Jump to content
Sign in to follow this  
forexnews

আরেকটি NFP ঝড় - আরেকটি প্রত্যাশিত মার্কেট মুভমেন্ট - EUR/USD কমল ১৫০ পিপস

Recommended Posts

আবারও মার্কেট কাঁপাল NFP। গতকাল থেকেই ফরেক্স ট্রেডাররা অপেক্ষা করছিলেন NFP এর জন্য, আর তাই মার্কেট মুভমেন্টও ছিল অনেক কম

 

UFipMG8.png

 

আজ বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৭:৩০ এ প্রকাশিত হয় NFP রিপোর্টটি এবং এবারের ফলাফল হল 271K, যা প্রত্যাশিত 181K থেকে অনেক অনেক বেশি। তাই, মার্কেটে  NFP এর প্রভাবও পরে অনেক বেশি। গতকালের নিউজে আমরা প্রত্যাশা করেছিলাম:
 
প্রত্যাশার অনেক বেশিঃ ১৮৯,০০০ এর বেশি যদি এন.এফ.পির ফলাফল এবার আসে, তবে তা হবে প্রত্যাশার থেকে অনেক বেশি, যা কিনা নিকটস্থ ২টি সাপোর্ট লেভেল ভেঙ্গে বা ১.০৭৬০ এর নিচেও EURUSD কে নিয়ে যেতে পারে। 

 

 

কিন্তু,  EUR/USD প্রত্যাশা থেকেও অনেক বেশি দুর্বল হয়েছে এবং মাত্র ১০ মিনিটেই ১.০৮৬৪ থেকে ১৫০ পিপসসের ও বেশি দুর্বল হয়ে ১.০৭০৮ এ নেমে আসে

 

bdpips_1446829765__nfp.png

 

এই মুহুর্তে, আবার কিছুটা মূল্য সংশোধনের পর  EUR/USD ১.০৭৪৪ এ ট্রেড হচ্ছে। শক্তিশালী ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত থাকায়  EURUSD আরো দুর্বল হতে পারে 
 
এই সপ্তাহের অধিকাংশ নিউজের পরেই প্রত্যাশিত মার্কেট মুভমেন্ট ঘটায় বেশ চমত্কার একটি সপ্তাহ গেল ফরেক্স ট্রেডারদের জন্য। আপনার সাফল্য বা ব্যর্থতা, দুটোই শেয়ার করুন। কারণ, উভয়টি থেকেই আমাদের সবার অনেক কিছু শেখার আছে
  • Love 1

Share this post


Link to post
Share on other sites

I had a sell by 0.01 lot from 1.0883 sl silo 0.0900 trailing silo 20 pips I got 160 pips from that move ment

  • Love 2

Share this post


Link to post
Share on other sites

I had a sell by 0.01 lot from 1.0883 sl silo 0.0900 trailing silo 20 pips I got 160 pips from that move ment

 

Ebarer NFP kombeshi shobaike khushi korese dekha jasse. Congrats!! 

  • Love 1

Share this post


Link to post
Share on other sites

Protita news e effective hoy. Kono news hurry hoy ar konota dhere dhere

প্রতিটা নিউজ ই effective হয় তবে উল্টাও হয়

Share this post


Link to post
Share on other sites

গত সপ্তাহটি ছিল অসাধারণ একটি ট্রেডিং সপ্তাহ বিশেষ করে NFP news এর কারণে..! ৭:২৫ এর দিকে শিউর হয়ে যাই যে, নিউজ টা পজেটিভ আসার সম্ভাবনাই বেশী, তাই মেজর ৫ টি পেয়ার এ (EUR, GBP,CHF, NZ, AUD) 0.50 lot এ ১১০ পিপস টার্গেট এ পেন্ডিং অর্ডার বসিয়ে অপেক্ষা করছিলাম...। আলহামদুলিল্লাহ্ প্রতিটি পেয়ার এই কাঙ্খিত মুভ হয়েছে এবং ৫ পেয়ার থেকে ৫০০ পিপস প্রফিট হয়েছে। তবে এজন্য বিডিপিপস কে ধন্যবাদ না দিয়ে পারছিনা...! গত সপ্তাহের NFP news সম্পর্কে ডিপিপস থেকে অনেক গরুত্বপূর্ন তথ্য পেযেছিলাম।

Share this post


Link to post
Share on other sites

Create an account or sign in to comment

You need to be a member in order to leave a comment

Create an account

Sign up for a new account in our community. It's easy!

Register a new account

লগিন

Already have an account? Sign in here.

Sign In Now
Sign in to follow this  

  • Similar Content

    • By masteroffx2018
      আসুন আজ আমরা জেনে এই এমন একজন কিংবদন্তী ফরেক্স ট্রেডারের সম্পর্কে, যাকে বলা হয়, “ দ্য ম্যান, যিনি ব্যাংক অব ইংল্যান্ডকে ভেঙ্গে দিয়েছেন!”
       

       
      শান্তির এই পৃথিবীতে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ চলছে।চারিদিকে হামলা আর হামলা। ভেঙ্গে পড়েছে ইতালী ও জাপানের শাসন ব্যবস্থা। এদিকে হিটলার তার ক্ষমতা টিকিয়ে রাখতে শুরু করেছেন ইহুদী হত্যা। হাঙ্গেরি নামের একতি রাজ্য ছিল সেই সময় জার্মানির দখলে। আজ যা স্বাধীন হাঙ্গেরি দেশ নামে পরিচিত।
      সেসময়ের এই হাঙ্গেরী রাজ্য থেকে হিটলারের হামলার খবর পেয়ে প্রান বাচাতে নিজের দেশ ত্যাগ করলেন ছোট্ট এক বালক তার বাবাকে সাথে নিয়ে।তাদের ভয়, তারা ইহুদী। হিটলারের নাৎসি বাহিনী যদি তাদের খবর পেয়ে যায়, তবে তাদেরকেও মেরে ফেলবে!
      দীর্ঘদিন পালিয়ে বেরিয়ে, একবেলা খেয়ে না খেয়ে অবশেষে ইমিগ্রেশন নেন ইংল্যান্ডে।
      এদিকে ২য় বিশ্বযুদ্ধ শেষ হয়ে যায়। হিটলারের শাসনেরও পতন হয়। এই বালক ও তার পরিবার আর নিজের দেশে ফিরে যান না। থেকে যান ইংল্যান্ডেই। শুরু করেন পড়াশোনা। গ্রাজুয়েশন ও পোস্ট গ্রাজুয়েশন করেন ইংল্যান্ড থেকেই ফিলসফি বিষয়ের উপরে।
      এরপর নেমে পড়েন কারেন্সী লেনদেনের ব্যবসায়।
       
      নানান চড়াই উতরাই পার হয়ে আসা এই মানুষটি আলোচনায় আসেন ১৯৯২ সালে। ১৬ সেপ্টেম্বর, ১৯৯২ সালে UK Currency Crisis নিউজের উপর ফান্ডামেন্টালি এনালাইসিস করে তিনি GBP কারেন্সীর উপরের সেল ট্রেড নিয়েছিলেন এবং এই ট্রেডে তিনি ১ বিলিয়নেরও বেশি প্রফিট করে ফেলেন। যে দিনটিকে ফরেক্স এর ইতিহাসে Black Wednesday বলা হয়। আর এই মানুষটি হয়ে যান ফরেক্স এর ইতিহাসে এক অনন্য ব্যক্তিত্ব।
      মুলত তার এই ট্রেড ফরওয়ার্ড করা হয়েছিল খোদ The Bank of England এর ফান্ডে। অর্থাৎ এখানে লিকুইডিটি প্রোভাইডার হিসেবে ছিলেন এই ব্যাংকে। সুতরাং প্রফিতের পুর অর্থ এই ব্যাংককে দিতে হয়েছিল।
       
      এই ব্যক্তির নাম “জর্জ সরোস’। জর্জ সরোসের এই বিপুল পরিমানের প্রফিটের ফলে গোটা ব্যাংকিং সিস্টেম হতবাক ও থমকে গেছিল।
      এরপর থেকে জর্জ সরোসকে বলা হয়, “The Man, Who broke The bank of England”। স্বভাবতই তিনি তাইই করেছিলেন।
       
