Jump to content

BDPIPS - Forex Bangladesh

যেসকল সাপোর্ট-রেজিস্ট্যান্সে বাধা পেতে পারে AUDUSD

গত সপ্তাহের শেষের দিন AUDUSD পেয়ারের প্রাইস কমলেও চলতি সপ্তাহের শুরুতে বৃদ্ধি পাচ্ছে। আজ সোমবার ইউরোপিয়ান সেশনে পেয়ারটি ০.৭২১৫ প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। ৫০ DMA অনুযায়ী গোল্ডের সাপোর্ট হতে পারে ০.৭২১০। গোল্ড ০.৭২১০ অতিক্রমে সক্ষম হলে সেক্ষেত্রে ০.৭১৫০ সাপোর্ট হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। গোল্ডের পরবর্তী সাপোর্ট হতে পারে ০.৬৯৯০। অপরদিকে ১০০- DMA অনুযায়ী ০.৭২৮৫ রেজিস্ট্যান্স হতে পারে। পেয়ারটি ০.৭৩৩০ রেজিস্ট্যান্স অতিক্রমের পরবর্তীতে ২০০- DMA অনুযায়ী ০.৭৪০৫ অতিক্রমের পরবর্তীতে ০.৭৪৩০ রেজ

GOLD সাপ্তাহিক ফরেকাস্ট ( ১৭ – ২১ জানুয়ারি, ২০২১)

গত সপ্তাহে গোল্ডের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে ১৮৩০-তে উঠলেও পরবর্তীতে গোল্ড আপট্রেন্ড ধরে রাখতে সক্ষম হয়নি। সপ্তাহ শেষে গোল্ড ১৮১৭ ডলারে ক্লোজ হয়েছিল। গোল্ডের পরবর্তী সাপোর্ট হতে পারে ১৮০০। তবে মার্চ মাসে মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভ ইন্টারেস্ট রেট বৃদ্ধি করবে এমন সম্ভাবনাকে কেন্দ্র করে ডলারের প্রাইস বৃদ্ধির সম্ভাবনা থেকে যাচ্ছে। তবে বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে মুদ্রাস্ফীতি নিয়ে উদ্বিগ্নতা ডলারের ক্ষেত্রে নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে। গত সপ্তাহে দেশটিতে ক্রমাগত করোনা সংক্রামণ বৃদ্ধি এব

USDJPY সাপ্তাহিক ফরেকাস্ট (১৭ – ২১ জানুয়ারি, ২০২১)

বেশ কয়েক সপ্তাহ USDJPY পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পেলেও গত সপ্তাহে কমেছিল। সপ্তাহের প্রথমদিন পেয়ারের প্রাইস বেড়ে ১১৪.৫০ এর কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। মার্কিন ননফার্ম পেরোলস (NFP) ডিসেম্বরে প্রত্যাশিত ৪ লক্ষ থেকে কমে ১ লক্ষ ৯৯ হাজার এসেছে। এছাড়াও দেশটির মুদ্রাস্ফীতি বেশ কয়েক বছরের সর্বোচ্চে অবস্থান করছে। যা ডলারের প্রাইসে নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে। এদিকে ডিসেম্বরে টোকিও মুদ্রাস্ফীতি ০.৮% বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে কোর মুদ্রাস্ফীতি -০.৩% এ অপরিবর্তনীয় রয়েছে। তবে ব্যাংক অব জাপানের ইন্টারেস্ট রেট বৃদ্

