Jump to content

Search the Community

Showing results for tags 'forex bd'.



More search options

  • Search By Tags

    Type tags separated by commas.
  • Search By Author

Content Type


Categories

  • ইন্ডিকেটর
  • এক্সপার্ট এডভাইসর
    • বিডিপিপস EA ল্যাব
  • স্ক্রিপ্ট
  • ট্রেডিং স্ট্রাটেজী
  • ট্রেডিং প্লাটফর্ম
  • ফরেক্স ই-বুক
    • বাংলা ই-বুক
  • চার্ট টেমপ্লেট

Forex Bangladesh - বিডিপিপস

  • ট্রেডিং এডুকেশন
    • সাধারণ ট্রেডিং আলোচনা
    • ফরেক্স স্টাডি
    • প্রশ্ন এবং উত্তর
  • ফরেক্স ট্রেডিং আলোচনা
    • ফরেক্স নিউজ
    • ট্রেডিং আইডিয়া
    • ট্রেডিং স্ট্রাটেজি
  • ট্রেডিং সফটওয়্যার
    • ফরেক্স ইন্ডিকেটর
    • এক্সপার্ট এডভাইসর
    • মেটাট্রেডার এবং MQL
  • ফরেক্স ব্রোকার
    • ফরেক্স ব্রোকার
  • বিডিপিপস ফোরাম সাপোর্ট
    • ফোরাম সাপোর্ট
  • অফ-টপিক
    • অপ্রাসঙ্গিক
    • ফরেক্স হিউমার
  • লাইভ ট্রেডিং রুম

Categories

There are no results to display.


