Jump to content

Leaderboard


Popular Content

Showing most liked content since সোমবার 17 সেপ্টে 2018 in all areas

  1. 1 point
    ট্রেডার হওয়ার ৫টি ধাপ The learning cycle for a newbie trader ধাপ -১ (অচেতনে অযোগ্যতা) এটা হল প্রথম ধাপ যখন আপনি ফরেক্স সম্পর্কে জানতে শুরু করবেন। আপনি জানবেন এটা হচ্ছে অর্থোপার্জনের একটা সহজ রাস্তা, কারণ আপনি এটা সম্পর্কে প্রচুর শুনবেন । দুর্ভাগ্যবশত আপনি মনে করবেন এটা সহজ, ঠিক আপনার প্রথম গাড়ি চালানো শিখার ইচ্ছার মত যেটা আপনি মনে করেছেন সহজ হবে , সবচেয়ে বড় কথা আর কত কঠিনইবা হবে? কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত আপনি প্রচুর ট্রেড করবেন এবং প্রচুর রিস্ক নিবেন, ঠিক যেমন আপনি গাড়ির স্টিয়ারিং হুইলের সামনে প্রথম হাত রেখেছিলেন কিন্তু জানেন না আপনি কি করছেন। যখন আপনি একটা ট্রেড করবেন সেটা আপনার বিপক্ষে যাবে, তাই আপনি সেটা ক্লোজ করে বিপরীত ট্রেড নিবেন এবং সেটাও বিপক্ষে যাবে এবং এরকম হতেই থাকবে। আপনার শুরুর দিকে কিছু প্রাথমিক সাফল্য থাকতে পারে, কিন্তু সেটা হয় আরো খারাপ কারণ সেটা আপনার ব্রেইনকে বলবে যে এটা আসলেই সহজ এবং তার ফলে আপনি আরো বেশি রিস্ক নিতে শুরু করবেন। আপনি আপনার প্রতিটা লস পূরণের জন্য ট্রেড সাইজ দ্বিগুণ করে দিবেন । তাতে মাঝেমাঝে কাজ হয় কিন্তু বেশিরভাগ সময় আপনার একাউন্টের ক্ষতি হবে। আপনি আপনার অযোগ্যতা সম্পর্কে সম্পূর্ণভাবে অন্যমনস্ক থাকবেন। এই প্রথম ধাপ সাধারণত এক-দু সপ্তাহ স্থায়ী হবে। ধাপ ২ - সচেতনে অযোগ্যতা দ্বিতীয় ধাপে আপনি বুঝতে পারবেন এটি আপনি যেমনটি ভেবেছেন তেমন নয় , এখানে আরো বেশি কাজ করতে হবে। আপনি সচেতনভাবে বুঝতে পারবেন যে আপনার রেগুলার প্রফিট করার মত যোগ্যতা বা জ্ঞান নেই। এখন আপনি ইউএসএ থেকে ইউক্রেন দুনিয়ার বিভিন্ন ওয়েবসাইটে ঘুরা শুরু করবেন , বিভিন্ন সিস্টেম এবং ইবুক দেখবেন , এবং সর্বোপরি Holy Grail খোজ করবেন। এই সময় আপনি হয়ে যাবেন একজন "সিস্টেম যাযাবর "। আপনি একটা method ঠিকমত কাজ করে কিনা ভাল করে না দেখে দিনের পর দিন এবং সপ্তাহের পর সপ্তাহ এই method থেকে ঐ method দেখতে থাকবেন। যখনি আপনি নতুন একটা Indicator দেখবেন আপনি ভাববেন এটাই আপনার পুরো ট্রেডিং পাল্টে দিবে। আপনি মেটাট্রেডারে expert advisor টেস্ট করতে থাকবেন। আপনি moving averages, Fibonacci lines, support & resistance, Pivots, Fractals, Divergence, DMI, ADX এরকম শতশত ইন্ডিকেটর নিয়ে খেলা করতে থাকবেন শুধু এই আশায় যে আপনার ম্যাজিক সিস্টেম আজই শুরু হবে। আপনি ইন্ডিকেটর দিয়ে সঠিক reversal point খোজার আশায় Top & Bottom ধরার চেষ্টা করবেন। শেষমেষ দেখবেন আপনি পরাজিত ট্রেডের পিছনে ছুটতেই থাকছেন এমনকি আরো ট্রেড যোগ করছেন কারণ আপনি জানেন আপনি সঠিক। আপনি বিভিন্ন লাইভ চ্যাট রুমে যাবেন এবং দেখবেন অন্যান্য ট্রেডাররা পিপস লাভ করছে । আপনি ভাববেন আপনি কেন পারছেন না। আপনি মিলিয়ন মিলিয়ন প্রশ্ন করতে থাকবেন যার মধ্য কতগুলো এমন প্রশ্ন যে যেগুলো দেখে চ্যাটরুমের অন্যান্য মানুষজন আপনাকে মূর্খ মনে করবে। অবশেষে আপনি এমন সিদ্ধান্তে আসবেন যে ঐসব ট্রেডাররা যারা পিপসের পর পিপস লাভ করছে তারা মিথ্যাবাদী। কারণ আপনি ফরেক্স সম্পর্কে গবেষণা করেছেন, আপনি ঐসব সফল ট্রেডাররা যা