Jump to content
Sign in to follow this  
ফরেক্স প্রতিদিন

চলতি সপ্তাহের USD/CAD ফরেক্স মার্কেট আাপডেট ( ১৫ থেকে ১৯ এপ্রিল )

Recommended Posts

গত সপ্তাহে মার্কিন ডলার/কানাডিয়ান ডলারের প্রাইস কিছুটা কমেছিল। এ সপ্তাহের মূল ইভেন্টগুলো হলো: মেনুফেকচারিং সেলস, কনজিউমার মুদ্রাস্ফীতি ( Inflation ) এবং রিটেইল সেলস। এখানে এ সপ্তাহের মার্কেট আউটলুক এবং মার্কিন ডলার/কানাডিয়ান ডলারের টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস আলোচনা করা হলো।

গত সপ্তাহে কানাডার প্রধান কোন ইভেন্ট ছিল না। মার্চ মাসে যুক্তরাষ্ট্রের মুদ্রাস্ফীতি ( Inflation ) কিছুটা ভাল অবস্থানে রয়েছিল।  কানাডায় সিপিআিই ( CPI ) শতকরা ০.৪ পার্সেন্ট বেড়েছিল। এটা ২০১৮ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত সর্বোচ্চ লেভেল। প্রডিউসার প্রাইস ইনডেক্স রিপোর্ট বেশ শক্তিশালী অবস্থানে রয়েছে। এটা শতকরা ০.৬ পার্সেন্ট বেড়েছে।  গত পাঁচ মাসের মধ্যে এটা সর্বোচ্চ।

এখানে প্রতিদিনের সাপোর্ট এবং রেজিস্ট্যান্স লাইনগুলো দেওয়া হলো:

5cb2d94cf2bd4_download(1).thumb.png.8c7d4c9bdb5d08512caf626681609945.png

১.BOC Business Outlook Survery

সোমবার বিকাল ০৪:৩০। ব্যাংক অফ কানাডার কোয়াটারলি রিপোর্ট ফরেক্স মার্কেটে বেশ গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব বিস্তার করে। অটোয়া ভিত্তিক প্রতিষ্ঠানগুলোর মতে এ বারের মনেটারী পলিসিতে পরিবর্তন আসতে পারে। ব্যাংক অফ কানাডা Dovish সিদ্ধান্ত নিতে পারে। তাই বিনিয়োগকারীরা পরবর্তী রেট সিদ্ধান্তের উপর বেশ ভালভাবে নজর রাখবেন।

২.Manufacturing Sales

মঙ্গলবার ‍দুপুর ০২:৩০।  যুক্তরাষ্ট্র এবং চীনের বানিজ্য যুদ্ধের প্রভাব কানাডার মেনুফেকচারিং সেক্টরের উপর প্রভাব ফেলেছে। জানুয়ারি  মাসে মেনুফেকচারিং সেক্টরে শতকরা ১.০ পার্সেন্ট বৃদ্ধি পেয়েছিল, তারপর ধারাবাহিকভাবে তিন বার বেশ খারাপ পয়েন্ট এসেছে।

৩.OPEC Meeting

লিবিয়া এবং ভেনিজুয়েলায় বেসামরিক অস্থিরতা বিরাজ করার সময় ওপেকের মিটিংয়ে তেলের দাম বাড়ানো হয়েছিল।  তাই ওপেক প্রত্যাশা করছে তেল সরবরাহ কমে যেতে পারে। আর যদি এ অবস্থা চলতে থাকে তাহলে কানাডিয়ান ডলারের প্রাইস বাড়তে পারে।

৪.Inflation

বুধবার বিকাল ০২:৩০। জানুয়ারি মাসে সিপিআই ( CPI ) হঠাৎ করে শতকরা ০.১ পার্সেন্ট কমার পরে, ফেব্রুয়ারীতে  শতকরা ০.৭ পার্সেন্ট বেড়েছিল। কোর সিপিআই ও ফেব্রুয়ারীতে শতকরা ০.৭ পার্সেন্টের মতো বেড়েছিল।

৫.Trade Balance

বুধবার দুপুর ০২:৩০। বৈশ্বিক বানিজ্য ‍যুদ্ধ কানাডার রপ্তানি সেক্টরের উপর প্রভাব ফেলেছে। যার ফলে এ মাসে কানাডার ট্রেড সেক্টরে ঘাটতি পরিলক্ষিত হচ্ছে। জানুয়ারি মাসে ট্রেড সেক্টরে ৪.২ বিলিয়ন কানাডিয়ান ডলারের ঘাটতি হয়। এটা তাদের ধারণা ৩.৫ বিলিয়ন ডলারের অধিক।

৬.Retail Sales

বৃহস্পতিবার দুপুর ০২:৩০। গত দুইবার কোর রিটেইল সেলস খারাপ আসার পরে, জানুয়ারিতে শতকরা ০.১ পার্সেন্ট বেড়েছিল। রিটেইল সেলস সেক্টরে ‍ধারাবাহিকভাবে তিনবার পতন আসে। তবে ফেব্রুয়ারীতে কি আমরা কিছুটা উন্নতি দেখতে পারবো?

