Jump to content

Leaderboard


Popular Content

Showing most liked content on মঙ্গলবার 13 ফেব্রু 2018 in all areas

  1. 2 points
    Weekly chart এনালাইসিস করে দেখা যায়, প্রাইস 1.17413 লেভেল থেকে ধারাবাহিকভাবে বাড়তে বাড়তে 1.2540 লেভেলে পৌঁছায়, যা কিনা গত তিন বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ। একাধারে সাতটি ক্যান্ডেল বুলিশ অবস্থায় থাকার পর হঠাৎ করেই একটি বড় আকারের বিয়ারিস ক্যান্ডেল উপস্থিত হয়, যা কিনা মার্কেটকে একেবারে নামিয়ে দিয়ে নতুন আলোচনার জন্ম দেয়। চার ঘন্টার চার্ট এনালাইসিস করে দেখা যায়, মার্কেট গত ৭ ডিসেম্বর থেকে এখন পর্যন্ত 1.2200 থেকে 1.2298 এই লেভেলের একটি রেন্জের মধ্যে আছে। অর্থাৎ 1.2200 কে আমরা একটি শক্তিশালি সাপোর্ট হিসেবে ধরতে পারি। আর মুরব্বিরা ধারণা করছেন (মুরব্বিদের কথা বেশিরভাগ সময়ই ফলে যায়), মার্কেট আবার 1.2540 প্রাইস লেভেল টেস্ট করতে পারে। এই 1.2540 প্রাইস লেভেলটি একটি শক্তিশালি রেসিসটেন্ট হিসেবে গত কয়েক বছর ধরেই বিবেচ্য, কারন এটি বিগত বছরগুলোতে খুব কম সময়ই rejected হয়েছে। তার মানে মার্কেট ঘুরে দাড়াতে পারাতে আবার। আমার ব্যক্তিগত পছন্দের ইচিমুকো ইন্ডিকেটরের ডেইলি চার্টেও স্পষ্টভাবে আপট্রে্ন্ডের ইঙ্গিত দিচ্ছে। এদিকে ফরেক্স জগতের অন্যতম মুরব্বি Fxstreet.com সাহেব তাদের অতি সাম্প্রতিক সময়ের টেকনিকেল এনালাইসিসে বলেছেন, “যদি বড় ধরনের কোন অপ্রত্যাশিত ঘটনা না ঘটে তাহলে EUR/USD পেয়ারে আরেকটি অপট্রেন্ড আসার সম্ভাবনা খুব প্রবল”। আবার আরেক ‍মুরব্বি XM.COM সাহেবও ইনিয়ে বিনিয়ে এই কথাটিই বুঝাতে চেয়েছেন। তবে, মুরব্বিদের কেউই আপনাদের কষ্টার্জিত টাকার লসের দায়িত্ব নিতে সরাসরি অস্বীকার করেছেন।
  2. 2 points
    মার্কেট এনালাইসিসও যে এত সুুুুন্দর ও মজা করে করা যায়, সেটা দেখে ভালো লাগলো। এরকম এনালাইসিস নিয়মিত দিলে তো মানুষ এনালাইসিসগুলো একটু পড়ে দেখতো। চার্টকে অতিভক্তি (!) করতে গিয়ে সবাই পাশ কাটিয়ে চলে যায়!