      জর্জ সরোস বর্তমানে ‘দ্য কোয়ান্টাম এন্ডোমেন্ট ফান্ড’ নামের ফান্ড ম্যানেজমেন্ট প্রতিষ্ঠানের কো-ফাউন্ডার ও ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত আছেন। তার প্রতিষ্ঠানটি বর্তমানে ২৭ বিলিয়নেরও বেশি ফান্ড নিয়ে ট্রেড করে যাচ্ছে। তিনি ও তার প্রতিষ্ঠানটি ফান্ডামেন্টাল এনালাইসিসের সাহায্য নিয়ে মুলত প্রাইস একশন ফলো করে ট্রেড করে থাকেন।
       
      আপনি যদি ফরেক্স ট্রেডার হয়ে থাকেন, তবে আপনার নিজের ট্রেডিং পেশার এসকল সফল ও কিংবদন্তী মানুষদের ব্যাপারে আপনার পরিস্কার ধারনা থাকা উচিত। তবেই আপনিও তাদের দেখানো পথ অনুসরন করতে শিখবেন। অন্যথায় পাল বিহীন ও মাঝিবিহীন নৌকা হয়ে মাঝ দরিয়ায় (ফরেক্স মার্কেট) হাবুডুবু খেয়েই যাবেন অনবরত। যতদিন না আপনার সর্ব শেষ শক্তিটুকুও (একাউন্ট ব্যালান্স) একেবারে শেষ না হচ্ছে!!
       
