Jump to content
  • Similar Content

    • By masteroffx2018
      আসুন আজ আমরা জেনে এই এমন একজন কিংবদন্তী ফরেক্স ট্রেডারের সম্পর্কে, যাকে বলা হয়, “ দ্য ম্যান, যিনি ব্যাংক অব ইংল্যান্ডকে ভেঙ্গে দিয়েছেন!”
       

       
      শান্তির এই পৃথিবীতে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ চলছে।চারিদিকে হামলা আর হামলা। ভেঙ্গে পড়েছে ইতালী ও জাপানের শাসন ব্যবস্থা। এদিকে হিটলার তার ক্ষমতা টিকিয়ে রাখতে শুরু করেছেন ইহুদী হত্যা। হাঙ্গেরি নামের একতি রাজ্য ছিল সেই সময় জার্মানির দখলে। আজ যা স্বাধীন হাঙ্গেরি দেশ নামে পরিচিত।
      সেসময়ের এই হাঙ্গেরী রাজ্য থেকে হিটলারের হামলার খবর পেয়ে প্রান বাচাতে নিজের দেশ ত্যাগ করলেন ছোট্ট এক বালক তার বাবাকে সাথে নিয়ে।তাদের ভয়, তারা ইহুদী। হিটলারের নাৎসি বাহিনী যদি তাদের খবর পেয়ে যায়, তবে তাদেরকেও মেরে ফেলবে!
      দীর্ঘদিন পালিয়ে বেরিয়ে, একবেলা খেয়ে না খেয়ে অবশেষে ইমিগ্রেশন নেন ইংল্যান্ডে।
      এদিকে ২য় বিশ্বযুদ্ধ শেষ হয়ে যায়। হিটলারের শাসনেরও পতন হয়। এই বালক ও তার পরিবার আর নিজের দেশে ফিরে যান না। থেকে যান ইংল্যান্ডেই। শুরু করেন পড়াশোনা। গ্রাজুয়েশন ও পোস্ট গ্রাজুয়েশন করেন ইংল্যান্ড থেকেই ফিলসফি বিষয়ের উপরে।
      এরপর নেমে পড়েন কারেন্সী লেনদেনের ব্যবসায়।
       
      নানান চড়াই উতরাই পার হয়ে আসা এই মানুষটি আলোচনায় আসেন ১৯৯২ সালে। ১৬ সেপ্টেম্বর, ১৯৯২ সালে UK Currency Crisis নিউজের উপর ফান্ডামেন্টালি এনালাইসিস করে তিনি GBP কারেন্সীর উপরের সেল ট্রেড নিয়েছিলেন এবং এই ট্রেডে তিনি ১ বিলিয়নেরও বেশি প্রফিট করে ফেলেন। যে দিনটিকে ফরেক্স এর ইতিহাসে Black Wednesday বলা হয়। আর এই মানুষটি হয়ে যান ফরেক্স এর ইতিহাসে এক অনন্য ব্যক্তিত্ব।
      মুলত তার এই ট্রেড ফরওয়ার্ড করা হয়েছিল খোদ The Bank of England এর ফান্ডে। অর্থাৎ এখানে লিকুইডিটি প্রোভাইডার হিসেবে ছিলেন এই ব্যাংকে। সুতরাং প্রফিতের পুর অর্থ এই ব্যাংককে দিতে হয়েছিল।
       
      এই ব্যক্তির নাম “জর্জ সরোস’। জর্জ সরোসের এই বিপুল পরিমানের প্রফিটের ফলে গোটা ব্যাংকিং সিস্টেম হতবাক ও থমকে গেছিল।
      এরপর থেকে জর্জ সরোসকে বলা হয়, “The Man, Who broke The bank of England”। স্বভাবতই তিনি তাইই করেছিলেন।
       