পুনরায় বিটকয়েনের প্রাইস কমছে

বৃহস্পতিবার বিটকয়েনের ক্ষেত্রে ৪৪ হাজার ডলার রেজিস্ট্যান্স হিসেবে কাজ করেছিল। পরবর্তীতে কয়েনের প্রাইস কমতে থাকে বর্তমানে কয়েন ৪২ হাজার ডলারের উপরে অবস্থান করছে। প্রত্যাশা করা হচ্ছে, খুব তাড়াতাড়ি কয়েনের প্রাইস কমে ৪০ হাজার ডলারে আসতে পারে। কয়েনের বর্তমান সাপোর্ট হিসেবে কাজ করতে পারে ৪২ হাজার ডলার। অপরদিকে কয়েনের প্রাইস বেড়ে ৪৬,০০০ হাজার ডলারের উপরে উঠলে আপট্রেন্ড শক্তিশালী হতে পারে। বিটকয়েন ৪০ হাজার ডলার অতিক্রমে সক্ষম হলে পরবর্তী সাপোর্ট হতে পারে ৩৮ হাজার ডলার। ফরেক্স এবং ক

AUDUSD সাপ্তাহিক ফরেকাস্ট ( ১৮ – ২১ জানুয়ারি, ২০২১)

গত সপ্তাহের শুরুর দিকে AUDUSD পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পেলেও শেষের দিকে কমেছিল। তবে সাপ্তাহিক ক্যান্ডেলে পেয়ার আপট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে। বৃহস্পতিবার AUDUSD ২ মাসের সর্বোচ্চ প্রাইস ০.৭৩১৩-তে উঠে পরবর্তীতে কমতে শুরু করে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ক্রমাগত করোনাভাইরাসের সংক্রামণ বৃদ্ধি এবং মুদ্রাস্ফীতির ঊর্ধ্বগতি দেশটির কারেন্সিতে প্রভাব ফেলছে। বাৎসরিক ব্যবধানে ডিসেম্বরে দেশটিতে মুদ্রাস্ফীতি বেড়ে চার বছরের সর্বোচ্চ ৭%- এ উঠেছিল। বর্তমানে দেশটির কারেন্সি বোর্ট ডলারের অবস্থান নিয়ে উদ্বিগ্ন অবস্থানে রয়ে

মার্কিন রিটেইল সেলস রিপোর্টের পূর্বে USDCAD পেয়ারের প্রাইস কমছে

USDCAD পেয়ারের প্রাইস কমে গত নয়দিনের নিন্মে অবস্থান করছে। আজ শুক্রবার ইউরোপিয়ান সেশনে পেয়ারটি ১.২৪৫৩ এর কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। মার্কিন Treasury Yields বৃদ্ধি পেলেও ডলার ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে। বিনিয়োগকারীরা মার্কিন রিটেইল সেলস রিপোর্ট এবং কনজিউমার কনফিডেন্স রিপোর্টের পূর্বে সতর্ক অবস্থানে রয়েছে। পেয়ারের ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত থাকলে সেক্ষেত্রে ১.২৪৫০ অতিক্রমের পরবর্তীতে ১.২৪০০ প্রাইসে যেতে পারে। অপরদিকে ২০০ DMA অনুযায়ী ১.২৫০১ প্রাইনে রেজিস্ট্যান্স দেখা যাচ্ছে। পেয়ারটি ১.২

গোল্ড ১৮৩১ রেজিস্ট্যান্স অতিক্রমের পরবর্তীতে ১৮৩৭ রেজিস্ট্যান্সে যেতে পারে

গোল্ডের প্রাইস পঞ্চম দিন বৃদ্ধি পেয়ে সপ্তাহের সর্বোচ্চে অবস্থান করছে। ইউরোপিয়ান সেশনে গোল্ড ১৮২৪ ডলারের কাছাকাছি অবস্থান করছে। ডেইলি চার্টে ফিবোনাসি ২৩.৬% অনুযায়ী ১৮২৬ ডলারে গোল্ড বাধা পেতে পারে। গোল্ডের দ্বিতীয় রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১৮৩৭। আপট্রেন্ড অব্যাহত থাকলে সেক্ষেত্রে ফিবোনাসি রিট্রেসমেন্ট ৩৮.২% অনুযায়ী ১৮২১ সাপোর্ট হতে পারে। পেয়ারের ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত থাকলে সেক্ষেত্রে ডেইলি চার্টে ফিবোনাসি ৬১.৮% অনুযায়ী ১৮১৯ সাপোর্টে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। গোল্ডের ডাউনট্রেন্ড অব্য