Found 3 results

  1. একথা নতুন করে বলার কিছু নাই যে, ফরেক্স মার্কেট বিশ্বের সবচেয়ে বড় লিকুইডিটি মার্কেট। যেখানে ট্রিলিয়ন ট্রিলিয়ন ডলার লেনদেন হয় প্রতিদিন। এই মার্কেটে আমার আপনার মত যারা ট্রেড করি তারা শুরুতেই একটা কথা শুনে আসি যে, এই মার্কেটে ৯৫% লুজার!! কিন্ত কেন এতো বড় অংশ লুজার তা কি কেউ জানি?? => আজ এই লেখায় আপনি অনেক নতুন বিষয় জানতে চলেছেন, তা হয়তো আপনি আগে ভাবেননি কখনো। অথবা ভেবেছেন, কিন্ত সিরিয়াস হিসেবে নেন নি কখনো অথবা জেনেও থাকতে পারেন, কিন্ত ততোটা গুরুত্ব দেননি। আজ থেকে সেসব গুরুত্ব দিতে শিখবেন আশা করছি। হাতে সময় আছে তো? একটু সময় নিয়ে লেখাটা পড়ুন। বোঝার চেষ্ঠা করুন। দরকার হলে আরেকবার পড়ুন। নয়তো বুকমার্কে সেইভ করে রাখুন, আপনার ফেসবুক ওয়ালেও শেয়ার করে রাখুন যাতে সবাই জানতে পারে ফরেক্স মার্কেটের এই নিগুঢ় রহস্যের ব্যাপারে। সবার প্রথমে আপনাকে জানতে হবে এই ফরেক্স মার্কেটে ব্যবসা করে দুই শ্রেনীর ব্যবসায়ী। এক রাঘব বোয়ালেরা, আর দুই চুনোপুঁটিরা। এখানে রাঘব বোয়াল কারা? এখানে রাঘব বোয়াল হিসেবে কাজ করে বিশ্বের বড় বড় ব্যাংক, বড় বড় ফিন্যান্সিয়াল করপোরেশানগুলো। তবে তারা কিন্ত বাংলাদেশের শেয়ার মার্কেটের মত এই মার্কেটকে ম্যানিপুলেট করার কোন ক্ষমতাই রাখে না। মার্কেট মার্কেটের মতোই চলে। এবার আসি চুনোপুঁটিদের কথায়। এই চুনোপুঁটিই হচ্ছে আমার আপনার মত ট্রেডারেরা। বলা হয় এই মার্কেটে ৯৫% লুজার। এই লুজার কারা? ঐ সব রাঘব বোয়ালেরা? কখনোই না! তারা কিন্ত এই ৯৫% লুজারের মাঝে পড়েনা। কেন? কারন তারা এখানেই তাদের অর্থ যথাযথ ব্যবহার করে। বিভিন্ন ব্রোকারেরা তাদের কাছ থেকে কমিশনের ভিত্তিতে স্বত্ব কিনে নিয়ে আমাদের মত ট্রেডারদের ট্রেড করার সুযোগ করে দেয়। আর লুজারদের তালিকায় আমাদের মত ট্রেডারেরা থাকে। এই যে আপনি ৯৫% লুজারের কথা শুনছেন, তারা কিন্ত আমার আপনার মতোই ট্রেডারেরা। নয়তো সেই সব রাঘব বোয়ালেরা লস করলে ফরেক্স মার্কেটে লিকুইডিটি সংকট দেখা দিত। এই ট্রিলিয়ন ডলারের লেনদেনও কমে আসত যদি এখানে সেই রাঘব বোয়ালদেরও ৯৫% লুজার হতো। কিন্ত বাস্তবে সেই মার্কেট আরও বড় হচ্ছে। এতেই বোঝা যাচ্ছে বাস্তবতা। এই বিশাল মার্কেটে বড় বড় বিজনেসম্যানদের সঙে আপনিও যখন নিজেকে শামিল করছেন, তখন আপনার চিন্তাধারাও তাদের চিন্তাধারার সাথে মেলাতে হবে। যদি তা না করতে পারেন, তবেই আপনি লুজার হবেন নিশ্চিত। আর লুজারদের পার্সেন্টেজ দেখে বোঝাই যায় যে শতকরা ৯৫ জন ট্রেডারেরাই নিজেদের সেই সব বিজনেসম্যানদের চিন্তাধারার সাথে নিজেদের মেলাতে পারেনি। ফলাফল