Jump to content
Sign in to follow this  
Chena Sakib

ফরেক্স মার্কেট এর ভবিষ্যৎ পর্যালোচনা ! অজানা তথ্য !

Recommended Posts

ফরেক্স হচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় মার্কেট যেখানে সবচেয়ে বেশী পরিমাণ লেনদেন হয়। এই মার্কেটই যদি বন্ধ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে তবে আমরা কেন এতো কষ্ট করছি? অভিজ্ঞদের কি মতামত?

  • Love 1

Share this post


Link to post
Share on other sites
Guest
You are commenting as a guest. If you have an account, please sign in.
Reply to this topic...

×   Pasted as rich text.   Paste as plain text instead

  Only 75 emoticons maximum are allowed.

×   Your link has been automatically embedded.   Display as a link instead

×   Your previous content has been restored.   Clear editor

×   You cannot paste images directly. Upload or insert images from URL.

Loading...
Sign in to follow this  

  • Similar Content

    • By aminur87
      আমার জিজ্ঞাসাঃ Payoneer Master Card এর সঙ্গে Global Payment Service এর Bank of America'র যে একাউন্ট টা রয়েছে সেটাকে কি Skrill একাউন্ট এর সঙ্গে লিংক করা সম্ভব? ধন্যবাদ।
    • By forexnews
      আজ এনএফপিঃ
      আজ বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৭:৩০ টায় প্রকাশিত হবে এনএফপি নিউজ। প্রতি মাসে ১ম শুক্রবারে সন্ধ্যা ৭:৩০ মিনিটে আমেরিকার এই গুরুত্বপূর্ণ নিউজটি প্রকাশিত হয়। গতবার ফলাফল ছিল ১৪৮০০০ (148K) যা প্রত্যাশিত ১৯০০০০ (190K) থেকে কম ছিল। এবার আশা করা হচ্ছে ১৮১০০০ (181K). নিউজের ফলাফল যদি ১৮১০০০ (181K) থেকে বেশী আসে, তবে তা ডলারের জন্য পজিটিভ হতে পারে। আর ১৮১০০০ (181K) এর কম হলে তা ডলারের জন্য নেগেটিভ হতে পারে। এনএফপি নিউজের ফলাফল এক্সপেক্টেড থেকে প্রতি ৭০০০০ (70K) পরিবর্তনের জন্য ৭০ পিপসের মত মুভমেন্ট হতে পারে।