সুইস ফ্রাঙ্কের বিপরীতে মার্কিন ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি পাচ্ছে

আজ বৃহস্পতিবার ইউরোপিয়ান সেশনে USDCHF পেয়ারের প্রাইস কমে ০.৯১৪৫ প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। গতকাল সুইস ফ্রাঙ্ক কারেন্সি পেয়ারটি এক সপ্তাহের নিন্ম প্রাইস ০.৯২৩০ ব্রেকে সক্ষম হয়েছে। ফিবোনাসি রিট্রেসমেন্ট অনুযায়ী পেয়ারের বর্তমান রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ০.৯১৫৫। ডেইলি চার্টে RSI এবং MACD ইনডিকেটর অনুযায়ী প্রাইস কমার সম্ভাবনা রয়েছে। পেয়ারটি ০.৯১৫৫ রেজিস্ট্যান্স অতিক্রমের পরবর্তীতে ০.৯২০০ রেজিস্ট্যান্সে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আপট্রেন্ড অব্যাহত থাকলে সেক্ষেত্রে ০.৯২৩০ রেজিস্ট্যান্স হতে প

২০২১ সালের অক্টোবরের সর্বোচ্চ প্রাইসে যাচ্ছে GBPUSD

মার্কিন ডলারের বিপরীতে ব্রিটিশ পাউন্ডের প্রাইস পঞ্চমদিনের মতো আপট্রেন্ড অব্যাহত রেখে আজ বৃহস্পতিবার ইউরোপিয়ান সেশনের শুরুতে ১.৩৭০০ প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। মার্কিন মুদ্রাস্ফীতি বৃদ্ধি পেয়ে ৭.০০% এসেছে। যা ১৯৮২ সালের পরবর্তীতে সর্বোচ্চ এসেছে। ২০০ দিনের মুভিং অ্যাভারেজ (DMA) অনুযায়ী GBPUSD পেয়ারের রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১.৩৭৩৩। ২০২১ সালের ২০ অক্টোবর পেয়ারের প্রাইস বেড়ে সর্বোচ্চ ১.৩৮৩৪-তে উঠেছিল। প্রত্যাশা করা হচ্ছে, পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পেতে পারে। এক্ষেত্রে পেয়ার ২১ অক্ট

কিপ্টোকারেন্সি Solana এবং Ethereum-এর প্রাইস কমছে

ব্যাংক অব আমেরিকার একজন কর্মকর্তা বলেন, ব্যাংক নিন্ম ট্রানজেকশন ফি সুবিধা দেয়ার কারণে ক্রিপ্টোকারেন্সি মার্কেটে Solana এবং Ethereum এর প্রাইস কমতে শুরু করেছে। Solana কারেন্সির যাত্রা শুরু হয় ২০২০ সালে। এর মধ্যে কারেন্সিটি প্রধান পাঁচটি ক্রিপ্টোকারেন্সির মধ্যে জায়গা করে নেয় এবং ৪৭ বিলিয়ন ডলার মার্কেট মূলধনে আসেন। অপরদিকে Ethereum ৫০ বিলিয়ন মূলধনে আসেন। গতকাল Solana প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে ১ লক্ষ ৫২ হাজার আসলেও আজকের সেশনে কমে ১ লক্ষ ৪৯ হাজার ডলারে এসেছে। এদিকে Etherum এর প্রাইস দুদিন