  3. 1 point
    আপাতত কিছুটা মার্কেট নিচের দিকে গেলেও ইউরোর প্রাইস বাড়ার সম্ভাবনাই বেশি ধরা হচ্ছে। ১.২২ এবং ১.২৫ দুটিই শক্তিশালী সাপোর্ট এবং রেসিস্ট্যান্স এটা আমি আপনার সাথে একমত। তবে ১.২৫ একবার ভালভাবে ভাঙতে পারলে খবর আছে। এখন পর্যন্ত EURUSD কেনার পক্ষেই আছি।
  4. 1 point
  5. 1 point
    বি:দ্র: ফরেক্স মার্কেটে আমি নিতান্তই একজন নবিস। উপরিউক্ত লেখাটি বিভিন্ন আলোচিত ওয়েবসাইট থেকে আমার নিজের জন্যে করা কিছু অনুবাদের সারাংশ মাত্র; বড়জোর এক চামুচ পরিমাণ আমার মস্তিস্ক প্রসূত। অতএব, ইহা পড়িয়া অধমকে মনে মনে ইঁচড়ে-পাকা সাব্যস্ত না করিতে বাধিত করতে আজ্ঞা হয়।
  6. 1 point
    অামরা সবসময় যে জিনিসগুলা খেয়াল করিনা সেটা হল আমরা কোন শুরু করার আগে সেটার বর্তমান /অতিত এবং ভবিষ্যৎ কি হতে পারে সেগুলা না জেনেই কাজটা শুরু করে দেয় অথচ এটা কি ঠিক । ধরে নেন আপনি একজন সাক্সেসফুল বিজনেজম্যান েএই ক্ষেত্রে আপনার কি করা উচিত ছিল আপনার প্রথমে যে জিনিসগুলার একটা ডিপলি এনালাইসেস করতে হতে পারে নিচের সবগুলাই মূলত একটি কাজ শুরু করার আগে কি চিন্তা বা ব্যবস্থা করা উচিত:- আপনি যেটা শুরু করতে যাচ্ছেন সেটার পূর্ব রেসাল্ট কি সেটা কে নিয়ে আগানোর জন্যে আপনার কি করতে হতে পারে অাপনি কি কি প্রবলেম ফেস করবেন সেটা আগে থেকেই একটা সম্ভাব্য ধারনা রাখা আপনি কি এটা সম্পর্কে ভালোভাবে জানেন অথবা না জানলে কি ভাবে জানতে পারেন বা এটাতে সাক্সেস হতে হলে আপনি কিভাবে এই প্রবলেম টা অভারকাম করবেন? যাহোক আমি আজকে আপনাদের অন্যে কোন বিজনেস এর ব্যাপারে বলতে চাচ্ছিনা। আমার আজকের টপিক এ্ই নয় যে আপনি ফরেক্স করতে হলে আপনার আগে থেকে যেসব জিনিস গুলা জানা উচিত বা ব্যবস্থা করা উচিত (সেটা উপরের চেকলিস্ট টার সাথে কিছুটা মিল পাবেন) আমি আজকে একটা নিউ চেকলিস্ট করছি সেটা তাদের জন্যে যারা ফার্স্ট টাইম ডিপোসিট করেছিলেন তারপর একাউন্ট জিরো করেছেন.তারপর আপনি চাচ্ছেন আবার শুরু করবেন তাহলে আপনি আবার কিভাবে শুরু করবেন। আপনার আগের ভুলগুলাকে শুধরিয়ে একটা নতুন সাক্সেস পাওয়ার জন্য আপনি কি কি করতে পারেন। আমি নিচে কিছু সম্ভাব্য একটা তালিকা দিলাম এগুলার মধ্যে যেগুলা আপনার সমস্য বা লসের কারন ছিল সেগুলাকে আপনি আপনার ডায়রি তে লিখে ফেলুন আমি আবার ও বলছি ডায়রিতে লিখুন এখনি শুধু পড়ার উদ্দেশ্য পড়বেন না বা এই চিন্তা করবেন না যে আপনি তো এইগুলা জানেন আগে থেকেই। লিখার কারন টা আপনি নিজে বের করবেন একদিন কেন লিখবেন ডায়রিতে।