Jump to content

BDPIPS - Forex Bangladesh

মার্কিন সাপ্লায়ারে কমতে শুরু করেছে তেলের প্রাইস

মার্কিন তেল সাপ্লাই পূর্বের ধারায় আসার কারণে পুনরায় তেলের প্রাইস কমতে শুরু করেছে। দ্বিতীয় দিনের মতো তেল ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত রাখতে চলেছে। মেক্সিকো উপসাগরীয় অঞ্চল এবং যুক্তরাষ্ট্রে হারিকেনের প্রভাবে তেল উৎপাদনে ব্যহত হওয়ায় বেশ কিছুদিন তেলের প্রাইস বৃদ্ধি পেলেও গত দুদিন তেল উৎপাদন স্বাভাবিক হওয়ায় পুনরায় তেলের প্রাইস কমতে শুরু করেছে। ব্রেন্ট ক্রুড তেলের প্রাইস কমে ৭৭.২০ ডলার এবং ওয়েস্ট টেক্সাস ইন্টারমিডিয়েট কমে ৭৪.১৪ ডলারে অবস্থান করছে। ২৪ সেপ্টেম্বরের পরবর্তীতে গত এক সপ্তাহে

১.১৬৬৫ প্রাইসের নিচে ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হবে EURUSD পেয়ারের?

চতুর্থ দিনের মতো EURUSD ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত রাখতে চলেছে। ফেডের হাকিশ আলোচনা ডলারের বিপরীতে ইউরোকে শক্তিশালী করেছে। ফেডের সাম্প্রতিক হাকিশ মন্তব্য থেকে বোজা যাচ্ছে, ফেড প্রত্যাশার পূর্বে মনেটারী পলিসি স্বাভাবিকরণ করতে পারে। বর্তমানে পেয়ারটি ১.১৭০০ প্রাইসের নিচে অবস্থান করছে। ফেড চেয়ারম্যান জেরেমি পাওয়েল এবং ইউরোপিয়ান কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রেসিডেন্ট ক্রিস্টিয়ান লেগার্ডের আলোচনা পেয়ারকে প্রভাবিত করছে। ১৪ দিনের RSI ইনডিকেটর অনুযায়ী পেয়ারটি মধ্যমা লাইনের নিচে অবস্থান করছে।  যা পেয়ারের

RSI ইনডিকেটর অনুযায়ী ওভারসোল্ডে GBPUSD ১.৩৫০০ অতিক্রমে শক্তিশালী হতে পারে বিয়ারিশ অবস্থান

গত কয়েক সপ্তাহের মধ্যে গতকাল GBPUSD পেয়ারের প্রাইস সবথেকে বেশি কমেছিল। বর্তমানে  পেয়ারটি ১.৩৫৫০ প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করছে। RSI ইনডিকেটর অনুযায়ী পেয়ারটি ওভারসোল্ডে অবস্থান করছে। পেয়ারটি আমাদের তৈরি করা ট্রেন্ড লাইন অতিক্রমে সক্ষম হলে ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হতে পারে। পেয়ারের ক্ষেত্রে ১.৩৫০০ সাপোর্ট বিবেচনা করা হচ্ছে। যা অতিক্রমে ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হতে পারে। GBPUSD পেয়ারের পরবর্তী সাপোর্ট হতে পারে ২০২১ সালের জানুয়ারির সর্বনিন্ম  প্রাইস ১.৩৪৫০। ডাউনট্রেন্ড স্থায়ী হলে পেয়ারটি ২০২০

AUDUSD পেয়ারের ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হতে পারে ০.৭২৩০ প্রাইসের নিচে