      জর্জ সরোস বর্তমানে ‘দ্য কোয়ান্টাম এন্ডোমেন্ট ফান্ড’ নামের ফান্ড ম্যানেজমেন্ট প্রতিষ্ঠানের কো-ফাউন্ডার ও ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত আছেন। তার প্রতিষ্ঠানটি বর্তমানে ২৭ বিলিয়নেরও বেশি ফান্ড নিয়ে ট্রেড করে যাচ্ছে। তিনি ও তার প্রতিষ্ঠানটি ফান্ডামেন্টাল এনালাইসিসের সাহায্য নিয়ে মুলত প্রাইস একশন ফলো করে ট্রেড করে থাকেন।
       
      আপনি যদি ফরেক্স ট্রেডার হয়ে থাকেন, তবে আপনার নিজের ট্রেডিং পেশার এসকল সফল ও কিংবদন্তী মানুষদের ব্যাপারে আপনার পরিস্কার ধারনা থাকা উচিত। তবেই আপনিও তাদের দেখানো পথ অনুসরন করতে শিখবেন। অন্যথায় পাল বিহীন ও মাঝিবিহীন নৌকা হয়ে মাঝ দরিয়ায় (ফরেক্স মার্কেট) হাবুডুবু খেয়েই যাবেন অনবরত। যতদিন না আপনার সর্ব শেষ শক্তিটুকুও (একাউন্ট ব্যালান্স) একেবারে শেষ না হচ্ছে!!
       