USD/CAD টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস

টেকনিক্যাল লাইনগুলো উপর থেকে নিচে দেওয়া হলো:

আমরা ১.৩৭৫৭ প্রাইস থেকে শুরু করছি। এটা ২০১৭ সালের মে মাসে একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রাইস ছিল।

ডিসেম্বরে মার্কিন ডলার/কানাডিয়ান ডলারের সর্বোচ্চ প্রাইস ছিল ১.৩৬৬০।

২০১৭ সালের জুন মাসে ১.৩৫৪৭ সর্বোচ্চ প্রাইস ছিল। ডিসেম্বরের শুরুর দিকে পরবর্তী সর্বোচ্চ প্রাইস ছিল ১.৩৪৪৫ এবং পরবর্তী প্রাইস ছিল ১.৩৩৮৫।

গত সপ্তাহে ১.৩৩৫০ একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রাইস ছিল। ( গত সপ্তাহে উল্লেখিত )

নভেম্বরের মাঝামাঝিতে ১.৩২৬৫ সর্বোচ্চ প্রাইস ছিল। মার্চের শুরুর দিকে ১.৩২২৫ একটি সাপোর্ট লেভেল হিসেবে কাজ করেছিল।

নভেম্বরের শেষের দিকে সর্বনিন্ম প্রাইস ছিল ১.৩১৭৫।

এ মাসের ‍শুরুর দিকে ১.৩১২৫ সর্বনিন্ম প্রাইস ছিল।

নভেম্বরের শুরুর দিকে ১.৩০৪৮ একটি গুরুত্বপূর্ণ সাপোর্ট লেভেল হিসেবে কাজ করেছিল।

১.৩০০০ লেভেলের ঠিক নিচের দিকে ১.২৯৭০ একটি গুরুত্বপূর্ণ রাউন্ড নাম্বার ছিল। এ লেভেলটি অক্টোবরের শেষ পর্যন্ত কাজ করেছিল।

নভেম্বরের মাঝামাঝিতে ১.২৯১৫ একটি গুরুত্বপূর্ণ সাপোর্ট লেভেল ছিল। বর্তমান সাপোর্ট লেভেলও এটা।

শেষ কথা

আমরা ধারণা করছি মার্কিন ডলার/কানাডিয়ান ডলার নিরপেক্ষ অবস্থানে থাকবে।

কানাডিয়ান ইকোনমি তেমন শক্তিশালী অবস্থানে নেই, যদিও তেলের প্রাইস কানাডিয়ান ডলারকে কিছুটা সমর্থন করবে। ব্যাংক অফ কানাডা এবং ফেডারেল রিজার্ভ উভয়ই Dovish অবস্থানে রয়েছে। তারা ২০১৯ সালে এখন পর্যন্ত ইন্টারেস্ট রেট বাড়াতে পারেনি।

Share this post


Link to post
Share on other sites

Create an account or sign in to comment

You need to be a member in order to leave a comment

Create an account

Sign up for a new account in our community. It's easy!

Register a new account

লগিন

Already have an account? Sign in here.

Sign In Now
Sign in to follow this  

বিডিপিপস কি এবং কেন?

বিডিপিপস বাংলাদেশের সর্বপ্রথম অনলাইন ফরেক্স কমিউনিটি এবং বাংলা ফরেক্স স্কুল। প্রথমেই বলে রাখা জরুরি, বিডিপিপস কাউকে ফরেক্স ট্রেডিংয়ে অনুপ্রাণিত করে না। যারা বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, শুধুমাত্র তাদের জন্যই বিডিপিপস একটি আলোচনা এবং অ্যানালাইসিস পোর্টাল। ফরেক্স ট্রেডিং একটি ব্যবসা এবং উচ্চ লিভারেজ নিয়ে ট্রেড করলে তাতে যথেষ্ট ঝুকি রয়েছে। যারা ফরেক্স ট্রেডিংয়ের যাবতীয় ঝুকি সম্পর্কে সচেতন এবং বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, বিডিপিপস শুধুমাত্র তাদের ফরেক্স শেখা এবং উন্নত ট্রেডিংয়ের জন্য সহযোগিতা প্রদান করার চেষ্টা করে।

×