জানে তার সবই জানেন, কিন্তু আপনি লাভ করছেন না , তার মানে ঐসব ট্রেডাররা মিথ্যা বলছে। কিন্তু তারা সেখানে দিনের পর দিন আছে এবং তাদের একাউন্ট বৃদ্ধি পাচ্ছে যেখানে আপনার একাউন্ট হ্রাস পাচ্ছে। আপনি টিন এজার দের মত হবেন। টিন এজারদের সবাই ফ্রি উপদেশ দেয় কিন্তু কেউ শোনেনা। আপনাকেও সবাই উপদেশ দিবে কিন্তু আপনি আপনার মত একগুঁয়ে থাকবেন এবং ভাববেন আপনি সব জানেন। আপনি আপনার মত বেশি বেশি ট্রেড করতে থাকবেন। আপনি অন্যান্য সফল ট্রেডারদের সিগন্যাল ফলো করবেন। কিন্তু যখন সেটা কাজ করবে না তখন আপনি অন্যান্য সিগন্যাল প্রোভাইডার থেকে কিনে সিগন্যাল ব্যবহার করতে চাইবেন। সেটাও আপনার জন্য কাজ করবে না। আপনি কিছু "গুরু"র কাছে যাবেন যারা আপনাকে প্রফেশনাল ট্রেডার বানিয়ে দিতে রাজী হবে (কিছু ফি এর বিনিময়ে অবশ্যই)। সেই গুরু ভাল হোক বা না হোক আপনি কিছুই পারবেন না কারণ screen time এর কোন বিকল্প নেই, এবং আপনি এখনো মনে করে আছেন আপনি সব জানেন। এই ধাপ বছরের পর বছর স্থায়ী হতে পারে। প্রকৃতপক্ষে ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা এবং অন্যান্য ট্রেডারদের সাথে কথা বলা নিশ্চিত করে এই ধাপ সহজেই ১ বছর থেকে ৩ বছরের কাছাকাছি স্থায়ী হতে পারে। এই ধাপে আপনি নিছক হতাশার কারণেও ফরেক্স ট্রেডিংকে বিদায় জানাতে পারেন। ৬০% এর মত নতুন ট্রেডার প্রথম ৩ মাসেই ফরেক্সকে বিদায় জানাবে, এবং এটি ভাল। একবার ভাবুন, ট্রেডিং যদি এতই সোজা হত তবে আমরা সবাই সহজেই মিলিয়নিয়ার হয়ে যেতাম । অন্য ২০% এক বছরের মত যাবে এরপর হতাশার কারণে অতিরিক্ত রিস্ক নিয়ে তাদের একাউন্ট blow করে দিবে । যেটা আপনাকে আশ্চর্য করতে পারে সেটা হল বাকী ২০% ৩ বছরের মত টিকে থাকবে, এবং তারা ভাববে তারা নিরাপদ আছে। কিন্তু ৩ বছর পরেও শুধুমাত্র ৫-১০% চালিয়ে যাবে এবং ধারাবাহিকভাবে লাভ করতে থাকবে। (বাই দ্য ওয়ে, এইসব ফিগার কিন্তু রিয়েল। এমন নয় যে আমার মাথায় এসেছে আর আমি লিখে গিয়েছি। তাই যখন ৩ বছর হবে তখন ভাববেন না যে এখান থেকে সোজা আপনি সফল হয়ে যাবেন। আমার বহুলোকের সাথে এই ফিগারগুলো নিয়ে তর্ক হয়েছে। মজার ব্যাপার হল তারা কেউ ৩ বছরের বেশি সময় ধরে ট্রেড করছে না। যদি আপনি মনে করেন আপনি ভাল জানেন তাহলে কোন ফোরামে এমন কাউকে প্রশ্ন করুন যে ৫ বছর ধরে ট্রেড করছে। জিজ্ঞেস করুন ১০০% দক্ষ হতে কত সময় লেগেছে। সামান্য ব্যতিক্রম থাকতে পারে কিন্তু আমি এখনো এমন কাউকে দেখিনি। ) অবশেষে আপনি এই ধাপ থেকে উঠে আসতে শুরু করবেন। আপনি সম্ভবত আপনার প্রত্যাশার চাইতেও বেশি সময় এবং অর্থ শেষ করেছেন, ২-৩ টা লাইভ একাউন্ট হারিয়েছেন, কিন্তু এটি এখন আপনার রক্তে। একদিন আপনি ৩য় ধাপে পৌছাবেন। ধাপ ৩ - ইউরেকা !! ধাপ ২ শেষের পথে আপনি বুঝবেন সিস্টেমে কোন সমস্যা নেই, যেটা আপনি মনে করেছিলেন। আপনি বুঝতে শুরু করবেন সিম্পল মুভিং এভারেজ দিয়েও টাকা কামানো সম্ভব যদি আপনি সঠিক Money Management প্রয়োগ করতে পারেন। আপনি সাইকোলজি নিয়ে বিভিন্ন ইবুক পড়তে শুরু করবেন এবং ঐসব বইয়ে বর্ণীত বিভিন্ন চরিত্র মেলাতে থাকবেন। অবশেষে ইউরেকা মোমেন্টে এসে পৌছাবেন। এই ইউরেকা মোমেন্ট আপনার ব্রেইনে নতুন এক সংযোগ তৈরি করবে। আপনি হঠাত বুঝতে পারবেন আপনি কেন, পৃথিবীর কেউ মার্কেটের পরবর্তী ১০ সেকেন্ডে কি হবে সেটা অনুমান করতে পারবেনা, ২০ মিনিট তো পরের কথা। এই বোধের কারণে আপনি অন্যরা কে কি বলে , এই নিউজ মার্কেটে কি প্রভাব ফেলবে বা ঐ ইভেন্ট কিরকম হবে সেগুলো চিন্তা করা বন্ধ করবেন। আপনি ট্রেড করবেন আপনার নিজস্ব মেথডে। আপনি শুধু ১টা সিস্টেম নিয়ে কাজ করা শুরু করবেন যেটা আপনার সাথে যায়, আপনি খুশি হতে শুরু করবেন, এবং আপনার লস ডিফাইন করে দেয়া শুরু করবেন। আপনি আপনার সিস্টেমে ভাল দেখায় এমন প্রতিটি ট্রেড নেয়া শুরু করবেন। যখন খারাপ ট্রেড হয় তখন আপনি আর রাগ করবেন না, কারণ আপনি বুঝবেন এটা আপনার দোষ নয়। আপনি তাড়াতাড়ি ট্রেড ক্লোজ করে দিবেন যখন বুজবেন এটা খারাপ ট্রেড। আপনি বুঝবেন এরপরের ট্রেড অথবা তার পরের ট্রেড হয়ত ভাল হবে কারণ আপনি জানেন আপনার সিস্টেম কাজ করে। আপনি ট্রেড টু ট্রেড রেজাল্ট দেখা বন্ধ করবেন এবং সাপ্তাহিক রেজাল্ট দেখা শুরু করবেন । কারণ আপনি জানেন ১ টা খারাপ ট্রেড ১টা সিস্টেম কে খারাপ বানায় না। আপনি হঠাত বুঝবেন ট্রেডিং গেম হচ্ছে শুধু ১টা ব্যাপার নিয়ে , সেটা হল আপনার সিস্টেমের প্রতিটা ট্রেড নেয়ার শৃঙ্খলা এবং দৃঢ়তা, কারণ আপনি জানেন সম্ভাব্যতা আপনার পক্ষেই থাকবে। আপনি ভাল মানি ম্যানেজমেন্ট , লেভারেজ ইত্যাদি ইত্যাদি সম্পর্কে শিখবেন এবং ১ বছর আগে আপনাকে যারা এই বিষয়ে শিখতে উপদেশ দিয়েছিল তাদের মনে করে মুচকি হাসবেন। আপনি তখন তৈরি ছিলেন না, কিন্তু এখন আপনি তৈরি। ইউরেকা মোমেন্ট তখনই আসবে যখন আপনি বুঝবেন আপনি মার্কেট সম্পর্কে অনুমান করতে পারবেন না। ধাপ ৪ - সচেতনে যোগ্যতা আপনি তখনই ট্রেড করছেন যখন আপনার সিস্টেম ট্রেড করতে বলছে। আপনি যত সহজভাবে লাভ করেন তেমন সহজভাবেই লস মেনে নেন। আপনি এখন আপনার উইনিং ট্রেডকে তাড়াতাড়ি ক্লোজ না করে শেষ পর্যন্ত রাখেন । আপনি জানেন আপনার সিস্টেম যতগুলো লস ট্রেড করে তারচেয়ে বেশি লাভজনক ট্রেড করে এবং যখন আপনার ট্রেড লসে যায় তখন আপনি ক্লোজ করে দেন (আগের মত আরো পজিশন এড না করে)। আপনি এখন এমন এক পর্যায়ে যেখানে বেশিরভাগ সময় আপনার একাউন্ট Break Even হয় (লাভ লস সমান সমান)। হয়ত এই সপ্তাহে ১০০ পিপস লাভ করলেন তো পরের সপ্তাহে ১০০ পিপস লস করলেন। এই পর্যায়ে আপনি টাকা হারাচ্ছেন না, আপনি Break Even করছেন। আপনি এখন জানেন আপনি ভাল ট্রেড গুলোই করছেন এবং চ্যাটরুমে আপনি অন্যান্য ট্রেডারদের সম্মান পাচ্ছেন। আপনাকে এখনো অনেক পথ যেতে হবে এবং যতই আপনি সামনে এগুবেন ততই আপনি লস করার চাইতে লাভ বেশি করবেন। আপনি দিন শুরু করবেন ২০ পিপস লাভ করে, কিন্তু পরক্ষনেই ৩৫ পিপস লস করবেন কিন্তু আপনার মানসিক অবস্থার কোন পরিবর্তন হবে না কারণ আপনি জানেন যে সে পিপস গুলো আবার ফিরে আসবে। আপনি এখন প্রতি সপ্তাহে ধারাবাহিক লাভ করতে থাকবেন , এই সপ্তাহে ২৫ পিপ্স তো পরের সপ্তাহে ৫০ পিপস এভাবেই যেতে থাকবে। এই ধাপ ৬ মাস পর্যন্ত স্থায়ী হয়। ধাপ ৫ - অচেতনে যোগ্যতা এখন আপনি ড্রাইভিং করছেন। প্রতিদিন আপনি আপনার চেয়ারে বসেন এবং ট্রেড করেন। আপনি এখন সব করেন অচেতনভাবে। আপনি এখন Auto pilot চালাচ্ছেন। আপনি এখন বড় ট্রেড করছেন । দিনে ২০০ পিপস লাভ করা কিংবা ১ পিপ লাভ করা সমান, কোনটাই আপনার কাছে কোন আনন্দ/উচ্ছাস তৈরি করতে পারে না। আপনি এখন ফোরামে দেখেন নতুনরা চিৎকার করছে "Go Dollar GO" যেন তারা ঘোড়ার রেসে বাজী ধরেছে , এদের মাঝে আপনি অনেক