Jump to content
Sign in to follow this  
bmfxanalyst

আজকের ডলারের পতনের পিছনে কি কারন থাকতে পারে?? জেনে নিন এক্ষুনি!

Recommended Posts

আজ ডলারের নিম্নমুখী এক নাগাড়ে পতন শুরু হয়েছে যেন। কিন্ত কেন? এভাবে নিচের দিকে পড়ার মত কিছু কি ঘটেছে আমেরিকার বিশ্বে? মনে হয় না। 

আল কায়দা বিমান হামলাও করেনি, আইএস এর প্রধানকে আমেরিকার বন্ধু বলেও প্রমান করা যায়নি এখনও। সৌদী আরবও বলেনি যে আমেরিকার সাথে সকল লেনদেন বন্ধ!!

রাশিয়াও ক্ষেপনাস্ত্র হামলা চালায়নি এমনকি ইরানও পরমাণুর বোমা তাক করেনি!! ওদিকে উত্তর কোরিয়াও যথেষ্ট চুপ চাপ। তাহলে?

এসবের কোন কিছুই না হওয়া সত্ত্বেও কেন ডলার এই অধোঃপতন?? 

এবার আসি মুল বিষয়ে। ফরেক্স এর চার্ট বা বিভিন্ন ব্যাংকের রিপোর্টের বাইরে বিশ্বের অর্থবাজারের মুভমেন্টের জন্য আরেকটি বিশাল জায়গা রয়েছে, যার উপর ভিত্তি করে এমন বড় বড় মুল্যের উঠানামা হয়ে থাকে।
তার নাম রিউমার। বাংলায় যাকে বলব গুজব। 

হুজুগে শুধু বাঙালিই নয়। হুজুগে শব্দটার সাথে সারা বিশ্বের সকল জায়গার মানুষ জড়িত। সবাই গুজবে মাতে, সবাই চিলে কান নিয়েছে শুনে চিলের পিছনেই দোউড়ায়। কান কানের জায়গায় ঠিকঠাক আছে কিনা তা দেখারও প্রয়োজন পড়েনা। আর এই রিউমারের প্রভাব অর্থবাজারে বেশ জোড়েশোরেই পড়ে।

আজ ইউএস ডলারের উপর এমনই শনির দশা পড়েছে।

কারন, আজ সিরিয়ায় হামলা ইস্যুতে রাশিয়া ও আমেরিকা বেশ ভালভাবেই তর্কাতর্কি করেছে, আর বোঝাই যাচ্ছে তাতে রাশিয়ার যৌক্তিকতাই বেশি ছিল কারন সিরিয়ার আসাদ কিন্ত সিরিয়ান জনগনের গণভোটে নির্বাচিত ছিলেন। তাহলে নির্বাচিত এক সরকার প্রধানকে উতখাত করতে আমেরিকার এতো মাথাব্যাথা কেন?? এর আগে ইরাকে মিথ্যা রাসায়নিক অস্ত্রের অযুহাতে সাদ্দামকে ফাসী দিয়ে বেশ বড় ভুল করেছিল আমেরিকা, সেই উদাহরন টেনে এনে আমেরিকাকে তর্কাতর্কির সময় এক পর্যায়ে চুপ করিয়ে দিয়েছিলেন রাশিয়ান প্রতিনিধি। যদিও ইতোপুর্বে যুক্তরাজ্যে গুপচরকে নার্ভ গ্যাস প্রয়োগে হত্যার অভিযোগের ইস্যুতে রাশিয়া ও আমেরিকা যার যার দেশের ৫০ জনেরও বেশি জন করে কুটনৈতিককে দেশে পাঠিয়ে দেবার বিষয় তো ছিলই এখানে!! এতেই আমেরিকার আগ্রাসী ভুমিকায় যে বেশ বড় ধাক্কা লেগেছে তা বলাই যায়। 

trump-putin.jpg

এই আলোচিত ঘটনাকে ছাপিয়ে এবার রমরমে একটা বিষয় সামনে এসে দাড়িয়েছে আজ। তা হচ্ছে, আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এর চারিত্রিক সনদ নিয়ে কারও কোন মাথা ব্যাথা যদিও নেই, তবুও আজ এফবিআই এর বেশ কিছু সদস্য ট্রাম্প এর ব্যক্তিগত আইনজীবীর অফিসে ব্যাপক তল্লাসী চালিয়েছে। তারা নির্বাচন কালীন কোন এক পর্ন অভিনেত্রীর সাথে ইটিশ-পিটিশ করার কথা ধামাচাপা দিতে যে বেশ বড় অংকের টাকা দিয়েছিলেন, সেই সংক্রান্ত নথিপত্রও নাকি খুজে পেয়েছেন!!

অর্থাৎ ট্রাম্প সাহেব বেশ বড় ধরনের ঝামেলাতেই পড়তে যাচ্ছেন বলাই যায়। আর কোন দেশের প্রেসিডেন্ট এর এমন নারী কোলেংকারী জনিত ঝামেলায় পড়া মানে সেই দেশের অর্থবাজারে বেশ বড় রকমেই ধ্বস নেমে আসা। এখন দেখার বিষয় আমেরিকার সিনেট বোর্ড কিভাবে বিষয়টা সামাল দেন।

আজ ডলারের বিপক্ষে বেইজ কারেন্সী হয়ে থাকা সকল পেয়ার শুধু উড়েই চলেছে যেন। একটু ব্যতিক্রম ছিল জাপানী ইয়েন। ভাব দেখে মনে হচ্ছিল যে ইয়েনের দশা ডলার থেকেও খারাপ তাই এই চরম সংকটের মুহুর্তেও ডলার একমাত্র ইয়েনের বিপক্ষে একটু হলেও মাথা তুলে রাখতে পেরেছে। 

