Jump to content
Sign in to follow this  
JOTON1456

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে #নেটেলার_স্ক্রিল_ইস্যু

Recommended Posts

(১) একটা সময় ছিল নেটেলারে একাউন্ট করে ডলার না থাকাবস্থাতেই ভেরিফাই করা যেত। ভেরিফাই করে ফ্রি অব চার্জেই একটি প্রিপেইড ফিজিক্যাল মাস্টার কার্ড এবং একটি প্রিপেইড ভার্চুয়াল মাস্টার কার্ড নেয়া যেত।

(২) তারপরে কোনো একদিন নেটেলার বাংলাদেশে ফিজিক্যাল (প্লাস্টিক) কার্ড দেয়া বন্ধ করে দিলো। ভার্চুয়াল কার্ডটি নেয়ার সুযোগ ছিল।

(৩) তারও কিছুদিন পরে নেটেলার ভার্চুয়াল কার্ড দেয়াও বন্ধ করে দিলো।

(৪) এরপরে নেটেলার বাংলাদেশী একাউন্টগুলো ছয়মাসের মধ্যে একাধিকবার করে রি-ভেরিফিকেশনে ফেলতে লাগল।

(৫) এবার নেটেলার কোনো নোটিশ ছাড়াই একসাথে ব্যাপক আকারে হাজার হাজার নেটেলার একাউন্ট পারমানেন্ট ক্লোজ করে দেয়া শুরু করল।

(৬) স্ক্রিল যখন থেকে কার্ড দেয়া শুরু করল তখন থেকে শুধু ইউরো জোনেই কার্ড দিচ্ছে। সেই হিসেবে বাংলাদেশে কার্ড না দেয়ার মধ্যে আলাদা কোনো ইস্যু না খুঁজলেও বাকি বিষয়গুলো নেটেলারের অনুরূপ ছিল। কারণ পেসেইফ গ্রুপ যেদিন থেকে নেটেলার ও স্ক্রিলকে সাব-সিডিয়ারি কোম্পানি হিসেবে অধিগ্রহণ করেছে সেদিন থেকেই নেটেলার ও স্ক্রিল উভয়ে একই পথে হাঁটছে। তাদের বিভিন্ন ফরম, ইমেইল ফরম্যাট, ভাষার ব্যবহার হু্বহু একই ধরনের। তাই অচিরেই স্ক্রিলও যে নেটেলারকে অনুসরণ করতে বা বলাই বাহুল্য।

সুতরাং উপরের ধারাবাহিকতাগুলো লক্ষ্য করলে একটি মেসেজ ক্লিয়ার যে, নেটেলার-স্ক্রিল খুব সম্ভবত বাংলাদেশে সার্ভিস দেয়া পারামানেন্টলি বন্ধ করে দেয়ার পথেই হাঁটছে।

এরপরেও যাদের একাউন্ট এখনো কিছু হয়নি ভেবে আনন্দে বগল বাজাচ্ছেন তারা আনন্দেই থাকুন। আপনার উপরে খড়গ নেমে আসবে কি আসবে না তা বলার আমি কে!

দোষ কি শুধু নেটেলার-স্ক্রিলেরই? আমাদের কোনো দোষ নাই? দেখা যাক, আমরা কী কী করেছি।

(১) বাংলাদেশে যারা নেটেলার ইউজ করে তাদের অনেকেই এক সময় ফ্রি পেয়ে বাপ-চাচা-খালু-মামা-ফুপু সবার নামেই কার্ড নিয়েছে কিন্তু এক বছরেও সেই একাউন্টগুলোতে এক সেন্টও লেনদেন হয়নি। বাধ্য হয়ে নেটেলার কার্ড অফ করেছে।

(২) অনেকেই বাই-সেল করাটাকেই তাদের পেশা বানিয়ে নিয়েছে। এই ধরনের ডলার এক একাউন্ট থেকে আরেক একাউন্টে ঘুরাঘুরি দেখে তারা স্পষ্টই বুঝতে পারে এগুলো নেটেলারের অপ ব্যবহার হচ্ছে কিংবা সংশ্লিষ্ট দেশের জন্যে ক্ষতিকর মানি লন্ডারিং হচ্ছে।

(৩) বাই-সেলকারীরা একেকজন ৮/১০ টা করে একাউন্ট হোল্ড করে।

(৪) অনেকেই একই ডিভাইস/ আইপি থেকে প্রতিদিন ৫/৭ টি একাউন্ট ক্রিয়েট করে। সারা বছর তারা এই কাজই করত। আর একাউন্টগুলো অন্য কারো কাছে বিক্রি করে দেয়।

(৫) নেটেলার-স্ক্রিল একাউন্ট তৈরি করার জন্যে অধিকাংশই আইডেন্টিটি ও অ্যাড্রেস ভেরিফিকেশনের জন্যে ফেইক/ এডিটেড ডকুমেন্ট তৈরি করে একাউন্ট ভেরিফাই করেছে।

(৭) একই ডিভাইস/ আইপি থেকে একাধিক একাউন্ট দিনের পর দিন চালানো।

(৮) দেশের ইন্টারনেটে সমস্যা হলে প্রয়োজনে প্রক্সি সার্ভার/ ভিপিএন ব্যবহার করে অন্য দেশের আইপি ব্যবহার করে নেটেলার ব্যবহার করেছে।

(৯) খুবই স্বল্প কিছু রিয়েল ইউজার ছাড়া অধিকাংশই উপরের কাজগুলোর কোনো একটি কখনো না কখনো অবশ্যই করেছে যার রেকর্ড অবশ্যই একাউন্টের অধীনে সার্ভারে জমা থাকে।

এতসব কিছুর পরে নেটেলার-স্ক্রিলকে দোষ দেয়ার কোনো কারণ থাকতে পারে না। ইদানিং নেটেলারের রিসেন্ট একাউন্ট সাসপেন্ড করার কারণে প্রচুর পরিমাণ লোকজন নেটেলারের ফেসবুক পেইজে গিয়ে তাদেরকে অশ্লীল ও অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করছে। এই বিষয়টিও নেটেলার মোটেও ভালোভাবে নেবে না।

Share this post


Link to post
Share on other sites


Join the conversation

You can post now and register later. If you have an account, sign in now to post with your account.

Guest
Reply to this topic...

×   Pasted as rich text.   Paste as plain text instead

  Only 75 emoji are allowed.

×   Your link has been automatically embedded.   Display as a link instead

×   Your previous content has been restored.   Clear editor

×   You cannot paste images directly. Upload or insert images from URL.

Loading...
Sign in to follow this  

বিডিপিপস চ্যাট রুম

বিডিপিপস চ্যাট রুম

    চ্যাট করতে লগিন বা রেজিস্ট্রেশন করুন।
    ×
    ×
    • Create New...