      ডলারের জন্য গুরুত্বপূর্ণ নিউজ হওয়ায় এ নিউজটির প্রভাব মেজর কারেন্সিগুলোতে বেশি পড়ে। EURUSD, GBPUSD, USDJPY ইত্যাদি ডলারের পেয়ারগুলো বেশ প্রভাবিত হয়। প্রত্যাশিত ফলাফলের বেশি আসলে EURUSD, GBPUSD ইত্যাদি পেয়ারগুলোর প্রাইস কমতে পারে এবং USDJPY, USDCHF ইত্যাদি পেয়ারগুলোর প্রাইস বাড়তে পারে। প্রত্যাশিত ফলাফলের কম আসলে এর বিপরীত প্রভাব মার্কেটে দেখা যেতে পারে।
      Non-Farm Employment Change রিপোর্টের বিস্তারিত এবং ফলাফল পাওয়া যাবে সন্ধ্যা ৭:৩০ মিনিটেঃ https://www.forexfactory.com/#detail=86521
      পরবর্তী NFP নিউজ পাবলিশ হবে মার্চ মাসের ২য় শুক্রবার ৯ মার্চ, ২০১৮ তারিখে।
      Non-Farm Employment Change রিপোর্টের পাশাপাশি Average Hourly Earnings m/m এবং Unemployment Rate রিপোর্ট দুটিও মার্কেটে প্রভাব রাখে।
      এনএফপি রিপোর্ট আসলে কি?
      হুমায়ূন আহমেদের নিউইয়র্কের নীলাকাশে ঝকঝকে রোদ এর সেই ব্ল্যাক ফ্রাইডে বাস্তবে বছরে মাত্র একবার আসলেও প্রতি মাসের প্রথম শুক্রবার কোনো না কোনো ফরেক্স ট্রেডারের জন্য ব্ল্যাক ফ্রাইডে। কত শত ট্রেডার যে তাদের ট্রেডিং অ্যাকাউন্টটি শূন্য করে এই দিনে, যে বা না জেনে, তার কোনো ইয়ত্তা নেই। কারন? মজার ব্যাপার হচ্ছে, অধিকাংশ ট্রেডারই অ্যাকাউন্টটা শুন্য করে এই কারনের উত্তর খুঁজে। কারন মূলত একটাই, ইউএস ননফার্ম পেয়-রোল।
      নামে ননফার্ম হলেও শুধু কৃষি নয়, সাথে সরকারি কর্মচারী, পরিবারের ব্যক্তিগত কর্মচারী আর অলাভজনক প্রতিস্থানগুলোর কর্মচারীদের বাদ দিয়ে মার্কিন শ্রম পরিসংখ্যান ব্যুরো প্রতি মাসের প্রথম শুক্রবার প্রকাশ করে পূর্ববর্তী মাসে যুক্তরাষ্ট্রে চাকরির সংখ্যা কি আগের থেকে বাড়ল না কমল। শুধু তাই না, বাড়লে কয়টা বাড়ল আর কমলেও কয়টা কমলেও সে সংখ্যাটাও। যেহেতু, কৃষি খাতকে বাদ দিয়েই এই হিসাবটা করা হয়, তাই এর নাম হয়েছে ননফার্ম পেরোল।
      কি আছে এই রিপোর্টে যে তা প্রবলভাবে ফরেক্স মার্কেটকে নাড়া দেয়ার ক্ষমতা রাখে? শুধু ফরেক্স বললে ভুল হবে, স্টক মার্কেট, বন্ড মার্কেটেও বড় ধরনের পরিবর্তন ঘটে ইউএস ননফার্ম পেরোল বা এনএফপি এর কারনে। প্রথমত, দেশটির নাম আমেরিকা। ঋণ করতে অথবা যুদ্ধ বাঁধাতে ওস্তাদ হলেও এখনো বিশ্বের এক নম্বর অর্থনৈতিক শক্তি দেশটি। দ্রুত বর্ধনশীল বিশ্বের দ্বিতীয় অর্থনীতি চীনেরও যুক্তরাষ্ট্রকে ছাড়িয়ে যেতে লাগবে অনেক বছর যদি তারা বর্তমান প্রবিদ্ধি ধরে রাখতে পারে (ইতিমধ্যেই কমতে শুরু করেছে চীনের প্রবিদ্ধি). সবচেয়ে আশাবাদী ব্যক্তিও আগামী দশকের আগে চীন যুক্তরাষ্ট্রকে টপকাতে পারবে এমন আশা করেন না।
      আর সামরিক শক্তির দিক থেকে তো আমেরিকার ধারে কাছেও কেউ নেই। বলা হয়, আমেরিকা বাদে বিশ্বের শীর্ষ ২০ পরাশক্তির সম্মিলিত সমরশক্তিও এক আমেরিকার সমান নয়। মহাকাশ শাসনেও প্রায় একক আধিপত্য আমেরিকার। গায়ের জোরে ডলারকে বিশ্বের রিজার্ভ কারেন্সিও বানিয়েছে দেশটি।
      খরচের দিক থেকেও আমেরিকানদের তারিফ করতে হয়, এখানেও এরা এক নম্বর। আর তাই সারা বিশ্বের বড় বড় সকল কোম্পানির শাখা আছে আমেরিকায়। বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় রপ্তানি বাজার হচ্ছে আমেরিকায়, এমনকি আমেরিকার সবচেয়ে বড় প্রতিদ্বন্দ্বী চীনেরও সবচেয়ে বড় রপ্তানির বাজার আমেরিকায়।
      এখন সেই আমেরিকার অর্থনীতি ঠিকঠাক মত চলছে কিনা সেদিকে নজর রাখা দরকার না? আমাকে আপনাকে কষ্ট না করলেও হবে, এই কাজটি করার জন্য অসংখ্য প্রতিষ্ঠান আছে। বড় বড় কোম্পানিগুলো পাশাপাশি ফরেক্স, ষ্টক ট্রেডাররাও চোখ রাখে আমেরিকার সামগ্রিক অর্থনীতির উপরে। আমেরিকার অর্থনীতি ভালো থাকলে শেয়ার বাজারে সুবাতাস বয় (ডিএসি এর সাথে আবার তুলনা করতে যাবেন না), আর খারাপ হলে ঘটে এর উল্টোটা। প্রভাব পড়ে ফরেক্স মার্কেটেও।
      এনএফপি গুরুত্বপূর্ণ এই কারনে যে, আমেরিকার চাকরির বাজারের চালচিত্র মোটামুটি বোঝা যায় এই রিপোর্টের কারনে। চাকরীর সংখ্যা বাড়ল না কমল সেটার পাশাপাশি আরও বেশ কিছু বিষয়ের উল্লেখ থাকে এনএফপি রিপোর্টে, যেমনঃ
      মোট কর্মক্ষম জনশক্তির কত শতাংশ বেকার কোন কোন সেক্টরে চাকরি বেড়েছে বা কমেছে ঘণ্টাপ্রতি গড় বেতন পূর্ববর্তী মাসের এনএফপি রিপোর্টের সংশোধন যেভাবে তৈরি করা হয় এনএফপি রিপোর্টঃ
      খুব স্বচ্ছ এবং যতটা সম্ভব নিখুঁতভাবে তৈরি করা হয় এনএফপি রিপোর্ট। প্রথমে, সরকারী বেসরকারি উভয় প্রতিষ্ঠানের কর্মচারীদের তথ্যই যোগাড় করে মার্কিন শ্রম পরিসংখ্যান ব্যুরো। যেহেতু, প্রায় ২৫ কোটি জনসংখ্যা আছে আমারিকায় এবং এই জনসংখ্যার একটি বড় অংশই কর্মক্ষম, তাই আলাদাভাবে প্রত্যেকের উপর জরিপ চালান সম্ভব না প্রতি মাসে। আর তাই, মার্কিন পরিসংখ্যান ব্যুরো বেছে নিয়েছে স্যাম্পল পদ্ধতি (দৈবচয়ন). প্রতি মাসে ১ লক্ষ ৪১ হাজার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের উপর জরিপ চালায় সংস্থাটি আর সরকারি বিভিন্ন এজেন্সি মিলিয়ে প্রতিনিধিত্ব করে প্রায় আরও ৪ লক্ষ ৮৬ হাজার কর্মক্ষেত্র। চিঠি, ইমেইল, ইন্টারনেট অথবা অত্যাধুনিক ইডিআই প্রযুক্তিতে জরিপে অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের কর্মচারীদের তথ্য পাঠায় পরিসংখ্যান ব্যুরোর কাছে।
      এনএফপি রিপোর্টের প্রকাশের বেলায় প্রথম ঝামেলাটা বাঁধে এখানে। ছোটো বড় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান তাদের সাধ্য অনুযায়ী তথ্য পাঠাতে গিয়ে প্রতি মাসে অনেকেই দেরি করে বা সেই তথ্য পেতে দেরি হয় পরিসংখ্যান ব্যুরোর। যেহেতু, এনএফপি রিপোর্ট প্রকাশের তারিখ নির্ধারিত, প্রতি মাসের প্রথম সোমবার, তাই হাতে তা তথ্য আসে তা দিয়েই রিপোর্ট প্রকাশ করে দেয় পরিসংখ্যান ব্যুরো। এই রিপোর্টটি পরে দুইবার সংশোধন করা হয়। প্রথমবার, পরিবর্তী মাসের এনএফপি রিপোর্ট প্রকাশের সময়, দ্বিতীয়বার আরও এক মাস পরে। এছাড়াও পরবর্তীতে ছোটখাটো কিছু পরিবর্তন আনা হলেও সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ চলতি এনএফপি রিপোর্ট ও আগের এনএফপি রিপোর্টের সংশোধন।
      খুবই ঝামেলার কাজ, তাই না? অথচ দেখুন, এই ঝামেলার কাজটিই কিনা প্রতি মাসে সুন্দরভাবে করে যাচ্ছে মার্কিন পরিসংখ্যান ব্যুরো।
      এনএফপি এর প্রভাবঃ
      যেহেতু, প্রতি মাসের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ নিউজগুলোর একটি হচ্ছে এনএফপি, তাই অনেক ট্রেডারই অপেক্ষা করে বসে থাকে এনএফপি ট্রেড করার জন্য। প্রায় প্রতিটি এনএফপি এর আগেই একই ঘটনা ঘটে। এনএফপির আগে আগে ট্রেডাররা ট্রেড করতে চান না বলে মার্কেটে মুভমেন্ট বা ভোলাটিলিটি কমে যায়, এনএফপি এর ঠিক আগেই শুরু হয় বড় বড় স্পাইক। সেকেন্ডে মার্কেট পরিবর্তিত হয় ৫-১০ পিপস করে।
      হঠাৎ করে পাগল হয়ে যাবে মার্কেট। হয় টানা পড়া/বাড়া শুরু করবে অথবা একলাফে ১৫-২০ পিপস করে কমবে/বাড়বে। হারিকেন শুরুর পূর্ব মুহূর্তে সাগর যেমন স্থির থাকে, হটাত করে শুরু হয় বড় বড় ঢেউ এর নাচন, ফরেক্স মার্কেটের অবস্থাও হয় তেমনি। আর এই ঢেউ এ ভেসে গিয়ে সলিল সমাধি ঘটে পিপস সংগ্রহের অভিযানে বের হওয়া মানি মানেজমেন্ট না জানা অসংখ্য ট্রেডারের ট্রেডিং অ্যাকাউন্টটির।
      সংবিধিবদ্ধ সতর্কীকরণঃ অত্যাধিক ঝুঁকি নিয়ে নিউজ ট্রেড করা অসংখ্য ট্রেডিং অ্যাকাউন্টের অকাল মৃত্যুর অন্যতম কারণ।
    • By Chena Sakib
      পোস্টটা পরার আগে কিছু বলে নেয়, বুদ্ধিমানদের জন্য ঈশারাই কাফি একটা কথা আছে। এই পোস্টটা আপনাকে একটা নতুন পথ দেখাবে জেই পথ দিয়ে সব constantly profitable trader  আসছে।
       