      সবার জন্য শুভকামনা রইল।
      অনেক অনেক ভাল থাকবেন সবাই <3 <3 <3
    • By masteroffx2018
        USA এর ট্রাম্প সরকার নানা দিক দিয়ে ইরানের উপরে আরও অবরোধ বাড়াতে চায়। মধ্যপ্রাচ্যে তাদের একমাত্র হুমকী ইরান বলেই মনে করে তারা।   এদিকে এমন পরিস্থিতির মুখেই ইরাক সরাসরি ঘোষনা দিয়েছে তারা ইরানের উপর আমেরিকার কোন অন্যায়কে প্রশ্রয় দেবে না। রাশিয়াও গত পরশু কাস্পিয়ান সাগর ব্যবহার করে তাদের বানিজ্য প্রসারে ইরানের সাহায্য নেবে মর্মে চুক্তিও করে ফেলেছে। এটিও ট্রাম্প সরকারের উপরে চাপ ফেলেছে প্রচুর পরিমানে। এদিকে ইরান তাদের বানিজ্যিক চুক্তি বাড়িয়ে পাকিস্তানের সাথেও গতকাল বৈঠক করে ফেলেছে। উভয় দেশ সকল বৈরিতা মোকাবেলায় একে অপরের পাশে থাকবে বলে সম্মতিও হয়েছে!!   অন্যদিকে ট্রাম্প সরকার তার দেশে চায়নিজ পন্যের শুল্ক কয়েকগুন বৃদ্ধি করার মৌন প্রতিশোধ হিসেবে চিনও ঘোষনা দিয়েছে, তারা ইরানের উপর আর কোন অবরোধ দেখতে চায় না।   আমেরিকার বন্ধুরাষ্ট জার্মানির এঞ্জেলা মার্কেলও ঘোষনা দিয়েছে তারা ইরানের উপরে আমেরিকার অবরোধ আরোপের চিন্তাকে সমর্থন করেনা।তারা আলোচনা করে সমস্যা সমাধানের পক্ষে।   এতোসব ঘটনার মাঝে ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা, আয়াতুল্লাহ খোমেনী প্রকাশ্যে ঘোষনা দিয়েছে, আমেরিকার সাথে এবার যদি তাদের নুন্যতম কোন যুদ্ধাবস্থা সৃষ্টি হয়,তবে তারা কোন আলোচনার চিন্তাও করবেনা। সরাসরি আক্রমন করা শুরু করে দেবে।আর তার উপরে একটি ক্ষেপনাস্ত্রের জবাব তারা ১০ টি ক্ষেপনাস্ত্র দিয়ে দেবে।   এতসবের প্রেক্ষিতে ট্রাম্প সরকার বর্তমানে বুদ্ধিবৃত্তিমুলক সমস্যায় ভুগছেন। তার কোন সিদ্ধান্তই সঠিকভাবে কাজ করছে না। পায়ের নিচে থাকা ইরাকও আজ মুখের উপর কথা বলছে, আফগান সিরিয়ায় চরম বিপর্যয়ের পর বর্তমানে সারা বিশ্ব থেকে এমন চোখ রাঙ্গানী, সব কিছু মিলিয়ে USD এর মুল্যমান চরম অস্থিতিশীল অবস্থায় সময় পার করছে।   আর তাই ইউএস ডলারের দুর্বল হবার আশংকাই অনেক বেশি হয়ে দেখিয়েছে।যা ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে কিছু কিছু কারেন্সী পেয়ারে। তবে ট্রাম্প সরকার গুরুত্বপুর্ন কোন সিদ্ধান্ত নিতে পারলেই কেবল এমন সংকটময় অবস্থা কাটিয়ে ওঠা সম্ভব হবে বলে মনে করা হচ্ছে। এখন দেখার পালা, কেমন পদক্ষেপ নেয় ট্রাম্প সরকার নিজেদের অবস্থান শক্তপোক্ত করতে।   সবাইকে আন্তর্জাতিক নিউজ সম্পর্কে ধারনা রাখার জন্য অনুরোধ করা হল, কারন এসব নিউজের ইফেক্ট আপনাকে নিমিষেই আপনার সকল টেকনিক্যাল এনালাইসিসকে বোকা বানিয়ে আপনাকে লুজার বানিয়ে দিতে পারে, আবার যদি ভালভাবে নিউজ ধরে ধরে ট্রেড করতে পারেন, তবে নিয়মিত ও ভালভাবে প্রফিটও করে যেতে পারেন অনায়াসে।   সকলের জন্য শুভকামনা রইল <3 <3 <3   Trade with real ECN broker: 
    • By masteroffx2018
        #USDJPY D1 চার্টে আমরা দেখতে পাচ্ছি Head & Shoulder প্যাটার্ন তৈরী করেছে, এমনকি উপর থেকে আসা একটা ডাউনট্রেন্ড লেভেল ব্রেক করেও ফেলেছে। আবার নিচের দিক থেকে আপট্রেন্ড কন্টিনিউ করেই চলেছে। এখন এন্ত্রি কনফার্মেশনের অপেক্ষা শুধু। আপনার নিজের ট্রেডিং স্ট্রাটেজীতে যদি এমন পজিশনে কোন এন্ট্রি কনফার্মেশন পেয়ে যান, তবে সুন্দর একটা এন্ট্রি পেয়ে যাবেন, এমন আশা করছি।   পরিশেষে, ইরান ও রাশান নেতাদের বৈঠক ইস্যুতে আমেরিকাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে রাশিয়া কাস্পিয়ান সাগরে ইরানের সাথে বানিজ্য কন্টিনিউ রাখার সিদ্ধান্তের ব্যাপারে কি সিদ্ধান্ত নেবেন ট্রাম্প সরকার, এমন সকল ইউএস এর বানিজ্যিক সংক্রান্ত ইস্যুর দিকে নজর রাখা উচিত ফান্ডামেন্টালি। কারন ট্রাম্প প্রশাসনের একটি সিদ্ধান্ত ইউএসডি কারেন্সির মুভমেন্ট যে কোন দিকে ঘটাতে পারে। তাই, সেদিকেও একটি চোখ দিয়ে রাখা উচিত।  
      সবার জন্য শুভকামনা রইল।   Trade with real ECN Broker: 
    • By masteroffx2018
       
