Jump to content
Sign in to follow this  
MohabbatElahi

ফেড ইন্টারেস্ট রেট ও কারেন্সি মার্কেটে এর সম্ভাব্য প্রতিক্রিয়া

Recommended Posts

 
14a87acbba8dbe7d1dbea66f474a864a_L.jpg
আজ দীর্ঘ প্রতীক্ষিত সেই মুহূর্ত বা ক্ষণ যার দিকে তাকিয়ে আছে বিশ্বের প্রতিটি কেন্দ্রীয় ব্যাংক ও কারেন্সি ট্রেডিংএর সাথে সম্পৃক্ত ব্যাক্তিবর্গ। আজ সেই মূহুর্ত যা ঘটেছিল বিগত ২০১৫ সালের এই ডিসেম্বর মাসে। অর্থাৎ যেদিন ফেড তাদের ব্যাংক সূদের হার ০.২৫ থেকে ০.৫০ বর্ধিত করেছিল। তাই আজ কে ৫ট্রিলিয়ন মার্কেট ট্রেডারদের দৃষ্টি এখন ফেডের Bank interest rate ও FOMC-র দিকে। সূতরাং আজই অবসান ঘটবে দীর্ঘ জল্পনা কল্পনার।
একজন ট্রেডার হিসাবে গুরুত্ব বিবেচনায় আমার কাছে এ উত্তেজনাটি মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের চেয়েও কোন অংশে কম নয়। কারন দীর্ঘ সময় ধরে ফেডের নীতি নির্ধারকদের ২০১৬-তে সূদের হার বৃদ্ধিকরণ বিষয়ক বিভিন্ন বক্তব্য ও তার বাস্তবতা উপলব্ধি করার আজই শেষ দিন। সে হিসাবে যেটুকু উত্তেজনা কাজ করছে তার চেয়ে বেশি আগ্রহে বসে আছি বাস্তবতা দেখতে।
-
[**]
ফেডের ব্যাংক সূদের হার বৃদ্ধির সম্ভাব্যতা.........
২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে ফেড ব্যাংক সূদের হার ০.২৫ থেকে ০.৫০-এ বর্ধিত করেছিল। যা ২০১৬ অর্থ বছরে তারা ধরে রাখতে সক্ষম হয়েছে। এটা মার্কিন অর্থনীতির জন্য অনেক বড় একটি সাফল্য বলতে হবে। কারন বিশ্বের অন্যসব ব্যাংক যেখানে সার্বিক অবস্থা বিবেচনায় ব্যাংক সুদের হার কমিয়ে এনেছে সেখানে ফেডের এ অবস্থান অবশ্যই গুরুত্ব বহন করে। পাশাপাশি তাদের ক্রমাগত সমৃদ্ধি ও সাফল্যের ফলে ২০১৬ অর্থ বছরেও তারা কয়েকবার ব্যাংক সূদের হার বৃদ্ধির সম্ভাব্যতা নিয়ে কথা বলেছেন যা বিগত দিনে বিভিন্ন ইভেন্টসে আমরা দেখতে পেয়েছি।
বর্তামানে Fed interest Rate Monitoring Tools এর সার্বিক জরিপ এবং মূল্যায়ন হচ্ছে Fed ব্যাংক সূদের হার বৃদ্ধি করতে কোন প্রতিবন্ধকতা নেই।কারন বিগতদিনে তারা জিডিপি,বেকারত্ম,স্বাস্থ্যখাত,কনস্ট্রাকশন,গৃহস্থলী সহ সব খাতেই সাফল্য পেয়েছে এবং স্থিতিশীলতা ধরে রাখতে সক্ষম হয়েছে।
সূতরাং সার্বিক বিবেচনায় ০.৫০ থেকে ০.৭৫ পর্যন্ত বর্ধিত হওয়ার সম্ভাবনায় বেশি এবং অনেকটা নিশ্চিত বলা যেতে পারে।
-
[**]
ট্রেডিং মার্কিটে প্রতিক্রিয়া....................
মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন পূর্ব মহুর্তে মার্কিন ডলার যখন ৯৯.০০ থেকে পতন হচ্ছিল তখন অনেকেরই ধারনাছিল যে ট্রেডিং মার্কেটে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের বড় ধরনের প্রভাব পড়বেনা যেটা পরবর্তিতে পরিলক্ষিত হয়েছে। কিন্তু নির্বাচনী ফলাফলে ট্রাম্প এগিয়ে যাওয়ার ফলে অপ্রত্যাশিত ভাবে মার্কিন ডালার তার বিগত ১৪ বছরের রেকর্ড ব্রেক করল, যা সম্পূর্ন অকল্পনীয়। তবে এখানে যে বিষয়টি সবচেয়ে বেশি ভুমিকা রেখেছে তা হচ্ছে ফেডের ব্যাংক রেট বৃদ্ধির যৌক্তিক সম্ভাব্যতা। কারন তারা অক্টোবর ও নভেম্বরে অন্যসব মূদ্রার বিপরীত ক্রমাগত সাফল্যই পেয়েছে। সে হিসাবে এটা তাদের অর্জন।কিন্তু চলতি ইভেন্টসে মার্কেট কতটা প্রভাবিত হতে পারে ? এ প্রশ্নে অনেকেই অনিশ্চয়তায় আছেন।
ফরেক্স নিউজ প্রোভাইডার ওয়েব গুলোতে কেউ নিশ্চিত করতে পারছেনা মার্কেট ভবিষ্যৎ কি হতে পারে........!! কারো মতে ব্যাংক সূদের হার বৃদ্ধিতে মুদ্রাস্ফীতি বাড়বে। সে হিসাবে ফেড ০.২৫% পর্যন্ত বাড়াতে পারে। কিন্তু যদি তারা ০.৫০% পর্যন্ত বৃদ্ধি করে বা এখন ০.২৫% ঘোষনা দিয়ে পরবর্তিতে আবারও বৃদ্ধির বিষয়ে ইঙ্গিত প্রদান করে তাহলে কি হতে পারে............ ??
*
[***]
চলুন তাহলে বিষয় টি বিশ্লেষন করা যাক। এখানে যে কয়টি পয়েন্ট আমাদের বিবেচনা করতে হবে তা হচ্ছে
-
০১) ০.২৫% বৃদ্ধি অর্থাৎ ০.৭৫%
০২) ০.৫০% বৃদ্ধি অর্থাৎ ১.০%
০৩) ০.২৫% বৃদ্ধি কিন্তু ২০১৭-তে আবারও বৃদ্ধির ঘোষণা।
০৪) ০.২৫% বৃদ্ধি কিন্তু স্বাভাবিক বক্তব্য।
-
*++*
---> ০১নং এর ক্ষেত্রে মূদ্রাস্পীতি এবং বন্ড মার্কেটের স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে তারা সর্বোচ্চ ০.২৫% পর্যন্ত বাড়াতে পারে।সূতরাং এ সম্ভাবনাটি সঠিক হলে মার্কেট টেকনিক্যালে চলে যাবে।
---> ০২নং এর ক্ষেত্রে মার্কেট ফান্ডামেন্টালে চলেযেতে পারে এবং এর সম্ভাব্য রেঞ্জ হতে পারে ১০৩.০০ (তবে এক্ষেত্রে রিভার্স করতে পারে)
--->০৩নং এর ক্ষেত্রে মার্কেট অন্য দিনের মতই স্বাভাবিক ছন্দে থাকতে পারে, তবে সর্বোচ্চ ১০২ পর্যন্ত।
---> ০৪ নং এর ক্ষেত্রে মার্কেট টেকনিক্যালে চলে যাবে।
সর্বোপরি মার্কেট কন্ডিশন এর বাইরে যাওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম। তবুও সতর্কতা অবলম্বন করা ভাল।
-----------------------------> ঝুঁকি কে না বলুন<------------------------------------
[**]
*/*
[প্রবেশ প্রাইজ]
EUR/USD= Long (1.07 থেকে 1.08)
EUR/USD= Short (1.054 থেকে 1.02)
*/*
USD/JPY = Short (114.30 থেকে 112.00)
USD/CAD= Long (1.38 থেকে 1.39)
USD/CAD= Short 1.3060 থেকে 1.28)
-----------------------------------------++----------------------------------------------
Md Mohabbat E Elahi
Analytical expert: Forex & CFD Market.
Analysis: Fundamental
Currency: USD
  • Love 2