      Price action pattern অনুযায়ী আপনি এখন signal পাইছেন buy করার জন্য ! কিন্তু আপনার ভয় লাগতেসে যদি ট্রেডতাতে লস করেন, যদি ট্রেডটা মিস করেন, যদি আগে entry নিয়ে ফেলেন এগুলা কেন মনে হইতেসে ? কিসের কারণে আপনার এমন লাগতেসে ?
      ভয় !
      ভয় কোথেকে আসে ?
      Expectation থেকে ভয় আসে
      মানুষের ভিতর universal characteristics এর মধ্যে একটা হচ্ছে expectation fulfill হতেই হবে ! তার মানে তখন ট্রেড নেওয়ার সময় আপনি এমন ভয় পাইতেসেন কারণ আপনি চাচ্ছেন এই ট্রেড যেন tp hit করে !
       
      Price action pattern আসলে কি ?
       
      Price action pattern হচ্ছে এরকম ধরেন আপনি একটা ৫ টাকার coin নিলেন, টস করলে ৬৫% সময়ের শাপলা আসে আর ৩৫% সময়ে সেতু, এখন আমি টস করলাম এখন আপনি কোনটা বলবেন ? সাপলা না সেতু ? ৬৫% সময়ে সাপলা উঠে মাত্র ৩৫% সময়ে সেতু উঠে তারপর ও কি আপনি চিন্তা করবেন যে যে দেখি কোনটা লাগে ?
       
      আপনি শাপলাই বলবেন কারণ আপনি জানেন ১০০% এর ভিতর আপনি ৬৫% জিতবেন !
      price action দিয়ে কখনই আপনি বলতে পারবেন না মার্কেট এ কি পরিমাণ order আছে ! আপনি ট্রেড নেওয়ার পর হইত মার্কেট ranging এ চলে জেতে পারে সেটা আপনি advance কি ভাবে জানবেন ? সেট কখনই জানতে পারবেন না ! অতএব আপনার ট্রেড যদি লাভ হয় সেটা আপনার জানেন দেখে হইনি তখন মার্কেট যে ভাবে জাওয়ার দরকার ছিল সেটা আপানর চিন্তার সাথে মিলে গেছে তাই আপনি luckily ট্রেড টা পাইছেন আবার ঠিক একি ভাবে আপনি যখন লস করতেসেন সেটাও আপনার দোশ না কারণ মার্কেট তখন যে ভাবেই জাওয়ার দরকার ছিল সে ভাবে গেছে আমরা তা coin এর example দিয়ে বুঝতে পারছি ! কিন্তু যদি আপনার ভিতরে expectation না থাকে আপনি যদি buy ও না sell ও না অর্থাৎ যে কোন এক side না থাকলে brain কোন information block করবে না যার কারণে আপনি ট্রেড নেওয়ার পর যদি কোন কারণে price action পরিবর্তন হয় আপনি তা সাথে সাথে ধরে better decision নিতে পারবেন ! যার কারণে বলে আপনি কিছু না জানলে মার্কেট আপানকে ভুল প্রমাণ করতে পারবে না !
       
