Jump to content

BDPIPS - Forex Bangladesh

গোল্ডের পরবর্তী টার্গেট ১৭২০

সপ্তাহের শুরুতে গোল্ডের সেলিং প্রেশার তীব্র হয়েছে। গত সপ্তাহের ৫দিন সহ মোট ৬দিন পেয়ার ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে। রাশিয়ার নর্ড স্ট্রিম ১ পাইপলাইন এই মাসের শেষের দিকে রক্ষণাবেক্ষণের কারণে বন্ধ হওয়ার ঘোষণা করার পরে ইউরোর প্রাইস কমছে। এদিকে মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের হাকিশ অবস্থান গোল্ডের প্রাইস বাড়িয়ে দিচ্ছে। মার্কেটের অস্থিরতাকে কেন্দ্র করে নিরাপদ কারেন্সি হিসেবে ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি পাচ্ছে। এর ফলে গোল্ড গত সপ্তাহসহ মোট ৬ষষ্ঠ দিনের মতো ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে। বর্তমানে গোল্ড ১

মাসের নিন্ম প্রাইসে GBPUSD

GBPUSD টানা চতুর্থদিন ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত রেখে আজ সোমবার ইউরোপিয়ান সেশনে মাসের সর্বনিন্ম প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। গত মাসে পেয়ারের প্রাইস কমে সর্বনিন্ম ১.১৭৫৮-তে গিয়েছিলো।   মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংক আক্রমনাত্মক নীতি কঠোর করার পথে অটল থাকবে এমন দৃঢ় প্রত্যাশার মধ্যে ডলার জুলাইয়ের মাঝামাঝি থেকে সর্বোচ্চ স্তরে উঠে গেছে। GBPUSD পেয়ারের প্রাইস কমে মাসের সর্বনিন্ম ১.১৭৮০-তে যেতে পারে। মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভের কর্মকর্তাদের রেট সম্পর্কিত আক্রমনাত্মক অবস্থান ডলারক

১২৬% ক্র্যাশের ফলে AVAX ব্রেকডাউনে সক্ষম হয়েছে

১৯ জুন থেকে ৮ আগস্টের মধ্যে AVAX-এর প্রাইস ১২৬% বৃদ্ধি পেয়েছে।  ৮ আগস্ট কয়েনের প্রাইস বেড়ে সর্বোচ্চ ৩০.৯৮ সেন্টে উঠেছিলো।   কয়েনটি বেশ কয়েকদিন নির্দিষ্ট রেঞ্জের মধ্যে থাকলেও পরবর্তীতে প্রাইস কমতে থাকে এবং ২২.৪৩ ডলারের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। কয়েনের পরবর্তী টার্গেট ধরা হচ্ছে ১৭.৫৮ ডলার। অপরদিকে রেজিস্ট্যান্স হিসেবে দেখা হচ্ছে ২৫.৩২। AVAX ২৫.৪৭ রেজিস্ট্যান্স অতিক্রমে সক্ষম হলে সেক্ষেত্রে চ্যানেলটি ব্রেকআউটে  সক্ষম হবে যা বুলিশ অবস্থানকে শক্তিশালী করতে পারে।  

ফেডের হকিশ মন্তব্যে ডলারের প্রাইস বেড়ে ৫ সপ্তাহের সর্বোচ্চে

মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভের কর্মকর্তাদের থেকে ক্রমাগত ইন্টারেস্ট রেট বৃদ্ধির মন্তব্য ডলারের প্রাইস বৃদ্ধিতে সহায়তা করছে। এর ফলে ডলারের প্রাইস ৫ সপ্তাহের সর্বোচ্চে মুভমেন্ট করছে। এ মাসের শেষের দিকে রাশিয়া নর্ড স্ট্রিম ১ পাইপলাইনের মাধ্যমে ইউরোপে গ্যাস সরবরাহ তিন দিনের জন্য স্থগিত ঘোষণা করার পর ইউরোর প্রাইস নতুন করে ৫ সপ্তাহের নিচে নেমে এসেছে। যা এই অঞ্চলের জ্বালানি সংকটকে আরও বাড়িয়ে দিচ্ছে। চীনা কেন্দ্রীয় ব্যাংক হার কমানোর পর ইউয়ানের প্রাইস কমে দু বছরের সর্বনিন্মে নেমে এসেছে।