এমন বিশাল লুজারের সংখ্যাবৃদ্ধি। এবার আসি বড় বড় ব্যাবসায়ীদের সাথে আমাদের মত ট্রেডারদের স্ট্র্যাটেজিক্যাল পার্থক্যের বিষয়েঃ আপনি সাড়ে পাঁচ’ফুট বা ছ’ফুট উচ্চতার মানুষ। আপনি হাটার সময় এক ধাপেই প্রায় দুই ফুট পার হয়ে যেতে পারেন। এই দু ফুট রাস্তায় হালকা কাদা পানি, খানা খন্দ যাই থাকুক না কেন। আপনার কিন্ত সেসব না দেখলেও চলে। কিন্ত এই পথ যদি একটা পিপড়া অতিক্রম করতে চায়? তাহলে কি হবে? তাকে প্রতি ইঞ্চি ইঞ্চি হিসেব করে এগতে হবে, নয়তো কাদায় আটকে যেতে পারে, খানাখন্দের ভিতর পানি থাকলে সেখানেও প্রান সংশয় দেখা যেতে পারে। তাই তাকে হিসেব করে করে এগোতে হয়। চারদিকে দেখেশুনে নিয়ে এগোতে হয়। ঠিকঠাক ভাবে এগোতে পারলে সেই পথ পারি দিয়ে পারে। অথবা কোন ভুল করলে প্রানটাও হারাতে পারে। এই উদাহরনের সাথে ফরেক্স এর কি সম্পর্ক?? জ্বি, সম্পর্ক আছে। এটাই আসল সম্পর্ক। যারা যারা রাঘব বোয়াল, তারা মিলিয়ন মিলিয়ন ডলারের ব্যালান্স নিয়ে একবারে মাসের পর মাস ট্রেড ওপেন করে বসে থাকে, টাইমফ্রেমের দিক দিয়ে তারা এক লাফে দুই-আড়াই ফুট যাবার মত এগিয়ে থাকে, এই সময়ের মাঝে আমাদের মত ছোট ছোট ট্রেডারদের কেউ এক মিনিট, কেউ ৫ মিনিট, কেউ ৩০ মিনিট, কেউ ১ ঘন্টা, কেউ ৪ ঘন্টা আবার কেউ এক দিনের টাইমফ্রেম নিয়ে সেই পিপড়ার মত হিসেব করে করে সামনে এগোতে চায়। ফলাফল আমাদের মত ট্রেডারদের রিস্ক কয়েক হাজার গুন বৃদ্ধি পায়। এই ঝুঁকিপুর্ণ পথ পার হতে হতেই বেশিরভাগ ট্রেডার ঝড়ে পড়ে অনায়াসে। কারন তারা হয় ঝুঁকি সম্পর্কে তেমন সচেতন থাকেন না। নয়তো তারা ঝুঁকিটাকে ঠিকমত ম্যানেজ করতে শেখেন না। ফলাফল একের পর এক একাউন্ট ডাম্প হয়ে যাওয়া।আর লুজারদের পার্সেন্টেজ বাড়তে থাকা। এতোক্ষন তো আলোচনা করা হল কেন এতো লুজার হয়। এবার আসেন আমরা একটু জেনে নেই কিভাবে এই ঝুকিপুর্ন পথ নিরাপদে পর হতে পারবেন। আমি পয়েন্ট আকারে বিষয়গুলো ব্যাখ্যা করি। তাতে হয়তো বুঝতে সুবিধা হবে। ১) সেহেতু ফরেক্স এর পথ সমতল নয়, উঁচুনিচু আর খানা-খন্দে ভরা, সেহেতু আপনাকে সর্বপ্রথম এই পথ পাড়ি দেবার মত একটা স্ট্র্যাটেজী ঠিক করতে হবে। ২) স্ট্র্যাটেজীটা যেমনই হোক না কেন, আপনাকে লক্ষ্য রাখতে হবে নুন্যতম প্রফিট রেশিও যেন রিস্ক রেশিওর থেকে তিনগুন হয়। অর্থ্যাত আপনার স্টপ লস ১০ পিপ্স হলে যেন টেক প্রফিট ৩০ পিপ্স হয় কমপক্ষে। ৩) এমন স্ট্র্যাটেজীর সুফল আপনি এভাবে পাবেন যে, আপনার একটা ট্রেড প্রফিটে গেলে সেই প্রফিট আপনার পরবর্তী তিনটা ট্রেড লসে গেলেও আপনার মুল ব্যালান্স অক্ষুন্ন থাকবে। ৪) যে স্ট্র্যাটেজীই ব্যবহার করেন