Share this post


Link to post
Share on other sites

USD/CAD= Long (1.318 থেকে 1.329) হবে।

Market volatility বিবেচনায় EUR/USD= Short (1.054 থেকে 1.02) বাতিল করা হয়েছে।

Share this post


Link to post
Share on other sites


এনালাইসিস পরবর্তিতে মার্কেট ফলাফল................



Economy-র ক্ষেত্রে ৩নং পয়েন্ট টি কার্যকর হয়েছে। অর্থাৎ ফেড ব্যাংক সুদের হার ০.২৫% বৃদ্ধির পাশাপাশি ২০১৭ অর্থ বছরেও কয়েক দফায় বাড়ানোর সিদ্ধান্ত গ্রহন করেছে।



---

পজিশন বিশ্লেষনে #USD/CAD-র লং পজিশনটি কার্যকর হয়েছে এবং নির্দিষ্ট টার্গেট টি হিট করেছে।

অপর দিকে volatility বিবেচনায় #EUR/USD-র শর্ট পজিশন টি বাতিল করলেও মার্কেট এখনও পতনশীল অবস্থায় রয়েছে।


Share this post


Link to post
Share on other sites
Guest
You are commenting as a guest. If you have an account, please sign in.
Reply to this topic...

×   Pasted as rich text.   Paste as plain text instead

  Only 75 emoticons maximum are allowed.

×   Your link has been automatically embedded.   Display as a link instead

×   Your previous content has been restored.   Clear editor

×   You cannot paste images directly. Upload or insert images from URL.