AUDUSD সাপ্তাহিক ফরেকাস্ট (২২-২৬ আগস্ট, ২০২২)

অস্ট্রেলিয়ার নেতিবাচক জব রিপোর্ট ও ডলারের ঊর্ধ্বমূখী অবস্থান অব্যাহত থাকায় AUDUSD বিয়ারিশ অবস্থানে থাকতে পারে।রিজার্ভ ব্যাংক অফ অস্ট্রেলিয়ার (RBA) আগস্টের নীতিগত বৈঠকের কার্যবিবরণী অনুসারে, অস্ট্রেলিয়ার কেন্দ্রীয় ব্যাংক বিশ্বাস করে উচ্চ মুদ্রাস্ফীতি রোধ করার জন্য ইন্টারেস্ট রেট বৃদ্ধি প্রয়োজন। দেশটির বেকারত্বের হার জুলাই মাসে ৪৮ বছরের সর্বনিন্মে নেমে আসে। মার্কিন ডলারের ঊর্ধ্বমূখী অবস্থানের বিপরীতে অস্টেলিয়ার নেতিবাচক জব রিপোর্ট পেয়ারকে ডাউনট্রেন্ডে রেখেছিলো। বৃহস্পতিবার অস্ট্রেলিয়ান ব্যুর

USDCAD সাপ্তাহিক ফরেকাস্ট (২২-২৬ আগস্ট, ২০২২)

সাপ্তাহিক চার্টে USDCAD বুলিশ অবস্থানে রয়েছে এ সপ্তাহে মার্কিন ডলার শক্তিশালী হওয়ার সাথে সাথে পেয়ারটি ঊর্ধ্বমূখী অবস্থান অব্যাহত রাখতে পারে। মঙ্গলবার কানাডা ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে প্রকাশিত অফিসিয়াল ডাটা থেকে জানা যায় পেট্রোলের প্রাইস কমে যাওয়ার কারণে জুলাই মাসে কানাডার মুদ্রাস্ফীতি সামান্য হ্রাস পেয়েছে, যার ফলে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গর্ভনর মন্তব্য করেন বাৎসরিক মুদ্রাস্ফ্রীতি হার সর্বোচ্চে অবস্থান করছে হয়তো কিছু সময়ে জন্য এমন থাকবে। ব্যাংক অফ কানাডার গর্ভনর টিফ ম্যাকরেম বলেন, মুদ্রাস্ফীতি

Bitcoin ১ম লক্ষ্যে পৌঁছেছে, পরবর্তীতে কী আশা করা যায়

Bitcoin-এর প্রাইস স্বল্পমেয়াদে বৃদ্ধি পেলেও পুনরায় কমতে শুরু করেছে। যা ছোটখাটো ডাউনট্রেন্ডের ইঙ্গিত দিচ্ছে। তবে বিনিয়োগকারীদের সতর্ক থাকতে হবে যেহেতু বিটকয়েন ২০০-SMA অতিক্রমে সক্ষম হয়েছে। বিটকয়েনের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে ২৫ হাজার ডলার স্পর্শ করলেও পরবর্তীতে কমতে থাকে। ১০ জুন থেকে ১৯ আগস্ট পর্যন্ত ভলিউম প্রোফাইলে দেখা যাচ্ছে বিটকয়েন সর্বোচ্চ লেনদেন হয়েছে। উক্ত সময়ের মধ্যে ২৩,২২৬ ডলার সাপোর্ট রেজিস্ট্যান্স হিসেবে কাজ করেছে। মূলত ২০০ সপ্তাহের SMA ব্রেকের পরবর্তীতে বিটকয়েন মার্কেট ক্যাপ