না কেন, সবসময় ট্রেন্ডের পক্ষে ট্রেড নেবেন। সাগরে ঢেউ বেশি হলে মাঝি নৌকার পাল কিন্ত যেদিকে বাতাস বইতে থাকে ঠিক সেদিকে তুলে ধরে, কারন বাতাসের উল্টোদিকে যেতে চাইলে প্রানটা হারাতে হতে পারে। ফরেক্স মার্কেটে ট্রেন্ডটাও ঠিক তেমনি। আপনি ট্রেন্ডের পক্ষে থাকলে নিজেকে বেশ নিরাপদে রাখতে পারবেন। কিন্ত ট্রিলিয়ন ডলারের সমুদ্রে নিজের কয়েকশত বা কয়েকহাজার ডলারের মুলধন নিয়ে ট্রেন্ডের বিপক্ষে যাবার সাহস করলে ফলাফল কি হতে পারে তা নিশ্চয় আপনি নিজেই আঁচ করতে পারছেন। ৫) কখনোই বিশ্বাস করবেন না যদি কেউ বলে যে, সে এই মার্কেটে কেউ ৮০% বা ৯০% টানা প্রফিট করে চলছে। তার মানে আপনিও তেমনটি করতে পারবেন। সুতরাং আপনি তার কথা শুনেই ছুটে চললেন তার কাছে, তার তালীম নেবার আশায়, কিন্ত ফলাফল দেখলেন নেগেটিভ। অর্থ্যাত আপনি আবারও লস করেছেন। বিখ্যাত এক ট্রেডারের এক বানী জেনে রাখুনঃ “In this business if you’re good, you’re right six times out of ten. You’re never going to be right nine times out of ten.” -Peter Lynch ৬) মনে রাখবেন ১০ টা ট্রেডের ৮-৯ টা ট্রেডে আপনি ১০ পিপ্স করে প্রফিট নিলেন এভারেজে, কিন্ত বাকি ১-২ টা ট্রেডেই আপনি লস করেছেন ৫০-১০০ পিপ্স করে টোটাল ১০০-২০০ পিপ্স। এখানে আপনার ট্রেডগুলোর প্রফিট রেশিও ৮০%-৯০% হলেও আল্টিমেটলি কিন্ত আপনি বেশ ভালোই লসের স্বীকার হয়ে চলেছেন। এখন কি বুঝতে পারছেন সমস্যাটা কোথায় ?? ৭) আমি ১:৩ রেশিওতে ট্রেড করতে বলেছি, তার কারন আপনি যদি ৫০% উইনও করেন , তবুও আপনি ভাল রকমের প্রফিটে থাকবেন। ১০টা ট্রেডের ৫টা ১০ পিপ্স করে লস করলেন, তার মানে ৫০ পিপ্স লস হলো, আর বাকি ৫টা তিনগুন করে প্রফিট করলেন।তার মানে ১৫০ পিপ্স প্রফিট হলো। লাভ লস মিলে কিন্ত আরও ১০০ পিপ্স প্রফিট করলেন আপনি। এখানেই প্রকৃতপক্ষে লাভ লসের হিসেব লুকিয়ে থাকে। ৮) নিজের ব্যালান্স নিয়ে সবসময় যত্নবান হবেন। কখনোও নেগেটিভ হলে হাল ছেড়ে দেবেন না। ঠান্ডা মাথায় ভেবে এর কারন বের করুন। ইমোশনালি কোন ট্রেড চালু করবেন না। ফরেক্স মার্কেট কারও ইমোশনকে পাত্তা দেয় না। জেনে রাখুন এই সফল ট্রেডার কি বলেছেনঃ “Don’t focus on making money; focus on protecting what you have.” – Paul Tudor Jones ৯) এরপর কারেন্সী পেয়ার বাছাই করতে সচেতন হোন। মনে রাখবেন আলাদা দেশ, আলাদা কারেন্সি মুভমেন্ট। সুতরাং একই ব্যবসা পদ্ধতি দিয়ে আলাদা দেশের কারেন্সি মুভমেন্টকে নিজের কন্ট্রোলে নিয়ে আসা অনেক কষ্টের। কারন মাছের ব্যবসা পদ্ধতি দিয়ে আপনি আলুর ব্যবসা করতে গেলে লস খাবেনই। সুতরাং পারতপক্ষে একটি কারেন্সী