এরপর এটাকে আপনার সিগন্যাল বা স্ট্রেইজি অনুযায়ী ট্রেড সেটাপ পেলে ডায়রিটা আপনার সামনে রাখুন আর এইভেবে ডায়রিটা ফলো করুন যেন মনে হয় আপনি একজন ওয়ার্কার আর আপনার বস আপনাকে বলছে ডায়রিতে যা যা আছে সেভাবেই যেন ট্রেড সেটাপ দিতে। আমার পূর্বে যেসব প্রবলেম ছিল সেগুলা হল:- ⇷ ⇸ ⇹ ⇺ ⇻ ⇼ ⇷ ⇸ ⇹ ⇺ ⇻ ⇼ ⇷ ⇸ ⇹ ⇺ ⇻ ⇼ ⇷ ⇸ ⇹ ১.Stop loss দেয়নি ২.Stop loss চেন্জ করেছিলাম ৩.বারবার স্ট্রে্ইজি চেন্জ করেছিলাম ৪.অভার কনফিডেন্স হও্রয়ার কারনে স্ট্রে্ইজির বাহিরেও ট্রেড দিয়েছিলাম ৫.লট সাইজ চেন্জ করতাম ৬.অল্প প্রফিটে কেটে দিতাম ট্রেড ৭.ট্রেড দেওয়ার পর আবার এই অলরেডি এন্ট্রি নেওয়া ট্রেডটা নিয়ে এনালাইসিস করতাম ৮.বারবার টার্মিটাল দেখতাম আর ট্রেডের সিটুএশন দেখতাম ৯.যে কারেন্সি মন চায় সেই কারেন্সিতেই ট্রেড করতাম ১০.টাইমফ্রেমের তোয়াক্কা করতাম না ১১.ট্রেড সেটাপ দেখতাম এক টাইমফ্রেমের আর চেয়ে থাকতাম আরেক টাইমফ্রেমে ১২. উপরের সবগুলা বিষয় আবার চেক করব উপরের গুলা সম্পন্ন করেছি কিনা ট্রেডিং কারেকশন ⇷ ⇸ ⇹ ⇺ ⇻ ⇼ ⇷ ⇸ ⇹ Stop loss দেয়নি ─ ━─ ━─ ━─ ━ ডায়রি অনুযায়ী দেখুন আপনার স্ট্রেইজি আপনার কত Stop Loss দেওয়ার কথা ছিল Stop loss চেন্জ করেছিলাম ─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━ আর ভুলেও করবেন না।যখন প্রফেশনাল হবেন তখন অন্যে বিষয় কারন তখন আপনি ভালো করেই জানেন কেন চেন্জ করবেন কিন্ত শুরুতে আপনি চেন্জ করার মাএ একটাই কারন থাকে সেটা হল আপনার লস খাওয়ার ভয়। বারবার স্ট্রাটেজি চেন্জ করেছিলাম ─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━ এটা আর নয় যা করেছেন তা এতদিন লস করতে করতেই করে ফেলেছেন। আর আশা করি দুনিয়ার যত স্ট্রেইজি আছে এতদিনে গ্যাসের চুলায় বেজে ফেলেছেন । এখন দয়া করে যে কোন একটা পরিক্ষিত মেথড নিয়ে এগুন আর এটাতে কোন প্রবলেম থাকলে এটাকে চেন্জ করবেন না প্লিজ পারলে আপগ্রেড করুন কেন লস হল আর এই মেথড টাতে কি আরো সংযোজন করলে লস থেকে বাচতে পারতেন এইভাবে প্রতিটা ট্রেড লস করার পর চিন্তা করুন।সো মনে রাখতে হবে “মেথড চেন্জ নয় আপগ্রেড করবেন”। অভার কনফিডেন্স হও্রয়ার কারনে স্ট্রে্ইজির বাহিরেও ট্রেড দিয়েছিলাম ─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━ মাঝে মাঝে আপনি আপনার অজান্তেই নেইল ফুলার বা আরো বড় এক্সপার্ট হয়ে যান যা আপনি নিজেও জানেন না ।ট্রেডটা লস খাওয়ার পর বুঝতে পারেন আপনি এই ট্রেডটা হঠাৎ নেইল ফুলার হওয়ার কারনে আপনি আপনার স্ট্রেইজির বাহিরেই ট্রেড দেওয়া শুরু করে দিয়েছেন।আর ফলাফল সিলেটি ভাষায় যাকে বলে “আন্ডা”পেয়েছেন। লট সাইজ চেন্জ করতাম ─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━ আপনি যখন একটা টাইমে বেশি প্রফিট করা শুরু করে দেন আর আপনার মাঝে অভার কনফিডেন্স চলে আসে তখন ছোটবেলার গুনের নামতা এর মত লট সাইজ গুন করা শুরু করে দেন তারপর হিসাব কষে যে রেজাল্ট বের হয় সেই অনুযায়ী একটা ফুটবলের আকারের একটা লট সাইজ নিয়ে ট্রেড নিয়ে থাকেন অথচ সাময়িকভাবে বিষয়টা আপনাকে সেটিসফাই করলেও একসময় জিরো হবার মূল কারন হয়ে ধারাই (যা আমার কপালে জুটেছিল। XM ব্রোকারে আমার ফার্স্ট ডিপোসিট লস খাওয়ার একমাত্র কারন)। অল্প প্রফিটে কেটে দিতাম ট্রেড ─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━━ লস থেয়ে ফেলেছেন ৫০ ডলার আর একটা ট্রেড কি করে যেন ভাগ্যের গুনে আপনার পক্ষে যাওয়া শুরু হল আর কোন ক্রমে যদি ৫ ডলার ছুই ছুই অবস্থা হয় তাহলে আর কি ৫ ডলার ছোয়ার আগেই আপনার মাউস ট্রেড ক্লোজ করার যে অপশন টা থাকে সেটা ছুয়ে ফেলে কি করে যেন..লঅঅঅল..। ট্রেড দেওয়ার পর আবার এই অলরেডি এন্ট্রি নেওয়া ট্রেডটা নিয়ে এনালাইসিস করতাম ─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━ ট্রেড দিয়েছেন কিন্তু আপনার মত এনালাইসিস কি আর তার ট্রেড এনালাইসিস থামাতে পারে.ট্রেড দেওয়ার পরও আবার এই অলরেডি এন্ট্রি নেওয়া ট্রেডটা নিয়ে এনালাইসিস শুরু করে দেন আর ফলাফল অল্প প্রফিটে কেটে দেন ট্রেড। বারবার টার্মিটাল দেখতাম আর ট্রেডের সিটুএশন দেখতাম ─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ একটা ট্রেড দেওয়ার পর কথনো উচিত না এই ট্রেডটাকে বার বার দেখা ফলাফল আপনার মনে ভিতি তৈরি হতে পারে এইজন্যে বারবার ট্রেডটা দেখার দরকার নেই ।অন্যে কোন কাজ করুন বা নিজেকে বিজি রাখুন বা অন্যে কোন কাজ না থাকলে মুভি দেথুন।বিবাহিত হলে বউয়ের সাথে আড্ডা মারুন। যে কারেন্সি মন চায় সেই কারেন্সিতেই ট্রেড করতাম ─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ কারেন্সি সেটাপ টা সবসময় আপনার মাসের শুরুতেই করে রাখুন আর না হয় সপ্তাপ শুরু হওয়ার আগেই এনালাইসিস করে ফেলুন কোন কোন পিয়ার গুলা সামনের সপ্তাহের জন্যা ভালো হতে পারে।আমি সাজেস্ট করব কম ভলাটাইল কারেন্সি গুলা সিলেক্ট করে সেগুলাকে নিয়ে এনালাইসিস করুন। টাইমফ্রেমের তোয়াক্কা করতাম না ─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ আর টাইমফ্রেম এটা আবার কি আর এমন । না ভাই এটাও আপনার মাইন্ড চেন্জ এবং আপনার এনালা্ইসিস কে উল্টোদিকে নিয়ে যেতে পারে । তাই সবসময় একই টাইমফ্রেম ইউজ করা শিখুন আর সেটাতেই আপনার এনালাসিস করার ট্রাই করেন। ট্রেড সেটাপ দেখতাম এক টাইমফ্রেমের আর চেয়ে থাকতাম আরেক টাইমফ্রেমে ─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ ━── ━─ ━─ ━─ ━─ ━─ সবসময় যে টাইমফ্রেমে এনালাইসিস করেছেন পরে সেটাতেই চোখ বুলান এতে করে আপনার এনালা্ইসিস ভিশন ক্লিয়ার এবং দক্ষতা ভালো হয়। আমাকে ফেসবুকে | আমাকে লিন্কদিনে | আমাকে টুইটারে | আমাকে গুগল প্লাসে | আমার পাসোনাল ব্লগে
