি ও বেকারত্বের রিপোর্টের ফলে ক্রিপ্টো মার্কেট কিছুটা রিকভার করলেও পুনরায় কমতে পারে। স্কাইব্রিজের প্রতিষ্ঠাতা বর্ণনা করেন, আপনি ক্রিপ্টোকারেন্সিতে শক্তিশালী পুনরুদ্ধার দেখতে পাবেন। স্কাইব্রিজের প্রতি

১.০২০০ প্রাইসের নিচে EURUSD-এর বিয়ারিশ কন্ট্রোলে থাকতে পারে

আজ মঙ্গলবার এশিয়ান সেশনে EURUSD ১.০১৬০-প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। পেয়ারের বর্তমান রেজিস্ট্যান্স হিসেবে দেখা হচ্ছে ১.০২০০। অপরদিকে ডেইলি চার্টে ২১-DMA রেজিস্ট্যান্স হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ১৪ দিনের RSI ইনডিকেটর অনুযায়ী EURUSD ৫০ পয়েন্টের নিচে অবস্থান করছে। এক্ষেত্রে প্রাইস কমার সম্ভাবনা রয়েছে। MACD ইনডিকেটর অনুযায়ী, EURUSD বিয়ারিশে থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। পেয়ারটি গত এক মাসের পুরনো সাপোর্ট ১.০১০০ এর নিচে পুনরায় নামতে সক্ষম হলে সেক্ষেত্রে ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হতে পারে। পেয়ারের

৩ মাসের সর্বোচ্চে SHIB

Shiba Inu (SHIB) -এর প্রাইস বেড়ে ৩ মাসের সর্বোচ্চ প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। রবিবার ক্রিপ্টো মার্কেটের অধিকাংশ ক্রিপ্টোর প্রাইস কমলেও মিম টোকেন শিবা ইনু ব্যতিক্রম ছিলো। সপ্তাহের শুরুতে শিবা ইনু কয়েনের প্রাইস উল্লেখযোগ্য বেড়ে তিন মাসের সর্বোচ্চে উঠলেও সোমবার কয়েনের প্রাইস পুনরায় কমতে থাকে। রবিবার শিবা ইনু কয়েনের প্রাইস বেড়ে ০.০০০০১৭৯০-তে উঠলেও আজ মঙ্গলবার ০.০০০০১৫৭০-এর কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। যদিও বেশ কয়েকদিন শিবা ইনুর জন্য ০.০০০০১২৯০ শক্ত রেজিস্ট্যান্স ছিলো। ১৪ দিনের

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ২০০৮ সালের পর সবথেকে বড় অর্থনৈতিক সংকটে পড়তে পারে

পিটার শিফ অর্থনীতিবিদ কিটকো নিউজে অ্যাঙ্কর ও প্রয়োজক ডেভিড লিনের সাথে আমেরিকান অর্থনীতি নিয়ে আলোচনা করেছেন। পিটার ডেভিড শিফ একজন আমেরিকান স্টক ব্রোকার, আর্থিক ভাষ্যকর ও রেডিও ব্যক্তিত্ব। এছাড়াও তিনি ইউরো প্যাসিফিক ক্যাপিটাল ইনকর্পোরেটেডের সিইও। লিনের সাথে আলোচনার সময় শিফ বলেন, যদিও মুদ্রাস্ফীতি আপতদৃষ্টিতে শীতল হচ্ছে। তিনি বিশ্বাস করছেন, মুদ্রাস্ফীতির নিন্মমূখী প্রবণতা স্থায়ী হবে না। শিফ টুইটারের একটি টুইটে বলেন, এখনই ডলার সেল করে গোল্ড বাই করার সঠিক সময়। মুদ্রাস্ফীতির পতন সাময়

EURUSD সাপ্তাহিক ফরেকাস্ট (১৫ – ১৯ আগস্ট, ২০২২)