EURUSD মাসের সর্বোচ্চ প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে

আজ বৃহস্পতিবার এশিয়ান সেশনে EURUSD ১.১৪৪০ প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। আজকের সেশনে পেয়ার বুলিশ অবস্থানে থাকতে সক্ষম হলে টানা তৃতীয়দিন আপট্রেন্ডে থাকতে সক্ষম হবে। ডেইলি চার্টে MACD ইনডিকেটর অনুযায়ী পেয়ার বুলিশে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ফিবোনাসি রিট্রেসমেন্ট ২৩.৬% অনুযায়ী পেয়ারের বর্তমান রেজিস্ট্যান্স হিসেবে কাজ করতে পারে মাসের সর্বোচ্চ প্রাইস ১.১৪৫০। ১০০-DMA অনুযায়ী পেয়ারের রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১.১৫১০ এবং পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১.১৫৩০। পেয়ারের আপট্রেন্ড অব্যাহত থাকলে সেক্ষ

ফেড চেয়ারম্যান জেরেমি পাওয়েলের আলোচনায় বৃদ্ধি পাচ্ছে ডলারের প্রাইস

মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভের চেয়ারম্যান জেরেমি পাওয়েল গতকাল তার আলোচনায় মনেটারী পলিসি শক্ত করার প্রতিশ্রুতিতে ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি পাচ্ছে। পাওয়েলের মতে, ফেড খুব তাড়াতাড়ি ইন্টারেস্ট রেট বৃদ্ধি করতে পারে।  আজকের সেশনে ডলারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে সর্বোচ্চ ৯৫.৬৯-তে উঠলেও বর্তমানে কিছুটা কমে ৯৫.৫৩ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে। যা ১৮ নভেম্বরের সর্বনিন্ম প্রাইস ছিল। গতকালের আলোচনায় পাওয়েল বলেন, দেশের মুদ্রাস্ফীতি বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং ইন্টারেস্ট রেট বৃদ্ধি করার মতো যথেষ্ট শক্তিশাল

০.৭২২০ ব্রেকআউট করতে পারে AUDUSD

গত কয়েকদিন AUDUSD পেয়ারের প্রাইস কমলেও গতকাল বৃদ্ধি পেয়েছিল। আজকের সেশনে কিছুটা কমে ০.৭২০০ প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। চার ঘন্টার চার্টে পেয়ারটি ৫০ এবং ১০০ SMA ক্রোস করেছে। এক্ষেত্রে প্রাইস বৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে। MACD ইনডিকেটর অনুযায়ী প্রাইস বৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে। পেয়ারের বর্তমান রেজিস্ট্যান্স হিসেবে দেখা হচ্ছে ০.৭২২০। আপট্রেন্ড অব্যাহত থাকলে সেক্ষেত্রে ০.৭২৬০ অতিক্রমের পরবর্তীতে ০.৭২৭৮ রেজিস্ট্যান্সে যেতে পারে। অপরদিকে ৫০ SMA অনুযায়ী পেয়ারের সাপোর্ট হিসেবে কাজ করছে ০.৭২

গোল্ডের প্রাইস বেড়ে ১৮৩১ ডলারে যেতে পারে

গোল্ড তৃতীয়দিন আপট্রেন্ড অব্যাহত রেখে, আজ বুধবার ইউরোপিয়ান সেশনে দিনের সর্বোচ্চ প্রাইস ১৮২৩ এর কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। গোল্ডের বর্তমান শক্ত রেজিস্ট্যান্স হিসেবে দেখা হচ্ছে ১৮৩১। দ্বিতীয় রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১৮৩৯। অপরদিকে ফিবোনাসি রিট্রেসমেন্ট ২৩.৬% অনুযায়ী পেয়ারের সাপোর্ট হতে পারে ১৮১৭। গোল্ডের ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত থাকলে সেক্ষেত্রে ১৮১৪ সাপোর্ট অতিক্রমের পরবর্তীতে ফিবোনাসি রিট্রেসমেন্ট ৬১.৮% অনুযায়ী  ১৮০৯ সাপোর্টে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ফরেক্স এবং কিপ্টোকারেন্সি ট্রেডিং