      সবার জন্য শুভকামনা রইল।
      অনেক অনেক ভাল থাকবেন সবাই <3 <3 <3
    • By masteroffx2018
      #EURCHF H4 টাইমফ্রেমের চার্টের দিকে লক্ষ্য করুন, এটিকে কি প্যাটার্ন বলবেন আপনি? কাপ প্যাটার্ন? বা বাংলা যাকে বলে পাত্র প্যাটার্ন? পাত্রের জল এবার ঢেলে পড়ার মুহুর্তে? মার্কেট এবার নিচে নামতে পারে পাত্রের জল যেভাবে পড়ে থাকে!!   তবে অন্যদিকে ফরেক্সের ভাষায় বলতে গেলে, একটি সুন্দর ও পরিস্কার ডাউনট্রেন্ডের টাচিং পয়েন্টে রয়েছে মার্কেট এই মুহুর্তে। কনফার্মেশন পেলেই সেল এন্ট্রি নেওয়া যেতে পারে। আপনার এনালাইসিস কি বলছে? আপনার এনালাইসিসও যদি আমার সাথে মিলে যায় তবে ট্রেড একটা নিতেই পারেন। আপনার জন্য শুভকামনা রইল।   Trade with Trusted & True ECN broker: 
    • By masteroffx2018
      প্রথমেই আপনার ধৈর্য্যের প্রমাণ দিবেন লেখাটি মনোযোগ দিয়ে পড়ার মাধ্যমে। কারন ফরেক্স করতে ধৈর্য্যের কোন বিকল্প নেই। আসুন একটি খুবই সিম্পল ট্রেডিং স্ট্রাটেজী শিখুন। বিশেষতঃ যারা একেবারে নতুন, বা যারা একটা সহজ ট্রেডিং সিস্টেম খুঁজছেন তাদের জন্য এই পোস্ট।এই সিস্টেমটি আমার নিজের দ্বারা নির্ধারিত+পরিক্ষিত ও এখনও চর্চাকৃত।
      বি;দ্রঃ যারা দৈনিক ৫-১০ টি করে ট্রেড ওপেন না করলে শান্তি পান না, মাসের বা দুই/তিন মাসে ব্যালান্স ডাবল না করতে পারলে শান্তি পাননা, তারা এই পোস্ট পড়বেন না। তাদের জন্য এই পোস্ট না। যারা কর্পোরেট ট্রেডিং সিস্টেমে ট্রেড করতে আগ্রহী এবং সত্যিকারের ব্যবসায়ি হিসেবেই ফরেক্স এ ট্রেড করে মাসে ৭-৮% প্রফিট করতে চান নিয়মিতভাবে, তাদের জন্যই আজকের এই পোস্ট।
      তাহলে কথা আর না বাড়িয়ে চলুন শিখে নেওয়া যাকঃ
      - পেয়ারঃ GBPUSD
      - টাইমফ্রেমঃ ৪ ঘন্টা
      - প্রফিট রেশিওঃ প্রতি ট্রেডে লসের চেয়ে ৩ গুন বেশি প্রফিট। রেশিও- একঃতিন।
      - প্রফিট টার্গেটঃ বছরে ১০০০+ পিপ্স মোটামুটি নিশ্চিত প্রফিট। 
      - মুভিং এভারেজঃ sma 21
      - সিগনালঃ প্রতি সপ্তাহে ১ টি করে(সম্ভাব্য)
      - ব্রোকারঃ যে কোন ভাল ব্রোকার। তবে বেস্ট সাপোর্ট এর জন্য আমাকে জানাতে পারেন কারন ব্রোকারভেদে ক্যান্ডেল এর ওপেন ও ক্লোজ এর প্রাইস ভিন্ন ভিন্ন হয় ৪ ঘন্টার টাইমফ্রেমে ব্রোকারের ক্যান্ডেল চার্ট ওপেনিং টাইমের ভিন্নতার জন্য।
      - সিস্টেমঃ ফ্রেশ চার্ট ব্যবহার করবেন। কোন হাজিবাজি ইন্ডিকেটর নেবার দরকার নেই। এবার ডিফল্ট ইন্ডিকেটর থেকে হালকাভাবে ট্রেন্ড বোঝার জন্য সিম্পল মুভিং এভারেজ সিলেক্ট করে তার লেভেল ২১ সেট করে নিন। 
      এবার সাপ্তাহিক বিরতির পর যখন মার্কেট ওপেন হবে, প্রথম ৪ ঘন্টা পর যে ক্যান্ডেল তৈরি হবে h4 টাইমফ্রেমে, সেই ক্যান্ডেলের প্রতি গুরুত্ব দিন ভাল করে। সেই ক্যান্ডেলটির ওপেন ও ক্লোজ হওয়া প্রাইস বের করে ক্যান্ডেলটির উপরে ও নিচের লেভেল চিহ্নিত করুন। নিচের ছবিতে লক্ষ্য করলে আরও পরিস্কার হবেন বিষয়টা। 
      এবার লক্ষ্য করুন, সেই ক্যান্ডেলটি মুভিং এভারেজের উপরে আছে নাকি নিচে আছে। যদি উপরে থাকে তবে মোটামুটিভাবে বলা যায় যে মার্কেট আপট্রেন্ড অবস্থায় আছে। সুতরাং সেক্ষেত্রে সেই ক্যান্ডেলের উপরের লেভেল হতে ৫ পিপ্স উপরে পেন্ডিং বাই অর্ডার ওপেন করবেন। অথবা অপেক্ষায় থাকবেন যে, কখন মার্কেট সেই ক্যান্ডেলের উপরের লেভেলের ৫ পিপ্স উপরের প্রাইসকে ক্রস করে ফেলে। সেই মুহুর্তেই বাই অর্ডার ওপেন করুন। এখন প্রথমেই স্টপ লস বের করুন। স্টপ লস হবে সেই ক্যান্ডেলের নিচের লেভেল হতে ৫ পিপ্স নিচে। এবার টেক প্রফিট দেবার পালা। স্টপ লস যত পিপ্স দিয়েছেন, তার ৩ গুন পিপ্স টেক প্রফিট হিসেবে সেট করে নিন। ব্যস, এবার গোটা সপ্তাহের জন্য এই ট্রেডকে ভুলে যান।
      ঠিক একইভাবে সেই ক্যান্ডেল যদি মুভিং এভারেজের নিচে থাকে তবে বুঝতে হবে মার্কেট মোটামুটি ডাউনট্রেন্ড অবস্থায় আছে। সেক্ষেত্রে সেল ট্রেড ওপেন করার জন্য প্রস্তত হোন। ক্যান্ডেলের নিচের লেভেল হতে আরও ৫ পিপ্স নিচে মার্কেট গেলে তবে সেল ট্রেড ওপেন করে ফেলুন। ক্যান্ডেলটির উপরের লেভেল হতে ৫ পিপ্স উপরে স্টপ লস সেট করে নিন।আর স্টপ লসের ৩ গুন পিপ্স হিসেব করে বের করে টেক প্রফিট হিসেবে সেট করে দিন। এবার গোটা সপ্তাহের জন্য ভুলে যান ট্রেডের কথা।
      - আরও পরিস্কার বোঝার জন্য দুটি ছবি এটাচ করে দিলাম লাইভ মার্কেট থেকে নিয়ে। ভালভাবে দেখে নিবেন, তাহলে পরিস্কার বুঝতে পারবেন এই স্ট্রাটেজী সম্পর্কে।
      ১)