গোল্ড ১৭৩৫ প্রাইসে যাচ্ছে

মার্কিন ডলারের প্রাইস বৃদ্ধির কারণে গোল্ড নিন্মমুখী ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। বিশ্বব্যাপী মন্দা আশঙ্কা ও ফেডারেল রিজার্ভের ইন্টারেস্ট রেট বৃদ্ধির ইঙ্গিত ডলারের প্রাইস বৃদ্ধিতে সহায়তা করছে। এর ফলে গোল্ডের প্রাইস কমছে। টেকনিক্যাল কনফ্লুয়েন্স ডিটেক্টর অনুযায়ী, গোল্ড ১৭৫০ প্রাইসের নিচে আসলে ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সাপ্তাহিক চার্টে ফিবোনাসি ১৬১.৮% অনুযায়ী গোল্ড ১৭৪৮ সাপোর্টে যেতে পারে। পরবর্তীতে ১৭৪৩ প্রাইসে বাধা পেতে পারে। গোল্ডের পরবর্তী নিন্মমুখী প্রভাব শক্তিশালী হওয়

চীনের মন্দা ডলারের প্রাইস বৃদ্ধিতে সাহায্য করছে

চীনের ইউয়ান আজ শুক্রবার ডলারের কাছে প্রায় দুই বছরের সর্বনিন্ম প্রাইসে নেমে এসেছে। চীনা ইউয়ানের প্রাইস কমার পেছনে দেশের প্রবৃদ্ধির নিয়ে উদ্বেগ কাজ করছে। ইউয়ান ডলারের বিপরীতে ০.৪% কমে ৬.৮১৪৪-তে নেমে এসেছে। যা সেপ্টেম্বর ২০২০ সালের পর সবচেয়ে দুর্বল স্তর।  চীনের দুর্বল ইকোনমিক ডাটা এবং রিয়েল এস্টেট মার্কেটের ভয়াবহ সতর্কতার প্রেক্ষিতে ইউয়ানের এমন পতন হয়। ওয়াশিংটন ও তাইওয়ান বাণিজ্য চুক্তি নিয়ে আলোচনা শুরু করার সাথে সাথে  যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে উত্তেজনা বৃদ্ধি চীনা মার্কেটে প্রভাব

১৬১.০০ প্রাইসে যাচ্ছে GBPJPY

বৃহস্পতিবার GBPJPY সর্বোচ্চ ১৬৩.২৪ প্রাইসে উঠলেও পরবর্তীতে বিয়ারিশে ক্লোজ হয়েছিলো। আজ শুক্রবার ইউরোপিয়ান সেশনের পূর্বে ১৬২.১০ প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। যেহেতু আজকের সেশেনে পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পাচ্ছে সেহেতু ১৬৩.০০ রেজিস্ট্যান্স অতিক্রমের সম্ভাবনা রয়েছে। তবে ১৬৩.০০ অতিক্রমে ব্যর্থ হলে ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হতে পারে এবং সেলারদের অনুকূলে আসতে পারে। অপরদিকে ১০০ দিনের EMA অনুযায়ী, পেয়ারটি ১৮ আগস্টের নিন্ম প্রাইস ১৬১.৬৮ শক্ত সাপোর্ট হতে পারে। GBPJPY পেয়ারের বর্তমান রেজিস্ট্যান্স হত