      Price pattern হচ্ছে এরকম ! এখন কথা হচ্ছে আমরা কি জানি কোন ট্রেড এ আমাদের লাভ আছে কোন ট্রেড এ আমাদের লস আছে ? অবশ্যয় না ! যতক্ষণ না আমরা সব ট্রেড অংশগ্রহণ করতেসি ততক্ষণ আমরা জানতে পারব না ! সেটা জানার জন্য আমাকে প্রত্যেকটা ট্রেড এ অংশগ্রহণ করতে হবে ! তাহলে আমরা ৬৫% winning ratio result পাবো ! আর আপনি যদি মনে করেন যে না আমি জানি তাহলে আপনি বাস্তবতা থেকে fully disconnect ! আপনি একটা ঘরের ভিতরে থাকবেন যেটার কোন বাস্তবতা নাই!
       
      একটা কথা বলে রাখি আপনি যখন চার্ট এর দিকে তাকাবেন live market একি সময়ে আপনি যেমন buy এর evidence দার করাতে পারবেন ঠিক সে ভাবে sell এরও evidence দার করাতে পারবেন আপনার কাছে দুটো পথই খোলা এর মধ্যে আপনি যে দিক decision নিবেন সেঁতাই আপনার কাছে অর্থপূর্ণ হবে মনে হবে এটাই সত্যি।
       
      এখন চিন্তা করেন আপনি ট্রেড নিতে ভয় পাচ্ছেন expectation এর জন্য এখন যদি আমাদের expectation change করে ফেলি ধরেন ভাবলাম যে আমি জানি না এই ট্রেড কি আসবে আর এটা নিয়ে আমার তেমন মাথা বেথাও নেই কারণ এটা আমার জীবনের শেষ ট্রেড না তাহলে কি আপনি ভয় পাবেন আর ?
      মার্কেট এর উঠানামা by nature কোন feelings create করতে পারে না যতক্ষণ আপনি এর কোন অর্থ দিচ্ছেন ! মনে আছে ? আপনি যখন প্রথম চার্ট দেখসেন মার্কেট এর উঠা নামা আপনার কোন ভয় লাগছিল ? অবশ্যয় না ! তার মানে ভয় লাগতে হলে কোন অর্থ লাগ যেটা আপনি দিতেসেন !
      আমরা demo trade দ্বারা already জানি আমাদের winning ratio কতো ( live trade এ জাওয়ার আগে live market এ demo trading আপনার method বেবহার করে দেখবেন আপনার winning ratio কতো আসে, আমরা ১ বছর ধরে গ্রুপ smart money এর price action বেবহার করে জানছি live market এ এটা কেমন কাজে দেয় )
       
      এই expectation এর কারণে আপনার wining trade এর থেকে losing trade বেশি
      একজন typical trader গল্প বলব যার ভিতর consistent trader এর mindset নেই
      ধরেন support এ এসে price buy এর OU তৈরি করছে তার ভিতর expectation সে ট্রেড নেওয়ার পর price সোজা উপরে উঠে তার tp hit করবে অর্থাৎ সে মনে মনে চার্ট এর দান দিকের ছবি নিজে থেকে একেনিছে, সে কনটার দিকে বেশি খেয়াল করবে up ticks এর দিকে না down ticks এর দিকে ? অবশ্যয় up ticks এর দিকে ! যতবার মার্কেট উপরে যাবে তার কাছে ভাল লাগবে কিন্তু সে entry নেওয়ার পর মার্কেট এক/দুই পিপ তার against এ জেতে শুরু করল অর্থাৎ তার ভিতরে আকা ছবির
      সাথে না মিলায় তার ভিতরে ভয় কাজ করতে শুরু করল তার ভিতর ২ টা ভয় কাজ করতেসে !
       
      ১। নিজেকে ভুল প্রমাণ করা
      ২। টাকা হারানর ভয়
       
      সে নিজেকে সঠিক প্রমাণ করার জন্য বিভিন্ন evidence gather করতে থাকবে নিজের মন গরা মত যখন তার টাকা হারানোর ভয়, নিজেকে ভুল প্রমাণ করার ভয় থেকে ১ ডিগ্রি বেশি হবে তখন সে স্বীকার করবে আমি ভুলছিলাম তখন সে ট্রেডতা close করে দিবে! ট্রেড টা লস হওয়ার পর বলবে ঈশ এটাতো sell এর price action ছিল কেন যে দেখলাম না, কেন দেখে নাই জানেন ? এতখন সে মার্কেট এর buy side এ চেল গেছে যার কারণে brain সুধু buy side এর evidence দেখাইতেসে।
      আচ্ছা সে যদি এ ভাবে চিন্তা করত মার্কেট আমার risk predefined করা আছে যে টুকু আমার লস করলেও সমস্যা নাই সে টুকু দেওয়ার আছে অতএব এ কি হবে আমি জানি না আমি opportunity দেখছি বাস ট্রেড নিছি এটা লাভ লস কি হবে তা আমার জানার দরকার নাই ট্রেড নেওয়ার পর মার্কেট কি ঘটবে সেটাও আমার জানার দরকার নাই কারণ আমি জানি আমি এক সাথে ২০ টা ট্রেড নিব এবং এই ২০ টা ট্রেড কে একটা ট্রেড হিসেবে ধরব এই ২০ টা ট্রেড মিলিয়ে যে result বের হবে এটা মার লাভ লস এটা ভাবার পর সে কি কোন ট্রেড এ ভাববে যে এটা আমার জীবন মরণের ট্রেড ? কোন expectation থাকবে তার ভিতর ? না কারণ সে জানে ২০ টা ট্রেড নিব যেটা আমাকে ১ টা sample size হিসেবে result দিবে আর ফরেক্স হচ্ছে number game অর্থাৎ ঐ যে coin এর কথা মনে আছে ? ঐরকম ! প্রশ্ন হচ্ছে এক সাথে ২০ টা ট্রেড কেন ? কারণ ২০ টা ট্রেড কে একটা মনে করলে আপনার আর কোন নির্দিষ্ট ট্রেড এর উপর emotional significance আসবে না ! যার কারণে বিনা emotion এ ট্রেড করতে পারবেন !
       