পেয়ার বাছাই করুন যা আপনার স্ট্র্যাটেজীর সাথে মানানসই হয়। নয়তো কোন একটা কারেন্সী বাছাই করুন, এরপর সেই কারেন্সীর যতগুলো পেয়ার আছে, সেগুলোতে ট্রেড করুন। ১০) যতগুলো পেয়ারই বাছাই করেন না কেন। এখানে মানি ম্যানেজমেন্ট আপনাকে ফলো করতেই হবে। এই বিষয়টা অনেকেই জানে না। আজ পরিস্কার হয়ে জেনে নিন। মানি ম্যানেজমেন্ট হচ্ছে, আপনার মুলধনকে নিরাপদ রাখা। ধরুন আপনার ব্যালান্স ১০০ ডলার। আপনি ৫% রিস্ক নিবেন। তাহলে কি করবেন? এখানে, আপনি যতগুলো ট্রেডই নেন না কেন, আপনার সকল স্টপ লসের হিসেব মিলিয়ে যেন ৫ ডলারের বেশি না লস হয়। কারন একবার সবগুলো লস হয়ে গেলেও আপনি আরও ১৯ বার একই ভাবে ট্রেড করার সুযোগ পাবেন। আগের লস রিকভারি করে আবারও প্রফিটে নিয়ে আসার সুযোগ পাবেন। এ বিষয়ে আরেকজন সফল ট্রেডারের বানী শুনুনঃ “Frankly, I don’t see markets; I see risks, rewards, and money.” – Larry Hite ১১) বাংলা একটা প্রবাদ আছে, “ভাবিয়া করিও কাজ, করিয়া ভাবিও না” এটা এখানে প্রযোজ্য হবে। সুতরাং ট্রেড ওপেন করার আগে ট্রেন্ড, আপনার স্ট্র্যাটেজী, সব দিক বিবেচনা করে পারফেক্ত হলে তবেই ট্রেড ওপেন করুন। টেক প্রফিট লেভেল, স্টপ লস লেভেল সেট করুন। এরপর বার বার চার্ট দেখতে যাবেন না। তাতে অস্থিরতা বাড়ে শুধু। আর অস্থির মনই আপনাকে ভুল ডিরেকশান দিয়ে ভুল কিছু সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য করে। সুতরাং ট্রেড ওপেন করুন এবং তার কথা ভুলে যান। পরের এন্ট্রি খোঁজ করুন। সমসময় মনে রাখবেন এই সফল ট্রেডারের কথাঃ The goal of a successful trader is to make the best trades. Money is secondary.” – Alexander Elder সবশেষে বলতে পারি যে, ট্রেড বাই ট্রেড হিসেব না করে মাসে কয়টা ট্রেড নিলেন, তার টোটাল হিসেব করুন। কত পিপ্স প্রফিট পেলেন, কত পিপ্স লস করলেন তার হিসেব বের করুন। একই ভাবে ব্যাকটেস্ট করুন। মাসে কেমন প্রফিট এর সুযোগ ছিল সেসব মাসে তা বের করুন। একটা পরিস্কার ধারনা পাবেন। এভাবে টানা ২-৩ মাস করে যান, এতে অভ্যস্ত হয়ে যাবেন একসময়। আর একবার অভ্যস্ত হয়ে গেলে আপনি নিজেকে সেই ৫% প্রফিটেবল ট্রেডারদের মাঝে দেখতে পাবেন আমি নিশ্চিত। পরিশেষে, সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন যেন আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তায়ালা আমাকে সুস্থ রাখেন। আর ফরেক্স মার্কেটের কল্যানে আরও বেশি বেশি মানুষের মেহনত করতে পারি। অনেকেই ভালভাবে ফরেক্স জানতে ও শিখতে আগ্রহ দেখিয়েছেন, অনেকে আবার ট্রেডিং সিগনাল ফলো করার আগ্রহের কথাও জানিয়েছেন, তারা আমাকে মেসেজ দিতে পারেন অথবা আমার ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে ইনবক্সে একটা মেসেজ দিয়ে রাখবেন। আপনাদের সকল প্রশ্নের উত্তর দেবার চেষ্ঠা করা হবে ইনশাল্লাহ। অত্যন্ত স্বল্প ফী’র মাধ্যমে যে কেউ এখানে সিগনাল পেতে পারেন নিজেদের ফরেক্স শেখার পাশাপাশি বাড়তি কিছু প্রফিট পাবার আশায়। আমার ফেসবুক পেইজ লিংকঃ https://www.facebook.com/bmfxanalystbd/ আমার স্কাইপ আইডীঃ live:bmfxanalyst পরিশেষেঃ ব্যবসা নিজে ভালভাবে শিখে নিয়ে নিজের বুদ্ধি ব্যবহার করে করাই সবচেয়ে ভাল। এতে ব্যবসায় আন্তরিকতা বজায় থাকে। আর আন্তরিকতার উপর নির্ভর করে সৃষ্টিকর্তা ব্যবসায় বরকত দিয়ে থাকেন। কারন আল্লাহ তায়ালা ব্যবসাকে হালাল করেছেন। আর মহানবী (স) বলেছেন, “তোমরা ব্যবসা করো, ব্যবসায়ে ১০ ভাগের ৯ ভাগ রিজিকের ব্যবস্থা আছে।” সৃষ্টিকর্তা আমাদের কবুল করুন। আমীন।
  2. আজ দীর্ঘ প্রতীক্ষিত সেই মুহূর্ত বা ক্ষণ যার দিকে তাকিয়ে আছে বিশ্বের প্রতিটি কেন্দ্রীয় ব্যাংক ও কারেন্সি ট্রেডিংএর সাথে সম্পৃক্ত ব্যাক্তিবর্গ। আজ সেই মূহুর্ত যা ঘটেছিল বিগত ২০১৫ সালের এই ডিসেম্বর মাসে। অর্থাৎ যেদিন ফেড তাদের ব্যাংক সূদের হার ০.২৫ থেকে ০.৫০ বর্ধিত করেছিল। তাই আজ কে ৫ট্রিলিয়ন মার্কেট ট্রেডারদের দৃষ্টি এখন ফেডের Bank interest rate ও FOMC-র দিকে। সূতরাং আজই অবসান ঘটবে দীর্ঘ জল্পনা কল্পনার। একজন ট্রেডার হিসাবে গুরুত্ব বিবেচনায় আমার কাছে এ উত্তেজনাটি মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের চেয়েও কোন অংশে কম নয়। কারন দীর্ঘ সময় ধরে ফেডের নীতি নির্ধারকদের ২০১৬-তে সূদের হার বৃদ্ধিকরণ বিষয়ক বিভিন্ন বক্তব্য ও তার বাস্তবতা উপলব্ধি করার আজই শেষ দিন। সে হিসাবে যেটুকু উত্তেজনা কাজ করছে তার চেয়ে বেশি আগ্রহে বসে আছি বাস্তবতা দেখতে। - [**] ফেডের ব্যাংক সূদের হার বৃদ্ধির সম্ভাব্যতা......... ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে ফেড ব্যাংক সূদের হার ০.২৫ থেকে ০.৫০-এ বর্ধিত করেছিল। যা ২০১৬ অর্থ বছরে তারা ধরে রাখতে সক্ষম হয়েছে। এটা মার্কিন অর্থনীতির জন্য অনেক বড় একটি সাফল্য বলতে হবে। কারন বিশ্বের অন্যসব ব্যাংক যেখানে সার্বিক অবস্থা বিবেচনায় ব্যাংক সুদের হার কমিয়ে এনেছে সেখানে ফেডের এ অবস্থান অবশ্যই গুরুত্ব বহন করে। পাশাপাশি তাদের ক্রমাগত সমৃদ্ধি ও সাফল্যের ফলে ২০১৬ অর্থ বছরেও তারা কয়েকবার ব্যাংক সূদের হার বৃদ্ধির সম্ভাব্যতা নিয়ে কথা বলেছেন যা বিগত দিনে বিভিন্ন ইভেন্টসে আমরা দেখতে পেয়েছি। বর্তামানে Fed interest Rate Monitoring Tools এর সার্বিক জরিপ এবং মূল্যায়ন হচ্ছে Fed ব্যাংক সূদের হার বৃদ্ধি করতে কোন প্রতিবন্ধকতা নেই।