আজকের অফ টপিকের এনালাইসিস কি আপনাদের একটু হলেও বোধগম্য হয়েছে? তাহলে আমিও একটু মাথা তুলে দাড়াতে পারতাম :wub:

 

Share this post


Link to post
Share on other sites

এর আগে ইউরোপীয় অধিবেশনে, ইউ কে ম্যানুফাকচারিং ক্রয় ম্যানেজার ইনডেক্স (পিএমআই) এপ্রিল মাসে 53 দশমিক 9 পয়েন্টে কমে 17 মাসের নিম্নমুখী ছিল। বিনিয়োগকারীরা বৃহস্পতিবার মার্কিট সার্ভিসেস পিএমআইটিতে মনোযোগ দেবেন তবে মঙ্গলবারের হার বৃদ্ধির ব্যবধান দূর করা হবে। জিবিপি / জেপিওয়াই মঙ্গলবার বিকেলে 0.69% এর কাছাকাছি 149.44 পয়েন্টে ট্রেড করছে। মে মাসে মে দিবসের মূল্যবৃদ্ধির সম্ভাবনাগুলি সাম্প্রতিক নির্বাচনের ভিত্তিতে খুব পাতলা হয়ে উঠছে বলে জিপিএপি ভারী চাপের মধ্যে রয়েছে। আগের দিন,
افضل شركات التداول عبر الانترنت
যুক্তরাজ্যের ম্যানুফ্যাকচারিং ক্রয় ম্যানেজার ইনডেক্স (পিএমআই) এপ্রিলের তুলনায় 53.9 তে 17 মাসের নিম্নমুখী ছিল। এটি যুক্তরাজ্যে সবচেয়ে খারাপভাবে-প্রত্যাশিত ম্যাক্রোইকমনিক তথ্যগুলির একটি স্ট্রিং অনুসরণ করে। উত্পাদন PMI 50 চিহ্নের উপরে এসেছিল যা এখনও তাত্ত্বিকভাবে সংকেত প্রসারিত,
شركات تداول العملات في الاردن
তবে, সম্প্রসারণ হার হ্রাস হচ্ছে এবং মে মাসে হার বৃদ্ধির হার বিশেষত পূর্ববর্তী যুক্তরাজ্যের ডেটার আলোকে অত্যন্ত পাতলা হয়ে ওঠে যা সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলিতে মিস : গ্রস ডোমেস্টিক প্রোডাক্ট, মুদ্রাস্ফীতি, বিক্রির খুচরা বিক্রয়, এবং মজুরি বৃদ্ধি সমস্ত বাজারের ঐক্যমত্যের নিচে নেমে এসেছে। "সাম্প্রতিক জরিপ উৎপাদন বৃদ্ধির হারের একটি মন্দার আরও প্রমাণ প্রদান করেছে। আউটপুট বৃদ্ধি এবং নতুন আদেশ হ্রাস, যখন ব্যবসা আশাবাদ একটি পাঁচ মাসের কম dipped। কাজ,
شركات الفوركس
সরবরাহ-চেইন সীমাবদ্ধতা এবং ক্রমবর্ধমান পণ্যগুলির ক্রমবর্ধমান স্টক ক্রমবর্ধমান হ্রাস ক্রমবর্ধমান যে আউটপুট বৃদ্ধি আগামী মাসের মধ্যে subdued থাকবে signaled। "Markit অনুযায়ী। বিনিয়োগকারী বৃহস্পতিবার যুক্তরাজ্যের পিএমআই পরিষেবাতে তাদের ফোকাস বদলাবে, যার ফলে ব্যাংকের ইংল্যান্ডে (BoE) সিদ্ধান্তের উপর প্রভাব ফেলতে পারে যেমন ইউকে তৈরি করা পিএমআই শুধুমাত্র ইউ কে অর্থনীতিতে প্রায় 10% ওজনের। তবে পিএমআই সার্ভিসেসের তথ্যগুলি প্রত্যাশার চেয়েও এগিয়ে থাকলেও ইউকে ইকোনমিতে নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন করে মে মাসে পরবর্তী বোয়িং বৈঠকে হার বাড়ানোর জন্য এটি সন্দেহজনক বলে মনে হয়। অন্য দিকে, ইউএস স্টকগুলি পেছনের পায়ে রয়েছে যা সাধারণত জাপানের ইয়েনের জন্য জ্বালানী চাহিদা করে এবং এর ফলে GBP / JPY এর বিয়ার কেসটি সাহায্য করে। জিবিপি / জেপিওয়াই 4-ঘন্টার চার্টঃ জিবিপি / জেপিওয়াই একটি বিয়ার প্রবণতা। অবশিষ্ট 150.4২ সুইং কম এবং 150.85 সুইং উচ্চতার মধ্যে দেখা যায় তবে সমর্থন 149.14 দিনে কম এবং 148.50 সুইং কম।
شركات الفوركس الموثوقة
দ্রষ্টব্য: এই ওয়েবসাইটটি এখনও আরবী ভাষায় রয়েছে   

Share this post


Link to post
Share on other sites
Guest
You are commenting as a guest. If you have an account, please sign in.
Reply to this topic...

×   Pasted as rich text.   Paste as plain text instead

  Only 75 emoticons maximum are allowed.

×   Your link has been automatically embedded.   Display as a link instead

×   Your previous content has been restored.   Clear editor

×   You cannot paste images directly. Upload or insert images from URL.