      Expectation নাইতো কোন ভয় নাই আর কোন ভয় নাইতো কোন tension নাই ! আর tension নাইত আপনার চলার পথে সমস্যা নাই ! আর যেহেতু চলার পথে সমস্যা নাই ১০০ টা ট্রেড বিনা emotion এ নিতে পারবেন আর এর থেকে ৬৫ টা লাভ এর ট্রেড বের করে আনতে পারবেন নিমেষে !
      এবার ধরেন এতক্ষণ মার্কেট তার against এ যাচ্ছিল কিন্তু এবার মার্কেট তার TP এর দিকে যাচ্ছে এখন সে কিসের নিজের দিকে নজর দিবে ? সে অনেক সময় ধরে down ticks দেখে ভয় পাওয়ার কারণে এখন তার পুরো নজর down ticks এর দিকে ! যখন সে একটু লাভ দেখবে তখন সে ট্রেডটা close করে দিবে কারণ সে এতক্ষণ ধরে করে দেখতেসিল যে মার্কেট তার against এ যাচ্ছে কিন্তু এর পরই দেখা গেল সে জে খানে tp দিছে মার্কেট সে খানে চলে গেছে !
      এখন বলেন এটা কার দোশ ? typical ট্রেডাদের এ জন্য হাস্য রস করে বলে যে “shitting like a elephant, eating like a bird” !
      মার্কেট বিভিন্ন ধরনের order mange করে smart money কখন কোনটা করবে আপনার price action তা কখনই ধরতে পারবে না ! আপনি ট্রেড নেওয়ার পর হইত মার্কেট ranging এ ও চলে জেতে পারে !
       
      আমরা already বুঝে গেছি mindset আমাদের জন্য কতো গুরুত্বপূর্ণ !
      এখন প্রশ্ন হচ্ছে কি ভাবে আমাদের mindset change করব ! এর জন্য exercise আছে যারা ডেমোতেঁ live market আপনার method apply করে বুঝতে পারছেন আপনার ratio কতো তারাই এই exercise করবেন
       
      Mindset change করার জন্য ৩ তা জিনিস লাগে ?
       
      1. Clarity
      2. Sincerity
      3. Desire !
       
      একদম নিখুঁত ভাবে আপনি বুজছেন কেন আপনি mindset change করতে চান ? আপনি এই পরিবর্তন এর বেপারে serious কি না ? আপনার সেরকম ইচ্ছা আছে কি না ?
       
      যদি থাকে তাহলে এগুলো follow করেন !
      আপনি আপানকে মনে মনে বললেন কিন্তু আপনি বিশ্বাস করতে পারলেন না তাহলে এটা কোন কাজেই দিবে না কারণ যখন আপনি ট্রেড করতে বসবেন তখন brain automatically আগে যে কতো বার লস করছেন ট্রেড করতে গিয়ে সেগুলো নিয়ে আপনার মাথার ভিতর চিন্তা ঘুরাতে থাকবে !
      Clarity বলতে আমি কি বুঝালাম ? clarity হচ্ছে এমন একটা জিনিস যা করতে গিয়ে আপনার বিন্দু মাত্র সন্দেহ থাকবে না এবং কি করতেসেন সেটা বুঝতেছেন অন্য কোন চিন্তা এসে আপানকে বলতেসে না এটা ভুল এটা করে লাভ নাই এটা আগে করেও লস খাইছেন এই রকম যেমন আপনি যখন পানির ভিতরে দুবে যাচ্ছেন তখন আপনার মাথার ভিতরে আর কোন কথা ঘুরবে না তখন brain একদম clear যে আর একটা দম নিশ্বাস নিতে না পারলে আপনি মারা যাবেন আর তখন brain তার সরবচ্ছ দিয়ে আপানকে বাচানোর চেষ্টা শুরু করে দিবে !
       
      আচ্ছা sincere আর desire টা কি ?
       
      আপনাদের একটা গল্প বলি জন্ম থেকে অন্ধ এক ছেলে আছে যে তার বাবার কাছে বলছে তাকে Tv game কিনে দেওয়া জন্য। যেহেতু সে জন্ম থেকে অন্ধ তাই সে অনেক বার game এর console ভেঙ্গে ফেলছে ! প্রাই বাবার সাহায্য নিত কি হচ্ছে টা জানার জন্য একটা সময় আর বাবার কাছে জিজ্ঞেস করে না নিজেই নিজেই খেলতে পারে। বিভিন্ন gaming contest এ জোগ world নাম করা সব player তাকে হারাতে আসছিল mortal combat 4 এ কিন্তু কেউ তাকে হারাতে পারে নাই, মানুষকে ভয় দেখানর জন্য সে মাঝে মাঝে screen এর উলটা দিক করে বসে খেলত! বিজ্ঞানীরা এটা নিয়ে অনেক লাগছে কি ভাবে পারে কিন্তু এখন বের করতে পারে নাই !
      কিন্তু বেপার টা খুব সাধারণ তার desire ছিল যে সে gamer হবে এবং এ বেপারে sincere ছিল যে ভাবেই হউক তাকে gamer হতে হবে তাই সে পারছে !
       