ব্রিটিশ রিটেইল সেলস রিপোর্টের পূর্বে মাসের নিন্ম প্রাইসে GBPUSD

আজ শুক্রবার এশিয়ান সেশনে GBPUSD মাসের সর্বনিন্ম প্রাইস ১.১৯০৫-এর কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। যুক্তরাজ্যের অর্থনীতি সম্পর্কিত নেতিবাচক প্রভাবে মার্কিন ডলারের বিপরীতে ব্রিটিশ পাউন্ডের প্রাইস তৃতীয়দিন কমছে। এছাড়াও মার্কিন অর্থনৈতিক ডাটার ইতিবাচক প্রভাব পাউন্ডের বিপরীতে ডলারকে শক্তিশালী করছে। ব্লুমবার্গ নিউজ অনুযায়ী, রাশিয়া-ইউক্রেন ও মার্কিন-চীন উত্তেজনার বর্ধিত উদ্বেগ ডলারের প্রাইস বৃদ্ধিতে সাহায্য করছে। ব্লুমবার্গ নিউজ অনুযায়ী, চীনা রাষ্ট্রপতি শি জিনপিং ও রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন

ইউরোজোনের ব্যাংকগুলো ক্রিপ্টো গ্রহণ করছে

ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন Binance এবং Crypto.com-এর মতো বেশ কিছু ক্রিপ্টো কোম্পানিকে ইউরো অঞ্চলের অধীনের দেশ যেমন: ইতালি, ফ্রান্স, স্পেন, গ্রীস বা জার্মানিতে মানি লন্ডারিং এবং সন্ত্রাসবাদে অর্থায়ানের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য জাতীয় সুরক্ষা মেনে অনুমোদন দিয়েছেন। তবে ইউরো অঞ্চলের ব্যাংকগুলো ক্রিপ্টো সেক্টরে জড়িত হবে কিনা তা বিবেচনা করছে। ECB একটি বিবৃতিতে বলেছে, জার্মানিতে নির্দিষ্ট ক্রিপ্টো কার্যক্রমগুলো পরিচালনার জন্য আজ অবধি বেশ কয়েকটি ব্যাংক লাইসেন্সপ্রাপ্ত কার্যক্রম পরিচালনা জন্য অনুমোদন পেতে অনুর

ফেডারেল রিজার্ভের মিটিংয়ের পর ডলারের আপট্রেন্ড শিথিল হয়ে আসছে

ফেডারের রিজার্ভের জুলাইয়ের মিটিংয়ের পর বুধবার মার্কিন ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি কিছুটা কমেছে। ফেড কর্মকর্তারা উদ্বিগ্ন মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংক মুদ্রাস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে আনার অঙ্গীকারের অংশ হিসেবে অনেক বেশি ইন্টারেস্ট রেট বাড়াতে পারে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বেশ কিছু কর্মকর্তারা ঝুঁকির কথা উল্লেখ করেছে, ফেড মুদ্রাস্ফীতি স্থিতিশীলতা পুনরুদ্ধার করার প্রয়োজনীয়তার চেয়ে নীতির অবস্থান কঠোর করতে পারে। যা দেশের প্রবৃদ্ধির ক্ষেত্রে বাধা হতে পারে এমন সম্ভাবনায় ডলারের প্রফিট সীমিত ছিলো। মার্কিন কেন্দ্

EOS টোকেন ২০% বেড়ে ৩ মাসের সর্বোচ্চে

ইনসেনটিভ নিউজকে কেন্দ্র করে বুধবার EOS টোকেনের প্রাইস ২০% বৃদ্ধি পেয়েছে।  বুধবার বিশ্বব্যাপী ক্রিপ্টো মার্কেট ক্যাপ প্রায় ২% কমে যাওয়া সত্ত্বেও টোনের প্রাইসে এমন উত্থান লক্ষ করা যায়। আসন্ন ইয়েলড ও ইনসেনটিভ প্রোগ্রামের রেজিস্টেশন করার ৩দিন পর টোকেনের প্রাইস ১.২৩ থেকে বেড়ে ১.৮৩ প্রাইসে উঠেছিলো। চার্টে দেখা যাচ্ছে, টোকেনটি গত ৩ মাস ১.৪৩ প্রাইসের নিচে মুভমেন্ট করছে। RSI ইনডিকেটর অনুযায়ী টোকেনটি ৬৪.১৮ পয়েন্টে রয়েছে। আর্টিকেল লেখার সময় আজ বৃহস্পতিবার টোকেনটি ১.৪৪ প্রাইসের কাছাকাছি মুভম