Loading...
Sign in to follow this  

  • Similar Content

    • By masteroffx2018
      ব্রোকার নিয়ে অনেক ভ্রান্তি ও ভুল ধারনা রয়েছে অনেকের মাঝে। অনেকে আবার ভুল জানার কারনে অনেক ব্রোকারকেও ভুল বুঝে থাকেন। অনেকে আবার ভুল জানার কারনে অন্যদেরও ভুল জানাতে সাহায্য করছেন। যার ফলে ফরেক্স মার্কেটে ভাল ব্রোকার যে আসলেই কোনটা, এটা নিয়ে নতুন পুরাতন সকল ট্রেদারের মাঝেই এক ধরনের দুশ্চিন্তা বা উৎকন্ঠা কাজ করে। আজ ব্রোকার বিষয়ক অল্প কথায় সঠিকভাবে জানানোর চেষ্ঠা করব সবাইকে। যাতে এরপর হতে কেউ ভুল ধারনার স্বীকার না হতে পারেন। প্রথমে আসি মার্কেট মেকার ব্রোকার এর কথায়। সারা বিশ্বে ৯০% ব্রোকারই মার্কেট মেকার। এটা আপনাকে জানতে হবে ও মানতেই হবে। এখানে ডিলিং ডেস্ক সুবিধা থাকে। যার কারনে বড় বড় ইনভেস্টর বাই ফোনে ব্রোকারে থাকা ডিলারদের সাহায্যে ট্রেড ওপেন বা ক্লোজ করে থাকে উন্নত বিশ্বে। এটিই ফরেক্স মার্কেটের আদিমতম সিস্টেম। শুরুর দিকে যখন শুধু লাইসেন্সপ্রাপ্ত ব্যক্তিরা এই মার্কেটে ব্যবসা করার অনুমতি পেত, তখন এভাবেই তারা ব্রোকারদের সাহায্য নিয়ে তাদের ট্রেড পরিচালনা করত। আজও বিভিন্ন স্টক মার্কেটে এই সিস্টেম চালু আছে। অনেকেই এই ডিলিং ডেস্ককে নেগেটিভ ভাবে প্রচার করতে চেষ্ঠা করে। ফলে নো ডিলিং ডেস্ক ব্রোকারগুলো নিজেদের ফলাও করে প্রচার করে যে তারা ডিলিং ডেস্ক এর কল সিস্টেম এলাউ করে না। তবে বর্তমানে বিশ্বায়নের যুগে এমন পুরাতন সিস্টেমের দরকারও পড়ে না।     বিশ্বে কোটি কোটি ট্রেদার, এদের ট্রেদ যথাসময়ে মার্কেটে প্লেস করতেও প্রচুর ব্রোকার ডিলার দরকার হত, যা বাস্তবে নিয়গ দেওয়া সম্ভব হবে না। তাই এমটি ফোর, বা বিভিন্ন প্লাটফর্ম দিয়ে তারা ট্রেডারদের অর্ডার রিসিভ করে। তবে এখান থেকে একটা বিষয় পরিস্কার যে, মার্কেট মেকার ব্রোকারে ট্রেদারের ট্রেড আগে নিজেদের কাছে রিসিভ করে, এরপর মার্কেটের ফান্ডে ফরওয়ার্ড করে দেয়। আর এটা করতে গিয়ে কখনো ট্রেড ওপেন হতে একটু সময় নেয়, কখনও মার্কেট ক্যান্ডেল স্পাইক মারে, আগের মুভমেন্ট চার্টে দেখাতে ফেইক ক্যান্ডেল তৈরি করা, এমন আরও কিছু সমস্যা দেখা যায়। বিশেষ করে নিউজ টাইমের ট্রেডের ক্ষেত্রে। মার্কেট এত দ্রুত মুভ করে যে, ক্লায়েন্টের ট্রেড রিসিভ করে প্লেস করতে করতে মার্কেট অনেক মুভ করে ফেলে। যার ফলে নিউজ টাইমে এসব ব্রোকারে ট্রেড করা নিয়ে অনেক অভিযোগ শোনা যায়। তবে বড় বড় ইনভেস্টর যখন এসব ব্রোকারের সাথে ডিল করে, তখন অনেক বিষয় তারা চুক্তিবদ্ধ হয়েই ডিল করে। আর সেখানেই তারা তাদের ফান্ড সিকিউরিটি নিয়ে রাখে। কিন্ত সমস্যা হয় এশিয়ান বা অন্য দেশের ব্যক্তিগত ট্রেডারদের ক্ষেত্রে। তারা তো এসব স্পাইক, ফেক ক্যান্ডেল প্রটেকশানের জন্য কোন ডিল করতে পারেনা ব্রোকারের সাথে, ফলাফল কি হয়? কোন অভিযোগ প্রমাণ সহ দেখালে তারা স্রেফ “we are Sorry” টাইপের বিনয় দেখিয়ে খালাস। আর আপনি কি করেন এমন ভুক্তভোগী হয়ে? দুই একদিন ফেসবুকে বিষেদাগার করে আবার ভুলে যান। সবাই ভুলে যায় সেই কথা। তাই না?   আরও একটি অভিযোগ বারবার দেখা যায় মার্কেট মেকার ব্রোকারের বিরুদ্ধে। তা হচ্ছে, তারা ট্রেডারদের ট্রেডের বিরুদ্ধে ট্রেড নেয়। এজন্য নাকি ট্রেডারেরা ক্ষতিগ্রস্থ হয়। কিন্ত আসলে কি তাই? আসুন আমরা একটু দেখি বিষয়টাঃ মার্কেট মেকার ব্রোকার ট্রেদারদের ট্রেদ রিসিভ করে কোন লিকুইডিটি প্রোভাইডারের ফান্ডে ফরওয়ার্ড করে দেয়। এখানে লিকুইডিটি প্রোভাইডার বলতে বিভিন্ন ইন্তার ব্যাংক, বড় বড় ফাইন্যান্সিয়াল ফার্ম বা এমন বড় বড় ইনভেস্টর। এর অর্থ হচ্ছে, ঐ সব ইনভেস্টরদেরও বিজনেস আছে এখানে। আপনার ট্রেড তার একাউন্টে প্লেস হলে, আপনি লস