      ২)

      - অনেকে বলবেন, বছরে ১০০০+ পিপ্স??? এতো কম!!! আমি বলব, জ্বি দাদা, এটাই প্রকৃত ব্যবসা। আপনি কর্পোরেট ব্যবসায়ী হবেন নাকি খুচরা ব্যবসায়ী হবেন নিজেই ঠিক করে নিন। কর্পরেট ব্যবসায়ী মাসে ৩-৪ টা সেল করে যা প্রফিট করে, খুচরা ব্যবসায়ীরা দৈনিক ৩০-৪০ তা সেল করেও তার কাছাকাছি প্রফিট করতে পারে না। এবার আপনি ঠিক করে নেবেন যে, আপনি কোন ক্যাটাগরীর ট্রেডার হবে।
      আপনার ব্যালান্স অনুযায়ী প্রতি ১০০০ ডলারে যদি ০.১০ লট সাইজ ব্যবহার করেন, তবে বছরে ১০০০+ ডলার প্রফিট করবেন আপনি। সেই হিসেবে ৮৪ ডলারের মত প্রফিট পাবেন প্রতি মাসে, নিশ্চিন্তে ও চিন্তামুক্ত থেকে।
      এবার আপনি আপনার সক্ষমতার উপর ভিত্তি করে শুরু করুন আপনার কর্পোরেট ট্রেডিং।
      সরাসরি আমাদের সাপোর্ট পেতে ও আপনার ট্রেডকে সত্যিকারের প্রফিটেবল করতে আমাদের জানাতে পারেন।
      ধন্যবাদ আপনাদের সবাইকে। 
       
      Trade with true ECN broker: 
       
    • By Faisomelo
      XM Ultra Low অ্যাকাউন্ট - https://www.xm.com/bn/account-types

বিডিপিপস কি এবং কেন?

বিডিপিপস বাংলাদেশের সর্বপ্রথম অনলাইন ফরেক্স কমিউনিটি এবং বাংলা ফরেক্স স্কুল। প্রথমেই বলে রাখা জরুরি, বিডিপিপস কাউকে ফরেক্স ট্রেডিংয়ে অনুপ্রাণিত করে না। যারা বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, শুধুমাত্র তাদের জন্যই বিডিপিপস একটি আলোচনা এবং অ্যানালাইসিস পোর্টাল। ফরেক্স ট্রেডিং একটি ব্যবসা এবং উচ্চ লিভারেজ নিয়ে ট্রেড করলে তাতে যথেষ্ট ঝুকি রয়েছে। যারা ফরেক্স ট্রেডিংয়ের যাবতীয় ঝুকি সম্পর্কে সচেতন এবং বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, বিডিপিপস শুধুমাত্র তাদের ফরেক্স শেখা এবং উন্নত ট্রেডিংয়ের জন্য সহযোগিতা প্রদান করার চেষ্টা করে।

×