  7. 1 point
    আগের পোস্টে ( পোস্ট লিংক http://forex.com.bd/topic/53540-%E0%A6%A1%E0%A7%87%E0%A6%AE%E0%A7%8B-%E0%A6%95%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%9F%E0%A7%87%E0%A6%B8%E0%A7%8D%E0%A6%9F-%E0%A6%95%E0%A6%BF%E0%A6%9B%E0%A7%81-%E0%A6%AA%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%B6%E0%A7%8D%E0%A6%A8-%E0%A6%86%E0%A6%B0-%E0%A6%86%E0%A6%AE%E0%A6%BE/?do=findComment&comment=85206 ) উল্লেখ করেছিলাম যে নিতান্তই নিজে এতদিন পর্যন্ত কি শিখলাম সেটার একটা ঝালাই দেয়ার উদ্দেশ্য ডেমো কন্টেস্টে জয়েন করি । এই মাসের গত ১০ তারিখ থেকে শুরু হওয়া কন্টেস্টটি চলে গত ২১ তারিখ বিকাল পর্যন্ত । কন্টেস্টের সব পার্টিসিপেটদের ব্যালেন্স দেয়া হয় ১০,০০০ ভার্চুয়াল ইউএসডি । লিভারেজ ডিফল্ট করে দেয়া হয় ১ঃ১০০ করে । উইনার হিসেবে তাকেই বিবেচনা করা হবে যার একাউণ্টে ব্যালেন্স থাকবে বেশি । এভাবে ক্রমান্বয়ে মোট ৫ জনকে উইনার হিসেবে বিবেচনা করা হবে। কন্টেস্টে মোট প্রতিযোগি ছিলো ১৩,২১৫ জন। তো যাই হোক কন্টেস্ট শুরু হবার প্রথম দিনেই যা উপলব্ধি হল সেটা যে স্বল্প সময়ের একটা নিছক একটা ভূল ধারণা ছিলো সেটা বুঝেছি একদম শেষে । চলুন দেখে নিই প্রথম দিনে কন্টেস্ট শুরু হবার ২ ঘন্টার পরে প্রতিযোগিদের একাউন্ট আর আমার একাউন্টের অবস্থা_ এবার দেখা যাক আমার কি ছিলো অবস্থা সেই সময়_ হাহাহাহাহ বুঝতেই পারছেন মেজাজ তখন খুব খারাপ। সবাই আগাইয়া যাইতেছে আমি কেনো পিছাইয়া থাকিবো ? আমাকেও আগাইয়া যাইতে হইবে। ট্রেডে কনফার্মেশন ও ছিলো তাহলে কেনো এমন হলো? তার মানে কি আমি ঠিকভাবে এপ্লাই করতে পারি নি ? প্রথম দুইদিনের শেষ মাথায় আমার অবস্থান আরো নিচে ( ২৩৮৬) চলে যায় । আমি কি করবো , কি করা উচিত বা ট্রেডগুলা কি ক্লোজ করে দিবো কি না কিছুই বুঝতে পারছিলাম না। ট্রেড ক্লোজ না করে আমি যে বিষয়গুলা ফলো করে ট্রেড ওপেন করেছিলাম সেগুলো আসলেই কাজ করে কি না সেটা দেখা উচিত এবং এজন্য ট্রেড ক্লোজ না করে কন্টেস্টের শেষ পর্যন্ত অপেক্ষা করা উচিত। তো এই বিষয়টাকে মাথায় রেখেই ওপেন করা ট্রেডগুলা কন্টিনিউ করতে থাকি। আমার ব্যাবহৃত পেয়ারগুলো ছিলো USDCAD.... USDJPY..... USDCHF.... EURUSD টাইম ফ্রেম ছিলো D1 .... দিন যত অতিবাহিত হচ্ছিল আমিও তত এগিয়ে আসছিলাম। সবচেয়ে আশার কথা হলো আমাদের বাংলাদেশের একজনকে ২ নং পজিশনে দেখেছিলাম বেশ কিছুদিন ধরে । ঐ আইডিটা