AUDUSD পেয়ার ০.৭২৩০ প্রাইসে ওপেন হলেও এশিয়ান সেশনে বৃদ্ধি পেয়ে ০.৭২৫০ প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। পেয়ারটি ওপেন প্রাইস ০.৭২৩০ এর নিচে আসলে ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হতে পারে। পেয়ারের আপট্রেন্ড অব্যাহত থাকলে থাকলে ১৭ সেপ্টেম্বরের সর্বোচ্চ প্রাইস ০.৭৩২০ রেজিস্ট্যান্স হতে পারে। ২০ এবং ৫০ দিনের সিম্পল মুভিং অ্যাভারেজ (SMA) অনুযায়ী ০.৭৩৩০ রেজিস্ট্যান্স দেখা যাচ্ছে। পেয়ারটি ৫০ SMA যাওয়ার পূর্বে আজকের সর্বোচ্চ ০.৭২৫৫ অতিক্রমের পরবর্তীতে ০.৭২৭৫ হরিজোনটাল রেজিস্ট্যান্স হিসেবে কাজ করতে পারে। পে

USDCAD প্রাইস অ্যানালাইসিস

USDCAD গতকাল রিবাউন্ড করলেও আজ এশিয়ান সেশনে পেয়ারের প্রাইস কিছুটা কমছে। কানাডিয়ান পেয়ার ৫০ এবং ২০০ SMA এর মধ্যে মুভমেন্ট করছে। MACD ইনডিকেটর অনুযায়ী পেয়ার ওভারসোল্ড থেকে রিকভারের চেষ্টা করছে। যা পেয়ারের বুলিশ অবস্থান নির্দেশ করছে। ৫০ SMA অনুযায়ী ১.২৭১৫ রেজিস্ট্যান্স হতে পারে। পেয়ারের পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১.২৭৪৫। USDCAD আপট্রেন্ড অব্যাহত রাখতে সক্ষম হলে ১.২৯৫০ রেজিস্ট্যান্সে যেতে পারে। অপরদিকে পেয়ার ২০০ SMA এর নিচে আসলে ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হতে পারে।  সুতরাং পেয়ারের ক্ষেত্র

সপ্তাহের সর্বোচ্চ প্রাইসে USDCHF

তৃতীয় দিনের মতো USDCHF পেয়ার আপট্রেন্ড অব্যাহত রেখে আজকের সেশনে বৃদ্ধি পেয়ে সপ্তাহের সর্বোচ্চ ০.৯২৯৪ প্রাইসে উঠেছে। চলতি সপ্তাহে পেয়ারটি ০.৯২৩৫ প্রাইসে ওপেন হলেও তৃতীয় দিনের মতো বৃদ্ধি পাচ্ছে। মূলত মার্কিন ডলারের প্রাইস বৃদ্ধির কারণে পেয়ারের আপট্রেন্ড শক্তিশালী হচ্ছে।  পেয়ারের ক্ষেত্রে ০.৯৩০০ শক্ত রেজিস্ট্যান্স হিসেবে কাজ করছে। ফেডারেল রিজার্ভের চেয়ার‌ম্যান জেরেমি পাওয়েল এবং ইউরোপিয়ান কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রধান ক্রিশ্চিয়ান লেগার্ডের আলোচনা মার্কেটে ভোলাটিলিটি তৈরি করতে পারে। পেয়

EURJPY প্রাইস অ্যানালাইসিস

EURJPY বেশ কিছুদিন আপট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে। সপ্তাহের দ্বিতীয় দিন আজ মঙ্গলবার পেয়ারটি ১৩০.০০ প্রাইস অতিক্রমে সক্ষম হয়েছে। ১০০ দিনের SMA অনুযায়ী পেয়ার মাসের সর্বোচ্চ প্রাইস ১৩০.৮০-তে যেতে পারে। ২০০ দিনের SMA অনুযায়ী পেয়ার ১২৯.৬৫ প্রাইসের নিচে আসলে ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হতে পারে। EURJPY ডেইলি চার্ট সবচেয়ে কম স্প্রেডে EURJPY পেয়ার ট্রেড করতে XM Ultra Low অ্যাকাউন্ট খুলুন এখান থেকে। 