Loading...
Sign in to follow this  

  • Similar Content

    • By MohabbatElahi

      আগামী ০৭ই মে রবিবার ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের চুড়ান্ত লড়াই অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।প্রতিযোগিতায় শীর্ষে থাকা ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ ও মেরিন লা পেন এ দুই প্রার্থীর মধ্য থেকে একজনই হতে যাচ্ছেন ফ্রান্সের ভবিষ্যত প্রেসিডেন্ট।আর এ নির্বাচন কে কেন্দ্র করেই চরম অস্থিতিশীলতা বিরাজ করছে বিশ্বের সর্ববৃহৎ মুদ্রা বাজার ফরেক্স মার্কেটে। বিশেষ করে EUR/USD, USD/CHF,GBP/USD উক্ত তিনটি মূদ্রা জোড়ে প্রথম দফা নির্বাচন থেকে শুরু করে এপর্যন্ত অস্থিরতা বিরাজ করছে।তবে আগামী ৭ই মে এঅস্থিরতার অবসান ঘটতে চলেছে । সূতরাং নির্বাচনের প্রভাবে কি ঘটতে পারে সেটায় এখন দেখার বিষয়।তবে ক্ষুদ্র জ্ঞানের উপলব্ধি থেকে ব্যাক্তিগত মূল্যায়নটি আপনাদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করছি।
      -
      ফান্ডামেন্টাল মূল্যায়ন
      উভয় প্রাথীর নির্বাচনী বক্তব্য,প্রতিশ্রুতি ও ব্যাক্তিগত জীবন মূল্যায়ন করলে এটা প্রতিয়মান হয়ে যে ইউরোপীয়পন্থী ম্যাক্রোঁ নির্বাচিত হলে সেটা হবে ইউরোপের জন্য কল্যানকর।কারন ব্যাক্তিগত জীবনে তিনি ছিলেন একজন অর্থমন্ত্রী। তিনি নির্বাচিত হলে বর্তমান ইউরোজোনের অভিবাসন,অর্থনীতি ও ফরাসি নাগরিকদের ভবিষ্যত ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ন রাজনৈতিক ইস্যুগুলোর সমাধান হবে বলে ধারনা করা হচ্ছে।
      -
      আপর দিকে ৪৮ বছর বয়সী ন্যাশনাল ফ্রন্ট পার্টির নেতা লা পেন নির্বাচিত হলে ইউরোপ চরম সংকটে পড়বে বলে ধারনা করছেন অনেকেই। কারন তিনি হচ্ছেন কট্টর ডানপন্থী নেতা। তিনি বর্তমানে ইউরোজোনের অনেক রাজনৈতিক সিদ্ধান্তের কট্টর বিরোধী।তার মতাদর্শ হচ্ছে সংস্কার বা নতুন করে সাজাও।যা ইউরোপের চলমান রাজনৈতিক ইস্যু সহ বিভিন্ন সেক্টরে বিরাজমান অস্থিতিশীলতাকে আরো উস্কে দিতে পারে।তবে আশ্চর্য জনক বিষয় হচ্ছে প্রথম দফার নির্বাচনে ম্যাক্রোঁ ২৩.৫৪ শতাংশ ভোট পেয়ে প্রথম স্থানে এবং লা পেন ২২.৩ শতাংশ ভোট পেয়ে ২য় স্থানে অবস্থান করছেন ।এক কথায় হাড্ডাহাড্ডি লড়াই যাকে বলে এখানে কোন পক্ষ কে এগিয়ে দেয়া যাচ্ছে না।
      -
      ফান্ডামেন্টালের এপিঠ ওপিঠ
      বিগত দিনে ঘটে যাওয়া দুই দুইটি রাজনৈতিক ইস্যুর দিকে যদি আমরা তাকাই তবে একথা প্রতিয়মান হয় যে নির্বাচনী বিশ্লেষন ততটা প্রতিফলিত হয়না যেমনটি আমরা দেখেছি ব্রেক্সিট ও আমেরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে। কারন অনেক বিশ্লেষকের ব্রেক্সিট মূল্যায়ন ছিল পজিটিভ এমন কি ব্রেক্সিটের জন্য আন্দোলনকারীগনও এটা প্রত্যাশা করেনি যা পাউন্ডের ইতিহাসে ঘটে গেছে।ঠিক একই ভাবে আমেরিকা প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্প কে অর্থনীতির জন্য আশনি সংকেত হিসাবে তুলে ধরা হয়েছেল। কিন্তু পরবর্তিতে যা ঘটেছে তা সবারই জানা আছে। সূতরাং ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ম্যাক্রোঁ ও লা পেন কে নিয়ে আমাদের যে কোন মূল্যায়ন মুদ্রা বাজারে প্রতিফলিত নাও হতে পারে।সূতরাং নির্বাচন পরবর্তিতে মার্কেট গেপ দিয়ে ওপেন হবে এই প্রত্যাশায় কারো প্ররোচনায় পড়ে উদ্ভট চিন্তা ভাবনা ও উত্তেজনা পরিহার করতে হবে।