FOMC মিটিংয়ের পূর্বে ডলারের প্রাইস বৃ্দ্ধি পাচ্ছে

মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভের জুলাইয়ের মিটিংয়ের পূর্বে মার্কিন ডলারের প্রাইস বেড়ে ১০৬.৬৮-এর কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। গতকাল ডলার ডজি ক্যান্ডেল তৈরি করলেও পরবর্তীতে পুনরায় আজকের সেশনে প্রাইস বৃদ্ধি পাচ্ছে। এর ফলে চতুর্থদিন ডলার আপট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে। গত সপ্তাহে প্রকাশিত মুদ্রাস্ফীতির নমনীয়তার ফলে সপ্তাহের শুরুতে ডলারের প্রাইস কমলেও শেষের দিকে চীনা ইকোনমিক মন্দাকে কেন্দ্র করে প্রাইস পুনরায় বৃদ্ধি শুরু করে। চলতি সপ্তাহে মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এফওএমসি মিটিংকে কেন্দ্র করে ডলার

১.২১০০ রেজিস্ট্যান্স লেভেলের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে GBPUSD

আজ বুধবার ইউরোপিয়ান সেশনের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে GBPUSD। গত ২ সপ্তাহ পেয়ারটি কয়েকবার ১.২১০০ প্রাইস অতিক্রমে সক্ষম হলেও পুনরায় ১.২১০০ প্রাইসের নিচে চলে আসে। চার ঘন্টার চার্টে ১০০- SMA অনুযায়ী GBPUSD এর রেজিস্ট্যান্স হিসেবে কাজ করতে পারে ১.২১৩০। পরবর্তীতে পেয়ার ১.২২০০ রেজিস্ট্যান্স অতিক্রমে সক্ষম হলে মাসের সর্বোচ্চ প্রাইস ১.২২৯৫ রেজিস্ট্যান্স হতে পারে। পেয়ারটির সাপোর্ট হিসেবে দেখা হচ্ছে ২০০-SMA অনুযায়ী ১.২০৪৫। ফিবোনাসি রিট্রেসমেন্ট ৫০% অনুযায়ী সাপোর্ট হতে পারে ১.২০৩০। ফিবোনাসি

ফেড মিটিংয়ের পূর্বে ১.০১০০ প্রাইসের অপেক্ষায় EURUSD

মার্কিন ডলার ৩ সপ্তাহের সর্বোচ্চ প্রাইসে ওঠার ফলে EURUSD-এর প্রাইস কমে ১.০১১৫ এর কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। ট্রেডারদের বর্তমান নজর ২য় প্রান্তিকের ইউরোজোন জিডিপি ডাটা ও মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভের মিটিংয়ের দিকে। প্রত্যাশা করা হচ্ছে, দ্বিতীয় প্রান্তিকে ইউরোজোন জিডিপি ০.৭% এবং বাৎসরিক ব্যবধানে ৪%-এ অপরিবর্তনীয় থাকতে পারে। ইউরোজোনে নতুন করে জ্বালানি সংকটের উদ্বেগ বৃদ্ধি পেতে পারে। এর ফলে ইউরোর প্রাইস কমার সম্ভাবনা রয়েছে। এদিকে ফেড মিনিটসে আসন্ন মিটিংগুলোতে হার বৃদ্ধির অন্তদৃষ্টির দি