ডলারের বিপরীতে ইয়েনের প্রাইস কমে ৩ মাসের সর্বনিন্মে যাচ্ছে

মার্কিন ডলার পাঁচ সপ্তাহের মতো আপট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে। মার্কিন ডলার জাপানী ইয়েন ও ডলারের বিপরীতে শক্তিশালী অবস্থানে রয়েছে। ডলারের বিপরীতে জাপানী ইয়েনের প্রাইস কমে ৩ মাসের নিন্মে যাচ্ছে। মার্কিন ডলার বর্তমানে ৯৩.৬০ প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করছে। প্রত্যাশা করা হচ্ছে, পেয়ারটি খুব তাড়াতাড়ি ২০ আগস্টের সর্বোচ্চ প্রাইস ৯৩.৬১-তে যেতে পারে।   USDJPY পেয়ার বর্তমানে ১১১.৩৫ প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করছে। প্রত্যাশা করা হচ্ছে, পেয়ারটি খুব তাড়াতাড়ি তিন মাসের সর্বোচ্চ প্রাইস ১১১.৬৫ যাবে। যা ৩ মাসে

GBPUSD পেয়ারের ক্ষেত্রে ১.৩৫৬৭ সাপোর্ট ও ১.৩৯১২ রেজিস্ট্যান্স হতে পারে- কমার্জব্যাংক

কমার্জব্যাংক অ্যানালাইসিস্ট টিম কারেন জনসের মতে, চলতি সপ্তাহে GBPUSD পেয়ারের ক্ষেত্রে জুলাই মাসের নিন্ম প্রাইস ১.৩৫৬৭ সাপোর্ট ও  চলতি মাসের সর্বোচ্চ ১.৩৯১২ রেজিস্ট্যান্স হিসেবে কাজ করতে পারে। পেয়ারটি বর্তমানে ১.৩৬৭১ প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করছে।  ৮ সেপ্টেম্বরের নিন্ম প্রাইস ১.৩৭২৬ রেজিস্ট্যান্স হিসেবে কাজ করতে পারে। ১.৩৮৯৩ অতিক্রমের পরবর্তীতে মাসের সর্বোচ্চ প্রাইস ১.৩৯১২ রেজিস্ট্যান্স হিসেবে কাজ করতে পারে। তার মতে, এগুলো ছাড়া শক্ত রেজিস্ট্যান্স দেখা যাচ্ছে না। অপরদিকে জুলাই মা

সাপ্লাই উদ্বিগ্নতায় ষষ্ঠ দিনের মতো বৃদ্ধি পাচ্ছে ব্রেন্ট ক্রুড তেলের প্রাইস

তেলের সাপ্লাই সংকটে আজ মঙ্গলবার ষষ্ঠ দিনের মতো বৃদ্ধি পাচ্ছে।  ব্রেন্ট ক্রুড তেল ৫৫ সেন্ট বৃদ্ধি পেয়ে প্রতি ব্যারেল ৮০.০৮ ডলারে অবস্থান করছে। ২০১৮ সালের অক্টোবরে ক্রুড তেলের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে প্রতি ব্যারেল ৮০.৩৫ ডলারে উঠেছিল। মার্কিন ওয়েস্ট টেক্সাস ইন্টারমিডিয়েট (WTI) ৫৭  সেন্ট বৃদ্ধি পেয়ে  প্রতি ব্যারেল ৭৬.০২ ডলারে অবস্থান করছে। ৬ জুলাই মার্কিন ওয়েস্ট টেক্সাস ইন্টারমিডিয়েট ৭৬.০২ প্রাইসে হিট করেছিল। মূলত হারিকেনের প্রভাবে দেশগুলোতে তেল উৎপাদনে ধীরতা বিরাজ করছে। আগস্ট-সেপ্টেম্বর