করলে সেই লস এমাউন্ট তার ফান্ডে জমা হবে। আপনি প্রফিট করলে সেই এমাউন্ট তার ফান্ড থেকে আপনার একাউন্টে জমা হবে। এখন মার্কেট মেকার ব্রোকার অনেক সময় তাদের ব্যবসার অংশ হিসেবে এই লিকুইডিটি প্রোভাইডারের কাজ নিজেরাই করে। নিজেদের বড় এমাউন্ট রেডি করে ট্রেদারদের ত্রেড অর্ডার সেই ফান্ডে প্লেস করে দেয়। আপনি প্রফিট করলে তা ব্রোকারের সেই ফান্ড থেকে আপনার একাউন্তে আসে। আর লস করলে তা ব্রোকারের সেই ফান্ডে জমা হয়। আর স্প্রেড তো আছেই ব্রোকারের কমিশন হিসেবে। এটা তাদের ব্যবসা। তারা এই ব্যবসা করতেই পারে। আরা তাদের ট্রেদারদের ট্রেদ অর্ডার কোথায় প্লেস করলে তা তাদের ব্যাপার, ঠিকমত প্রফিট বা লস কাউন্ট ও উইথড্র ঠিকভাবে হলেই তো ঠিক আছে। তাই না? তবে এখানে একটু সমস্যা আছে। তা হচ্ছে, বিগ ফান্ড যখন ব্রোকারের নিজের থাকে, আর কোন ট্রেদার যখন হিউজ প্রফিট করতে থাকে, তখন বাড়তি একটু নজর রাখে ব্রোকার তার দিকে। কারন ট্রেডারের এই প্রফিট এমাউন্ট যে তাকে নিজেদের ফান্ড থেকেই দিতে হচ্ছে! আর তাই অনেক সময় স্পাইক দিয়ে, ফেক ক্যান্ডেল দিয়ে, স্লো এক্সিকিউশান দিয়ে হলেও চেষ্ঠা করে বাড়তি কিছু প্রফিট উঠিয়ে নিয়ে আসতে মার্কেট থেকে। কারন ২-৩ পিপ্স এর স্পাইক ফেইক দেওয়া মানে সেখান থেকেই কয়েক হাজার ডলার লস করানো যায় ট্রেদারদের। আর সেসব তাদের ফান্ডেই চলে আসে স্বভাবতই। বুঝতে পেরেছেন আশা করি। তবে এখানে অনেকমার্কেট মেকার ব্রোকার আছে যারা সত্যিই লিকুইডিটি প্রভাইডার বা ইনভেস্টরদের ফান্ডে ট্রেড প্লেস করে দেয় তাদের ট্রেডারদের। আর স্প্রেড তো তাদের কমিশন হিসেবে আসছেই। এর সাথেই তারা আরেকটি কাজ করে থাকে, তা হচ্ছে, যেহেতু ৯৫% লস করে এই মার্কেটে, সেহেতু তারা তাদের ক্লায়েন্ট এর ত্রেডগুলর বিপরিতে নিজেদের একাউন্ট থেকেই সেই লিকুইডিতি প্রভাইডারদের ফান্ডে উলটো ট্রেড ওপেন করে। অর্থাৎ আপনি আপনার একাউন্ট থেকে কোন পেয়ারে বাই ওপেন করলে, তারা তাদের সেই একাউন্ট থেকে একই পেয়ারে সেইম লটে একটি সেল ট্রেড ওপেন করে। এটা তারা এ জন্যই করে যে, ওরা জানে ৯৫% ট্রেডার লস করলে তাদের বিপরীতে ট্রেদ নিলে ৯৫% প্রফিট করা যায় সহজেই। আর এ জন্য ট্রেদারদের ত্রেদের কোন সমস্যাই হয় না। তারা এমনিতেই লস করত। ব্রোকার এর ফায়দা নেয় শুধু ট্রেদারদের উলটো ট্রেড ওপেন করে। আর এখানে পরিস্কার থাকবেন যে, মার্কেট মুভমেন্টকে কেউ ম্যানিপুলেট করতে পারে না। এটা সারা বিশ্বে একইভাবে চলে। সুতরাং আপনার ট্রেদের বিপরিতে কেউ ট্রেদ নিলে আপনার কিছুই যায় আসে না। কারন মার্কেট তার নিজের পথেই চলে সারা বিশ্বে একভাবে। সুতরাং এটা নিয়ে অযথা চিন্তা করবেন না।   আরেকটা অভিযোগ জানা যায়, তা হচ্ছে মার্কেটে একজনের লস আরেকজনকে দেওয়া হয়। বিষয়টা কখনোই এমন নয়। প্রথমে আপনাকে বুঝতে হবে আপনি কি করছেন মার্কেটে। কম মুল্যে কারেন্সি কিনে বেশি মুলে বেচে দিচ্ছেন। এখানে আপনার সাথে অন্য ট্রেডারের কি সম্পর্ক? কম মুল্যে সারা বিশ্বের ট্রেডার কারেন্সী কিনে রাখলে কারেন্সি মূল বেশি হলে তা সবাই বেচে দিলে কি সবাই লাভবান হবে না? এটাই তো করছেন আপনি। তাহলে আপনার সাথে আরেকজনের ট্রেদের কি সম্পর্ক? আসলে কোন সম্পর্কেই নাই। আপনারা কেউ মার্কেটে না থাকলেও মার্কেট তার নিজের মতই চলবে। কারন সারাবিশ্বের অর্থনৈতিক লেনদেন চলবেই, মুদ্রার মুল্যমান উঠানামা করতেই থাকবে।   তবে সমস্যা একটাই, আর তা হলে ইন্সট্যান্ত এক্সিকিউশান এর সময় মাঝে মাঝে দেরি করা, ট্রেড ওপেন বা ক্লোজ না হওয়া, অস্বাভাবিক স্প্রেড নিজেদের ইচ্ছেমত বাড়িয়ে দেওয়া, স্পাইক মারা, ফেইক ক্যান্ডেল দেখিয়ে ঘোরাবুঝ দেবার চেষ্ঠা করা, এসব সমস্যাই লোকাল ট্রেদারদের জন্য বেশ অসুবিধা হিসেবে দেখা যায়।   