      এবার বুঝতে পারছেন আপনার কাজ কি ?
       
      এখন থেকে আমরা নতুন কারণে ট্রেড করবো যাতে আমি একজন consistent trader হতে পারি এটা মনে মনে সব সময় বলবেন !
      মার্কেট খোলা থাকে এমন ৬০ দিন নিবেন এ সময় একটা journal রাখবেন mindset এর ! live market এ মার্কেট এ live account এ ঠিক যতোটুকু টাকা লস করলে আপনার তেমন ক্ষতি হবে না ততো টুকু live market এ ট্রেড করে expectation manage করতে তাহকবেন যে ভাবে নিচে লেখা আছে !
       
      * চার্ট এর সামনে বসা পরপরই brain যখন ছবি আকা শুরু করবে তখন নিজেকে বলবেন “each and every moment is unique” অর্থাৎ এখনকার সাথে আগের কোন সম্পর্ক নাই তখন brian নিজ থেকে disconnect হয়ে যাবে তার পর মাথা ভিতর buy/sell এর চিন্তা না নিয়ে analysis করবেন এর পর signal পাওয়া মাত্র দ্বিতীয়বার চিন্তা ছাড়া ট্রেড টা নিয়ে ফেলবেন ! কারণ যতোবার চিন্তা করবেন ততো বার ভুল হওয়ার সম্ভাবনা বারতে থাকে ! elite trader রা কখনই একবার signal পাওয়ার পাওয়ার পর সেটা নিয়ে আর দ্বিতীয় বার analysis করে না !
       
      * আপনার যদি চার্ট এর right side নিয়ে কোন expectation বা থাকে তাহলে আপনি আপনার analysis এর 100% skill বেবহার করতে পারবেন live market এ ট্রেড থাকা অবস্থায় !
       
      * টানা ২০ টা ট্রেড নিবেন এবং ২০ টা ট্রেড কে ১ টা ট্রেড হিসেবে ধরবেন যাতে কোন একটা নির্দিষ্ট ট্রেড এ জীবন মরণের হিসেব না ধরেন !
       
      * trade by trade হিসেব করলে আপনি win করলে ভাববেন আপনি জানতেন এটা হবে আর lose করলে ভাবতেন আপনি ভুল ছিলেন এরকম win/loss এর pattern এ পরে আপনি পরের ট্রেড এ এমনেই লস করবেন কিন্তু যদি series of trade অর্থাৎ ২০ টা ট্রেড কে একটা ধরেন তাহলে এ সমস্যা হবে না
       
      * আপনি যদি ট্রেড বাছায় করেন অর্থাৎ যদি ভাবেন যে এই ট্রেড নিব না এই ট্রেড নিব তাহলে আপনার ভিতর expectation কাজ করতেসে অর্থাৎ আপনি sure লস করবেন ট্রেড নিলে !
       
      *একটা successful trade এর ৭০% নির্ভর করে mindset এর উপর আর ৩০% নির্ভর করে analysis এর উপর। ট্রেড নেওয়ার আগে একটা কথাই মনে করি এটা একটা সাধারণ ট্রেড এরকম আরো কতো ট্রেড নিব তাই এই ট্রেডটা আমার কাছে কিছুই না !
       
      * আপনি যখন এটা practice করতে যাবেন brain automatic আগের দিনের সাথে মিলানো শুরু করবে যার কারণে আপনি সহজে আপনার mindset পরিবর্তন করতে পারবেন না ! তাই যখনি আপনার brain আগের দিনের সাথে মিলানো শুরু করবে আপনি নিজেকে বলবেন হা তোমার কোথায় অনেক যুক্তি আছে কিন্তু আমি শুনব না আমি যা করতেসি বুঝে শুনে করতেসি
       
      * কখনো কারো signal follow ভুলেও follow করবেন না তাহলে আপনার অভ্যাস খারাপ হয়ে যাবে আর জীবনেও আপনি trader হতে পারবেন না ! কারো signal এর সাথে নিজের টা ভুলেও মিলাবেন না ! signal দেখা মাত্র ignore করবেন ভুলেও মাথায় আইনেন না ! আনলে brain সুধু ঐ signal এর evidence খুঁজবে আর আগেই বলছি এই খজা খুঁজি তেই আপনার লস sure হবে !
       
      * Ego problem এ ভুলেও পইরেন না ! নিজেকে সঠিক প্রমাণ করা আরেকজন এর উপর অথবা ঝগড়া করে ট্রেড নিলেন মনে রাইখেন আপনি তখন real market information দেখবেন না ! brain automatically আপনাকে right প্রমাণ করার জন্য আপনার রাগের মাথার info কেই সঠিক দেখাবে !
       