ইউরোজোন ইকোনমিক ডাটা দুর্বল থাকায় এ সপ্তাহে EURUSD সামান্য বিয়ারিশে থাকার সম্ভাবনা থাকলেও ডলারের দুর্বলতায় প্রাইস বৃদ্ধির সম্ভাবনা থেকে যাচ্ছে।  গত সপ্তাহে EURUSD ঊর্ধ্বমূখী অবস্থান অব্যাহত রেখে ১.০৩৬৮ প্রাইসে উঠেছিলো। যা এক মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ বৃদ্ধি ছিলো। জুলাই মাসে মার্কিন কনজিউমার প্রাইস ইনডেক্স ৮.৫% বৃদ্ধি পেয়েছে। যা পূর্বাভাসের চেয়ে কম। একই ফলাফল প্রডিউসার প্রাইস ইনডেক্সের ক্ষেত্রে লক্ষ করা যাচ্ছে।  প্রডিউসার প্রাইস বেড়ে ৯.৮% এসেছে। মার্কিন মুদ্রাস্ফীতি হ্রাস পেতে শুরু করেছে। এ

এক বছরে ব্লকচেইন ইন্ডাস্ট্রীতে কর্মচারী নিয়োগ ৭৬% বৃদ্ধি পেয়েছে

প্রফেশনাল নেটওয়ার্কিং প্ল্যাটফর্ম Linkedin এবং ক্রিপ্টো ট্রেডিং অ্যাপ OKX দ্বারা পরিচালিত একটি সমীক্ষার ফলাফল অনুযায়ী, ২০২২ সালের জুন পর্যন্ত এক বছরে বিশ্বব্যাপী ব্লকচেইন ইন্ডাস্ট্রীতে কর্মরত লোকের সংখ্যা ৭৬% বৃদ্ধি পেয়েছে। সমীক্ষায় ভারত, চীন ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে বিশ্বব্যাপী ব্লকচেইন ট্যালেন্টে শীর্ষ ৩টি দেশ হিসেবে দেখানো হয়। বিশ্বব্যাপী ব্লকচেইন ট্যালেন্ট বৃদ্ধির হারের পরিপ্রেক্ষিতে ভারতকে ১২২% বৃদ্ধিসহ সর্বোচ্চ ‌র‌্যাংকিংযুক্ত দেশ হিসেবে নির্ধারণ করা হয়। কানাডা ১০৬% বৃদ্ধিসহ দ্বি

দ্বিতীয়দিন ২০০-DMA অতিক্রমের চেষ্টায় AUDUSD

তৃতীয়দিন AUDUSD ধারাবাহিক বৃদ্ধি পাচ্ছে। আজ শুক্রবার ইউরোপিয়ান সেশনের শুরুর দিকে পেয়ারটি ০.৭১২০ এর কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। চীনে নতুন কোভিড উদ্বেগ বৃদ্ধির অনুভূতি অস্টেলিয়ান ডলারকে প্রভাবিত করতে পারে। এক্ষেত্রে বর্তমানে AUDUSD-এর প্রাইস বৃদ্ধির সম্ভাবনা থাকলেও পরবর্তীতে কমার সম্ভাবনা থেকে যাচ্ছে কারণ চীন অস্টেলিয়ার সবথেকে বড় বানিজ্য পার্টনার। রয়টার্স রিপোর্ট অনুযায়ী আজ শুক্রবার সাংহাই করোনাভাইরাস কেস নতুন রেকর্ড করেছে যদিও গত সপ্তাহ থেকে বেশ কয়েকটি শহর লকডাউনের অধীনে রয়েছে। নতুন করে চী

গোল্ডের প্রাইস বৃদ্ধিতে বাধা হতে পারে ১৮০০

মার্কিন ডলারের প্রাইস ও ট্রেজারি ফলন নিয়ন্ত্রণে থাকায় গোল্ড সীমিত পরিসরে প্রাইস বৃদ্ধির চেষ্টা করছে। মনে হচ্ছে না মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংক খুব তাড়াতাড়ি ইন্টারেস্ট রেট বৃদ্ধির ধারাবাহিকতা বন্ধ করবে। যদিও এবারের রিপোর্টে মুদ্রাস্ফীতিকে কিছুটা নমনীয় দেখা যাচ্ছে। এর ফলে ফেডের নীরবতা গোল্ডের সাথে ক্রিপ্টোকারেন্সিগুলোর প্রাইস বৃদ্ধিতে সহায়তা করছে। তবে প্রাইস বৃদ্ধি স্বল্প মেয়াদে হতে পারে। গোল্ডের প্রাইস বৃদ্ধির ক্ষেত্রে ১৮০০ শক্ত রেজিস্ট্যান্স হিসেবে দেখা হচ্ছে। গতকাল গোল্ডের প্রাইস