মার্কেট মেকার নিয়ে অনেক ফিরিস্তি দিলাম, এবার আসি STP ব্রোকার নিয়ে। STP ব্রোকার ট্রেদারদের ট্রেদ রিসিভ করে ও ১০০% নিশ্চয়তার সাথে তা লিকুইডিটি প্রোভাইডারের ফান্ডে প্লেস করে দেয়, তাই ট্রেদারদের লাভ বা লসে ব্রোকারের কিছু যায় আসে না। তারা মাঝখান থেকে শুধু স্প্রেডই নেয়। আর তাই অনেক রিয়েল STP ব্রোকারে স্প্রেড তুলনামুলক অন্যান্য ব্রোকারের চেয়ে একটু বেশি থাকে। তবে স্প্রেড একটু বেশি হলেও এসব ব্রোকারে ট্রেড করাটাও মোটামুই নিরাপদ। এরা কখনোই নিজেদের ফান্ডে ত্রেদারদের ট্রেদ নিতে পারবে না, তাহলে এদের রেগুলেশন বাতিল হয়ে যাবে সাত্থে সাথেই।   এবার বলি ECN ব্রকার নিয়ে। ECN ব্রোকারে ট্রেডারদের ট্রেড এক্সিকিউশান এর ব্যাপারে কারও কোন হাত থাকে না। এটি অটোমেটেড সফটওয়ার দ্বারা পরিচালিত হয়ে থাকে। ট্রেডারদের ট্রেড অটোমেটিক লিকুইডিটি প্রভাইডারদের ফান্ডে প্লেস হয়ে যায় ইন্সট্যান্টভাবেই। এজন্য ব্রোকারও কোনভাবেই ম্যানিপুলেট করতে পারেনা কারও ট্রেডে। ফেইক ক্যান্ডেল তো নয়ই। তবে হ্যা, এখানে একটি বিষয় পরিস্কার করে রাখি। প্রতিটি ECN ব্রোকারেই লোকাল মার্কেট মেকার অপশন চালু রেখে দেয় তারা। কারন স্বভাবতই অল্প ব্যালান্স দিয়ে ট্রেড করা কোন ECN ব্রোকারে সম্ভব না। আর সেই অবস্থায় ঐ ব্রোকারগুলো তাদের লোকাল মার্কেট মেকার অপশনে ট্রেড করার সুযোগ দেয় ট্রেডারদের। এজতন্য মনে রাখবেন, ব্রোকার যতো ভাল ইসিএন ব্রোকারই হোক না কেন, এদের সেন্ত একাউন্ট, মাইক্রো একাউন্ট বা মিনি একাউন্ট এর অপশনগুলো কখনই ECN এর আওতায় পড়ে না। এ জন্য আপনাকে স্ট্যান্ডার্ড একাউন্ট অবশ্যই ব্যবহার করতে হবে। আর যেহেতু এখানকার সকল প্রসেস সফটওয়ার সিস্টেমে চলে, সেহেতু এখানে স্প্রেড অন্যান্য ব্রোকারের তুলনায় অনেক কম পাবেন আপনি। এখানে লক্ষ্য রাখবেন, অনেকেই ইসিএন এর নাম করে নরমাল স্ট্যান্ডার্ড একাউন্টও কিন্ত প্রোভাইড করছে ট্রেদারদের। যার পিছনে আইবি হোল্ডারদের স্বার্থ জড়িত থাকে। কারন ECN একাউন্তের আইবি কমিশন একেবারেই নামমাত্র হয়ে থাকে, সেখানে কমিশান বাড়ানোর জন্য ব্রোকারকে অফার করলে ব্রোকারও নরমাল স্ট্যান্ডার্ড একাউন্ট ECN এর নামে প্রোভাইড করে থাকে যাতে আইবি হোল্ডারও খুশি, আর ECN মনে করে ট্রেডারও খুশি! এগুলো লক্ষ্য রাখা জরুরী সকলেরই।   ভাল ব্রোকার নির্বাচনঃ এবার আসি ব্রোকার নির্বাচনের ব্যাপারে। আপনি বাংলা ভাষার মানুষ। তারমানে আপনি পশ্চিমবঙ্গে অথবা বাংলাদেশে থাকেন। আপনাকে এমন ব্রোকার ব্যবহার করতে হবে যার রেগুলেশন আপনার ফান্ড পর্যন্ত নিরাপত্তা দেয়। কারন আপনার দেশের সেন্ট্রাল ব্যাংক এর রেগুলেশন কিন্ত আমার এখানে বা কানাডায় একদম খাটবে না। এখন যদি আপনার দেশের কোন ব্যাংক কানাডায় একটা অনলাইন সার্ভিস দিতে যেয়ে প্রতারনা করে, তাহলে আমি কি করতে পারি? চুপচাপ সয়ে যাওয়া ছাড়া। কারন আপনার দেশের রেগুলেশন তো আপনার লোকাল এলাকার জন্য প্রযোজ্য, কানাডায় তার কোন কর্মক্ষমতাই নেই। একই ভাবে যে সকল ব্রোকার শুধু লোকাল রেগুলেশন নিয়ে আপনাকে নিরাপত্তা দেবে ভেবেছেন, তাহলে আপনি ভুল করবেন। এক্ষেত্রে কি করবেন তাহলে আপনি? লক্ষ্য করবেন যে, সেই ব্রোকারে কি FCA UK রেগুলেশন আছে কি না। এখন প্রশ্ন করতে পারেন যে কেন এই রেগুলেশন। আপনি হয়তো জানেন, বৃটিশরা সারা বিশ্বে শাসন করেছে। আজও বিশ্বের অনেক প্রান্তে তাদের উপনিবেশ রয়েছে। আমাদের এই কানাডাতে আজও বৃটিশ কলোনি রয়েছে, যারা নিজেদের বৃটিশ বলে দাবী করে! বিশ্বের সকল জায়গায় এদের নিরাপত্তা দেবার জন্য বৃটিশদের রেগুলেশন সারা বিশ্বে সমানভাবে কার্যকরী করা সম্ভব হয়। অর্থাৎ আপনি ফান্ড ইস্যুতে কোন সমস্যা মনে করলে এদের রেগুলেটরি অথরিটির