বছর আগের নিজেকে ফিরে পান। এটা হল ট্রেডিং এর কল্পনারাজ্য। আপনি আপনার অনুভুতি আয়ত্ত করেছেন, এবং আপনি এখন এমন একজন ট্রেডার যার একাউন্ট প্রতিনিয়ত বাড়ছে। আপনি এখন ট্রেডিং চ্যাট রুম এর স্টার এবং অন্যান্য ট্রেডাররা আপনি কি বলছেন সেটা শোনে। আপনি তাদের প্রশ্নের মাঝে অনেক বছর আগের নিজের করা প্রশ্নগুলোই ফিরে পান। আপনি আপনার মত উপদেশ দিতে থাকেন, কিন্তু জানেন কেউ আপনার উপদেশ শুনবে না, কারণ তারা বেশিরভাগই সেই একগুঁয়ে "টিন এজার"। তাদের কেউ কেউ আপনার অবস্থানে আসবে, কেউ দ্রুত, কেউ দেরীতে। সাধারণত এদের ডজনের পর ডজনই ধাপ ২ অতিক্রম করতে পারবে না, শুধু কয়েকজন বাদে। ট্রেডিং এখন আপনার কাছে কোন উচ্ছাস/আনন্দের কিছু নয়, বরং কিছুটা বিরক্তিকর, যেমন আপনি আপনার বর্তমান চাকুরী/পড়ালেখা আপনার বিরক্তিকর লাগে তেমনই ট্রেডিংও বিরক্তিকর হয়ে উঠে। আপনি আপনার জব করছেন। আপনি এখন আপনার সিস্টেম শান দিচ্ছেন কিভাবে কম রিস্কে বেশি প্রফিট আনা যায়। আপনার সিস্টেম পরিবর্তন হচ্ছে না, শুধু দিনের পর দিন ভাল হচ্ছে। আপনি এখন মাথা তুলে বলতে পারেন "আমি একজন কারেন্সি ট্রেডার", কিন্তু সত্যি বলতে আপনার করতে ইচ্ছা করবে না , কারণ এটা আপনার কাছে অন্য যেকোন জবের মতই লাগবে। আমার মনে হয় আপনার এই "একজন ট্রেডারের মনের ভিতরের ভ্রমণ" আনন্দদায়ক হয়েছে এবং হয়ত আপনার নিজের কোন পয়েন্ট এখানে খুজে পেয়েছেন। মনে রাখবেন , শুধুমাত্র ৫% পারবে। এটার কারণ যোগ্যতা নয়, থাকার শক্তি। তারাই লুজার হয় যারা 'get rich quick' হতে চেয়েছে। আমি খুশিমনে বলতে পারি যে 'get rich quick' এই আশায় আমিও ট্রেডিং শুরু করেছিলাম , কিন্তু এখন দেখতে পাচ্ছি ট্রেডিং হচ্ছে 'get rich slow'। আপনি যদি ছেড়ে দিতে চান তবে আপনাকে একটা উপদেশ দিতে পারি - আপনি নিজেকে জিজ্ঞেস করুন - "আপনি কত বছর স্কুল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে যেতেন যদি জানতেন শেষে আপনার জন্য বছরে মিলিয়ন ডলার বেতনের একটা চাকরী অপেক্ষা করছে?" Take care and good trading to you all. (এই অসাধারণ লেখাটা কোন কালে একটা ফোরামে পেয়েছিলাম। মুল লেখক ইংরেজীতে চমৎকারভাবে লিখেছেন, আমি শুধু বাংলা অনুবাদ করার চেষ্টা করেছি, মুল লেখায় মুল লেখকের কোন নাম নেই। আমি ইংরেজীটাও এটাচ করে দিচ্ছি। অনুবাদ হুবহু করিনি, কিছু কিছু জায়গায় নিজের মত বাংলায় লিখেছি) ইংরেজী ভার্শন ডাওনলোড (আপডেট - ২ সেপ্টেম্বর : ইন্টারনেটে খুজে দেখলাম এই লেখার ইংরেজী ভার্শনটা সর্বপ্রথম লেখা হয়েছিল বিখ্যাত ফোরাম moneytec এ, লিখেছিল Soultrader নিকের এক ব্যক্তি, শিরোনাম ছিল "The learning cycle for a newbie trader "। আমি অনেক খোজাখুজি করে moneytec এর লিংকটা পেলাম না তাই দিতে পারলাম না।)
  2. 1 point
    ক্রিপ্টোকারেন্সি অনলাইনে ট্রেডের ব্যাপারে অনেকেই আগ্রহী এবং জনপ্রিয় ব্রোকার XM Global বর্তমানে ৫টি ক্রিপ্টোকারেন্সি ট্রেডের জন্য সাপোর্ট করছে। সেগুলো হলঃ Bitcoin (BTCUSD), Bitcoin Cash (BCHUSD), Litecoin (LTCUSD), Ethereum (ETHUSD) এবং Ripple (XRPUSD). তবে যারা সবসময় ফরেক্স ট্রেড করে অনেক বেশি লেভারেজ এবং খুব ক্ষুদ্র লট নিয়ে ট্রেড করে অভ্যস্ত, তাদের জেনে রাখা জরুরী যে ক্রিপ্টোকারেন্সি ট্রেডের জন্য খুব বেশী লেভারেজ প্রদান করা হয় না। এখানে সর্বোচ্চ লেভারেজ প্রদান করা হয় ৫:১ এবং আপনি যত বেশী লট সাইজ ট্রেড করবেন, আপনার লেভারেজ তত কমতে শুরু করবে। ক্রিপ্টোকারেন্সি মার্কেট অনেক বেশী আনপ্রেডিক্টেবল। সাধারন ফরেক্স পেয়ারগুলোর মত এখানে ০.