      আপনি সাধারন যে কোন একটি ব্যবসা করবেন বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তাহলে কি করবেন?
      প্রথমে সেই ব্যবসা সম্পর্কে ধারনা নেবার চেষ্ঠা করবেন। তা ইউটিউব, অনলাইন বিভিন্ন আর্টিকেল, পত্রিকা ইত্যাদি থেকেই মুলত বেশি চেষ্ঠা করবেন। তাই না? কারন এসব অনলাইন মাধ্যম থেকে বিভিন্নজনের মন্তব্যও জানতে পারা যায়, যারা কিনা আগে থেকেই এই ব্যবসা করছে।
      আপনি অনলাইনেই তাদের স্বচ্ছলতার কথা শুনে পুলকিত হোন, আপনার ভাল লাগে এই ভেবে যে এই ব্যবসা করলে আপনিও এমন স্বচ্ছল অবস্থায় যেতে পারেন। 
      এরপর কি করেন আপনি? অনলাইন থেকে তথ্য ও বিভিন্নজনের মন্তব্য জানার পর থেকেই কি ব্যবসা শুরু করেন?
      উত্তর হবে না। কারন এতো কিছু জানার পরেও এই ব্যবসায় স্বচ্ছল হওয়া অভিজ্ঞ ঐসব লোকেদের মাঝে যার সঙ্গে আপনার পক্ষে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়, তার কন্ট্যাক্ট নাম্বার নিয়ে হলেও আপনি তার সাথে সরাসরি কথা বলেন, প্রয়োজনে তার বাসায় যান। কেউ কেউ উনাদের সাথে কিছুদিন থাকারও চেষ্ঠা করেন ব্যবসা ভালভাবে বোঝার জন্য। এরপর নিজে নিজে সেই ব্যবসা শুরু করার চেষ্ঠা করেন।
       

       
      আমার উপরের বক্তব্যের সাথে কি আপনি দ্বিমত পোষন করবেন? যদি করেন, তবে এই লেখা আপনার জন্য নয়। আপনি এভোয়েড করতে পারেন আমাকে।
      আর যদি একমত হোন, বা একমত হবেন কি না বুঝতে পারছেন না, তারাই লেখাটা পড়বেন। লেখাটা পড়ার পরই একটা সিদ্ধান্তে আসতে পারবেন আশা করি।
       
      উপরের বিষয় হতে এটা পরিস্কার হওয়া যায় যে, আপনি যাই করেন না কেন, যে কাজই শুরু করতে যান না কেন, নিজে নিজে চেষ্ঠা করলে সেসকল কাজ সম্পর্কে বেসিক একটা আইডিয়া পাওয়া যায় মাত্র। প্রফেশনাল হতে হলে প্রফেশনাল কারও সংস্পর্শে থাকাটা জরুরী।
      তাহলে আন্তর্জাতিক মুদ্রা লেনদেনের ব্যবসাক্ষেত্র ফরেক্স মার্কেটে ব্যবসা করতে আসলে কেন বয়ান করেন যে, নিজে নিজে চেষ্ঠা করেন তাহলে শিখে যাবেন, নিজে নিজেই ফরেক্স এর সব শিখতে পারবেন, নিয়মিত প্রফিট ভী করতে পারবেন, ইত্যাদি ইত্যাদি!!
      আপনার জানা মতে এমন কোন প্রফেশনাল ট্রেডার আছে, যারা নিজেরা নিজেরাই শিখে প্রফেশনাল হতে পেরেছে?
      যারা প্রফেশনাল, খোজ নিয়ে দেখবেন তারা নিশ্চয়ই কোন না কোন মেন্টরের সাপোর্ট নিয়েই কোন না কোন বিষয়ে এক্সপার্ট হয়েছে। তবেই না তারা প্রফেশনাল হতে পেরেছে। এই মেন্টরশিপ হতে পারে অফলাইন বা অনলাইন যে কোনটা।
       
      মেডিকেল ভর্তি হয়ে অভিজ্ঞ চিকিতসকের অধীনে থেকে সার্জারি অপারেশন করা না শিখলে শুধু বই পরে কোনদিন আপনি অপারেশন সার্জারি করা শিখতে পারবেন না, এটা কি বিশ্বাস করেন?
      বই বা আর্টিকেল আপনাকে বেসিক আইডিয়া জানাবে, কিন্ত প্র্যাকটিক্যাল, সাইকোলজিক্যাল? তার জন্য চাই সরাসরি তত্বাবধান।
      অনেকে আবার ভিডিও টিউওরিয়াল দেখেই সব শিখতে চায়। আমি মানছি ভিডিও টিউটরিয়াল দেখে সরাসরি শেখার মতই জানতে পারেন। কিন্ত শেখার মাঝে কোন প্রশ্ন মনে আসলে তা কিভাবে করবেন আপনি? আর হ্যা, সেই প্রশ্ন না করার কারনে বা প্রশ্নের উত্তর না পাবার কারনে আপনার মনে ভুল তথ্য জমা হয়ে থাকতে পারে, যা আপনাকে লুজার বানাতে যথেষ্ঠ। আশা করি পরিস্কার বুঝতে পারছেন আমার কথা।
      এবার আসুন সঠিক গাইডলাইনের কথায় আসি, যার মাধ্যমে আপনি ধীরে ধীরে প্রফেশনাল ট্রেডারের পর্যায়ে যেতে থাকবেনঃ
       