ডজি ক্যান্ডেলের পরবর্তীতে কোন দিকে যাবে গোল্ডের প্রাইস

সপ্তাহের শেষের দিন শুক্রবার গোল্ডের প্রাইস বৃদ্ধি পেলেও গতকাল ডজি ক্যান্ডেল তৈরি করেছে। সাধারণত ডজি ক্যান্ডেল তৈরির পরবর্তীতে মার্কেট বিপরীত দিকে মুভমেন্ট করে। আজ মঙ্গলবার ইউরোপিয়ান সেশনের পূর্বে গোল্ড সর্বোচ্চ ১৭৫৪ প্রাইসে উঠলেও বর্তমানে ১৭৪৭ এর কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। পিপলস ব্যাংক অব চীনা (PBOC) এভারগ্রান্ড নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে। যা বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম ইকোনমিক দেশের ক্ষেত্রে দুশ্চিন্তার কারণ হতে পারে। এদিকে ইউরোজোন ও মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংক আশাবাদী তারা খুব তাড়াতাড়ি ম

০.৭৩০০ প্রাইস অতিক্রম করে ৫০ দিনের SMA এর দিকে যাচ্ছে AUDUSD

অস্টেলিয়ার রিটেইল সেলস হতাশাজনক আসার পরও দ্বিতীয় দিনের মতো আপট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে AUDUSD। আর্টিকেল লেখার সময় AUDUSD পেয়ার ০.৭৩০২ প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করছে। ৩ সেপ্টেম্বর AUDUSD পেয়ার সর্বোচ্চ ০.৭৪৭৭ প্রাইসে উঠেছিল, পরবর্তীতে ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হতে থাকে এবং বেশ কয়েক সপ্তাহের নিন্ম প্রাইস ০.৭২২০-তে নেমেছিল।  গত দুদিন পেয়ারের প্রাইস ধারাবাহিক বৃদ্ধি পাচ্ছে। ৫০ দিনের SMA অনুযায়ী পেয়ারের পরবর্তী আপসাইড টার্গেট হতে পারে ০.৭৩২৫। MACD ইনডিকেটর অনুযায়ী পেয়ার মধ্যমা লাইন ক্রোসওভারের কা

১.১৭০০ প্রাইসের নিচে মুভমেন্ট করছে EURUSD

সপ্তাহের শেষের দিনের সাথে মিল রেখে চলতি সপ্তাহের প্রথমদিনও EURUSD পেয়ার ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে। আজ সোমবার পেয়ারের প্রাইস কমে সর্বনিন্ম ১.১৬৮০-তে গিয়েছিল। ফেড চেয়ারম্যান জেরেমি পাওয়েলের আলোচনার পরবর্তীতে মার্কিন ডলারের রিকভার কেন্দ্র করে EURUSD পেয়ারের প্রাইস ক্রমাগত কমছে। যদিও বৃহস্পতিবার পেয়ারের প্রাইস বেড়েছিল। ফেড চেয়ারম্যানের আলোচনার সাথে পেয়ারের সেলিং প্রেসার শক্তিশালী হচ্ছে শুক্রবার প্রকাশিত সেপ্টেম্বর মাসে জার্মান বিজনেস ক্লাইমেট প্রত্যাশার থেকে কম আসায় ইউরোর প্রাইস

GOLD ও CRUDE OIL সাপ্তাহিক ট্রেড আইডিয়া ( ২৭ সেপ্টেম্বর - ১ অক্টোবর, ২০২১)

CRUDE OIL- ডেইলি চার্ট Price Action : সাম্প্রতি CRUDE OIL বুলিশ পিন বার ৭০.০০ প্রাইসের উপরে ট্রিগার তৈরি করেছে। তবে ৬৮.০০ অঞ্চলে Fakey Setup তৈরি করেছিল। Trade Idea: CRUDE OIL ৬৮.০০ থেকে ৭০.০০ শর্ট টার্ম সাপোর্ট এরিয়ার উপরে থাকলে বাই নেয়া যেতে পারে। ক্রুড ওয়েল $ ৬৮.০০ অঞ্চলের নিচে গেলে সেল নেয়া যেতে পারে  GOLD- ডেইলি চার্ট Price Action: গতকাল গোল্ড ইনসাইড বার প্যাটার্ন তৈরি করেছে ( পেয়ারটি ইনসাইড বার প্যাটার্ন ব্রেকে সক্ষম হলে ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হতে পারে )।  গোল্ডের