২ মাসের নিন্ম প্রাইসে USDCAD

চলতি সপ্তাহে USDCAD পেয়ারের প্রাইস কমে দুমাসের নিন্ম ১.২৫৫৩ এর কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। পেয়ারটি ১০০-DMA অতিক্রমে সক্ষম হলে ডাউনট্রেন্ড শক্তিশালী হতে পারে। ডেইলি চার্টে MACD ইনডিকেটর অনুযায়ী পেয়ার বিয়ারিশে আসার সম্ভাবনা রয়েছে। ২০০-DMA অনুযায়ী ১.২৫০০ প্রাইসে সাপোর্ট দেখা যাচ্ছে। ফিবোনাসি রিট্রেসমেন্ট ৫০% অনুযায়ী পেয়ারের ক্ষেত্রে ১.২৪৫০ সাপোর্ট হতে পারে। অপরদিকে ফিবোনাসি ৩৮.২% অনুযায়ী পেয়ার ১.২৬০০ অতিক্রমে সক্ষম হলে আপট্রেন্ড শক্তিশালী হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ১০০-DMA অনুযায়ী পেয়ারের র

১০ সপ্তাহের সর্বোচ্চ প্রাইসে GBPUSD

GBPUSD পেয়ারের প্রাইস দশম সপ্তাহের মতো বৃদ্ধি করেছে।  আজ বুধবার ইউরোপিয়ান সেশনে পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে ১.৩৬৪২ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে। ডেইলি চার্টে RSI ইনডিকেটর অনুযায়ী পেয়ার ওভারবটে রয়েছে। সেক্ষেত্রে প্রাইস কমার সম্ভাবনা রয়েছে।  পেয়ারের বর্তমান সাপোর্ট হতে পারে ১.৩৫৯৫।  ১০০-DMA অনুযায়ী পেয়ার ১.৩৫৫০ সাপোর্ট অতিক্রমের পরবর্তীতে ১৮ নভেম্বরের সর্বোচ্চ প্রাইস ১.৩৫১৫ সাপোর্ট হতে পারে। ফিকোনামি রিট্রেসমেন্ট ২৩.৬% অনুযায়ী পেয়ার ১.৩৫১৫ অতিক্রমের পরবর্তীতে ১.৩৪১৫ সাপোর্টে যেতে পারে। অপর

টানা দ্বিতীয়দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে GBPJPY পেয়ারের প্রাইস

১০ DMA অনুযায়ী পেয়ারের রেজিস্ট্যান্স হতে পারে সপ্তাহের সর্বোচ্চ প্রাইস ১৫৭.৪১। ডেইলি চার্টে MACD ইনডিকেটর অনুযায়ী প্রাইস বৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে। RSI ইনডিকেটর অনুযায়ী পেয়ার ওভারবটে অবস্থান করছে। পেয়ারের পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১৫৭.৭০। পেয়ারের আপট্রেন্ড অব্যাহত থাকলে সেক্ষেত্রে ২১ সালের সর্বোচ্চ প্রাইস ১৫৮.২২ রেজিস্ট্যান্স হতে পারে। অপরদিকে পেয়ার ১৬০.০০ অতিক্রমের পরবর্তীতে ২০১৬ সালের সর্বোচ্চ প্রাইস ১৬৩.৯০ রেজিস্ট্যান্স হতে পারে।  অপরদিকে ১০ DMA অনুযায়ী পেয়ারের সাপোর্ট হতে পারে