      ð   যে কোন ব্যবসা করতে যান, যে কোন একটা আইটেমের পন্য নিয়েই ত আপনি ব্যবসা শুরু করবেন। তাই না? তাহলে ফরেক্স করতে এসে কেন আপনি একাধারে ২৮ টি পেয়ার নিয়ে আপনার চর্চা শুরু করে দেন? আপনি কি জানেন, একেকটি পেয়ার একেকটা আলাদা আলাদা দেশের অর্থনৈতিক বিষয়কে প্রতিনিধিত্ব করে? আপনি কেবল ফরেক্স ট্রেডিং শিখছেন, সেখানে আপনি এক সাথে ২৮ টি পেয়ার নিয়ে এনালাইসিস করার মত ভুল পরামর্শ কই থেকে পান? যা আপনাকে শুধু লসই করে দিতে পারে?
       
      ð  যে কোন একটা স্ট্রাটেজী ভালভাবে শিখে নির্দিষ্ট কোন কারেন্সী পেয়ারে তা প্রয়োগ করতে থাকুন ও টানা ৫-৬ মাস তা ফলো করে যান। লাভ হোক বা লস হোক, অন্ধের মত এটা ফলো করবেন আপনি। কয়েকটা ট্রেড লস হলেই ধুম করে সিদ্ধান্ত নেবেন না যে, এটি বোধহয় খারাপ স্ট্রাটেজী, এটা দিয়ে হবে না, এটা চেঞ্জ করে ফেলি!! এমন করতে থাকলে সারা জীবনই শুধু স্ট্রাটেজী চেঞ্জ করতে করতে ও লস করতে করতেই আপনার সময় চলে যাবে! লসগুলো রিকভার করা ও প্রফিট করা আর হয়ে উঠবে না।
       
      ð  কোন স্ট্রাটেজীর ব্যাক টেস্ট করে যদি দেখতে পান, কোন স্ট্রাটেজী কোন একটি নির্দিষ্ট পেয়ারে ভাল কাজ করছে। তাহলে সেই স্ট্রাটেজী দিয়ে ঐ একটা পেয়ারেই ট্রেড করতে থাকুন। ভুলেও একের অধিক পেয়ারে এপ্লাই করতে যাবেন না। মনে রাখবেন, মাছের ব্যবসার সিস্টেম দিয়ে আলুর ব্যবসা করতে পারবেন না। আবার পিয়াজ রসুনের ব্যবসার সিস্টেম দিয়ে রিয়েল এস্টেট ব্যবসা করতে পারবেন না। তাহলে কোন যুক্তিতে আপনি একটি ট্রেডিং সিস্টেম দিয়ে একাধিক পেয়ারে ট্রেড করার সাহস পান? আবার নিয়মিত প্রফিটও করতে চান? যেখানে আলাদা আলাদা দেশের মুদ্রা আছে, ভুলে যাবেন না আলাদা আলাদা দেশ মানে আলাদা আলাদা অর্থনৈতিক ব্যবস্থা। যেমন সাধারন ব্যবসায় আলাদা আলাদা পন্য হচ্ছে মাছ, আলু, রসুন ও রিয়েল এস্টেট ব্যবসাও!!
       
      ð  তাহলে আপনি কি পেলেন?নির্দিষ্ট একটা পেয়ার বেছে নিলেন, ভাল একটা স্ট্র্যাটেজী হাতে পেলেন। এবার চর্চা শুরু করুন। ৫-৬ মাস ডেমোতে চর্চা করুন। এর সাথে সাপোর্ট রেসিস্ট্যান্স ও ট্রেন্ডলাইন ফলো করতে শিখুন। ভুলেও ট্রেন্ড লাইনের বিপরিতে ট্রেড করতে যাবেন না। আবার সাপোর্ট বা রেসিস্ট্যান্স লেভেলেও উলটো ট্রেড প্লেস করবেন না। এগুলো আপনার ট্রেডিং সিস্টেমকে ইউনিক ও আরও প্রফিটেবল করে তুলবে। ট্রেডলাইন ও সাপোর্ট রেসিস্ট্যান্ট লেভেলগুলো দ্বারা আপনি আপনার লসের সম্ভাবনার ট্রেডগুলোকে ফিল্টারিং করে ফেলতে পারেন। আর আপনার ট্রেডিং লাইফকে করে তুলতে পারেন প্রফিটেবল। <3  
       