GOLD সাপ্তাহিক ফরেকাস্ট ( ২৭ সেপ্টেম্বর – ০১ অক্টোবর, ২০২১)

গোল্ডের পূর্বাভাস অনেকাংশে মার্কিন ডলারের উপর নির্ভরশীল। গত ৩ সপ্তাহ মার্কিন ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি  পাচ্ছে। একই সাথে ডলারের বিপরীতে গোল্ডের প্রাইস কমছে। সোমবার থেকে গোল্ডের রিবাউন্ড শুরু হলেও মঙ্গলবার পর্যন্ত আপট্রেন্ড স্থায়ী ছিল। এর ফলে পেয়ারটি সেপ্টেম্বরের ১৬ তারিখের নিন্ম থেকে নতুন হাই ১৭৮৭ প্রাইসে উঠেছিল। বুধবার ফেডারেল রিজার্ভের মিটিংয়ের পরবর্তীতে ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি পেতে থাকে। মিটিংয়ের পরেরদিন বৃহস্পতিবার গোল্ডের প্রাইস কমে বেশ কয়েক সপ্তাহের নিন্ম প্রাইস ১৭১৩-তে এসেছিল। ব

USDJPY সাপ্তাহিক ফরেকাস্ট ( ২৭ সেপ্টেম্বর – ০১ অক্টোবর, ২০২১)

৩ সপ্তাহের মতো USDJPY পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পেলেও গত সপ্তাহে USDJPY তুলানামূলক বেশি বৃদ্ধি পেয়েছিল। আজকের সেশনে USDJPY পেয়ারের প্রাইস বেড়ে ১১০.৬৬ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে। USDJPY পেয়ারের টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস অনুযায়ী পেয়ারের আপট্রেন্ড শক্তিশালী হচ্ছে।  জাপান মেনুফেকচারিং পিএমআই ৫২.৭ থেকে কমে ৫১.২ পয়েন্ট এসেছে। যা প্রত্যাশিত ৫২.৫ পয়েন্টের নিচে এসেছে। গত সপ্তাহে ইয়েনের দুর্বলতার পেছনে এটা অন্যতম কারণ ছিল। দেশটিতে কোর সিপিআই প্রত্যাশা অনুযায়ী অপরিবর্তনীয় ছিল। যুক্তরাষ্ট্রে নিউ হো

GBPUSD সাপ্তাহিক ফরেকাস্ট ( ২৭ সেপ্টেম্বর - ০১ অক্টোবর, ২০২১)

বৃহস্পতিবার GBPUSD পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে ১.৩৬০০ এর উপরে উঠলেও তৃতীয় সপ্তাহের মতো বিয়ারিশে রয়েছে। চলতি সপ্তাহে পেয়ারের মুভমেন্ট কোন দিকে যাবে, সেটা  দেখার বিষয়। বৃহস্পতিবারের মিটিংয়ে ব্যাংক অব ইংল্যান্ড ইন্টারেস্ট রেট অপরিবর্তনীয় রেখেছে। ব্যাংক অব ইংল্যান্ডের ইভেন্ট কেন্দ্র করে GBPUSD পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে ১.৩৭৫০-তে উঠেছিল। ব্রিটিশ কেন্দ্রীয় ব্যাংক ও ফেডারেল রিজার্ভের রেট পলিসি একই মনে হচ্ছে। ফেডারেল রিজার্ভ হাকিশ মুডে আসার পূর্বে কিছু পদক্ষেপ নেয়ার কথা বলেছেন। ব্রিটিশ

এভারগ্র্যান্ড প্রশ্নের দীর্ঘায়িত ডলারকে সপ্তাহের নিন্ম প্রাইস থেকে রিকভারে সহায়তা করছে