০১ লট সাইজে ট্রেড ওপেন করা যাবে না। যেমনঃ BTCUSD তে সর্বনিম্ন ০.১ লট এবং সর্বোচ্চ ১৩ লটে ট্রেড করা যাবে। ক্রিপ্টোকারেন্সিগুলোর সর্বনিম্ন ও সর্বোচ্চ লট সাইজ নিচের চার্ট থেকে জানা যাবে। ডায়নামিক মার্জিন ও লেভারেজ প্রতিটি ইন্সট্রুমেন্টের ট্রেডের পরিমাণ বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে সাথে প্রতিটি ইন্সট্রুমেন্টের ডায়নামিক লেভারেজের মান অনুযায়ী মার্জিন শতাংশও বৃদ্ধি পাবে। এর মানে হল গিয়ে আপনি যত বেশী লট ট্রেড করবেন, আপনার মার্জিন রিকোয়ারমেন্ট তত বাড়বে এবং লেভারেজ কমবে। ডায়নামিক মার্জিন কিভাবে গণনা করা হয়, তা নিচে উল্লেখিত উদাহরণ থেকে সহজে বুঝা যাবে। জেনে রাখা ভাল যে, টেবিলে উল্লেখিত সমস্ত তথ্য শুধুমাত্র ধারনা দেয়ার লক্ষ্যে ব্যাবহার করা হয়েছে, কোন প্রকার ট্রেডিং গণনা করার জন্য ব্যবহার করা উচিত নয়। উদাহরণস্বরূপঃ কোন ট্রেডার তার অ্যাকাউন্ট থেকে USD বেস কারেন্সিতে, ওপেনিং প্রাইস 6,700 USD এ BTCUSD ইন্সট্রুমেন্টে ০.১ লট ট্রেড করে, ০.১ লটে ডায়নামিক মার্জিন শতাংশ হবে ২০%। তাহলে প্রকৃত ব্যবহৃত মার্জিন হবে, Lots*ContractSize*OpenPrice*MarginPercentage = 0.1 * 1 * 6700 * 20% = 134 USD. আবার ট্রেডার যদি তার অ্যাকাউন্ট থেকে USD বেস কারেন্সিতে, ওপেনিং প্রাইস 6,700 USD এ BTCUSD ইন্সট্রুমেন্টে ৪ লট ট্রেড করে, ৪ লটে ডায়নামিক মার্জিন শতাংশ হবে ৩০%। তাহলে প্রকৃত ব্যবহৃত মার্জিন হবে, Lots*ContractSize*OpenPrice*MarginPercentage = 4 * 1 * 6700 * 30% = 8040 USD. এভাবেই ক্রিপ্টোকারেন্সিতে মার্জিন হিসেব করা হয়। বিস্তারিত জানতে এই পেইজটি দেখতে পারেন।
  3. 1 point
    আসসালামু আলাইকুম, কেমন আছেন সবাই। নতুন ট্রেডারদের জন্য আমার এই পোষ্ট, পুরনো ট্রেডারদের কাজে আসবে আসা করি, কারো ক্ষতি বা কাউকে ছোট করার জন্য এই পোস্টটি করা হয় নি, চলুন আসল কথায় আসি, অনেকদিন যাবত অনেকে EBL Mastercard দিয়ে ডিপোজিট করা যায় কিনা জিজ্ঞাসা করেছেন, হ্যা ডিপোজিট করা যায়, তার জন্য কিছু নিয়ম আছে। আর এটা বাংলাদেশি ট্রেডার ভাইদের জন্য অনেকটা ভালো খবর। আমি ইবিএল কার্ড দিয়ে ডিপোজিট এবং ঊথড্রয় করেছি। সব ব্রোকার এই কার্ড সাপোর্ট করে না। আর আমরা যারা নতুন ট্রেডার আছি, সবাই বিভিন্ন ওয়েব সাইট বা অন্য কারো কাছ থেকে অনেক দাম দিয়ে ডলার কিনি কিন্তু এটা খুব রিস্কি একটা বিষয়, আমাদের কস্টের টাকা খুব সহজে হারাতে পারি, ডলার না দিয়ে টাকাটা মেরে দিতে পারে খুব সহজে। এরা এটা প্রতিদিন হচ্ছে। একসময়ে আমিও এটার ভুক্তভুগি ছিলাম। কারো কাছ থেকে বা ওয়েব সাইট থেকে ডলার কিনলে ডলার প্রতি ১০-১৫ টাকা বেশি দিয়ে কিনতে হয়। আর ইবি এল কার্ড দিয়ে ডিপোজিট করতে দুই মিনিট সময় লাগে, কোন ধরনের সমস্যা নেই। ডলার রেট ৮৩-৮৬ টাকা। বিস্তারিত আলোচনায় আসি। ব্রোকার সিলেকশন: এক্সনেস দিয়ে আমরা অনেকেই ট্রেড করি, আমিও এক্সনেস দিয়ে ট্রেড করি। আর আমি ইবিএল কার্ড দিয়ে ডিপোজিড করে ট্রেড করছি, কোন প্রকার সমস্যা নেই। কার্ড দিয়ে ডিপোজিট: ১. আপনার ইবিএল