      ফ্রান্সের নির্বাচনে আমাদের ট্রেডিং কৌশল কেমন হতে পারে? ********************************************************* হুম,আমরা অবশ্যই একটি রক্ষণাত্মক কৌশলে মার্কেটে প্রবেশ করতে পারি। যা তুলনা মূলক ভাবে অনেক বেশি নিরাপদ ও লাভজনক।তবে এটি লং টার্ম ট্রেডারদের জন্য প্রয়োজ্য । - প্রথম ধাপঃ ট্রেডিং কৌশল টি বুঝতে প্রথমে আপনার মেটা ট্রেডার সফটওয়্যার টি ওপেন করুন। অতপর EUR/USD (D1) চার্টের দিকে তাকান। উক্ত মুদ্রা জোড়ে আপনি তিনটি প্রাইজে হরিজ্যান্টাল লাইন বাসান। প্রথম প্রাইজঃ 1.13000 (স্ট্রং সাপ্লাইজোন) দিত্বীয় প্রাইজঃ 1.0870 (বর্তমান অবস্থান) তৃতীয় প্রাইজঃ 1.0370 (স্ট্রং ডিমান্ড জোন)   দ্বিতীয় ধাপঃ এক্সচেঞ্জ রেট যদি 1.0870 (দ্বিতীয় প্রাইজ)এর নিচে নেমে আসে তবে মূল্য পতনের সম্ভাবনা বেশি থাকবে।অর্থাৎ মার্কেট ডিমান্ড লেভেল কে টার্গেট করতে পারে।বিপরিতে সাপ্লাইজোন কে টার্গেট করতে পারে।তাই এনএফপি প্রভাব চলাকালীন আপনি রক্ষনাত্তক অবস্থানে ট্রেড করবেন এবং প্রাইজ মনিটরিং করবেন। তৃতীয় ধাপঃ আপনি ইউএস সেশন ক্লোজ হওয়ার আধা ঘন্টা পূর্বে অর্থাৎ মার্কেট অফ হওয়ার অধা ঘন্টা বা ২০ মিনিট পূর্বে প্রাইজ মূল্যায়ন করে ২/১ হেজিংয়ে যেতে পারেন। অর্থাৎ যদি মার্কেট 1.0870 থেকে 1.0950 এই রেঞ্জে উর্ধমুখী প্রভাবে থাকে তাহলে আপনি ০.০২ ভলিয়মে লং পজিশন গ্রহন করতে পারেন। এক্ষেত্রে মার্কেট গেপ হলে ১.১৩০০ পর্যন্ত প্রথামিক ভাবে গেফ হতে পারে। পাপাশাপাশি ০.০১ এ একটি শর্ট পজিশনও কার্যকর করতে হবে।যেন বিপরিত কিছু হলে অন্তত ৫০% বেকাপ থাকে।আর যদি প্রাইজ 1.0870-র নিচে পড়ে যায় তাহলে একই নিয়মে ২/১ এ শর্ট পজিশন গ্রহন করবেন।পাশাপাশি একটি লং পজিশনও। চতুর্থ ধাপঃ এক্সচেঞ্জ রেট গেপ আপ বা ডাউন যাইহোক না কেন উক্ত দুটি লেভেলের ভিতরেই থাকার সম্ভাবনা বেশি। সূতরাং যদি এক্সচেঞ্জ রেট ১.১৩০০ পর্যন্ত চলে যায় এবং আর উঠার সম্ভাবনা দেখা না যায় তবে আপনি লং পজিশন ক্লোজ করে দিতে পারেন এবং ১.১৩০০ বা ১.১৪০০ রেঞ্জ থেকে প্রাইজ অ্যাকশন ফলো করে চলমান থাকা লস ট্রেডের ভলিয়ম অনুযায়ী একটি রিভাঞ্জ নিতে পারেন। পঞ্চম ধাপঃ যদি ২/১ ভলিয়মের মধ্যে ২ লসে চলে যায় তাহলে প্রাইজ এ্যাকশান ফলো করে ১ ক্লোজ করে দেয়ার পর মার্কেট মূল্যায়ন করে পুনরায় একটি রিভাঞ্জ নিতে হবে সেইম ভলিয়মে (০.০১) এক্ষেত্রে ভলিয়ম বাড়ানো যাবেনা কারন যদি মার্কেট আপনার বিপরিতে চলে যায় তখন আপনি কোন প্রকার লাভবান হচ্ছেন না। তখন রিস্কের পরিমান বেড়ে যাবে।কিন্তু যদি আপনি সেইম ভলিয়মে কন্টিনিউ করেন তবে আপনি লং টাইম ট্রেডটি ধরে রাখতে পারবেন।   প্রশ্নঃ 1.0870 এ প্রাইজ রিকভারের সম্ভাবনা কতটুকু ? উত্তরঃ যারা ১০০০ ডলারে ১% রিস্কে ট্রেড করেন তাদের জন্য এখানে ঝুঁকির কিছুই নেই। আর 1.0870 এ প্রাইজটি আগে পরে রিটেস্ট হবে এতে কোন সন্দেহ নেই। কারন এটি ইউরোর জন্য বর্তমানে একটি মিডেল পয়েন্ট।যা হেজিংয়ের জন্য উপযু্ক্ত।   উল্লেখ্য যে এই কৌশলে ট্রেড কেবল তারাই করবেন যারা ফ্রান্সের নির্বাচনে কিছু রিস্ক নিতে চান। তবে যাদের স্বল্প বেলেন্স তারা নির্বাচন পরবর্তিতে মার্কেট ওপেনিং দেখে ট্রেডে প্রবেশ করবেন। তবে যদি সোমবারের মার্কেটে কোন গেপ না হয় তবে উচিত হবে মার্কেট ওপেন হওয়ার পর উভয় পজিশন ক্লোজ করে আপনার স্বাভাবিক স্ট্রাটিজিতে ট্রেড করা। নিরাপদ হোক সবার ট্রেডিং ------------------------------------- Md Mohabbat E Elahi Analytical Expert: Global Forex Market
    • By MohabbatElahi
      আগামী ২০ই জানুয়ারি শুক্রবার(12:00PM ET (17:00GMT) on Friday in Washington, D.C) মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে হোয়াইট হাউসে প্রবেশ করতে চলেছে নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।ট্রাম্পের হাতে ক্ষমতা অর্পণ করেই বিদায় নেবেন আমেরিকার ইতিহাসের সবচেয়ে জনপ্রিয় প্রেসিডেন্ট বারাক হোসেন ওবামা।সমাপ্তি ঘটবে কৃষ্ণাঙ্গ এ প্রেসিডেন্টের দীর্ঘ আট বছরের রাজত্ব। হোয়াইটহাউস ইতোমধ্যে ওবামার শেষ ভাষণের প্রস্তুতিও সম্পন্ন করেছে।কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে কেমন হবে ডোনাল্ড ট্রাম্পের রাষ্ট্র পরিচালনা….? তিনি কি সর্বক্ষেত্রে বিগত প্রেসিডেন্টদের পথেই হাঁটবেন, নাকি মার্কিনিদের জন্য নতুন কোন ইতিহাস সৃষ্টি করবেন?         ট্রাম্পের রাষ্ট্র পরিচালনা বিষয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে প্রাক্তন মার্কিন রাষ্ট্রদূত ও বর্তমানে উইলসন সেন্টারের সিনিয়র ফেলো উইলিয়াম বি মাইলাম বলেন।--“ইটস টু আর্লি টু কমেন্ট”। কেননা ট্রাম্পের পররাষ্ট্রনীতি সম্পর্কে আমরা কিছুই জানি না। তবে ট্রাম্পের ক্ষমতাগ্রহনের পর পররাষ্ট্র বিভাগে কারা কাজ করছেন সেটা জানা গেলে অন্তত আমরা ডনাল্ড ট্রাম্পের পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ে কিছুটা আঁচ করতে পারবো--- সূতরাং ট্রাম্পের ক্ষমতা গ্রহন, রাষ্ট্র পরিচালনা ও পরারাষ্ট্রনীতি বিষয়ে মার্কিনীদের সাথে সমগ্র বিশ্বও সম্পূর্ণ অন্ধকারেই থেকেগেছে।   