বৃহস্পতিবার মার্কিন ডলারের প্রাইস এতো বেশি কমেছে, যা গত একমাসের মধ্যে একদিনে সর্বোচ্চ। আজ শুক্রবার ডলারের প্রাইস পুনরায় বৃদ্ধির চেষ্টা করছে। চায়না এভারগ্রান্ড গ্রুপের ভাগ্য নিয়ে প্রশ্নগুলো ডলারের প্রাইস বৃদ্ধিতে সহয়তা করছে। দেউলিয়া হওয়ার পথে চীনের দ্বিতীয় বৃহত্তম ভবন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান এভারগ্রান্ডের। এর নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে পুজিবাজারে। বেইজিং বৃহস্পতিবার আর্থিক ব্যবস্থায় নতুন ধারা প্রয়োগ করার কথা বলায় নিরাপদ কারেন্সি হিসেবে ডলারের প্রাইস কমেছিল। এভারগ্র্যান্ডের দেউলিয়ার বিষয় ম

০.৭০৬২ প্রাইসের নিচে গেলে কমতে পারে AUDUSD পেয়ারের প্রাইস

AUDUSD পেয়ারের প্রাইস গত ‍দুদিন বৃদ্ধি পেলেও ‍আজকের সেশনে কমতে শুরু করেছে। কমার্জব্যাংক অ্যানালাইসিস্ট কারেন জনের মতে, AUDUSD পেয়ারের প্রাইস কমে ০.৬৯৯১ এর নিচে আসলে ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হতে পারে। যা ২০২০ সালের সেপ্টেম্বর এবং নভেম্বরের নিন্ম প্রাইস ছিল। পেয়ারটি ০.৬৯৯১ প্রাইসে যাওয়ার পূর্বে আগস্ট মাসের নিন্ম প্রাইস ০.৭১০৬ সাপোর্ট হিসেবে কাজ করতে পারে। ফিবোনাসি রিট্রেসমেন্ট ৫০% অনুযায়ী পেয়ারের পরবর্তী সাপোর্ট হতে পারে ০.৬৭৬০। অপরদিকে পেয়ারটি ০.৭৪১৪ প্রাইসের উপরে উঠলে আপট্রেন্ডের ধ

দিনের সর্বোচ্চ থেকে প্রাইস কমতে শুরু করেছে GBPUSD পেয়ারের

আজ শুক্রবার সেশনের শুরুর দিকে GBPUSD পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পেলেও বর্তমানে কিছুটা কমতে শুরু করেছে। গতকাল ব্যাংক অব ইংল্যান্ডের হাকিশ ‍আলোচনায় GBPUSD পেয়ার মাসেসর সর্বনিন্ম প্রাইস ১.৩৬০০ থেকে ১৩০ পিপসের মতো বৃদ্ধি পেয়েছে। আজ শুক্রবার পেয়ারটি সর্বোচ্চ ১.৩৭৩৬ প্রাইসে উঠলেও কিছুটা কমে ১.৩৭১৬ এর কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। মার্কিন ডলারের প্রাইস গতকাল কয়েক সপ্তাহের মধ্যে সর্বোচ্চ কমেছিল। বিনিয়োগকারীরা এফওএমসি নীতি আপডেটের পরবর্তীতে চীনের প্রপার্টি জায়ান্ট এভারগ্রান্ডের ঋণ পেমেন্টের পরিকল্পনায় ন

১৩০ প্রাইসে যাওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হচ্ছে EURJPY

বৃহস্পতিবার EURJPY পেয়ারের প্রাইস ১২০ পিপসের মতো বৃদ্ধি পেয়েছিল। এর ফলে পেয়ার সাপ্তাহিক নতুন হাই ১২৯.৫৫ তৈরি করেছে। মার্কেটের মনোভাবে ধারণা করা হচ্ছে পেয়ারের প্রাইস আরও বৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে। ইউরোপিয়ান এবং ব্রিটিশ ইকোনমিক ফিচারগুলো গত দুদিন ভাল অবস্থানে রয়েছে। যা ইউরো-পাউন্ডকে ফরেক্স মার্কেটে শক্তিশালী অবস্থান ধরে রাখতে সহায়তা করছে। তবে মার্কিন ডলারের ক্ষেত্রে দুর্বলতা দেখা যাচ্ছে। EURJPY পেয়ার ৫০ এবং ২০০ দিনের মুভিং অ্যাভারেজ অনুযায়ী ১২৯.৫১ প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। পে