কার্ডটির অনলাইন ট্রানজেকশন একটিভ থাকতে হবে। ২. এই কার্ড দিয়ে একদিনে ৩০০ ডলারের বেশি ডিপোজিড করতে পারবেন না। ৩. এক সাথে ৩০০ ডলার ডিপোজিড করবেন না, চাইলেও পারবেন না, প্রতি ট্রানজেকশন এ ১০০ করে তিন ধাপে ৩০০ ডলার ডিপোজিড করতে পারবেন। বা আপনার ইচ্ছে অনুযায়ী ডিপোজিড করতে পারেন। ৪. ই বিএল কার্ড দিয়ে বছরে ৫০০০ ডলার ট্রানজেকশন করা যায়, প্রতিদিন ৩০০ ডলার করে। কার্ড দিয়ে উইথড্রয়: ই বিল কার্ডটি ডেবিট কার্ড, তাই এটার কিছু নিয়ম জুরে দেয়া হয়েছে। ব্রোকারে যে পেমেন্ট সিস্টেম দিয়ে ডিপোজিট করবেন, প্রথম তিন মাস আপনাকে সেই পেমেন্ট সিস্টেম দিয়ে যে পরিমান ডিপোজিট করেছিলেন সে পরিমান ওইথড্রয় করতে হবে, তারপরে আপনার প্রফিট অন্য যে কোন পেমেন্ট সিস্টেম দিয়ে তুলে নিতে পারবেন। আর তিন মাস পরে যেকোনো পেমেন্ট সিস্টেম দিয়ে ডলার উইথড্রয় করতে পারবেন। কোন প্রকার লিমিট থাকবে না। ব্যাংক কার্ড দিয়ে ডিপোজিট করলেও এটাই সিস্টেম। যদি আপনি ডিপোজিট করার তিন মাসের মধ্যে উইথড্রয় করতে চান তাহলে সুধু কার্ড এ পেমেন্ট নিতে পারবেন, আর তিন মাস পরে আপনি চাইলে যে কোন পেমেন্ট সিস্টেম এ উইথড্রয় দিতে পারবেন । কোন প্রকাত প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট করে জানাবেন। অথবা আমার সাথে whatsapp. সরাসরি যোগাযোগ করতে পারেন। +8801759002113
  4. 1 point
    আজ এনএফপিঃ আজ বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৭:৩০ টায় প্রকাশিত হবে এনএফপি নিউজ। প্রতি মাসে ১ম শুক্রবারে সন্ধ্যা ৭:৩০ মিনিটে আমেরিকার এই গুরুত্বপূর্ণ নিউজটি প্রকাশিত হয়। গতবার ফলাফল ছিল ১৪৮০০০ (148K) যা প্রত্যাশিত ১৯০০০০ (190K) থেকে কম ছিল। এবার আশা করা হচ্ছে ১৮১০০০ (181K). নিউজের ফলাফল যদি ১৮১০০০ (181K) থেকে বেশী আসে, তবে তা ডলারের জন্য পজিটিভ হতে পারে। আর ১৮১০০০ (181K) এর কম হলে তা ডলারের জন্য নেগেটিভ হতে পারে। এনএফপি নিউজের ফলাফল এক্সপেক্টেড থেকে প্রতি ৭০০০০ (70K) পরিবর্তনের জন্য ৭০ পিপসের মত মুভমেন্ট হতে পারে। ডলারের জন্য গুরুত্বপূর্ণ নিউজ হওয়ায় এ নিউজটির প্রভাব মেজর কারেন্সিগুলোতে বেশি পড়ে। EURUSD, GBPUSD, USDJPY ইত্যাদি ডলারের পেয়ারগুলো বেশ প্রভাবিত হয়। প্রত্যাশিত ফলাফলের বেশি আসলে EURUSD, GBPUSD ইত্যাদি পেয়ারগুলোর প্রাইস কমতে পারে এবং USDJPY, USDCHF ইত্যাদি পেয়ারগুলোর প্রাইস বাড়তে পারে। প্রত্যাশিত ফলাফলের কম আসলে এর বিপরীত প্রভাব মার্কেটে দেখা যেতে পারে। Non-Farm Employment Change রিপোর্টের বিস্তারিত এবং ফলাফল পাওয়া যাবে সন্ধ্যা ৭:৩০ মিনিটেঃ https://www.forexfactory.com/#detail=86521 পরবর্তী NFP নিউজ পাবলিশ হবে মার্চ মাসের ২য় শুক্রবার ৯ মার্চ, ২০১৮ তারিখে। Non-Farm Employment Change রিপোর্টের পাশাপাশি Average Hourly Earnings m/m এবং Unemployment Rate রিপোর্ট দুটিও মার্কেটে প্রভাব রাখে। এনএফপি রিপোর্ট আসলে কি? হুমায়ূন আহমেদের নিউইয়র্কের নীলাকাশে ঝকঝকে রোদ এর সেই ব্ল্যাক ফ্রাইডে বাস্তবে বছরে মাত্র একবার আসলেও প্রতি মাসের প্রথম শুক্রবার কোনো না কোনো ফরেক্স ট্রেডারের জন্য ব্ল্যাক ফ্রাইডে। কত শত ট্রেডার যে তাদের ট্রেডিং অ্যাকাউন্টটি শূন্য করে এই দিনে, যে বা না জেনে, তার কোনো ইয়ত্তা নেই। কারন? মজার ব্যাপার হচ্ছে, অধিকাংশ ট্রেডারই অ্যাকাউন্টটা শুন্য করে এই কারনের উত্তর খুঁজে। কারন মূলত একটাই, ইউএস ননফার্ম পেয়-রোল। নামে ননফার্ম হলেও শুধু কৃষি নয়, সাথে সরকারি কর্মচারী, পরিবারের ব্যক্তিগত কর্মচারী আর অলাভজনক প্রতিস্থানগুলোর কর্মচারীদের বাদ দিয়ে মার্কিন শ্রম পরিসংখ্যান ব্যুরো প্রতি মাসের প্রথম শুক্রবার প্রকাশ করে পূর্ববর্তী মাসে যুক্তরাষ্ট্রে চাকরির সংখ্যা কি আগের থেকে বাড়ল না কমল। শুধু তাই না, বাড়লে কয়টা বাড়ল আর কমলেও কয়টা কমলেও সে সংখ্যাটাও। যেহেতু, কৃষি খাতকে বাদ দিয়েই এই হিসাবটা করা হয়, তাই এর নাম হয়েছে ননফার্ম পেরোল। কি আছে এই রিপোর্টে যে তা প্রবলভাবে ফরেক্স মার্কেটকে নাড়া দেয়ার ক্ষমতা রাখে? শুধু ফরেক্স বললে ভুল হবে, স্টক মার্কেট, বন্ড মার্কেটেও বড় ধরনের পরিবর্তন ঘটে ইউএস ননফার্ম পেরোল বা এনএফপি এর কারনে। প্রথমত, দেশটির নাম আমেরিকা। ঋণ করতে অথবা যুদ্ধ বাঁধাতে ওস্তাদ হলেও এখনো বিশ্বের এক নম্বর অর্থনৈতিক শক্তি দেশটি। দ্রুত বর্ধনশীল বিশ্বের দ্বিতীয় অর্থনীতি চীনেরও যুক্তরাষ্ট্রকে ছাড়িয়ে যেতে লাগবে অনেক বছর যদি তারা বর্তমান প্রবিদ্ধি ধরে রাখতে পারে (ইতিমধ্যেই কমতে শুরু করেছে চীনের প্রবিদ্ধি). সবচেয়ে আশাবাদী ব্যক্তিও আগামী দশকের আগে চীন যুক্তরাষ্ট্রকে টপকাতে পারবে এমন আশা করেন না। আর সামরিক শক্তির দিক থেকে তো আমেরিকার ধারে কাছেও কেউ নেই। বলা হয়, আমেরিকা বাদে বিশ্বের শীর্ষ ২০ পরাশক্তির সম্মিলিত সমরশক্তিও এক আমেরিকার সমান নয়। মহাকাশ শাসনেও প্রায় একক আধিপত্য আমেরিকার। গায়ের জোরে ডলারকে বিশ্বের রিজার্ভ কারেন্সিও বানিয়েছে দেশটি। খরচের দিক থেকেও আমেরিকানদের তারিফ করতে হয়, এখানেও এরা এক নম্বর। আর তাই সারা বিশ্বের বড় বড় সকল কোম্পানির শাখা আছে আমেরিকায়। বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় রপ্তানি বাজার হচ্ছে আমেরিকায়, এমনকি আমেরিকার সবচেয়ে বড় প্রতিদ্বন্দ্বী চীনেরও সবচেয়ে বড় রপ্তানির বাজার আমেরিকায়। এখন সেই আমেরিকার অর্থনীতি ঠিকঠাক মত চলছে কিনা সেদিকে নজর রাখা দরকার না? আমাকে আপনাকে কষ্ট না করলেও হবে, এই কাজটি করার জন্য অসংখ্য প্রতিষ্ঠান আছে। বড় বড় কোম্পানিগুলো পাশাপাশি ফরেক্স, ষ্টক ট্রেডাররাও চোখ রাখে আমেরিকার সামগ্রিক অর্থনীতির উপরে। আমেরিকার অর্থনীতি ভালো থাকলে শেয়ার বাজারে সুবাতাস বয় (ডিএসি এর সাথে আবার তুলনা করতে যাবেন না), আর খারাপ হলে ঘটে এর উল্টোটা। প্রভাব পড়ে ফরেক্স মার্কেটেও। এনএফপি গুরুত্বপূর্ণ এই কারনে যে, আমেরিকার চাকরির বাজারের চালচিত্র মোটামুটি বোঝা যায় এই রিপোর্টের কারনে। চাকরীর সংখ্যা বাড়ল না কমল সেটার পাশাপাশি আরও বেশ কিছু বিষয়ের উল্লেখ থাকে এনএফপি রিপোর্টে, যেমনঃ মোট কর্মক্ষম জনশক্তির কত শতাংশ বেকার কোন কোন সেক্টরে চাকরি বেড়েছে বা কমেছে ঘণ্টাপ্রতি গড় বেতন পূর্ববর্তী মাসের এনএফপি রিপোর্টের সংশোধন যেভাবে তৈরি করা হয় এনএফপি রিপোর্টঃ খুব স্বচ্ছ এবং যতটা সম্ভব নিখুঁতভাবে তৈরি করা হয় এনএফপি রিপোর্ট। প্রথমে, সরকারী বেসরকারি উভয় প্রতিষ্ঠানের কর্মচারীদের তথ্যই যোগাড় করে মার্কিন শ্রম পরিসংখ্যান ব্যুরো। যেহেতু, প্রায় ২৫ কোটি জনসংখ্যা আছে আমারিকায় এবং এই জনসংখ্যার একটি বড় অংশই কর্মক্ষম, তাই আলাদাভাবে প্রত্যেকের উপর জরিপ চালান সম্ভব