Jump to content
Sign in to follow this  
মার্কেট আপডেট

আজকের ফরেক্স নিয়ে যত কথা

Recommended Posts

Fearful Fed

যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভ ইন্টারেস্ট রেট অপরিবর্তনীয় রেখেছে।ফেডারেল রিজার্ভের চেয়ারম্যান জেরেমি পাওয়েল বলেন, জুনের মাঝামাঝি থেকে দেশটিতে করোনাভাইরাসের প্রবণতা লক্ষ করা যাচ্ছে।

পরবর্তীতে ফেডারেল রিজার্ভের এস্টেটমেন্টে বলা হয়,যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইসের প্রবণতা লক্ষ্য করে ব্যাংক ইন্টারেস্ট রেট ০.২৫% অপরিবর্তনীয় রেখেছে।এমন বক্তব্যকে কেন্দ্র করে গতকাল EURUSD ১.১৮ এবং GBPUSD ১.৩০ প্রাইস অতিক্রম করেছিল।

Untitled-1-Recovered.pdf1.jpg

US coronavirus deaths

করোনাভাইরাস দেশটির ইকোনমিকে ব্যাপক হারে প্রভাবিত করেছে। বর্তমানে দেশটিতে মৃতের সংখ্যা ১ লক্ষ ৫০ হাজার ছাড়িয়েছে। গতকালও দেশটিতে ১,৪০০ লোকের মৃত্যু হয়েছে এবং ৭০ হাজার লোক নতুন করে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে।

Fiscal Stimulus

রাজস্ব উদ্দীপণাকে কেন্দ্র করে ডেমোক্র্যাট এবং রিপাবলিকান কোন দল চুড়ান্ত সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে সক্ষম হয়নি। তবে সিনেটের অধিকাংশ নেতারা প্রত্যাশা করছেন, শুক্রবার দলগুলো একটি সমঝোতায় ফিরে আসবে।

US GDP

যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসের শুরু থেকে দেশটিতে বেকারত্বের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। প্রত্যাশা করা হচ্ছে, আজকের রিপোর্টও ব্যতিক্রম হবে না। এছাড়াও আজকের গুরুত্বপূর্ণ ইভেন্টগুলোর মধ্যে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের জিডিপি রিপোর্ট। ১ম প্রান্তীকে দেশটিতে জিডিপি ৫ শতাংশ কমেছিল। প্রত্যাশা করা হচ্ছে, ২য় প্রান্তীকে ৩৪ দশমিক ১ শতাংশ কমতে পালে।যা মার্কিন ডলারের উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে।

Untitled-1-Recovered.jpg

Germany also reports its GDP

ইউরোজোনের বৃহত্তম ইকোনমিক দেশ জার্মানের জিডিপি ইউরোর উপর সাধারণত বেশ ভালভাবেই প্রভাব ফেলে থাকে।১ম প্রান্তীকে দেশটিতে জিডিপি ২ দশমিক ২ শতাংশ কমেছিল। প্রত্যাশা হচ্ছে, আজকের রিপোর্টে (২য় প্রান্তীক ) ৯ শতাংশ কমতে পারে।

Gold

ফেড ডিসিশনকে কেন্দ্র করে গোল্ডের প্রাইস বাড়লেও বর্তমানে ১,৯৬০ মার্কিন ডলারের কাছাকাছি ট্রেড করছে।বিনিয়োগকারীরা গোল্ডের প্রাইস বেড়ে ২,০০০ ডলারের অপেক্ষা করছেন। প্রত্যাশা করা হচ্ছে, গোল্ড ২,০০০ প্রাইসে আসলে আপট্রেন্ড পুনরায় শক্তিশালী হতে পারে।

Untitled-1-Recovered.pdf2.jpg

EURUSD

ইউরোর জিডিপি রিপোর্টকে কেন্দ্র করে ইতোমধ্যে EURUSD পেয়ারটির প্রাইস কমতে শুরু করেছে।প্রত্যাশা করা হচ্ছে,পেয়ারটি ১.১৭ প্রাইসে আসতে পারে। তবে রিপোর্টের পরবর্তীতে পেয়ারটির আপট্রেন্ড পুনরায় শক্তিশালী হতে পারে।

GBPUSD

ফেড ডিসিশনকে কেন্দ্র করে গতাকাল পেয়ারটি ১.৩০ প্রাইসে উঠেছিল। বর্তমানে পেয়ারটির প্রাইস কমে ১.২৯৫০ কাছাকাছি অবস্থান করছে। আজকের সেশনে মার্কিন ডলারের দুর্বলতা ছাড়াও ব্রিটিশ করোনাভাইরাস আপডেট পেয়ারটিকে প্রভাবিত করার সম্ভাবনা রয়েছে।

Untitled-1-Recovered.pdf3.jpg

AUDUSD

অস্টেলিয়ার ইকোনমিও কোভিড-১৯ সংস্পর্শে স্থবিরতার মধ্যে রয়েছে।অস্টেলিয়ার ভিক্টোরিয়া ছাড়াও আরও বেশ কিছু অঞ্চলে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। এর ফলে জুন মাসে অস্টেলিয়ায় বিল্ডিং অনুমোধন ৪ দশমিক ৯ শতাংশ কমেছিল।

USDJPY

ইয়েনের বিপরীতে মার্কিন ডলারের প্রাইস বাড়তে শুরু করেছে। জাপানের রাজধানী টোকিওতে করোনা সংক্রামণ বৃদ্ধি পাওয়ায় টোকিওর গর্ভনর দেশটিতে নতুন করে কিছু বিধিনিষেধ আরোপ করতে যাচ্ছেঅ

Share this post


Link to post
Share on other sites

Join the conversation

You can post now and register later. If you have an account, sign in now to post with your account.

Guest
Reply to this topic...

×   Pasted as rich text.   Paste as plain text instead

  Only 75 emoji are allowed.

×   Your link has been automatically embedded.   Display as a link instead

×   Your previous content has been restored.   Clear editor

×   You cannot paste images directly. Upload or insert images from URL.

Loading...
Sign in to follow this  

×
×
  • Create New...