কারন বিগতদিনে তারা জিডিপি,বেকারত্ম,স্বাস্থ্যখাত,কনস্ট্রাকশন,গৃহস্থলী সহ সব খাতেই সাফল্য পেয়েছে এবং স্থিতিশীলতা ধরে রাখতে সক্ষম হয়েছে। সূতরাং সার্বিক বিবেচনায় ০.৫০ থেকে ০.৭৫ পর্যন্ত বর্ধিত হওয়ার সম্ভাবনায় বেশি এবং অনেকটা নিশ্চিত বলা যেতে পারে। - [**] ট্রেডিং মার্কিটে প্রতিক্রিয়া.................... মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন পূর্ব মহুর্তে মার্কিন ডলার যখন ৯৯.০০ থেকে পতন হচ্ছিল তখন অনেকেরই ধারনাছিল যে ট্রেডিং মার্কেটে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের বড় ধরনের প্রভাব পড়বেনা যেটা পরবর্তিতে পরিলক্ষিত হয়েছে। কিন্তু নির্বাচনী ফলাফলে ট্রাম্প এগিয়ে যাওয়ার ফলে অপ্রত্যাশিত ভাবে মার্কিন ডালার তার বিগত ১৪ বছরের রেকর্ড ব্রেক করল, যা সম্পূর্ন অকল্পনীয়। তবে এখানে যে বিষয়টি সবচেয়ে বেশি ভুমিকা রেখেছে তা হচ্ছে ফেডের ব্যাংক রেট বৃদ্ধির যৌক্তিক সম্ভাব্যতা। কারন তারা অক্টোবর ও নভেম্বরে অন্যসব মূদ্রার বিপরীত ক্রমাগত সাফল্যই পেয়েছে। সে হিসাবে এটা তাদের অর্জন।কিন্তু চলতি ইভেন্টসে মার্কেট কতটা প্রভাবিত হতে পারে ? এ প্রশ্নে অনেকেই অনিশ্চয়তায় আছেন। ফরেক্স নিউজ প্রোভাইডার ওয়েব গুলোতে কেউ নিশ্চিত করতে পারছেনা মার্কেট ভবিষ্যৎ কি হতে পারে........!! কারো মতে ব্যাংক সূদের হার বৃদ্ধিতে মুদ্রাস্ফীতি বাড়বে। সে হিসাবে ফেড ০.২৫% পর্যন্ত বাড়াতে পারে। কিন্তু যদি তারা ০.৫০% পর্যন্ত বৃদ্ধি করে বা এখন ০.২৫% ঘোষনা দিয়ে পরবর্তিতে আবারও বৃদ্ধির বিষয়ে ইঙ্গিত প্রদান করে তাহলে কি হতে পারে............ ?? * [***] চলুন তাহলে বিষয় টি বিশ্লেষন করা যাক। এখানে যে কয়টি পয়েন্ট আমাদের বিবেচনা করতে হবে তা হচ্ছে - ০১) ০.২৫% বৃদ্ধি অর্থাৎ ০.৭৫% ০২) ০.৫০% বৃদ্ধি অর্থাৎ ১.০% ০৩) ০.২৫% বৃদ্ধি কিন্তু ২০১৭-তে আবারও বৃদ্ধির ঘোষণা। ০৪) ০.২৫% বৃদ্ধি কিন্তু স্বাভাবিক বক্তব্য। - *++* ---> ০১নং এর ক্ষেত্রে মূদ্রাস্পীতি এবং বন্ড মার্কেটের স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে তারা সর্বোচ্চ ০.২৫% পর্যন্ত বাড়াতে পারে।সূতরাং এ সম্ভাবনাটি সঠিক হলে মার্কেট টেকনিক্যালে চলে যাবে। ---> ০২নং এর ক্ষেত্রে মার্কেট ফান্ডামেন্টালে চলেযেতে পারে এবং এর সম্ভাব্য রেঞ্জ হতে পারে ১০৩.