৫০ DMA অনুযায়ী ০.৮৫৫০ প্রাইসের কাছাকাছি EURGBP

কয়েকদিন EURGBP পেয়ারের প্রাইস কমছে। আজ শুক্রবার পেয়ারটি ৫০ DMA এর নিচে ০.৮৫৪৪ প্রাইসে ওপেন হলেও বর্তমানে ০.৮৫৫০ প্রাইসকে কেন্দ্র করে মুভমেন্ট করে। ফিবোনাসি রিট্রেসমেন্ট ৫০% অনুযায়ী পেয়ারটি ০.৮৫৬০ প্রাইসের উপরে গেলে বুলিশ শক্তিশালী হতে পারে। ফিবোনাসি রিট্রেসমেন্ট ৬১.৮% অনুযায়ী ০.৮৫৮৬ অতিক্রমের পরবর্তীতে ০.৮৬১৫ প্রাইসে যেতে পারে। পেয়ারের পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে জুলাই মাসের সর্বোচ্চ প্রাইস ০.৮৬৭০। পেয়ারটি পুনরায় ৫০ DMA অতিক্রম করে আজকের ওপেন প্রাইস ০.৮৫৪৪ এর নিচে আসলে পুনরায় ডাউনট

১১০.৮০ প্রাইসে যেতে পারে USDJPY- ক্রেডিট সুইস

দ্বিতীয় দিনের মতো USDJPY পেয়ার আপট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে। ক্রেডিট সুইস অ্যানালাইসিস্ট টিমের মতে, USDJPY পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে ১১০.৮০-তে যেতে পারে। বর্তমানে পেয়ারটি ১১০.০৪ এর কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। পেয়ারটি ১১০.৪৫ রেজিস্ট্যান্স অতিক্রমের পরবর্তীতে ১১০.৮০ প্রাইসে যেতে পারে। USDJPY পেয়ার ১১০.৮১ অতিক্রমে বুলিশ দীর্ঘস্থায়ী হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। পেয়ারের বুলিশ স্থায়ী হলে পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হিসেবে কাজ করতে পারে ১১১.৬৬ ও ১১২.৪০। অপরদিকে পেয়ারের বর্তমান সাপোর্ট হিসেবে ১০৯.৫৩ দ


বিডিপিপস কি এবং কেন?

বিডিপিপস বাংলাদেশের সর্বপ্রথম অনলাইন ফরেক্স কমিউনিটি এবং বাংলা ফরেক্স স্কুল। প্রথমেই বলে রাখা জরুরি, বিডিপিপস কাউকে ফরেক্স ট্রেডিংয়ে অনুপ্রাণিত করে না। যারা বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, শুধুমাত্র তাদের জন্যই বিডিপিপস একটি আলোচনা এবং অ্যানালাইসিস পোর্টাল। ফরেক্স ট্রেডিং একটি ব্যবসা এবং উচ্চ লিভারেজ নিয়ে ট্রেড করলে তাতে যথেষ্ট ঝুকি রয়েছে। যারা ফরেক্স ট্রেডিংয়ের যাবতীয় ঝুকি সম্পর্কে সচেতন এবং বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, বিডিপিপস শুধুমাত্র তাদের ফরেক্স শেখা এবং উন্নত ট্রেডিংয়ের জন্য সহযোগিতা প্রদান করার চেষ্টা করে।

বিডিপিপস চ্যাট রুম

বিডিপিপস চ্যাট রুম

    চ্যাট করতে লগিন বা রেজিস্ট্রেশন করুন।
    ×
    ×
    • Create New...