ব্রিটিশ GDP প্রভাবিত করতে পারে GBPUSD

দ্বিতীয় দিনের মতো GBPUSD পেয়ারের প্রাইস কমছে। আজ শুক্রবার ইউরোপিয়ান সেশনের শুরুর দিকে পেয়ারটির প্রাইস আরও কমার সম্ভাবনা রয়েছে। GBPUSD বিনিয়োগকারীদের নজর দ্বিতীয় প্রান্তিকের জিডিপি ডাটার দিকে। প্রথম প্রান্তিকে ব্রিটিশ জিডিপি ০.৮% আসলেও প্রত্যাশা করা হচ্ছে দ্বিতীয় প্রান্তিকে কমে -০.২% আসতে পারে। মাসিক হিসেবে জুনে জিডিপি ০.৫% থেকে কমে -১.৩% আসার সম্ভাবনা রয়েছে। বাৎসরিক হিসেবে ৮.৭% থেকে কমে ২.৮% আসতে পারে। ব্রিটিশ জিডিপি রিপোর্টে দেখা যাচ্ছে, দেশটির জিডিপি নিন্মমূখী অবস্থানে থ

১৭৮৪ ব্রেকে সক্ষম হলে গোল্ডের প্রাইস পুনরায় কমতে পারে

গোল্ড দ্বিতীয় দিনের মতো কমে বর্তমানে ১৭৯০ প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। সাপ্তাহিক চার্টে ফিবোনাসি ২৩.৬% এবং ডেইলি চার্টে ৫০-SMA অনুযায়ী সাপোর্ট হিসেবে দেখা হচ্ছে ১৭৮৪। সাপ্তাহিক চার্টে ফিবোনাসি ৩৮.২% অনুযায়ী পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১৭৮০। ডেইলি চার্টে ১০- SMA অনুযায়ী সাপোর্ট দেখা যাচ্ছে ১৭৭৫। অপরদিকে ডেইলি চার্টে ফিবোনাসি ২৩.৬% অনুযায়ী রেজিস্ট্যান্স হিসেবে কাজ করতে পারে ১৭৯২। ফিবোনাসি ৩৮.২% অনুযায়ী গত সপ্তাহের সর্বোচ্চ প্রাইস ১৭৯৫ রেজিস্ট্যান্স হতে পারে। প্রত্যাশা

বিটকয়েন ২ মাসের পুরনো রেজিস্ট্যান্স লেভেলে মুভমেন্ট করছে

বিটকয়েনের প্রাইস বেড়ে ২৪,৭৫০-এর কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। ২ মাস আগে অর্থাৎ ১৩ জুন কয়েনটিকে বর্তমান অবস্থানে দেখা গিয়েছিলো। যদিও কয়েক সপ্তাহ কয়েনটি উক্ত রেজিস্ট্যান্স অতিক্রমের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছিলো। এ সপ্তাহে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মুদ্রাস্ফীতি রিপোর্ট কেন্দ্র করে বিটকয়েন এবং অল্টকয়েনগুলোর প্রাইস ধাপে ধাপে বৃদ্ধি পাচ্ছে। কারণ জুলাইয়ে মার্কিন মুদ্রাস্ফীত প্রত্যাশার থেকে কিছুটা কমেছে। এর ফলে ক্রিপ্টো মার্কেটে আপ দেখা যাচ্ছে। S&P 500 ইনডেক্স এবং Nasdaq অনুযায়ী গতকাল অর্থাৎ ১০

১৩২.০০ প্রাইসে যাচ্ছে USDJPY

মার্কিন ডলারের দুর্বলতা কেন্দ্র জাপানী ক্রমাগত শক্তিশালী হচ্ছে। দ্বিতীয় দিন USDJPY পেয়ার ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে।মূলত মার্কিন কনজিউমার প্রাইস ইনডেক্স ৯.১% থেকে কমে ৮.৫% আসায় ডলার দুর্বল হতে শুরু করেছে। মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভ ইন্টারেস্ট রেট বৃদ্ধি থেকে বিরত থাকবে এমন সম্ভাবনা ডলারকে আরও দুর্বল করেছে। এর ফলে ডলারের বিপরীতে কারেন্সিগুলোর প্রাইস বৃদ্ধি পাচ্ছে। বর্তমান দৃষ্টিভঙ্গিতে মুদ্রাস্ফীতি কিছুটা কমলেও ২% না আসা পর্যন্ত ব্যাংক ইন্টারেস্ট রেট বৃদ্ধি করতে পারে। এমন সম্ভা