এছাড়া সবচেয়ে আশ্চর্যজনক বিষয় হচ্ছে তার বহুরূপী আচরন। নির্বাচনের পূর্বে নবনির্বাচিত এ প্রেসিডেন্ট যেসব বক্তব্য দিয়ে হিলারি ক্লিন্টন কে বেকায়দায় ফেলার পাশাপাশি সমগ্র বিশ্বে আলোড়ন সৃষ্টি করেছিলেন, নির্বাচন পরবর্তিতে সেসব বক্তব্য থেকে তিনি সম্পূর্ণ সরে এসেছেন। উদাহরণস্বরূপ ফ্লোরিডার এক আলোচনা সভায় তিনি ওবামা ও হিলারি ক্লিনটনকে মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জিহাদী সংগঠন আইএস এর প্রতিষ্ঠাতা হিসেবে উল্লেখ করে সমগ্র বিশ্বে হইচই ফেলে দিয়েছিলেন।ঠিক এমনই আরেকটি মন্তব্যছিল হিলারি ক্লিনটনকে নিয়ে। তিনি বলেন, “রাশিয়া, তোমরা কি শুনছ আমায় ? আশা , হিলারির যে ৩০ হাজার ইমেলের কোনো খোঁজ নেই, তার হদিস তোমরাই দিতে পারবে” যা পরবর্তিতে এফবিআই-এর তদন্তে মিথ্যা প্রমানিত হয়েছে। কিন্তু সমগ্র বিশ্বে হেডলাইন হওয়া এসব বক্তব্য বিষয়ে ট্রাম্প পরবর্তিতে সুর পাল্টিয়ে এক টুইটার বার্তায় বলেন, 'আমি তো এসব মজা করে বলেছিলাম। বিষয়টা নিয়ে মিডিয়াই বাড়াবাড়ি করছে। ওরা মজাই বোঝে না।'   তার এমন ডিগবাজি মূলক আচরন এখন মার্কিন নীতিনির্ধারকদের দারুন ভোগাচ্ছে। যার ফলে মার্কিন পররাষ্ট্রনীতি বোদ্ধারা ডনাল্ড ট্রাম্পের সম্পর্কে এরুপ মন্তব্য করেছেন যে“ আমরা এখন পর্যন্ত যা জানি তা ‘ভীতিকর’; আর এখনো যা জানি না হতে পারে তা আরো ভয়ঙ্কর” সূতরাং এটা পরিস্কার যে মার্কিন এ প্রেসিডেন্টর গতিবিধি সন্দেহ জনক।তার প্রকৃত চরিত্র এখনো অজনা?   বর্তমানে মধ্যপ্রাচ্য সংকট সহ সমগ্র বিশ্বে যে অর্থনৈতিক সংকট সৃষ্টি হতে চলছে তা কিভাবে দেখছেন নবনিবার্চিত এই প্রেসিডেন্ট তার সম্ভাব্য বিভিন্ন দিকে নিয়ে বিশ্লেষকগন অনেকটাই অভিন্ন মত প্রকাশ করেছেন।তবে এক্ষেত্রে আমার ব্যাক্তিগত মূল্যায়ন হচ্ছে ট্রাম্পের গতিবিধি খুবই ভয়ংকর এবং সমগ্র বিশ্ব কে একটি কঠিন পরিস্থিতির মুখোমুখি দাড় করাবে এতে কোন সন্দেহ নেই যা তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের দ্বার উন্মুক্ত করবে। আমি যে কয়টি বিষয় পয়েন্ট আউট করেছি তা হচ্ছে... সিরিয়া ইস্যুতে রাশিয়ার সঙ্গে কাজ করার ঘোষণা দিয়ে রেখেছেন ট্রাম্প। তিনি সিরিয়া সংকট সমাধানে বাশার আল আসাদ কে নিরাপদ মনে করেন যা আরব গালফ মেনে নিবেনা।সূতরাং পরিস্থিতি আরো জটিল হবে। ট্রাম্প মিশরের প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আল সিসির সাথে সম্পর্ক উন্নায়নে গুরুত্ব আরোপের ইঙ্গিত দিয়েছেন যা মিশরের গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাকে সমূলে ধংস করে দিবে। ইরান নীতিতে তিনি আঙ্কারা,কায়রো এবং রিয়াদ কে নিয়ে মার্কিন সমর্থিত “সুন্নি ট্রায়েঙ্গেল” তৈরি করতে তাদের বিশ্বস্ত মিত্র সৌদিকে প্রলুব্ধ করতে পারেন।যা ইরান ও রাশিয়া কখনো মেনে নিবেনা। অর্থাৎ সার্বিক অবস্থা বিবেচনা করলে অনেকটা নিশ্চিত করে বলা যায় যে মধ্যপ্রাচ্য সংকট সমাধানের কোন সম্ভাবনায় নেই বরং তা আরো উস্কে দিতে পারেন নব নির্বাচিত এই প্রেসিডেন্ট। তবে তার বিগত দিনের বক্তব্যগুলোর মাঝে শুধু মাত্র দুটি বিষয় কেবল সন্তুষ্ট জনক বলে মনে করছি। আর তা হচ্ছে,ওয়াল স্ট্রিট জার্নালকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি রাশিয়ার বিরুদ্ধে নতুন করে আরোপ করা নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের আভাস দিয়েছেন।যা দুই পরাশক্তির মধ্যে স্নায়ু যুদ্ধের অবসান ঘটিয়ে সহাবস্থানে বা সৃষ্ট দৃরুত্ব কমাতে সম্ভাবনা তৈরি করবে। আপর দিকে মার্কিন পররাষ্ট্রনীতির জন্য ভবিষ্যত চ্যালেঞ্জ ,অপ্রতিরোধ্য চীনের সাথেও তিনি কাজ করতে আগ্রহী বলে ঘোষনা দিয়েছে। তবে এক্ষেত্রে চীন থেকেও সহযোগিতা প্রত্যাশা করেন এবং তিনি একক চীন নীতি ঘোষনারও আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।   অতএব একজন ফরক্স ট্রেডার হিসেবে আমাদের উচিত চিন্তা-ভাবনা শুধু মাত্র ট্রেডিং প্লাটফর্ম কেন্দ্রিক সীমাবদ্ধ না রেখে বিশ্বের প্রতিটি বৃহৎ ঘটনা প্রবাহ মূল্যায়নের প্রতি গুরুত্ব দেয়া। যেন উদ্ভূত যে কোন পরিস্থিতি মোকাবেলা করা আমাদের পক্ষে সহজ হয় এবং বৃহৎ আর্থিক ক্ষতি থেকে আমরা নিরাপদ থাকতে পারি। এটি হচ্ছে ব্যবসায়িক কৌশল।সূতরাং ট্রেডিং একাউন্টের নিরাপত্তার প্রতি গুরুত্ব আরোপের পাশাপাশি ফান্ডামেন্টাল গবেষণার পরিধিও বিস্তৃত করা এখন সময়ের দাবি।কারন ফরেক্স হচ্ছে গ্লোবাল গেইম। এটি সম্পূর্ন চ্যালেঞ্জিং ব্যবসা।
      --------------------------------------------------------------- Md Mohabbat E Elahi Admin: Forex online training academy Bangladesh    
    • By MohabbatElahi

