Jump to content

Leaderboard


Popular Content

Showing most liked content on রবিবার 16 জুন 2019 in all areas

  1. 1 point
    গত সপ্তাহে পাউন্ড/ডলার পেয়ারটির প্রাইস কমেছিল। এ সপ্তাহের মূল উভেন্টগুলোর মধ্যে রয়েছে যুক্তরাজ্যের কনজিউমার মুদ্রাস্ফীতি এবং রিটেইলস সেলস। এছাড়াও প্রত্যাশা করা হচ্ছে, ব্যাংক অব ইংল্যান্ডের বেঞ্জ মার্ক রেট শতকরা ০.৭৫% নির্ধারণ করা হবে। এখানে এ সপ্তাহের মার্কেট আউটলুক এবং পাউন্ড/ডলারের টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস আলোচনা করা হলো। গত সপ্তাহে ব্রিটিশ ডাটা তেমন ভাল অবস্থানে ছিল না। এপ্রিল মাসে জিডিপি শতকরা ০.৪% কমেছে, এটা দ্বিতীয়বারের মত কমেছে। এছাড়াও মেনুফেকাচারিং প্রডাকশন শতকরা ৩.৯% কমেছে। এটা ২০০২ সালের লেভেলকে নির্দেশ করছে। চাকরি ডাটা মিশ্র অবস্থানে রয়েছে। বেতন শতকরা ৩.২% থেকে ৩.১% কমেছে। তবে নির্ধারিত লেভেল শতকরা ২.৯% কে অতিক্রম করেছে। যুক্তরাজ্যে ২৩.২ হাজার বেকার রয়েছে, এটা ধারণাকৃত লেভেল ১২.৩ হাজারের উপরে এসেছে। যুক্তরাষ্ট্রের মুদ্রাস্ফীতি কিছুটা নমনীয় অবস্থানে রয়েছে। সিপিআই এবং কোর সিপিআই শতকরা ০.১% এসেছে। মে মাসে যুক্তরাষ্ট্রের কনজিউমার ব্যয় ডাটা প্রত্যাশিত লেভেল অনুযায়ী ‍কিছুটা ভাল এসেছে। কোর রিটেইলস সেলস শতকরা ০.৫% বেড়েছে। রিটেইলস সেলসও শতকরা ০.৫% বেড়েছে। তবে ধারণা করা হয়েছিল ০.৭% আসবে। তবে ফেডারেল রিজার্ভের রেট সিদ্ধান্তের ‍উপর ভিত্তি করে, পরবর্তীতে কনজিউমার মুদ্রাস্ফীতি এবং ব্যয় সেক্টর কিছুটা খারাপ অবস্থানে আসতে পারে। মার্কেট এ বছর দ্বিতীয় বারের মতো রেট কমানোর বার্তার প্রস্তুতি নিচ্ছে। সিএমআই গ্রুপে জুলাই মাসে ৬২% এবং সেপ্টেম্বর মাসে ৫৫% কমেছে। এর ফলে ডলারের প্রাইস কিছুটা কমতে পারে। পাউন্ড/ডলারের প্রতিদিনের রেজিস্ট্যান্স এবং সাপোর্ট লাইনগুলো দেওয়া হলো: ১.Inflation Data বুধবার দুপুর ০২:৩০। ব্রিটিশ সিপিআই এপ্রিল মাসে শতকরা ২.১% বেড়েছে। গত চার মাসে প্রথমবারের মত ব্যাংক অব ইংল্যান্ডের মুদ্রাস্ফীতি টার্গেট শতকরা ২% উপরে এসেছে। আশা করা হচ্ছে, মে মাসের রিলিজেও সিপিআই ২.১% আসতে পারে। কোর সিপিআই গত তিন মাস ধারাবাহিকভাবে বাড়ার পর এবার ১.৬% কমেছে। ২.CBI Industrial Order Expectations বুধবার, বিকাল ০৪:০০। মেনুফেকাচারিং সেক্টর মে মাসে কিছুটা কমেছে, এ সেক্টরটি থেকে ১০ পয়েন্ট এসেছে। এ ধরণের পয়েন্ট ২০১৬ সালের অক্টোবরে দেখা গিয়েছিল। ধারণা করা হচ্ছে, জুন মাসে এ সেক্টর থেকে ১১ পয়েন্ট আসতে পারে। ৩.Retail Sales বৃহস্পতিবার, বিকাল ০৪:৩০। এপ্রিল মাসে রিটেইল সেলস সেক্টরটি একই লেভেলে রয়েছে। ( বাড়েনি বা কমেনি) মে মাসে এটা খারাপর আসতে পারে এবং ধারণা করা হচ্ছে, ০.