না প্রতি মাসে। আর তাই, মার্কিন পরিসংখ্যান ব্যুরো বেছে নিয়েছে স্যাম্পল পদ্ধতি (দৈবচয়ন). প্রতি মাসে ১ লক্ষ ৪১ হাজার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের উপর জরিপ চালায় সংস্থাটি আর সরকারি বিভিন্ন এজেন্সি মিলিয়ে প্রতিনিধিত্ব করে প্রায় আরও ৪ লক্ষ ৮৬ হাজার কর্মক্ষেত্র। চিঠি, ইমেইল, ইন্টারনেট অথবা অত্যাধুনিক ইডিআই প্রযুক্তিতে জরিপে অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের কর্মচারীদের তথ্য পাঠায় পরিসংখ্যান ব্যুরোর কাছে। এনএফপি রিপোর্টের প্রকাশের বেলায় প্রথম ঝামেলাটা বাঁধে এখানে। ছোটো বড় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান তাদের সাধ্য অনুযায়ী তথ্য পাঠাতে গিয়ে প্রতি মাসে অনেকেই দেরি করে বা সেই তথ্য পেতে দেরি হয় পরিসংখ্যান ব্যুরোর। যেহেতু, এনএফপি রিপোর্ট প্রকাশের তারিখ নির্ধারিত, প্রতি মাসের প্রথম সোমবার, তাই হাতে তা তথ্য আসে তা দিয়েই রিপোর্ট প্রকাশ করে দেয় পরিসংখ্যান ব্যুরো। এই রিপোর্টটি পরে দুইবার সংশোধন করা হয়। প্রথমবার, পরিবর্তী মাসের এনএফপি রিপোর্ট প্রকাশের সময়, দ্বিতীয়বার আরও এক মাস পরে। এছাড়াও পরবর্তীতে ছোটখাটো কিছু পরিবর্তন আনা হলেও সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ চলতি এনএফপি রিপোর্ট ও আগের এনএফপি রিপোর্টের সংশোধন। খুবই ঝামেলার কাজ, তাই না? অথচ দেখুন, এই ঝামেলার কাজটিই কিনা প্রতি মাসে সুন্দরভাবে করে যাচ্ছে মার্কিন পরিসংখ্যান ব্যুরো। এনএফপি এর প্রভাবঃ যেহেতু, প্রতি মাসের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ নিউজগুলোর একটি হচ্ছে এনএফপি, তাই অনেক ট্রেডারই অপেক্ষা করে বসে থাকে এনএফপি ট্রেড করার জন্য। প্রায় প্রতিটি এনএফপি এর আগেই একই ঘটনা ঘটে। এনএফপির আগে আগে ট্রেডাররা ট্রেড করতে চান না বলে মার্কেটে মুভমেন্ট বা ভোলাটিলিটি কমে যায়, এনএফপি এর ঠিক আগেই শুরু হয় বড় বড় স্পাইক। সেকেন্ডে মার্কেট পরিবর্তিত হয় ৫-১০ পিপস করে। হঠাৎ করে পাগল হয়ে যাবে মার্কেট। হয় টানা পড়া/বাড়া শুরু করবে অথবা একলাফে ১৫-২০ পিপস করে কমবে/বাড়বে। হারিকেন শুরুর পূর্ব মুহূর্তে সাগর যেমন স্থির থাকে, হটাত করে শুরু হয় বড় বড় ঢেউ এর নাচন, ফরেক্স মার্কেটের অবস্থাও হয় তেমনি। আর এই ঢেউ এ ভেসে গিয়ে সলিল সমাধি ঘটে পিপস সংগ্রহের অভিযানে বের হওয়া মানি মানেজমেন্ট না জানা অসংখ্য ট্রেডারের ট্রেডিং অ্যাকাউন্টটির। সংবিধিবদ্ধ সতর্কীকরণঃ অত্যাধিক ঝুঁকি নিয়ে নিউজ ট্রেড করা অসংখ্য ট্রেডিং অ্যাকাউন্টের অকাল মৃত্যুর অন্যতম কারণ।

বিডিপিপস কি এবং কেন?

বিডিপিপস বাংলাদেশের সর্বপ্রথম অনলাইন ফরেক্স কমিউনিটি এবং বাংলা ফরেক্স স্কুল। প্রথমেই বলে রাখা জরুরি, বিডিপিপস কাউকে ফরেক্স ট্রেডিংয়ে অনুপ্রাণিত করে না। যারা বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, শুধুমাত্র তাদের জন্যই বিডিপিপস একটি আলোচনা এবং অ্যানালাইসিস পোর্টাল। ফরেক্স ট্রেডিং একটি ব্যবসা এবং উচ্চ লিভারেজ নিয়ে ট্রেড করলে তাতে যথেষ্ট ঝুকি রয়েছে। যারা ফরেক্স ট্রেডিংয়ের যাবতীয় ঝুকি সম্পর্কে সচেতন এবং বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, বিডিপিপস শুধুমাত্র তাদের ফরেক্স শেখা এবং উন্নত ট্রেডিংয়ের জন্য সহযোগিতা প্রদান করার চেষ্টা করে।

×