কাছে যথাযথভাবে অভিযোগ করলে এরা আপনার অভিযোগ এর ব্যাপারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবে। এক্ষেত্রে বলাই যায় আপনি যেখানেই থাকেন না কেন, আপনার ফান্ড সেইভ থাকবে এই রেগুলেশনের আন্ডারে একাউন্ত হবার কারনে। তবে মনে রাখবেন অনেক মার্কেট মেকার ব্রোকারও এমন রেগুলেশন নিয়েছে, তারা ফেইক ক্যান্ডেল, স্প্রেড বাড়িয়ে দেওয়া, স্পাইক মারা এসব ইস্যুতে আপনার ট্রেডকে লস করালে কিন্ত এসব এই রেগুলেশনের আয়ত্বে পড়বে না। কারন আপনার ডিপোজিত ও উইথড্র এর ব্যাপারে সমস্যা হলে তারা দেখবে। আপনার ট্রেড সংক্রান্ত ইস্যু নিয়ে ব্রোকার তার পক্ষে ব্যাখ্যা দেবেই, আর নিজেদের চার্টের মুভমেন্ট দেখাবে তারা। কোন মুভমেন্ট রিয়েল আর কোনটা ফেইক তা আপনার বুঝানোর কোন অপশন থাকবে না। সুতরাং এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত আপনার। তবে আপনার ডিপোজিট ও উইথড্র এর ব্যাপারে আপনি নিশ্চিন্ত থাকতে পারেন এই রেগুলেশনের আন্ডারে।   অথবা আপনি আরেক ভাবেও ব্রোকারের ব্যাপারে নিশ্চিত হতে পারেন। তা হচ্ছে, আগেই জেনে নেবেন যে ব্রোকার ইউএস বা আমেরিকান ও কানাডিয়ান ট্রেডার সাপোর্ট করে কি না। যদি না করে তবে কোন কথা নেই, আর যদি করে তবে আশ্বস্ত হতেই পারেন। কারন যদি কোন ব্রোকার ইউএস ও কানাডিয়ান ক্লায়েন্ট একসেপ্ট করে, তয়াহলে নিশ্চিত হোন যে ব্রোকারটি যথাযোগ্য প্রমাণ দেখিয়েই এই দুই দেশে বিজনেস করার অনুমতি পেয়েছে। কারন এই দুই দেশে বিজনেস করার ব্যাপারে মানের কোয়ালিটির নিশ্চয়তা সবার আগে প্রাধান্য দেওয়া হয়। চায়না কে সস্তা বা কম দামী পন্যের বাজার বলা হয়, কিন্ত সেই চায়নাই যখন আমেরিকায় বিজনেস করতে আসে, তখন তারাই বেষ্ট কোয়ালিটির পণ্য আমেরিকার বাজারে দেয়। কারন বিজনেস পলিসিই আমেরিকায় এমন। সুতরাং নুন্যতম ঘাপলা থাকার সম্ভাবনা থাকলেই কেউই ইউএস এ বিজনেস করার সুযোগ পাবে না। অনেক বড় বড় ব্রোকারও ইউএস ক্লায়েন্ট একসেপ্ট করেনা, তাদের এত কন্ডিশন মানতে পারবে না বলে। এসবের মাঝে যদি কোন ব্রোকার তা করতে পারে, তবে বুঝে নেবেন তারা সাচ্চা কাম করত্যা হ্যায়।   ব্যস, এগুলো মনে রাখবেন আর একটু যাচাই বাছাই করে ব্রোকার বেছে নিয়ে ট্রেড শুরু করে দিন। আমি যে ফাইন্যান্সিয়াল ফার্মে কাজ করছি, এখানেও একটি মার্কেট মেকার ব্রোকার একাউন্টে ট্রেড করা হয় ব্রোকারের সাথে ডিরেক্ট কন্ট্র্যাক্টের মাধ্যমে (যা আমার বা আপনার পক্ষে সিঙ্গেলভাবে করা সম্ভব না), আর একটা ECN ব্রোকারের একাউন্টে ট্রেড করা হয়। আপনিও সব দিক বিবেচনা করে ভাল কোন ECN ব্রোকারেই আশা করছি ট্রেড করবেন এটাই আমার সর্বশেষ মতামত। আমি এখানে কোন ব্রোকারের নামই উল্লেখ করলাম না, যাতে কেউ নুন্যতম কষ্ট পায় মনে। সবাইকে এবার বুঝে শুনে ভাল কিছু সাথে নিয়ে ফরেক্স মার্কেটে এগিয়ে চলার অনুরোধ করছি।   সকলের জন্য আমার শুভকামনা রইল।   Trade with full Trusted ECN broker:  
    • By masteroffx2018
      প্রায়ই একটি প্রশ্ন চোখে পড়ে নতুন ট্রেডারদের কাছ থেকে। 
      প্রশ্নটি হলঃ ভাল ব্রোকার কোনটি? কিভাবে ভাল ব্রোকার চিনতে পারব?
      এই প্রশ্নের উত্তরে যে যার মত আইবি কমিশন পাওয়ার আশায় একটি বস্তাপচা ব্রোকারকেও দুনিয়ার সেরা ব্রোকার বানিয়ে দিতে উঠে পড়ে লাগে! অর্থাৎ যে ব্রোকার হোয়াইট লেভেল, লোকাল অথরিটি দিয়ে পরিচালিত হয়, যে ব্রোকারের কোন সার্টিফায়েড লিকুইডিটি প্রোভাইডার নেই, যারা নিজেরাই ট্রেডারদের ট্রেড অর্ডার নিজেদের ফান্ডে ফরওয়ার্ড করার মাধ্যমে টোটাল সিস্টেমকে ম্যানিপুলেট করে, তারাও এসব নোংরা মার্কেটিং এর ফাঁদে পড়ে হয়ে যায় দুনিয়ার সেরা ও শ্রেষ্ঠ ফরেক্স ব্রোকার!! ভাবা যায়?
       