দেখে একটা আশা ছিলো যে অন্তত একজন বাংলাদেশী আছে এই কন্টেস্টের প্রথম ৫ জলের তালিকায়। কিন্তু তার আরো দুদিন পরে আর ঐ আইডি খুজে পাই নি। যে জিনিসটা আমি ফাইনালি ফাইন্ড আউট করলাম যে আমার স্ট্রাটেজি গুলা শর্ট টার্মে সুইট্যাবল না কেননা শর্ট টার্মের ট্রেডগুলাতে যে স্টাটেজিগুলা স্টপ লস হিট করেছিলো ঐ একই স্ট্রাটেজি লং টার্মে প্রফিটে ছিলো । স্টপ লস হিট হবার সম্ভাবনাও ছিলো একেবারেই কম। দ্বিতীয় যে জিনিসটা দরকার সেটা হচ্ছে ধৈর্য। লং টার্মের ট্রেডগুলাতে ধৈর্য ধারণ করতে হবে। পাশাপাশি এই মার্কেটে টিকে থাকতে হলে অনেক চড়াই উতরাই এর সাথে ধৈর্য ধরে খাপ খাওয়াতে হবে নিজেকে। স্ট্রাটেজি ঠিক আছে সেটাকে আরো শার্প করতে হবে। আরো ডেভেলপ করতে হবে। কন্টেস্টে উইন হবার সম্ভাবনা আমার ছিলো না বললেই চলে কেননা ম্যাক্সিমাম ট্রেডারই তাদের একাউন্টকে সাত থেকে শুরু করে এগারো লাখে পরিণত করে। ছবিটি দেখুন_ এই কন্টেস্টে শুধু ১৩,২১৫ জন অংশগ্রহণকারী ছিলো। কিন্তু এই ১৩,০০০ জন ছাড়াও সারা বিশ্বে আরো লাখো লাখো ট্রেডার রয়েছেন। কন্টেস্টের মেয়াদ যতই শেষের দিকে আগাচ্ছিলো আমার স্ট্রাটেজিও ততই ভালো ফল দিচ্ছিলো। আমিও এগিয়ে যাচ্ছিলাম । আমার ট্রেডিং সিস্টেম আমাকে কতদূর নিয়ে যেতে পারে এবং কার্যকরী কি না সেটাই ছিলো আমার কাছে প্রধান বিষয়। এবং শুরুর দিকে আমি ২০০০ জনের পিছনে থাকলেও কন্টেস্ট শেষের দিন চলে আসি ৬১ নং পজিশনে। এই কন্টেস্টে ইচ্ছাকৃতভাবে যোগদান করলেও এটা থেকে আমার শেখার আছে অনেক কিছুই। কিছু কিছু ভুল করেছিলাম যেটা সাধারণত করা উচিত নয়। পরিশেষে এটাই বলতে চাই আমি কত তম হলাম সেটা বিষয় নয় আমি যা শিখছি সেটা কাজে লাগানোটাই আমার কাছে মূখ্য বিষয়। আমি সম্পূর্ণ নতুন ফরেক্সে । শিখার তীব্র ইচ্ছা আর আগ্রহ নিয়ে প্রতিনিয়ত এগিয়ে যাচ্ছি । পোষ্টে কোন ভুল ত্রুটি থাকলে ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন ।

বিডিপিপস কি এবং কেন?

বিডিপিপস বাংলাদেশের সর্বপ্রথম অনলাইন ফরেক্স কমিউনিটি এবং বাংলা ফরেক্স স্কুল। প্রথমেই বলে রাখা জরুরি, বিডিপিপস কাউকে ফরেক্স ট্রেডিংয়ে অনুপ্রাণিত করে না। যারা বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, শুধুমাত্র তাদের জন্যই বিডিপিপস একটি আলোচনা এবং অ্যানালাইসিস পোর্টাল। ফরেক্স ট্রেডিং একটি ব্যবসা এবং উচ্চ লিভারেজ নিয়ে ট্রেড করলে তাতে যথেষ্ট ঝুকি রয়েছে। যারা ফরেক্স ট্রেডিংয়ের যাবতীয় ঝুকি সম্পর্কে সচেতন এবং বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, বিডিপিপস শুধুমাত্র তাদের ফরেক্স শেখা এবং উন্নত ট্রেডিংয়ের জন্য সহযোগিতা প্রদান করার চেষ্টা করে।

×