০০ (তবে এক্ষেত্রে রিভার্স করতে পারে) --->০৩নং এর ক্ষেত্রে মার্কেট অন্য দিনের মতই স্বাভাবিক ছন্দে থাকতে পারে, তবে সর্বোচ্চ ১০২ পর্যন্ত। ---> ০৪ নং এর ক্ষেত্রে মার্কেট টেকনিক্যালে চলে যাবে। সর্বোপরি মার্কেট কন্ডিশন এর বাইরে যাওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম। তবুও সতর্কতা অবলম্বন করা ভাল। -----------------------------> ঝুঁকি কে না বলুন<------------------------------------ [**] */* [প্রবেশ প্রাইজ] EUR/USD= Long (1.07 থেকে 1.08) EUR/USD= Short (1.054 থেকে 1.02) */* USD/JPY = Short (114.30 থেকে 112.00) USD/CAD= Long (1.38 থেকে 1.39) USD/CAD= Short 1.3060 থেকে 1.28) -----------------------------------------++---------------------------------------------- Md Mohabbat E Elahi Analytical expert: Forex & CFD Market. Analysis: Fundamental Currency: USD
  3. আমি অনেক দিন ধরে বিডি পিপ্স এ লিখতে পারি নি । আসলে আমার এই দুই বছরে মা বাবা দুজনকেই হারিয়েছি। তাছাড়া ফেব্রুয়ারী এর ১৪ তারিখ আমার বিয়ে হল। সব কিছূর মধ্যে অনেক ব্যস্ত সময় কেটে গেল। তবে খুশীর খবর আমার বউ টাও ফরেক্স ট্রেডার এবং ভালো ট্রেডিং করে। আমাকে অনেক হেল্প করে সাহস দেয় আর টেকনিকাল এনালাইসিস ফান্ডামেন্টাল এনালাইসিস পছন্দ করে। সে একটা ফরেক্স ট্রেনিং সেন্টার ও চালায় ফরেক্স এর উপর. সে কিছু টিউটোরিয়াল তৈরী করেছে এবং টেকটিউনস এ অনেক ভিউ পেয়েছে । ফেসবুক এ লাইক পেয়েছে। তাই ভাবলাম তার টিউটোরিয়াল টা এখানে শেয়ার করি ।। আমাদের জন্য দোয়া করবেন। class="post-title" style="font-weight: normal; color: rgb(12, 56, 110); font-size: 1.4em; margin: 0px 0px 16px; padding: 0px; font-family: SolaimanLipi, Arial, Vrinda; line-height: 24px;"> ফরেক্স ট্রেডিং যারা নতুন তাদের জন্য রেগুলার টিপস এন্ড টিউটোরিয়াল ! Bangla Forex Tutorial part 4 Bangla Forex Tutorial part 3 Bangla Forex Tutorial part 2 Bangla Forex Tutorial part 1

বিডিপিপস কি এবং কেন?

বিডিপিপস বাংলাদেশের সর্বপ্রথম অনলাইন ফরেক্স কমিউনিটি এবং বাংলা ফরেক্স স্কুল। প্রথমেই বলে রাখা জরুরি, বিডিপিপস কাউকে ফরেক্স ট্রেডিংয়ে অনুপ্রাণিত করে না। যারা বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, শুধুমাত্র তাদের জন্যই বিডিপিপস একটি আলোচনা এবং অ্যানালাইসিস পোর্টাল। ফরেক্স ট্রেডিং একটি ব্যবসা এবং উচ্চ লিভারেজ নিয়ে ট্রেড করলে তাতে যথেষ্ট ঝুকি রয়েছে। যারা ফরেক্স ট্রেডিংয়ের যাবতীয় ঝুকি সম্পর্কে সচেতন এবং বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, বিডিপিপস শুধুমাত্র তাদের ফরেক্স শেখা এবং উন্নত ট্রেডিংয়ের জন্য সহযোগিতা প্রদান করার চেষ্টা করে।

×