৫% আসতে পারে। ৪.BOE Decision বৃহস্পতিবার, বিকাল ০৫:০০। ব্যাংক অব ইংল্যান্ড বেঞ্জ মার্ক রেট শতকরা ০.৭৫% নির্ধারণ করবেন এবং এটা ৩য় প্রান্তীকে ৪৩৫ বিলিয়ন পাউন্ড হতে পারে। তবে মনেটারী পলিসি মিটিংয়ে ভোটের মাধ্যমে এটা নির্ধারিত হবে। মিটিংয়ে যদি Dovish সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, তাহলে পাউন্ডের প্রাইস খুব দ্রুত কমতে পারে। ৫.Public Sector Net Borrowing শ্রক্রবার বিকাল ০৪:৩০। যুক্তরাজ্যে এপ্রিল মাসে ৫.০ বিলিয়ন পাউন্ড ঘাটতি হয়েছে, তবে এটা প্রত্যাশিত লেভেল ৫.২ বিলিয়নের কম এসেছে। আশা করা হচ্ছে, মে মাসে ৩.৩ বিলিয়ন পাউন্ড ঘাটতি হবে। পাউন্ড/ডলারের টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস টেকনিক্যাল লাইনগুলো উপর থেকে নিচে দেওয়া হলো: আমরা ১.৩০ রাউন্ডি নাম্বার থেকে শুরু করছি। পরবর্তী লেভেল ছিল ১.২৯১০। (গত সপ্তাহের সাথে সম্পর্কিত) নভেম্বরের শেষের দিকে ১.২৮৫০ একটি রিকভারি লেভেল ছিল। জানুয়ারির প্রথমার্ধে ১.২৭২৮ একটি কার্যকারী লেভেল ছিল। ১.২৬৬০ আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ লেভেল। ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে ১.২৫৯০ আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ লেভেল ছিল। ২০১৭ সালের প্রথম দিকে ১.২৫ আরেকটি সাপোর্ট লেভেল হিসেবে কাজ করেছিল। পরবর্তী সাপোর্ট লেভেল ছিল ১.২৪২০। ২০১৭ সালের মার্চ মাসে ১.২৩৩০ আরেকটি সাপোর্ট লেভেল ছিল। বর্তমান সাপোর্ট লেভেল ১.২২১৪। শেষ কথা আমরা ধারণা করছি পাউন্ড/ডলারের প্রাইস কমতে পারে। জিডিপি এবং মেনুফেকচারিং সেক্টর খারাপ হওয়ার কারণে পাউন্ডের প্রাইস আরও কমতে পারে। এছাড়াও বেক্সিট ডেট লাইনের কারণে পাউন্ডের প্রাইস কমবে বলে আমরা আশা করছি।

বিডিপিপস কি এবং কেন?

বিডিপিপস বাংলাদেশের সর্বপ্রথম অনলাইন ফরেক্স কমিউনিটি এবং বাংলা ফরেক্স স্কুল। প্রথমেই বলে রাখা জরুরি, বিডিপিপস কাউকে ফরেক্স ট্রেডিংয়ে অনুপ্রাণিত করে না। যারা বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, শুধুমাত্র তাদের জন্যই বিডিপিপস একটি আলোচনা এবং অ্যানালাইসিস পোর্টাল। ফরেক্স ট্রেডিং একটি ব্যবসা এবং উচ্চ লিভারেজ নিয়ে ট্রেড করলে তাতে যথেষ্ট ঝুকি রয়েছে। যারা ফরেক্স ট্রেডিংয়ের যাবতীয় ঝুকি সম্পর্কে সচেতন এবং বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, বিডিপিপস শুধুমাত্র তাদের ফরেক্স শেখা এবং উন্নত ট্রেডিংয়ের জন্য সহযোগিতা প্রদান করার চেষ্টা করে।

×