৩ মাসের সর্বোচ্চে Dogecoin

মঙ্গলবার ডোজকয়েন ৩ মাসের উচ্চতায় পৌঁছেছে কারণ টোকেনের প্রাইস ১৫% বৃদ্ধি পেয়েছিলো। মঙ্গলবার ক্রিপ্টো মার্কেটের পতনের ফলে বিশ্বব্যাপী মার্কেট ক্যাপ ০.২১% কমলেও ডোজকয়েন আপট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছিলো। Dogecoin (DOGE) মেম ক্রিপ্টোকারেন্সি শিবা ইনু ৩ মাসের সর্বোচ্চে পৌঁছানোর পরবর্তীতে ২৪ ঘন্টারও কম সময়ে মেম কয়েন ডোজও ১২ সপ্তাহের সর্বোচ্চ অর্থাৎ ৩ মাসের সর্বোচ্চে উঠেছে। মঙ্গলবার কয়েনটি সর্বনিন্ম ০.০৭৫৭১ প্রাইস থেকে বেড়ে সর্বোচ্চ ০.০৮৮৪৮ প্রাইসে উঠেছিলো। মে মাসের ১৮ তারিখের পর থেকে Dogecoin সর্বো

সোনেভা মালদ্বীপ ও থাইল্যান্ড রিসোর্টগুলোতে ক্রিপ্টো পেমেন্ট গ্রহণ করছে

বিলাসবহুল রিসোর্ট চেইন সোনেভা বিটকয়েন ও ইথেরিয়ামের মাধ্যমে প্রেমেন্ট গ্রহণ শুরু করেছে। মালদ্বীপে সোনেভার তিনটি রিসোর্ট রয়েছে (সোনেভা ফুশি, সোনেভা জানি ও অ্যাকোয়াতে সোনেভা)। এছাড়াও থাইল্যান্ডে একটি রিসোর্ট রয়েছে ( সোনেভা কিরি)। ক্রিপ্টোকারেন্সি গ্রহণের জন্য সোনেভা দুটি কোম্পানির সাথে অংশীদারিত্ব করেছে। কোম্পানিগুলো ক্রিপ্টো পেমেন্ট সলিউশন প্রদানকারী ট্রিপল ও পেমেন্ট প্ল্যাটফর্ম প্রদানকারী পোমেলো। কোম্পানিগুলো সিঙ্গাপুর মনিটারি অথরিটি (এমএএস) দ্বারা লাইসেন্সপ্রাপ্ত। সোনেভার প্রধান

চীনের প্রবৃদ্ধির দুশ্চিন্তায় অস্টেলিয়ান ডলারের প্রাইস কমছে

সামগ্রিকভাবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ইকোনমিক অস্থিরতার মধ্যে রয়েছে। বিশেষ করে চীনের বৈশ্বিক মন্দার আশঙ্কা পুনরুজ্জীবিত হওয়ায় চীনের ইউয়ান ৩ বছরের সর্বনিন্মে নেমে এসেছে। অস্টেলিয়া যেহেতু চীনের সবথেকে বড় বাণিজ্যিক পার্টনার। তাই চীনের দুসংবাদে অস্ট্রেলিয়ান ডলারের প্রাইসও কমতে শুরু করেছে। চীনের সর্বনাশে যুক্তরাষ্ট্রের বসন্ত। যদিও যুক্তরাষ্ট্রের ইকোনমিও মন্দার মধ্যে রয়েছে। চীনের দুসংবাদে ইউয়ানের প্রাইস কমলেও মার্কিন ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে এক সপ্তাহের সর্বোচ্চে অবস্থান করছে। আর্টিকেল লে

ঘানার মুদ্রাস্ফীতি হার ১৯ বছরের সর্বোচ্চ

ঘানার পরিসংখ্যান সার্ভিস (GSS)-এর সর্বশেষ তথ্য অনুসারে, বাৎসরিক ব্যবধানে পশ্চিম আফ্রিকার দেশটির মুদ্রাস্ফীতি বৃদ্ধি পেয়ে ৩১.৭% হয়েছে। সর্বশেষ জুন মাসের রেকর্ড অনুযায়ী মুদ্রাস্ফীতি বৃদ্ধির পেয়ে ২৯.৮% হয়েছে। ঘানার সরকারি তথ্য অনুযায়ী দেশটির মুদ্রাস্ফীতি বেড়ে ১৯ বছরের সর্বোচ্চে অবস্থান করছে। ব্লুমবার্গের প্রতিবেদন অনুযায়ী, দেশটির প্রেসিডেন্ট নানা আকুফা-আদ্দোর আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (IMF)-এর কাছে ৩ বিরিয়ন ডলার ঋণ চেয়েছে। যদিও দেশটির সরকার প্রথমদিকে ১.৫ বিলিয়ন ডলার ঋণ চেয়েছিলো প