EURUSD পেয়ারের রেজিস্ট্যান্স হিসেবে কাজ করছে ১.১৩৭৫

আজ বুধবার এশিয়ান সেশনে পেয়ারটি ১.১৩৭০ প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। সপ্তাহের সর্বোচ্চ প্রাইস ১.১৩৭৫ রেজিস্ট্যান্স হতে পারে। পেয়ারের আপট্রেন্ড অব্যাহত থাকলে সেক্ষেত্রে নভেম্বরের মাঝামাঝির সর্বোচ্চ প্রাইস ১.১৩৮৫ রেজিস্ট্যান্স হতে পারে। পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১.১৪০০। ১০০ DMA অনুযায়ী ১.১৫১২ রেজিস্ট্যান্স অতিক্রমের পরবর্তীতে অক্টোবরের নিন্ম প্রাইস ১.১৫২৫ রেজিস্ট্যান্স হতে পারে। অপরদিকে ২১ DMA ও ৫০ DMA অনুযায়ী পেয়ারের সাপোর্ট হতে পারে ১.১৩৩৫ ও ১.১৩২০। ১৫ ডিসেম্বর পেয়ারের ক

বিটকয়েন ৪৩ হাজার ডলার কেন্দ্র করে ওঠা-নামা করছে

বিটকয়েনের প্রাইস হঠাৎ করে বৃদ্ধি পেতে শুরু হলেও ট্রেডাররা সতর্ক অবস্থানে রয়েছে। কয়েনের প্রাইস পুনরায় কমার সম্ভাবনা রয়েছে। ফেডারেল চেয়ারম্যান জেরেমি পাওয়েলের নতুন মন্তব্যগুলো বাজারকে উৎসাহিত করবে মনে হচ্ছে। গতকাল জেরেমি পাওয়েলের আলোচনার পরবর্তীতে ক্রিপ্টোকারেন্সির আপট্রেন্ড অব্যাহত রয়েছে।  পাওয়েলের মতে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কিছু সময়ের জন্য একটি স্বল্পকালীন ইন্টারেস্ট রেট বৃদ্ধির করতে পারে। আর এমন পূর্বাভাসের সম্ভাবনাকে কেন্দ্র করে বিটকয়েনের মতো কারেন্সিগুলোর প্রাইস বৃদ্ধি পাচ্ছে।

পাঁচদিন USDJPY পেয়ারের প্রাইস কমলেও আজকের সেশনে বৃদ্ধি পেয়ে ১১৫.০০ এর উপরে মুভমেন্ট করছে

আজ মঙ্গলবার USDJPY পেয়ারের প্রাইস বেড়ে ১১৫.২০ এর কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। যদিও গত পাঁচদিন পেয়ারের প্রাইস কমেছিল। পেয়ারের আপট্রেন্ড অব্যাহত থাকলে সেক্ষেত্রে ১১৫.৫০ অতিক্রমের পরবর্তীতে ১১৬.০০ রেজিস্ট্যান্সে যেতে পারে। USDJPY পেয়ার ১১৬.৫০ অতিক্রমে সক্ষম হলে, তা গত পাঁচ বছরের সর্বোচ্চে উঠেবে। অপরদিকে গোল্ডের সাপোর্ট হিসেবে কাজ করতে  পারে ১১৫.০০। গোল্ডের ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত থাকলে সেক্ষেত্রে ১১৪.৫০ সাপোর্ট হতে পারে। পরবর্তী সাপোর্ট হতে পারে ১১৪.০০। ফরেক্স এবং কিপ্টোকারেন্সি ট্রে

NZDUSD পেয়ারের বুলিশ শক্তিশালী হচ্ছে

আজ মঙ্গলবার ইউরোপিয়ান সেশনে পেয়ারটি ০.৬৭৭৫ প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। গতকাল পেয়ারের প্রাইস কমলেও আজকের সেশনে বৃদ্ধি পাচ্ছে। ২১- DMA অনুযায়ী পেয়ারের রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ০.৬৭৯০ এবং পেয়ার আপট্রেন্ড অব্যাহত রাখলে সেক্ষেত্রে  ০.৬৮০০ রেজিস্ট্যান্স হতে পারে। পেয়ারের পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ০.৬৮৫৫। অপরদিকে NZDUSD পেয়ারের সাপোর্ট হতে  পারে ০.৬৭৫০। পেয়ারের ডাউনট্রেন্ড আরও শক্তিশালী হলে সেক্ষেত্রে ০.৬৭৩৫ অতিক্রমের পরবর্তীতে ০.৬৬৫০ সাপোর্ট হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।  অপরদিকে প্রত্যাশা