      * beginner দের আরেকটা ভুল হচ্ছে একটু শিখেই নিজে নিজে একটা method develop করতে চায় যাতে আর বেশি সময় নষ্ট হয়য় আর real ট্রেড থেকে দূরে থাকে। minimum 1/2 year পর নিজের মত করে কিছু করা যায়।
       
      * কখনো mr. perfectionist হতে যাইয়েন না অর্থাৎ একদম আপনি যে খানে থেকে ট্রেড নিবেন মার্কেট সেইখান থেকেই reverse/continuation করতে হবে আবার একদম আপনার tp তে hit করে মার্কেট অন্য দিকে যাবে এসব ভেবে আপনি জীবনেও successful হতে পারবেন না আপনার মুল target থাকবে একটা sample size এর শেষে আপনার profit বের করে আনা অর্থাৎ income বাস আর বেশি কিছু ভাবার দরকার নাই।
      *আপনি যদি এ ভাবে বলেন মনে হইতেসে এই ট্রেড টা কাজ করবে বা করবে না তাইলে আপনার ভিতর automatically expectation চলে আসবে কারণ আপনি চাচ্ছেন আপনার মন এর টা মিলুক , আর expectation মানে তো বুঝেন চোখ বন্ধ করে ভুল decision নিতেসেন ! এটা থেকে বাছতে হলে আপনার price action এর signal আসা মাত্রই ট্রেড নিতে হবে কন কিছু ভাবা যাবে না !
       
      একবার ভাবেন আপনার জীবনে যে ট্রেডটা TP hit করছে সেটাতেঁ আপনি একদমই কম effort দিছেন সেটা নিয়ে আপনার বেশী ঘাটতেও হই নাই ! এর দ্বারা কি বুঝলেন ? জহন আপনি ট্রেড নিতে গিয়ে আপনি আর কোন pressure feel করবেন না তখন আপনি একজন সত্যিকারের ট্রেডার হয়ে গেছেন কারণ আপনি যখন কোন কিছু pressure ছাড়া করছেন তার মানে এটা আপনার brain এর একটা part যেমন আপনি যে হাঁটেন আপনাকে কি চিন্তা করে হাটতেঁ হয় ? অবশ্যয় না ! ঠিক ট্রেড নিতে গিয়ে যখন আপনার হাটার মত আর কোন feel আসবে না তখন বুঝবেন আপনি একজন consistent trader হইছেন ! এ ভাবে প্রতি দিন নিজের চিন্তা কে control করতে থাকলে একদিন সকালে উঠে দেখবেন আপনি ট্রেড নিতে গেলে brain আর কোন উলটা পাল্টা চিন্তা করবে না।
       
      insider update পেতে আমাদের সাথে থাকুনঃ BDFS
    • By rafi2014
      আন্তর্জাতিক অর্থ তহবিল (আইএমএফ) চীনা মুদ্রা ইউয়ানকে আপাতত সংস্থার কারেন্সি বাস্কেটে অন্তর্ভুক্ত করছে না। বৈদেশিক লেনদেনে মার্কিন ডলারের ওপর নির্ভরশীলতা কমাতে চীন গত বছর ইউয়ানকে কারেন্সি বাস্কেটে অন্তর্ভুক্তির অনুরোধ জানিয়েছিল। খবর ব্লুমবার্গ।
      আইএমএফের কারেন্সি বাস্কেট বর্তমানে মার্কিন ডলার, ইউরো, ব্রিটিশ পাউন্ড ও জাপানি ইয়েনকে স্পেশাল ড্রয়িং রাইটস (এসডিআর) মর্যাদা দিয়ে থাকে। সম্প্রতি এক সভায় সংস্থার নীতিনির্ধারকরা বাস্কেটের বর্তমান গঠনের সময়কাল আগামী ৩১ ডিসেম্বর থেকে পরবর্তী নয় মাসের জন্য সম্প্রসারণের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। ফলে আগামী অক্টোবরের আগে আইএমএফের কারেন্সি বাস্কেটে ইউয়ানের অন্তর্ভুক্তির সম্ভাবনা নেই।
      বুধবার প্রকাশিত আইএমএফের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নভেম্বরে সংস্থার পরিচালনা পর্ষদের বৈঠককে সামনে রেখে বিদ্যমান ভ্যালুয়েশন বাস্কেটের মেয়াদ সীমিত সময়ের জন্য বৃদ্ধি করাটাই যুক্তিযুক্ত মনে হয়েছে।
      আইএমএফ বলেছে, এতে এসডিআর-সংক্রান্ত কার্যক্রমের মসৃণ ধারাবাহিকতা রক্ষা হলো এবং পঞ্জিকাবর্ষের শেষে এসে বাস্কেটে পরিবর্তনের ব্যাপারে এসডিআর ব্যবহারকারীদের মতামতও বিবেচনায় নেয়া হলো।
       