       
      Bank of Japan Interest Rate Decision বনাম USD/JPY ---------------------------------------------------------------------------- সম্মানিত ফরেক্স ট্রেডার বৃন্দ, আজ ০৯-২১-২০১৬ টকিও সেশনে ঘোষনা হতে যাচ্ছে ব্যাংক অব জাপানের ইন্টারেস্ট রেট যা গতবারের মতই ( -0.1 ) দূর্বল অবস্থায় রয়েছে এবং চলতি মাসেও ব্যাংক অব জাপান তাদের সুদের হার বৃদ্ধি করন বিষয়ে তেমন কোন সিদ্ধান্ত গ্রহন করেনি ফলে IRD -0.1 পরিবর্তনের সম্ভাবনা নেই।   তবে Policy Board of the Bank of Japan এর monetary policy statement খুবই গুরত্ব বহন করছে কারন ফেডারেল রিজার্ভের ব্যাংক সুদের হার বৃদ্ধি করন বিষয়ে পূর্বে থেকেই কিছু টা ইঙ্গিত থাকার কারনে ব্যাংক অব জাপানের পলিসি বোর্ড নতুন কোন সিদ্ধান্ত গ্রহন করছে কিনা তা বিবেচ্ছ্য যা চলতি Key events প্রতিটি ট্রেডার কে JPY সম্পর্কিত মূদ্রা জোড়ে প্রবেশের দারুন সুযোগ তৈরি করে দিতে পারে।   বিশেষ করে USD/JPY বর্তমানে একটি শক্তিশালী Demand zone (price 101.00- 2014) এ অবস্থান করছে যা বিগত তিন মাসে কয়েকবার টেস্ট হয়েছে। সূতরাং আজকের ইভেন্টস 101.00 থেকে 100.00 উক্ত প্রাইজ দুটির মাঝে সীমাবদ্ধ থাকার সম্ভাবনা রয়েছে । তবে আসন্য Fed Interest rate কে কেন্দ্র করে মার্কেট হয়তোবা কিছুটা নরমালও থাকতে পারে তাই সার্বিক বিবোচনা একান্ত কাম্য। তবে আজকের মার্কেট কন্ডিশন মূল্যায়নের পর সার্বিক ভাবে আমি 101.00 থেকে 100.00 উক্ত এরিয়াতে কোন প্রকার Short entry সমর্থন করছিনা ফলে 102.00 থেকে আমরা Buy stop position গ্রহন করতে পারি যদিও প্রাইজ আজকের ক্লোজিং পরবর্তিতে ৫০ থেকে ৬০ পিপসের মত পতনের সম্ভাবনা রয়েছে। ------------------------------------------------ মার্কেট বিশ্লেষনঃ Fundamental & Technical Analysis: Descending T-Angle & Falling channel Currency Pair: USD/JPY Sentiment: Long 102.00 (Buy stop) Change Target: 60 ------------------------------------------------------------------------------------ MD Mohabbat E-Elahi Analytical Expert: Forex & CFD Market. Writer: The Insider secret of global Forex Market
    • By MohabbatElahi