ব্যাংক অফ ইংল্যান্ড বিশ্লেষকরা মেটাভার্সে ক্রিপ্টোর গুরুত্ব দেখতে পাচ্ছেন

ব্যাংক অফ ইংল্যান্ডের অর্থনীতিবিদ ওয়েন লক ও পলিসি বিশ্লেষক তেরেসা ক্যাসিনো মঙ্গলবার, ‘‘ক্রিপ্টোঅ্যাসেট দ্যা মেটাভার্স অ্যান্ড সিস্টেমেটিক রিস্ক’’ শিরোনামে ব্লগ পোস্ট প্রকাশ করেছেন।ব্লগ পোস্টে বলা হয়, মেটাভার্সের মধ্যে ক্রিপ্টোঅ্যাসেটগুলোর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা থাকতে পারে। তিনি আরও বলেন, যদি ওপেন ও ডিসেন্ট্রালাইজড মেটাভার্স বৃদ্ধি পায়, তাহলে ক্রিপ্টোঅ্যাসেট থেকে বিদ্যমান রিস্কগুলো পদ্ধতিগত আর্থিক স্থিতিশীলতায় পরিণত হতে পারে। পোস্টে আরও বলা হয়, ‘‘মেটাভার্স ক্রিপ্টোকে ব্যাপকভাবে গ্রহণ করতে পারে

USDCAD-রিকভারে বাধা হতে পারে ১.২৮০০

আজ বৃহস্পতিবার ইউরোপিয়ান সেশনের শুরুর দিকে USDCAD ১.২৭৮৫ প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। মার্কিন মুদ্রাস্ফীতির দুর্বলতার কারণে ডলারের প্রাইস কমে দু মাসের নিন্ম প্রাইসে আসলেও আজকের সেশনে রিকভারের চেষ্টা করছে। কানাডার প্রধান রপ্তানি আইটেম WTI অপরিশোধিত তেলের প্রাইস কমার কারণে কানাডিয়ান ডলার দুর্বল হতে শুরু করেছে। বর্তমানে ফেডের পরবর্তী অবস্থান, চীন-যুক্তরাষ্ট্রের শিরোনাম নিয়ে সন্দেহেরে মধ্যে রয়েছে। যা মার্কিন ডলারের সাম্প্রতিক রিবাউন্ডকে ন্যায্যতা দেয়। মার্কিন কনজিউমার প্রাইস ইনডে

EURUSD-এর রেজিস্ট্যান্স ১.০২৮০

ইউরোপিয়ান সেশনের পূর্বে EURUSD মাসের সর্বোচ্চ প্রাইস ১.০৩০০ থেকে কমে ১.০২৭৬০ এর কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। চার ঘন্টার টার্টে MACD ইনডিকেটর পেয়ারের বুলিশ সিগন্যাল দিচ্ছে। এদিকে ২০০-SMA অনুযায়ী ১.০২৮০ রেজিস্ট্যান্স হিসেবে কাজ করতে পারে। অপরদিকে পেয়ারের সেলিং প্রেসার শক্তিশালী হলে সেক্ষেত্রে ১.০২৩০ ও ১.০২০৫ সাপোর্ট হতে পারে। পেয়ারের পরবর্তী সাপোর্ট হতে পারে চার সপ্তাহের পুরনোর ১.০১৮০ সাপোর্ট। অপরদিকে গুরুত্বপূর্ণ রেজিস্ট্যান্স হিসেবে কাজ করার সম্ভাবনা রয়েছে ১.০৩৬৫। ফিবোনাসি রিট্রেসমেন