       
      আজ আমি সহজেই বুঝিয়ে দেব নির্ভরযোগ্য ব্রোকার চেনার উপায়।
      বাঙ্গালি ট্রেডার মুলত স্ক্রিল বা নেটেলার পেমেন্ট ওয়েতে ব্রোকারে ডিপোজিট ও উইথড্র করে থাকে। স্ক্রিল, নেটেলার নামের এই পেমেন্ট ওয়ে নিয়ে কোন ট্রেডারই কিন্ত সন্দেহ পোষন করে না। তাহলে ব্রোকার নিয়ে কেন এতো সন্দেহ?
      স্ক্রিল বা নেটেলার নির্দিষ্ট ফান্ড সিকিউরিটি অথরিটির কাছে দায়বদ্ধ থাকে বলেই তারা ইউজারদের ফান্ডের নিরাপত্তা দেয়।
      আচ্ছা বিষয়টা যদি এমন হয় যে, এই স্ক্রিল বা নেটেলার তাদের ইউজারদের ফান্ড সিকিউরিটি ইস্যুতে যে রেগুলেশন নিয়ে রেখেছে, কোন ব্রোকার যদি সেই একই রেগুলেশন নিয়ে থাকে ট্রেডারদের ফান্ড সিকিউরিটির জন্য, তাহলে বিষয়টি কেমন হয়? আপনারা জানেন কি, স্ক্রিল বা নেটেলার কোন রেগুলেশন মেনে চলে?
      আসুন জেনে নেই। স্ক্রিল বা নেটেলার তাদের ইউজারদের জন্য শুধুমাত্র একটি রেগুলেশন নিয়ে রেখেছে। আর এটাই তাদের ইউজারদের ফান্ড সিকিউরিটির জন্য যথেষ্ট। লক্ষ লক্ষ ইউজার নিশ্চিন্তে এই পেমেন্ট মাধ্যম ব্যবহার করছে কোটি কোটি ডলার লেনদেনের জন্য। 
      আর সেই রেগুলেশনের নাম FCA যাকে Financial Conduct Authority বলা হয়। এরা ক্লায়েন্টের যে কোন এমাউন্টের সিকিউরিটি দিয়ে থাকে। 
      আপনার ব্রোকার যদি FCA UK রেগুলেটেড হয়, তবেই স্ক্রিল বা নেটেলারের মত নিশ্চিন্তে ট্রেড করতে পারেন।
      প্রথমেই জেনে নেবেন যে, ব্রোকার FCA UK রেগুলেটেড কি না?
      উত্তর হ্যা হলে, এরপর বাকি বিষয় জেনে নিন। যেমন, লেভারেজ, স্প্রেড, কমিশন, হেজিং সুবিধা প্রভৃতি। 
      এগুলো আপনার চাওয়ার সাথে মিলে গেলে তবেই সেই ব্রোকারে ট্রেড করা শুরু করতে পারেন।
      আশা করছি আজকের পর থেকে ভাল থাকবেন আরও ব্রোকারের ব্যাপারে।
      Trade with a full trusted & True ECN broker: 
    • By Ayan22691