      কেমন হওয়া উচিত একজন ফরেক্স ট্রেডারের সার্বিক অবস্থা ? বর্তমানে বেশির ভাগ ফরেক্স ট্রেডারই ট্রেডিং মার্কেট বুঝা, বিশ্লেসন করা, ইত্যাদি বিষয়ের উপর সঠিক জ্ঞান রাখে৤ কিন্তু নিয়মনীতি মেনে দীর্ঘ দিন ট্রেডিং জগতে বেচে থাকার যে মন মানসিকতা থাকা প্রয়োজন তা কিন্তু  খুবই কম সংখ্যক ট্রেডারের মাঝেই পাওয়া যায়৤ ফলে বেশির ভাগ ট্রেডারই প্রতিনিয়তই ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে থাকে৤ অথচ সামান্য কিছু বিষয়ের প্রতি যদি আমরা একটু সতর্কতা অবলম্বন করি তবে আমাদের ট্রেডিং জীবন হয়ে উঠতে পারে আনন্দময়৤ যদিও অনেকের ক্ষেত্রে ফরেক্স হচ্ছে একটি বিরক্তিকর লোভনীয় ব্যবসা৤ তাই ফেলতেও পারে না আবার হজম করতেও সমস্যা হয়৤ তাই আমাদের উচিত হবে ফরেক্স ট্রেডিং জগতে চিন্তা ভাবনা ও পরিকল্পনায় পরিবর্তন আনা ৤  অন্যথায় আমাদের মাঝে আর জুয়াড়ীদের মাঝে তেমন কোন পার্থক্য থাকবেনা৤
       