মে মাসের সর্বোচ্চ প্রাইসের কাছাকাছি AVAX

বুধবার সবথেকে বেশি প্রাইস বৃদ্ধি পাওয়া কয়েনগুলোর মধ্যে অন্যতম Avalanche (AVAX)। কয়েনটির প্রাইস বেড়ে মে মাসের সর্বোচ্চ প্রাইসের কাছাকাছি উঠেছিলো। মঙ্গলবার কয়েনটির প্রাইস সর্বনিন্ম ২৬.৭১-তে হিট করলেও পরবর্তীতে বুধবার রিকভার করে সর্বোচ্চ ৩০.০০ প্রাইসে উঠেছিলো। যদিও সোমবার AVAX-এর প্রাইস বেড়ে ৩০.৮৭ উঠেছিলো। যা মে মাসের ২৩ তারিখের পর সর্বোচ্চ। ক্রিপ্টো মার্কেট সর্বশেষ মার্কিন মুদ্রাস্ফীতি প্রতিবেদন দ্বারা প্রভাবিত হয়েছে। গতকাল প্রকাশিত মুদ্রাস্ফীতি রিপোর্টে দেখা যায়, জুলাই মাসে মুদ্র

 ১.২০৬০ ব্রেকে শক্তিশালী হতে পারে GBPUSD ডাউনট্রেন্ড

আজ বুধবার ইউরোপিয়ান সেশনের শেষের দিকে GBPUSD ১.২১০০-প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। ফিবোনাসি রিট্রেসমেন্ট ৬১.৮% অনুযায়ী, ১.২০৬০ সাপোর্ট অতিক্রমে ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হতে পারে। GBPUSD ১.২০৬০ অতিক্রমে সক্ষম হলে সেক্ষেত্রে ১.২০২৫ সাপোর্টে যেতে পারে। পরবর্তী সাপোর্ট হতে পারে ১.২০০০। অপরদিকে ফিবোনাসি রিট্রেসমেন্ট ৫০% এবং ১০০-HMA অনুযায়ী ১.২০৯০ প্রাইসে সাপোর্ট ও ১.২১৫ প্রাইসে রেজিস্ট্যান্স দেখা যাচ্ছে। ২০০- HMA অনুযায়ী রেজিস্ট্যান্স হিসেবে দেখা হচ্ছে ১.২১৫৫ এবং পরবর্তী রেজিস্ট্যান্

গোল্ডের সাপোর্ট হিসেবে কাজ করছে ১৭৮৫

সপ্তাহের প্রথম দুদিন গোল্ডের প্রাইস বৃদ্ধি পেলেও আজ কমতে শুরু করেছে। মার্কিন কনজিউমার প্রাইস রিপোর্টের পূর্বে গোল্ডের সাপোর্ট হিসেবে কাজ করছে ১৭৮৫। কয়েকদিনে গোল্ড মাসের সর্বোচ্চ প্রাইসে উঠলেও আজকের সেশনে ১৭৮৫ সাপোর্ট হিসেবে কাজ করছে। গোল্ড ১৭৮৫ সাপোর্ট অতিক্রমে সক্ষম হলে গত সপ্তাহের নিন্ম প্রাইস ১৭৫৪-তে যেতে পারে। পরবর্তী সাপোর্ট হিসেবে কাজ করতে পারে ১৮০৫। ডেইলি চার্টে ফিবোনাসি রিট্রেসমেন্ট ৩৮.২% ও ৫০% অনুযায়ী ১৮৭৫ এবং ১৮৩০ সাপোর্ট হিসেবে কাজ করতে পারে।  সর্বোপরি গোল্ড ১৭৮৫ সাপোর্ট অতি

CBDC কারেন্সি তৈরিতে নেপালের প্রস্তুতি

নেপাল রাষ্ট্র ব্যাংক (NRB) তার ক্ষমতা ও দায়িত্ব নির্ধারণ আইনের সংশোধনের সাথে প্রস্তুত আর্থিক কর্তৃপক্ষকে দেশের কিয়াট মুদ্রা, নেপালি রুপির ডিজিটাল সংস্করণ ইস্যু করার অনুমতি দেবে। যা কেন্দ্রীয় ব্যাংক ডিজিটাল মুদ্রার (সিবিডিসি) একটি সম্ভাব্য প্রজেক্ট। ব্যাংকের কারেন্সি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের প্রধান রেবতী নেপালের মতে, ইতিমধ্যে ব্যাংক সংশোধনী বিলের খসড়া তৈরি করেছে। চলতি সপ্তাহের রবিবার কাঠমান্ডু পোস্টের বরাত দিয়ে বলা হয়, অভ্যন্তরীণ আলোচনার পর আমরা বিলটি সংসদে পেশ করার জন্য সরকারের কাছে পাঠাব। নেপা

