Jump to content
Sign in to follow this  
ফরেক্স প্রতিদিন

চলতি সপ্তাহের USD/JPY ফরেক্স মার্কেট আপডেট ( ১১থেকে ১৫মার্চ)

Recommended Posts

গত সপ্তাহে ইউএসডি/ইয়েন পেয়ারটির প্রাইস রিভার্স করেছে, জানুয়ারি মাসের পর প্রথমবারের মত পেয়ারটির প্রাইস বেড়েছে। মূল ইভেন্ট হলো ব্যাংক অফ জাপান (BoJ) এবং বিনিয়োগকারীরা মোনিটারি পলিসি পরিবর্তনের দিকে নজর রাখবেন। ইউএসের মূল ইভেন্টগুলো রিটেইলস সেলস এবং কনসিউমার ইনফ্লেশন রিপোর্ট। এখানে এ সপ্তাহের মার্কেট আউটলুক এবং ডলার/ ইয়েনের টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস দেওয়া হলো।

জাপানি জিডিপি চতুর্থ কোয়াটারে রিবাউন্ড করেছে এবং জিডিপি ০.৫% বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে, তৃতীয় কোয়াটারে ০.৬% জিডিপি কমেছিল। ফেব্রুয়ারী মাসে ইউএসের নন ফার্ম পে রোলস রিপোর্টে প্রকাশ করেন, ১৮০ হাজার জবের পরিবর্তে মাত্র ২০ হাজার নতুন জব ক্ষেত্র তৈরি হয়েছে। আর এ খারাপ অবস্থা প্রকাশের পরে, শুক্রবার ইয়েনের প্রাইস বেড়েছিল।

ডলার/ইয়েনের টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস

২০১৭ সালের প্রথমার্ধে ১১৫.৫৫ সর্বচ্চ পয়েন্ট ছিল এবং অক্টোবরের শুরুর দিকে ১১৪.৬০ আপসাইড টার্গেট নির্ধারণ করা হয়।

নভেম্বরে ১১৪.২৫ সর্বচ্চ প্রাইস ছিল এবং ১১৪ একটি রাউন্ড নাম্বার ছিল। নভেম্বরে ১১৩.৮০ একটি গুরুত্বপূর্ণ রেজিস্ট্যান্স লাইন ছিল।

জুলাই মাসের পূর্বে ১১৩.১৫ সর্বচ্চ প্রাইস ছিল। ডিসেম্বরের শুরুর দিকে ১১২.২৫ একটি গুরুত্বপূর্ণ সাপোর্ট লেভেল হিসেবে কাজ করে ছিল এবং ১১২ আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ লেভেল ছিল।

অক্টোবরে ১১২.৭৩ আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ রেজিস্ট্যান্স লাইন ছিল।

ডিসেম্বরের শুরুর দিকে ১১২.২৫ আরেকটি সাপোর্ট লেভেল ছিল এবং ১১২ গুরত্বপূর্ণ একটি প্রাইস ছিল।

১১১.১৫ সপ্তাহব্যাপী একটি গুরুত্বপূর্ণ সাপোর্ট লেভেল হিসেবে কাজ করেছে, তবে পেয়ারটি শুক্রবারে ব্রেক হয়।

জুলাইয়ের মাঝামাঝিতে ১০৯.৩৫ একটি গুরুত্বপূর্ণ লেভেল ছিল।

গ্রীষ্মকালের শুরুর দিকে ১০৮.৭০ গুরুত্বপূর্ণ লেভেল ছিল এবং মে মাসের ১০৮.১০ লো পয়েন্ট ছিল।

ডলার /ইয়েনের প্রতিদিনের সাপোর্ট এবং রেজিস্ট্যান্স লাইন দেওয়া হলো:

5c863f5502199_download(4).thumb.png.f37b8544c7ed8528b96eeccdc8a0f906.png

 

সমাপনী মন্তব্য

আমরা ধারণা করছি ডলার/ইয়েন পেয়ারটির প্রাইস কমবে।

ইউএস এবং চীনের ঝুঁকিপূর্ণ সেন্টিমেন্ট বৃদ্ধির কারণে, বিনিয়োগকারীরা ইয়েনকে নিরাপদ কারেন্সি হিসেবে পছন্দ করতে পারে। ব্যাংক অফ জাপান ইন্টারেস্ট রেট পরিবর্তন করতে পারে । আর এটা নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে। এছাড়াও, চীনের চলমান অর্থনৈতিক ধীরতা জাপানি অর্থনীতিতে প্রভাব ফেলবে, কারণ চীন এবং জাপান পরস্পর ট্রেডিং পার্টনার।

 

Share this post


Link to post
Share on other sites

Create an account or sign in to comment

You need to be a member in order to leave a comment

Create an account

Sign up for a new account in our community. It's easy!

Register a new account

লগিন

Already have an account? Sign in here.

Sign In Now
Sign in to follow this  

বিডিপিপস কি এবং কেন?

বিডিপিপস বাংলাদেশের সর্বপ্রথম অনলাইন ফরেক্স কমিউনিটি এবং বাংলা ফরেক্স স্কুল। প্রথমেই বলে রাখা জরুরি, বিডিপিপস কাউকে ফরেক্স ট্রেডিংয়ে অনুপ্রাণিত করে না। যারা বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, শুধুমাত্র তাদের জন্যই বিডিপিপস একটি আলোচনা এবং অ্যানালাইসিস পোর্টাল। ফরেক্স ট্রেডিং একটি ব্যবসা এবং উচ্চ লিভারেজ নিয়ে ট্রেড করলে তাতে যথেষ্ট ঝুকি রয়েছে। যারা ফরেক্স ট্রেডিংয়ের যাবতীয় ঝুকি সম্পর্কে সচেতন এবং বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, বিডিপিপস শুধুমাত্র তাদের ফরেক্স শেখা এবং উন্নত ট্রেডিংয়ের জন্য সহযোগিতা প্রদান করার চেষ্টা করে।

×