      Technical parameters| (11th-15th March) 2019 
      Possible entry point with critical support and resistance level. But when you trade at this level make sure that you are using price action confirmation signal. We have prepared these key support and resistance level based on the Fibonacci retracement levels, 100&200 SMA, key swings point and chart patterns formed in the higher time frame. Focus on EURUSD technical analysis
       
      EURUSD
      Look for selling opportunity near the critical resistance.
      First critical Resistance:  click here (https://forextradingforyou.com/technical-analysis-on-all-major-pairs-11th-march-2019)
      Second critical Resistance: 1.181171
      First critical Support:  click here (https://forextradingforyou.com/technical-analysis-on-all-major-pairs-11th-march-2019)
      Second Critical Support:  1.12261
      Overall Sentiment: Slightly bearish
       
      For GBPUSD, AUDUSD, NZUSD, and GBPJPY  analysis 
      Visit www.forextradingforyou.com
       All the technical parameters are applicable from 11th March to 15th March 2019. The overall sentiment indicates the prevailing trend of the market. We highly recommend you to trade in favor of the market sentiment (overall sentiment) to reduce the risk exposure in trading. Trade the critical support and resistance level with price action confirmation signal. If you want to get the technical chart analysis along with logical explanations, feel free to contact us.
      We provide high-quality Forex trading signals, trading consultancy, and price action trading course. Please feel free to contact us for any query. A simple 5-minute conversation with our expert will change your trading career.
       
      Source: www.forextradingforyou.com
    • By Ayan22691

       
      Technical parameters| (18th-22nd) February 2019 
      Possible entry point with critical support and resistance level. But when you trade this level make sure that you are using price action confirmation signal. We have prepared these key support and resistance level based on the Fibonacci retracement levels,100&200 SMA, key swings point and chart patterns formed in the higher time frame. Focus on GBPUSD technical analysis.
       
      EURUSD
      Look for selling opportunity near the critical resistance.
      First critical Resistance:  click here (https://forextradingforyou.com/technical-analysis-on-all-major-pairs-18th-february-2019)
      Second critical Resistance: 1.181111
      First critical Support:  click here (https://forextradingforyou.com/technical-analysis-on-all-major-pairs-18th-february-2019)
      Second Critical Support:  1.12201
      Overall Sentiment: Slightly bearish
       
      For GBPUSD, AUDUSD, NZUSD, and GBPJPY  analysis
       
      Visit www.forextradingforyou.com
       All the technical parameters are applicable from 18th February to 22nd February 2019. The overall sentiment indicates the prevailing trend of the market. We highly recommend you to trade in favor of the market sentiment (overall sentiment) to reduce the risk exposure in trading. Trade the critical support and resistance level with price action confirmation signal. If you want to get the technical chart analysis along with logical explanations, feel free to contact us.
      We provide high-quality Forex trading signals, trading consultancy, and price action trading course. Please feel free to contact us for any query. A simple 5-minute conversation with our expert will change your trading career.
       
      Source: www.forextradingforyou.com
    • By Ayan22691
      While finding good trade entries, there are some ideas that can be used in a trading system. The methods and tips discussed in this article are universally applicable to any timeframe and to any market.
       
      1) Position
      Position means you only accept trades at or near the base price. Such position points are usually supported and resistance, supply/demand, moving average, Fibonacci dimension or swing high/low.
      In the long term, only what happens in the price scale can only have a huge impact on your trading because it often increases the quality of the signal and helps you increase your performance.
       
      2) Combination of high timing
      You do not need to align the two random time frames to find good signals. In most cases, it is very confusing and traders spend a lot of time trying to apply multi-timeframe analysis.
       
      The point of view is a complete disregard. Most traders zoom in on one period of time and then their charts are completely incorrect. Below you will find a list of many traders who will follow it. It looks like the price is lower and on the right side of the screen, at a support level, ready to bounce higher. Try for zoom out, scale charts differently, try different zoom levels and you will understand your charts in a much different way.
       
      3) Know the market status
      It is essential for a trader to know that
      (1) Under which market conditions your trading method performs best and
      (2) Pick the markets that are in such a phase.
       
      Right now, you have to catch screenshots of 10 great trades, find similarities and write down trade market conditions and then improve your market selection process.
       
      4) Signal size
      Long-term chart patterns which consist of multiple candles usually have much more predictive value than single candlestick signals. Look for long-term patterns that can easily include 30-50 candlesticks at a time such as head and shoulder example. Those long-term patterns provide a better context and they can tell you a whole story about what's happening between buyers and sellers, and how the powers are transferred between the two parties. Premium Forex course of ForexTradingForYou is the Perfect solutions for the forex traders.
       
      5) Combination Reasons
      Trading decisions based on more candles are usually more effective, trading with more relevant factors can improve your trading quality.
       
      If you have a trading journal - and a trader should trade without a good journal - the number of collected numbers can affect the accuracy of your signals and your overall win rate.
      Of course, the types of collected elements can vary in a trading system, but the underlying concept works for all types of traders.

বিডিপিপস কি এবং কেন?

বিডিপিপস বাংলাদেশের সর্বপ্রথম অনলাইন ফরেক্স কমিউনিটি এবং বাংলা ফরেক্স স্কুল। প্রথমেই বলে রাখা জরুরি, বিডিপিপস কাউকে ফরেক্স ট্রেডিংয়ে অনুপ্রাণিত করে না। যারা বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, শুধুমাত্র তাদের জন্যই বিডিপিপস একটি আলোচনা এবং অ্যানালাইসিস পোর্টাল। ফরেক্স ট্রেডিং একটি ব্যবসা এবং উচ্চ লিভারেজ নিয়ে ট্রেড করলে তাতে যথেষ্ট ঝুকি রয়েছে। যারা ফরেক্স ট্রেডিংয়ের যাবতীয় ঝুকি সম্পর্কে সচেতন এবং বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, বিডিপিপস শুধুমাত্র তাদের ফরেক্স শেখা এবং উন্নত ট্রেডিংয়ের জন্য সহযোগিতা প্রদান করার চেষ্টা করে।

×