 ২০০-HMA রেজিস্ট্যান্স হিসেবে কাজ করছে AUDJPY

আজ মঙ্গলবার ইউরোপিয়ান সেশনে ক্রোস কারেন্সি পেয়ারটি ৯৩.৬০ এর কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। সপ্তাহের প্রথমদিন গতকাল AUDJPY পেয়ারের প্রাইস কমলেও আজ মঙ্গলবার রিজার্ভ ব্যাংক অফ অস্টেলিয়ার মিটিংয়ের পর পুনরায় AUDJPY প্রাইস বৃদ্ধির চেষ্টা করছে। এক ঘন্টার চার্টে ২০০- HMA অনুযায়ী ৯৩.৮৫- ৯৪ রেজিস্ট্যান্স হিসেবে কাজ করতে পারে। AUDJPY ৯৩.৮৫- ৯৪ রেজিস্ট্যান্স অতিক্রমে সক্ষম হলে সেক্ষেত্রে ৫ আগস্টের সর্বোচ্চ প্রাইস ৯৫.০০ রেজিস্ট্যান্স হতে পারে। অপরদিকে ফিবোনাসি রিট্রেসমেন্ট ৫০% অনুযায়ী সাপোর্ট দেখা হচ্ছে

মন্দার ভয়ে বৃদ্ধি পাচ্ছে ডলারের প্রাইস

বিশ্বব্যাপী মন্দার আশঙ্কা নিরাপদ কারেন্সি হিসেবে মার্কিন ডলারের চাহিদা বাড়িয়ে দিচ্ছে। এর ফলে আজ মঙ্গলবার ইউরোপিয়ান সেশনে ডলারের প্রাইস বেড়ে সপ্তাহের সর্বোচ্চে মুভমেন্ট করছে। আজকের সেশনে মার্কিন ডলার ০.২১% বৃদ্ধি পেয়ে ১০৬.৬৪-এর কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। যদিও গতকাল ডলারের প্রাইস বেড়ে সর্বোচ্চ ১০৬.৫৫-তে উঠেছিলো। যা গত সপ্তাহের সোমবারের পরবর্তীতে সর্বোচ্চ প্রাইস। সোমবার প্রকাশিত চীনা ইন্ডাস্ট্রীয়াল প্রডাকশন রিপোর্টে দেখা যাচ্ছে, দেশটির ইন্ডাস্ট্রীয়াল সেক্টর দুর্বল অবস্থানে রয়েছে। এছাড়াও পিপ


বিডিপিপস কি এবং কেন?

বিডিপিপস বাংলাদেশের সর্বপ্রথম অনলাইন ফরেক্স কমিউনিটি এবং বাংলা ফরেক্স স্কুল। প্রথমেই বলে রাখা জরুরি, বিডিপিপস কাউকে ফরেক্স ট্রেডিংয়ে অনুপ্রাণিত করে না। যারা বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, শুধুমাত্র তাদের জন্যই বিডিপিপস একটি আলোচনা এবং অ্যানালাইসিস পোর্টাল। ফরেক্স ট্রেডিং একটি ব্যবসা এবং উচ্চ লিভারেজ নিয়ে ট্রেড করলে তাতে যথেষ্ট ঝুকি রয়েছে। যারা ফরেক্স ট্রেডিংয়ের যাবতীয় ঝুকি সম্পর্কে সচেতন এবং বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, বিডিপিপস শুধুমাত্র তাদের ফরেক্স শেখা এবং উন্নত ট্রেডিংয়ের জন্য সহযোগিতা প্রদান করার চেষ্টা করে।

×
×
  • Create New...