গোল্ড তৃতীয়দিন আপট্রেন্ড অব্যাহত রেখে ১৮০৯ প্রাইসের কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে

গোল্ডের প্রাইস তৃতীয়দিন বৃদ্ধি পেয়ে ১৮০৯ এর কাছাকাছি মুভমেন্ট করছে। ফেড চেয়ারম্যান জেরেমি পাওয়েলের আলোচনার দিকে বিনিয়োগকারীদের বর্তমান নজর। তার বক্তব্যকে কেন্দ্র করে গোল্ডের বিয়ারিশ বা বুলিশ শক্তিশালী হতে পারে। সাপ্তাহিক চার্টে ফিবোনাসি ৬১.৮% এবং মাসিক চার্টে ২৩.৬% অনুাযায়ী গোল্ডের রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১৮১৩। আপট্রেন্ড অব্যাহত থাকলে সেক্ষেত্রে গোল্ডের পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ১৮১৮। অপরদিকে চার ঘন্টার চার্টে ১০০ SMA পেয়ারের সাপোর্ট হতে পারে ১৮০৩। ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত থাকলে

০.৯৩০০ প্রাইসে যেতে পারে USDCHF

আজ মঙ্গলবার ইউরোপিয়ান সেশনে USDCHF পেয়ারের প্রাইস কমে ০.৯২৬৫ এর কাছাকাছি অবস্থান করছে। যদিও গতকাল পেয়ারের প্রাইস বৃদ্ধি পেয়ে সর্বোচ্চ ০.৯২৭৪-তে উঠেছিল। পেয়ারের বর্তমান রেজিস্ট্যান্স হিসেবে দেখা হচ্ছে, ডিসেম্বরের সর্বোচ্চ প্রাইস ০.৯৩০০। পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স হতে পারে ০.৯৩৩০। আপট্রেন্ড অব্যাহত থাকলে সেক্ষেত্রে ০.৯৩৭৩ রেজিস্ট্যান্স হিসেবে কাজ করতে পালে। অপরদিকে বর্তমান সাপোর্ট দেখা হচ্ছে, ০.৯২০০।  ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত থাকলে সেক্ষেত্রে ০.৯১৪০ সাপোর্ট হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। পেয়ারের শক্ত সাপো


বিডিপিপস কি এবং কেন?

বিডিপিপস বাংলাদেশের সর্বপ্রথম অনলাইন ফরেক্স কমিউনিটি এবং বাংলা ফরেক্স স্কুল। প্রথমেই বলে রাখা জরুরি, বিডিপিপস কাউকে ফরেক্স ট্রেডিংয়ে অনুপ্রাণিত করে না। যারা বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, শুধুমাত্র তাদের জন্যই বিডিপিপস একটি আলোচনা এবং অ্যানালাইসিস পোর্টাল। ফরেক্স ট্রেডিং একটি ব্যবসা এবং উচ্চ লিভারেজ নিয়ে ট্রেড করলে তাতে যথেষ্ট ঝুকি রয়েছে। যারা ফরেক্স ট্রেডিংয়ের যাবতীয় ঝুকি সম্পর্কে সচেতন এবং বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, বিডিপিপস শুধুমাত্র তাদের ফরেক্স শেখা এবং উন্নত ট্রেডিংয়ের জন্য সহযোগিতা প্রদান করার চেষ্টা করে।

বিডিপিপস চ্যাট রুম

বিডিপিপস চ্যাট রুম

    চ্যাট করতে লগিন বা রেজিস্ট্রেশন করুন।
    ×
    ×
    • Create New...