      কেমন হওয়া উচিত একজন ফরেক্স ট্রেডারের সার্বিক অবস্থা ?
      01) মার্কেট এনালাইসিসের ভিত্তিতে বেশির ভাগ সম্ভাবনা কে সামনে রেখে পজিশন গ্রহন করুন৤
      02) Exiting trade পরিহার করে plan ভিত্তিতে ট্রেড করুন৤
      03) সঠিক স্টপ লস নির্বাচন করুন৤
      04) ট্রেডে সঠিক সাইজ নির্বাচন করুন, যদি সম্পূর্ন বিনিয়োগের রিস্ক নিয়ে তা ডাবল করার নেশায় ট্রেড করেন তবে আপনি গেইমবলার৤
      05) আপনাকে বুঝতে হবে আপনি কি ট্রেড করছেন? কেন করছেন ?
      06) টাইম ফ্রেম নির্বাচনে সর্তক হোন, গেইমলার হয়ে উঠার মত যে কোন উপসর্গ দেখলে নিজেকে শান্ত রাখুন৤
      07) আপনার ট্রেডিং strategy-তে ফিরে যান এবং এটি ডেভলাপ করতে থাকুন৤
      08) আপনার historical performance রিভিউ করুন এবং আপনার সফলতা ও ব্যর্থতার কারন গুলো বের করুন৤
      09) Be disciplined,ট্রেড কে ব্যবসা হিসাবে মূল্যায়ন করুন গেইম হিসাবে নয়৤
      10) আপনার চিন্তা ভাবনা কে প্রসারিত করুন৤ কোন প্রফেশনাল ট্রেডারের অধীনে চলুন৤
      ---------------------------------------------------
      Md Mohabbat E-Elahi
      Analytical Expert: Forex & CFD Market.
    • By MohabbatElahi
      মার্চ ২০১৬ এর প্রথম দুই সাপ্তাহে US Dollar অন্যসব মূদ্রার সাথে ফেডারেল রিজার্ভের অপরিবর্তীত Bank Interest rate ও Initial Jobless Claims এর low performance ফলে পতন হলেও পরবর্তী সাপ্তাহ অথাৎ 3rd Trading Week-এ US Dollar প্রাইজ রিকভারের সম্ভাবনা তৈরি করেছিল যা ট্রেডিং মার্কেটে অন্যসব মূদ্রা কে খুবই প্রভাবিত করেছে ৤ --------------------------- কিন্তু মর্চের শেষ সাপ্তাহ বা 4th Week Wednesday, Mar 30, 2016 day-তে পরবর্তী দুটি Economical Events (ADP & NFP) সামগ্রীক পর্যালোচনায় Bearish হওয়াতে US Dollar-এর পতন হয়, ফলে বিশ্বের বৃহত্তম ফরেক্স ট্রেডিং মার্কেটে অন্যসব মূদ্রা শক্তিশালী অবস্থান তৈরি করে নেয় ৤ --------------------------- অপর দিকে এপ্রিলের প্রথম দিন শুক্রবার NFP (Previous: 245K.Forecast: 205K.Actual: 215K) ঘোষনার পর তা প্রত্যাশীত পরিমান থেকে কিছুটা ভাল অবস্থানে (+10K) থাকায় Global trader sentiment কিছুটা US Dollar-এর পক্ষে চলে যায়, ফলে US Dollar কিছু টা শক্তিশালী হওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়ে ছিল৤ -------------------------- কিন্তু একই সময়ে United States Unemployment Rate ( Previous:4.9%. Forecast: 4.9%. Actual: 5.0%) Increasing এর কারনে পুনরায় US Dollar দূর্বল হয়ে পড়ে ৤ ফলে Friday তে US Dollar-এর daily candle টি long-legged doji তে পরিনত হয়৤ এবং মার্কিন ডলারের বিপরিতে অন্য সব মূদ্রা কিছুটা অপরিবর্তিত ছিল৤ ---------------------------- সূতরাং সামগ্রীক দিক মূল্যায়নে এপ্রিলের প্রথম সাপ্তাহ ফরেক্স ট্রেডিং মার্কেটের জন্যে খুবই গুরুত্বপূর্ন বিশেষ করে চলতি সাপ্তাহের Initial Jobless Claims এই events টি৤ এছাড়া বর্তমানে USDX একটি strong demand zone- এ অবস্থান করছে৤ অতএব যদি চলতি সাপ্তাহে মার্কিন ডলার শক্তিশালী পজিশন তৈরি করতে সক্ষম হয় তবে পরর্বতী সাপ্তাহে বিশেষ কিছু মুদ্রা মার্কিন ডলারের বিপরীতে পিছিয়ে যেতে পারে যেমন, AUD, EUR,CAD, CHF --------------------------------------------------------------------------------- A.E: Forex Fundamental
      Currency: USDX Time Frame: D1 with W1 Current Sentiment: Under pressure & waiting for channel. --------------------------------------------------------------------------------- Md Mohabbat E Elahi Analytical Expert: Forex & CFD Market. Writer: The insider secret of global Forex market. Phone: +880-1936236148

বিডিপিপস কি এবং কেন?

বিডিপিপস বাংলাদেশের সর্বপ্রথম অনলাইন ফরেক্স কমিউনিটি এবং বাংলা ফরেক্স স্কুল। প্রথমেই বলে রাখা জরুরি, বিডিপিপস কাউকে ফরেক্স ট্রেডিংয়ে অনুপ্রাণিত করে না। যারা বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, শুধুমাত্র তাদের জন্যই বিডিপিপস একটি আলোচনা এবং অ্যানালাইসিস পোর্টাল। ফরেক্স ট্রেডিং একটি ব্যবসা এবং উচ্চ লিভারেজ নিয়ে ট্রেড করলে তাতে যথেষ্ট ঝুকি রয়েছে। যারা ফরেক্স ট্রেডিংয়ের যাবতীয় ঝুকি সম্পর্কে সচেতন এবং বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, বিডিপিপস শুধুমাত্র তাদের ফরেক্স শেখা এবং উন্নত ট্রেডিংয়ের জন্য সহযোগিতা প্রদান করার চেষ্টা করে।

×