থাইল্যান্ড কেন্দ্রীয় ব্যাংককে ডিজিটাল সম্পদ নিয়ন্ত্রণ করার জন্য আরও ক্ষমতা দেয়া হয়েছে

থাইল্যান্ডে ক্রিপ্টো সেক্টর বিশেষ করে ট্রেডিং প্ল্যাটফর্মের তত্ত্বাবধান কঠোর করার জন্য ডিজিটাল সম্পদের উপর আইন সংশোধন করার পরিকল্পনা করছে। ব্লুমবার্গ রিপোর্ট অনুযায়ী থাইল্যান্ডের অর্থমন্ত্রী আরখম টারমপিত্তায়াপাইসিথ ব্যাখ্যা করেছেন, দেশের ক্রিপ্টো আইনের পরিকল্পিত সংশোধনগুলো কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নীতির অংশ হিসেবে থাকবে। তিনি আরও বলেন, দেশটির থাই সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনকে নেতৃত্ব দিতে বলা হয়েছে। ক্রিপ্টো প্রবিধান অনুযায়ী, সম্প্রতি কিছু কয়েন প্রত্যাহার করার অনুমতি দিয়েছে। কর্মকর্ত

০.৬৩০০ অতিক্রমের চেষ্টায় NZDUSD

গত সপ্তাহে NZDUSD পেয়ারের প্রাইস কমলেও চলতি সপ্তাহে পুনরায় বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে। আজ বুধবার ইউরোপিয়ান সেশনের শুরুতে পেয়ারটি ০.৬২৯০-এর কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। এক ঘন্টার চার্টে ৫০-HMA অনুযায়ী পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়াও এক ঘন্টার চার্টে RSI-ইনডিকেটর অনুযায়ী পেয়ারটি ৫০ পয়েন্টের উপরে মুভমেন্ট করছে। যা প্রাইস বৃদ্ধির সম্ভাবনাকে বাড়িয়ে দিচ্ছে। NZDUSD পেয়ারের বর্তমান রেজিস্ট্যান্স হিসেবে দেখা হচ্ছে ০.৬৩০০। পেয়ারের পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হিসেবে কাজ করতে পারে মাসের সর্বোচ্চ প

ট্রাঙ্গেল ব্রেকআউটের পথে EURUSD

EURUSD পেয়ারটি মঙ্গলবারের সর্বনিন্ম প্রাইস ১.০২০৩-এর কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। ১.০২০৩ প্রাইসের নিচে আসলে ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। EURUSD ১.০২২৪ প্রাইসের নিচে নামার পর দ্রুত হ্রাস পেতে শুরু করেছে। আজকের সেশনে পেয়ারটি ১.০২০৯-১.০২১৫ রেঞ্জে মুভমেন্ট করছে। এক ঘন্টার চার্টে, ডিসেন্ডিং ট্রায়াঙ্গেল চার্ট প্যাটার্ন থেকে EURUSD পেয়ারের খাড়া পতন দেখা যাচ্ছে। তবে ট্রায়াঙ্গেল অতিক্রমে সক্ষম হলে আপট্রেন্ড শক্তিশালী হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। EURUSD-এর শক্তিশালী রেজিস্ট্যান্স হিসেবে দেখা


বিডিপিপস কি এবং কেন?

বিডিপিপস বাংলাদেশের সর্বপ্রথম অনলাইন ফরেক্স কমিউনিটি এবং বাংলা ফরেক্স স্কুল। প্রথমেই বলে রাখা জরুরি, বিডিপিপস কাউকে ফরেক্স ট্রেডিংয়ে অনুপ্রাণিত করে না। যারা বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, শুধুমাত্র তাদের জন্যই বিডিপিপস একটি আলোচনা এবং অ্যানালাইসিস পোর্টাল। ফরেক্স ট্রেডিং একটি ব্যবসা এবং উচ্চ লিভারেজ নিয়ে ট্রেড করলে তাতে যথেষ্ট ঝুকি রয়েছে। যারা ফরেক্স ট্রেডিংয়ের যাবতীয় ঝুকি সম্পর্কে সচেতন এবং বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, বিডিপিপস শুধুমাত্র তাদের ফরেক্স শেখা এবং উন্নত ট্রেডিংয়ের জন্য সহযোগিতা প্রদান করার চেষ্টা করে।

×
×
  • Create New...