Jump to content
Sign in to follow this  
মার্কেট আপডেট

সাপ্তাহিক GBPUSD ফরেক্স মার্কেট আপডেট (২৭-৩১জুলাই,২০২০)

Recommended Posts

GBPUSD পেয়ারটি পাঁচ সপ্তাহের মতো আপট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে। এ সপ্তাহে GBPUSD পেয়ারটির উপর প্রভাব বিস্তার করার মতো চারটি ইভেন্ট লক্ষণীয়।এখানে এ সপ্তাহের মার্কেট আউটলুক এবং GBPUSD টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস আলোচনা করা হলো।

জুলাই মাসে ব্রিটিশ ফ্যাক্টরি অর্ডার-৪৬ পয়েন্ট কমেছে।যা গত মাসের -৫৮ পয়েন্টের তুলনায় কিছুটা ভাল ছিল।রিটেইল সেলস ১২.০% থেকে ১৩.৯% বেড়েছে।মেনুফেকচারিং এবং সার্ভিস পিএমআই বৃদ্ধি পেয়ে যথাক্রমে ৫৩.৬ ও ৫৬.৬ পয়েন্ট এসেছে।

gbpusd (1).jpg

যুক্তরাষ্ট্রের সাপ্তাহিক বেকারত্ব রিপোর্ট পর্যালোচনা করলে দেখা যাচ্ছে,গত সপ্তাহে ১.৪১ মিলিয়ন লোক বেকার হয়েছে। যা পূর্বের সপ্তাহের ১.৩০ মিলিয়নের বেশি ছিল।যদিও বিশেষজ্ঞদের প্রত্যাশা ছিল, ১.৩ মিলিয়ন আসবে।মার্কিন মেনুফেকচারিং পিএমআই গত চার মাস ৫০ পয়েন্টের নিচে ছিল। তবে সেক্টরটি ঊর্ধ্বমূখী অবস্থান অব্যাহত রেখেছে।জুনে পিএমআই ৩৯.০ থেকে বেড়ে ৪৯.৬ পয়েন্ট এসেছিল।জুলাইতে প্রত্যাশিত ৫২.০ পয়েন্টের সামান্য নিচে ৫১.৩ পয়েন্ট এসেছে।

১.CBI Realized Sales

মঙ্গলবার,বিকাল ০৪:০০।জুন মাসে সেলস বলিউম-৫০ থেকে কমে-৩৭ পয়েন্ট এসেছিল।প্রত্যাশা করা হচ্ছে,জুলাইয়ে -২৭ পয়েন্ট আসতে পারে।

২.BRC Shop Price Index

মঙ্গলবার,ভোর ০৪:০০। ১৩ মাস সেক্টরটি ডাউনট্রেন্ডে রয়েছে।প্রত্যাশা করা হচ্ছে,জুনে ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত রেখে -১.৬% আসতে পারে।  

৩.Net Lending to Individuals

বুধবার,দুপুর ০২:৩০।গত দুমাস ভোক্তাদের ব্যয় এবং কনফিডেন্স সেক্টর বেশ নিচু লেভেলে রয়েছে।মে মাসে ভোক্তাদের লোন ৩.৪ বিলিয়ন পাউন্ডের মতো কমেছে। যা  প্রত্যাশিত -৪.০ বিলিয়নের কাছাকাছি ছিল।প্রত্যাশা করা হচ্ছে,জুনে সামান্য কমতে পারে। যা আনুমানিক -০.৪ বিলিয়ন হতে পারে।

৪.Gfk Consumer Confidence

বৃহস্পতিবার,ভোর ০৪:০১। ব্রিটিশ কনজিউমার কনফিডেন্স নেতিবাচক অবস্থানে রয়েছে।গত দুমাস সেক্টরটিতে -২৭ পয়েন্ট করে কমেছিল।প্রত্যাশা করা হচ্ছে, এবারও ব্যতিক্রম হবে না।

GBPUSD প্রতিদিনের রেজিস্ট্যান্স এবং সাপোর্ট লাইনগুলো দেওয়া হলো

GBPUSD_-Forecast-Jul27-31_2020-1-1024x548.png

GBPUSD টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস

আমরা ১.৩০৫০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল থেকে শুরু করছি। মার্চের মাঝামাঝিতে ১.২৯০৫ রেজিস্ট্যান্স হিসেবে কাজ করেছিল।পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স ছিল ১.২৮৫০।

গত সপ্তাহে ১.২৭১৮ সাপোর্ট হিসেবে কাজ করেছিল।পেয়ারটির পরবর্তী সাপোর্ট হতে পারে ১.২৬১৬।পেয়ারটির পরবর্তীতে ১.২৫৪০ এবং ১.২৪০৩ সাপোর্ট লেভেলের দিকে ধাবিত হতে পারে।

শেষ কথা

ফরেক্স বিশেষজ্ঞদের মতে, এ সপ্তাহে GBPUSD পেয়ারটির প্রাইস কমার সম্ভাবনা রয়েছে।

ব্রিটিশ ইকোনমি তেমন ভাল অবস্থানে নেই। তবে মার্কিন ডলারের দুর্বলতার কারণে পেয়ারটি আপট্রেন্ড অব্যাহত রেখেছে। ইতিমধ্যে যুক্তরাষ্ট্র বেশ কয়েকটি অঞ্চল করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করছে। দেশটি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম না হলে।পাউন্ডর ঊর্ধ্বমূখী অব্যাহত রাখতে পারে।

Share this post


Link to post
Share on other sites

Join the conversation

You can post now and register later. If you have an account, sign in now to post with your account.

Guest
Reply to this topic...

×   Pasted as rich text.   Paste as plain text instead

  Only 75 emoji are allowed.

×   Your link has been automatically embedded.   Display as a link instead

×   Your previous content has been restored.   Clear editor

×   You cannot paste images directly. Upload or insert images from URL.

Loading...
Sign in to follow this  

×
×
  • Create New...