    • By rafi2014
      চলতি বছরের জুলাই-সেপ্টেম্বর প্রান্তিকে উদীয়মান দেশগুলো থেকে আনুমানিক ২৬০ মিলিয়ন ডলার পুঁজি অন্যত্র সরে গেছে। মূলত চীনা অর্থনীতির শ্লথতার কারণে পুঁজির অপসারণ ঘটেছে। সব মিলিয়ে চলতি বছর উদীয়মান দেশগুলো মোট ৫৪০ বিলিয়ন ডলার পুঁজি হারাতে পারে। এতে ২০১৫ সালে এসব দেশে মোট পুঁজির আগমন ২০০৮ সালের বৈশ্বিক অর্থনৈতিক সংকটকাল থেকেও কম হবে। ক্যাপিটাল ইকোনমিকস ও ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল ফিন্যান্স এ আভাস দিয়েছে। খবর স্ট্রেইট টাইমস ও আরটি।
      ক্যাপিটাল ইকোনমিকসের মতে, বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে উদীয়মান দেশগুলো থেকে পুঁজি প্রত্যাহারের পরিমাণ সাত বছর আগের বৈশ্বিক সংকটকেও ছাড়িয়ে গেছে। ক্যাপিটাল ইকোনমিকসের সিনিয়র এমার্জিং মার্কেটস ইকোনমিস্ট উইলিয়াম জ্যাকসন বলেন, এসব দেশ থেকে পুঁজির যে বহির্মুখী ঢল, তাতে চীনের অংশই বেশি। তবে এ নিয়ে খুব বেশি উদ্বেগের কিছু নেই। কারণ ব্যাপারটি এমন নয় যে বিনিয়োগকারীরা আতঙ্কিত হয়ে দল বেঁধে পালাচ্ছে। চীন থেকে অপসৃত পুঁজির ধরনে বোঝা যাচ্ছে, মূলত রফতানিকারকরাই বৈদেশিক মুদ্রা কিনছে এবং দেশের বাইরের পাওনাদারদের কাছে দেনা পরিশোধ করছে।
      ক্যাপিটাল ইকোনমিকস জানায়, উল্লেখযোগ্য পরিমাণ পুঁজি অপসারণ সত্ত্বেও উদীয়মান দেশগুলোয় বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে অন্তর্মুখী পুঁজির প্রবাহ কম ছিল না। সাম্প্রতিক সময়ে পুঁজিবাজারের অন্যান্য সংকটকালের চেয়েও এ সময় বেশি বিনিয়োগ এসেছে। জুলাই-সেপ্টেম্বর সময়ে উদীয়মান দেশগুলোয় ৬০ বিলিয়ন ডলার নতুন বিনিয়োগ এসেছে। পূর্ববর্তী প্রান্তিকে এমন বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ১০০ বিলিয়ন ডলারের বেশি।
      স্যাক্সো ক্যাপিটাল মার্কেটসের এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় প্রধান অ্যাডাম রেনল্ডস বলেন, উদীয়মান বাজারগুলো বর্তমানে বছরের প্রথমার্ধের চেয়ে ভালো মূল্য ধারণ করায় ওই অঞ্চল থেকে প্রত্যাহার হওয়া কিছু পুঁজি নতুন করে আবার ফিরে গেছে।
      ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল ফিন্যান্স জানিয়েছে, চলতি বছর মোট ৫৪০ বিলিয়ন ডলার পুঁজি উদীয়মান দেশগুলো থেকে প্রত্যাহার করা হবে। এই পুঁজি প্রত্যাহারের ফলে মন্দার কোনো আশঙ্কা নাকচ করে দিয়েছে ব্যাংক অব আমেরিকা প্রাইভেট ওয়েলথ ম্যানেজমেন্ট। সর্বশেষ সাপ্তাহিক প্রতিবেদনে ব্যাংকটি বলেছে, উদীয়মান দেশগুলোর অর্থনীতি এখন বাইরের যেকোনো পরিবর্তনের ধকল সামলাতে আগের চেয়ে অনেক বেশি সক্ষম। চলতি হিসাবে সংহত অবস্থা, ১৯৯৭ সালের চেয়ে অন্তত ১০ গুণ বেশি বৈদেশিক মুদ্রা মজুত, ভাসমান বিনিময় হার এবং অতি বিনিয়োগের কোনো ছাপ না থাকায় উদীয়মান দেশগুলো এখন ভালো অবস্থায় রয়েছে।
      ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল ফিন্যান্স বলেছে, উদীয়মান দেশগুলোর অর্থনীতি গড়পড়তাভাবে শ্লথ হলেও ভারত ও ফিলিপাইনের মতো এশিয়ার প্রধান দেশগুলো ভালো পারফর্ম করছে। প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, শিল্প খাতের গতিমন্দা নিয়ে উদ্বেগ বাড়লেও মূলত অর্থ, বীমা, খুচরা বিক্রি ও স্বাস্থ্য খাতের সঙ্গে সম্পৃক্ত সেবাকাজই এসব দেশের মোট প্রবৃদ্ধিতে বড় ভূমিকা রাখে।
      এদিকে মার্কিন অর্থ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, বছরের প্রথম আট মাসে চীন থেকে মোট ৫৩০ বিলিয়ন ডলার পুঁজি বেরিয়ে গেছে। কংগ্রেসে উপস্থাপিত অর্ধবার্ষিক প্রতিবেদনে মন্ত্রণালয় জানায়, আগস্টে শেয়ারবাজার ধসের দিনগুলোয় চীন থেকে ২০০ বিলিয়ন ডলার অন্যত্র সরে গেছে।
      প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, বছরের প্রথমার্ধে চীন থেকে ২৫০ বিলিয়ন ডলার পুঁজি অপসৃত হয়েছে, যেখানে গত বছর স্থানান্তরিত হয়েছিল ২৬ বিলিয়ন ডলার।
       

বিডিপিপস কি এবং কেন?

বিডিপিপস বাংলাদেশের সর্বপ্রথম অনলাইন ফরেক্স কমিউনিটি এবং বাংলা ফরেক্স স্কুল। প্রথমেই বলে রাখা জরুরি, বিডিপিপস কাউকে ফরেক্স ট্রেডিংয়ে অনুপ্রাণিত করে না। যারা বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, শুধুমাত্র তাদের জন্যই বিডিপিপস একটি আলোচনা এবং অ্যানালাইসিস পোর্টাল। ফরেক্স ট্রেডিং একটি ব্যবসা এবং উচ্চ লিভারেজ নিয়ে ট্রেড করলে তাতে যথেষ্ট ঝুকি রয়েছে। যারা ফরেক্স ট্রেডিংয়ের যাবতীয় ঝুকি সম্পর্কে সচেতন এবং বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, বিডিপিপস শুধুমাত্র তাদের ফরেক্স শেখা এবং উন্নত ট্রেডিংয়ের জন্য সহযোগিতা প্রদান করার চেষ্টা করে।

×