      ð  ভুলেও অন্য পেয়ারে যাবেন না, অন্যের প্রফিট দেখে তার দিকে নজর দিতে যেয়ে নিজের সিস্টেমকে অকেজো মনে করবেন না। নিজের কাজ নিয়ে থাকুন, প্রফেশনাল কোন মেন্টরের তত্বাবধানে থেকে এগুলি ফলো করতে পারলে আপনি আরও বেশি পারফেক্ট হয়ে উঠতে পারবেন সহজেই। আপনার ভুল করার সম্ভাবনা একেবারেই কমে যাবে। কারন সেই মেন্টর আপনার ভুল ধরিয়ে দেবে। এতে আপনার সাইকোলজি পজিটিভ হতে শুরু করবে, নিজের উপর কন্ট্রোল আসতে শুরু করবে। ভুলে যাবেন না, আর্মি বা সেনাবাহিনীর ট্রেনিং এ সবসময়ের জন্য একজন মেন্টর থাকে। যার নাঙ্গা লাঠির বাড়ী খাবার ভয়েই সেনারা ত্রুটি মুক্ত ট্রেনিং করে যেতে পারে। ফলে একেকজন চৌকস প্রতিরক্ষাবাহিনীর সদস্য হয়ে গোটা জীবন রুটিন মাফিক নিজেদের রাষ্ট্রকে রক্ষা করে যেতে পারে চৌকস থেকেই। নিজে নিজে কয়েক জনম চেষ্ঠা করেও সেই ট্রেনিং আপনি নিজের মাঝে নিতে পারবেন না। এটা সম্ভব হয় না। ফরেক্স ট্রেডিংও ঠিক তেমনি। আশা করি বুঝতে কোন অসুবিধা হচ্ছে না কোন প্র্যাকটিক্যাল কিছু ভালভাবে আয়ত্ত করতে হলে মেন্টরের গুরুত্ব কতটুকু।
       
       
      ð  এবার ফান্ডামেন্টাল বিষয়ে একটু ধারনা দেই। ট্রেড করার জন্য যে কোন একটা কারেন্সি পেয়ার বেছে নিন। এরপর সেই পেয়ারে থাকা দুই দেশের অনলাইনে যে কয়টা পাওয়া যায়, ইংরেজী ভাষার নিউজ পোর্টাল এর লিংক বুকমার্ক করে রাখুন। এবার সেই অনলাইন নিউজ পোর্টালগুলোর উপরে রেগুলার চোখ বুলাবার দেখার চেষ্ঠা করুন। অর্থনৈতিক পেইজ ভিজিট করার চেষ্ঠা করবেন বেশি। ডেইলি আপডেট জানার চেষ্ঠা করবেন। প্রয়োজনে নোট করে রাখবেন সেগুলো। সেই দেশের কারেন্সির উপরে ফান্ডামেন্টাল একটা বেইজ তৈরি হবে আপনার মাঝে ধীরে ধীরে। যা আপনাকে ফান্ডামেন্টাল এনালাইসিস বুঝতে ও শিখতে সাহায্য করবে। যদিও আরও বিষয় আছে ফান্ডামেন্টাল এনালাইসিস এর ভিতরে। তবে আমি যা বললাম তা আপনাকে একটা ফান্ডামেন্টাল বেইজ তৈরি করে দিতে সাহায্য করবে মাত্র। বাকি বিষয়গুলো আপনি আরও বেশি স্টাডি করলে আরও পরিস্কার হতে পারবেন বা আপনার ফরেক্স গুরু বা মেন্টরদের কাছ থেকে ভালভাবে জানতে পারবেন আশা করি।
       
      ð  সর্বশেষ বলি, যে প্রফিট করে, সে লাল শাক বিক্রি করেও প্রফিট করে। আর যে প্রফিট করতে পারে না, সে অন্যের মুখে শুনে স্টক মার্কেটে কোটি টাকার শেয়ার কিনেও ফতুর হয়ে যায়। লাখ লাখ রুপি খরচ করে বিশাল ব্যবসা দাড় করিয়েও কয়েক মাসের লসে একেবারে নিঃস্ব হয়ে যায়।
      সুতরাং ব্যবসাকে মন থেকে ভালবাসতে শিখুন। নিজের সন্তানের মত মনে করুন। দুই একটি ট্রেড ভুল হলেই যে সেই ট্রেডিং সিস্টেম বাদ দিয়ে নতুন সিস্টেম ফল করা শুরু করবেন এমন মেন্টালিটি ত্যাগ করুন। সন্তান দুই একটা ভুল করলে বাবা-মা কিন্ত সন্তানকে বাদ দিয়ে নতুন সন্তান নিয়ে আবার শুরু করতে চায় না। আগের সন্তানকেই বুঝিয়ে শুনিয়ে ভালভাবে বেড়ে তোলার চেষ্ঠা করে। আপনিও তাই করুন না। আপনার ট্রেডিং সিস্টেমকে আদর দিয়ে, আন্তরিকতা দিয়ে ভালভাবে কন্টিনিউ ফলো করার মাধ্যমে ধীরে ধীরে আপনার একাউন্ট ব্যালান্সকে বড় করে তুলুন। তবেই না আপনি নিজেকে সফল ট্রেডার হিসেবে মনে করতে পারবেন। তা নয়তো বৃদ্ধাশ্রমে জায়গা পাওয়া বাবা-মায়ের মত আপনিও দেনার দায়ে, লোনের দায়ে, ফরেক্স মার্কেটে লুজার হয়ে নিজেকে একসময় আত্মবন্দি করে ফেলবেন। আর এমন নিদারুন ভাবেই আপনার মুল্যবান জীবনের করুণ ইতি ঘটতে পারে। নিশ্চয় আপনি তা চান না। আমরা কেউই তা চাই না। সুতরাং ফরেক্স নামের বিশাল সম্ভাবনাময় মার্কেটে যদি নিয়মিত আপনার রিজিক সন্ধান করতেই চান, তবে ভালভাবে ও সঠিকভাবেই শুরু করুণ না। কেন আপনার মুখ দিয়ে এমন কথা বের হবে- “দাদা, আমি ফরেক্স করছি ৩-৪ বছরেরও বেশি সময় ধরে, কিন্ত আজও ভাল ট্রেডিং সিস্টেম পাইনি, আর হাজার হাজার ডলার লস করে ফেলেছি! প্লিজ আমায় একটু সাপোর্ট দিন না!!”
       
      পরিশেষে, আপনার সার্বিক দিক দিয়ে সাফল্য কামনা করছি। আর আমার লেখা এখানেই শেষ করছি। সবাই ভাল থাকবেন। সকলের জন্য শুভকামনা রইল।।
      আমার অন্যান্য লেখাগুলো আমার ফেসবুকে দেখতে পারেনঃ M B FX Facebook
       
      Trade with real ECN broker: 

বিডিপিপস কি এবং কেন?

বিডিপিপস বাংলাদেশের সর্বপ্রথম অনলাইন ফরেক্স কমিউনিটি এবং বাংলা ফরেক্স স্কুল। প্রথমেই বলে রাখা জরুরি, বিডিপিপস কাউকে ফরেক্স ট্রেডিংয়ে অনুপ্রাণিত করে না। যারা বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, শুধুমাত্র তাদের জন্যই বিডিপিপস একটি আলোচনা এবং অ্যানালাইসিস পোর্টাল। ফরেক্স ট্রেডিং একটি ব্যবসা এবং উচ্চ লিভারেজ নিয়ে ট্রেড করলে তাতে যথেষ্ট ঝুকি রয়েছে। যারা ফরেক্স ট্রেডিংয়ের যাবতীয় ঝুকি সম্পর্কে সচেতন এবং বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, বিডিপিপস শুধুমাত্র তাদের ফরেক্স শেখা এবং উন্নত ট্রেডিংয়ের জন্য সহযোগিতা প্রদান করার চেষ্টা করে।

×