Jump to content

ফোরাম ফিড

This stream auto-updates     

  1. Today
  2. Market Analysis and News.

    Date : 19th April 2019. MACRO EVENTS & NEWS OF 19th April 2019. FX News Today Wall Street was higher overnight, with the Dow up 0.4% and outperforming on the back of strong retail sales data and better earnings from Travelers and American Express. Core European bourses were mixed, with the DAX up nearly 0.6%, the CAC 40 up 0.3%, and the FTSE slightly underwater. Japan released its March national CPI, which as expected remained well below the 2% BoJ’s target. The overall rose to 0.5% y/y from 0.2%, and the core is at 0.8% from the 0.7% y/y. The Japanese inflation supports once again the BoJ’s large-scale easy monetary policy. The US, Canada, the UK and several other European and Asian markets are closed for Good Friday, with Europe remaining shut for Easter Monday. Only Japan is open from the Asia trading centres. Charts of the Day Technician’s Corner EURUSD is still trading below the 1.13 level, retracing nearly 23% of yesterday’s losses. The April low of 1.1184, then the March 7 bottom of 1.1177 will be in the cross hairs in the coming sessions if we face a move below 1.1220. GBPUSD has been stable at the upper 1.29 level, still unable to break through 1.30, fluctuating between the 1.3006 and 1.2960, which are Resistance and Support (PP) level respectively. Indicators are giving negative signals. Main Macro Events Today Housing Data (USD, GMT 12:30) – Both Building Permits and Housing Starts are expected to have increased in March, by 1.299M and 1.230M respectively, up from 1.291M and 1.162M in February. Support and Resistance Always trade with strict risk management. Your capital is the single most important aspect of your trading business. Please note that times displayed based on local time zone and are from time of writing this report. Want to learn to trade and analyse the markets? Join our webinars and get analysis and trading ideas combined with better understanding on how markets work. Andria Pichidi Market Analyst HotForex Disclaimer: This material is provided as a general marketing communication for information purposes only and does not constitute an independent investment research. Nothing in this communication contains, or should be considered as containing, an investment advice or an investment recommendation or a solicitation for the purpose of buying or selling of any financial instrument. All information provided is gathered from reputable sources and any information containing an indication of past performance is not a guarantee or reliable indicator of future performance. Users acknowledge that any investment in FX and CFDs products is characterized by a certain degree of uncertainty and that any investment of this nature involves a high level of risk for which the users are solely responsible and liable. We assume no liability for any loss arising from any investment made based on the information provided in this communication. This communication must not be reproduced or further distributed without our prior written permission.
  3. GBP/USD এর উপর টেকনিক্যাল আনাল্যসিসঃ ১৯ এপ্রিল ২০১৯ টেকনিক্যাল মার্কেট পর্যালোচনা: আমাদের শেষ পর্যন্ত GBP/USD পেয়ারের কিছুটা ওঠানামা হয়েছে। 1.3012 এবং 1.2996 লেভেলে টেকনিক্যাল সাপোর্ট লেভেলের নীচে মার্কেটের পতন হয়েছে। বর্তমানে, মূল্য টেকনিক্যাল সাপোর্ট লেভেল 1.2977 তে রয়েছে এবং অল্প বাউন্স করেছে। এটি প্রদর্শন করছে যে নীচের দিকের গতি ওভারসোল্ড মার্কেট অবস্থায়মোমেন্টাম দুর্বল এবং নেতিবাচক রয়েছে। বেয়ারের পরবর্তী টার্গেট দেখা যাচ্ছে 1.2960 - 1.2930 লেভেলে( প্রধান টেকনিক্যাল সাপোর্ট অঞ্চল)। সাপ্তাহিক পিভট পয়েন্ট: WR3 - 1.3225 WR2 - 1.3177 WR1 - 1.3116 Weekly Pivot - 1.3067 WS1 - 1.3006 WS2 - 1.2961 WS3 - 1.2904 ট্রেডিং পরামর্শ: ডে ট্রেডারদের জন্য এই মার্কেটের সেরা ট্রেডিং কৌশল হলো ওভার সোল্ড/ ওভার ব্রড শর্তাবলী সাপোর্ট-রেসিস্ট্যান্স লেভেল। সুইং ট্রেডারেরা অবশ্যই ধৈর্যশীল থাকবে এবং একটি ব্রেক আউন্টের জন্য অপেক্ষা করবে। প্রধান সাপোর্ট এবং রেসিস্ট্যান্স লেভেল নীচের চ্যাটে অংকন করা হয়েছে। বিভিন্ন পেয়ারের ফরেক্স আনাল্যসিসগুলো পেতে এই লিঙ্কটি ভিজিট করুন
  4. EROUSD সিগন্যাল ৬০ মিনিট (১ঘন্টার) চার্টের সিগনাল (পরবর্তী ৩ দিন) পেয়ারটি ১.১২৬০ রেজিস্ট্যান্স লেভেলের দিকে একটি ঊর্ধ্বমূখী প্রাইস রিট্রেসমেন্টের সম্ভাবনা । সে ক্ষেত্রে সেল পজিশন নেওয়া যেতে পারে। ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট নিন্মমূখীভাবে শক্তিশালী। পোসার্ট লেভেল : ১.১২৩৩, ১.১১৮৯, ১.১১১৯ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১.১২৬০, ১.১২৭৭১.১৩০৪ সেল এন্ট্রি : ২৪০ মিনিট (৪ ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল ( পরবর্তী ৩ সপ্তাহ ) মার্কেট ১ম টেক প্রফিটে পৌঁছেছে। আমরা ৫০% ট্রেড ক্লোজ করবো এবং ১.১২৭৭ প্রফিট লেভেলে স্টপ লস নেব। আশা করছি মার্কেট খুব তাড়াতাড়ি ২য় টেক প্রফিটে পৌঁছাবে। ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট নিন্মমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল : ১.১১৮০, ১.১০৯০, ১.১০০০ রেজিন্স লেভেস্ট্যাল : ১.১২৭৭, ১.১৩২৩, ১.১৩৫১ সেল এন্ট্রি : ১.১২৭৭ স্টপ লস : ১.১২৭৭ ট্রেডের সম্ভাবনা : মাঝারি টেক প্রফিট : ১.১২৪০, ১.১১৮০ GBPUSD সিগন্যাল ৬০ মিনিট ( ১ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল (পরবর্তী ৩ দিন ) পেয়ারটি ১.৩০৫৪ রেজিস্ট্যান্স লেভেলের দিকে একটি ঊর্ধ্বমূখী প্রাইস রিট্রেসমেন্টের সম্ভাবনা রয়েছে বা ১.২৯৭৫ সাপোর্ট লেভেলে ব্রেক হতে পারে। সে ক্ষেত্রে সেল পজিশন নেওয়া যেতে পারে। ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট নিন্মমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল : ১.২৯৭৫, ১.২৯৬২, ১.২৯৩৯ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১.৩০৫৪, ১.৩০৭৭, ১.৩১২৪ সেল এন্ট্রি: টেক প্রফিট : ১.২৯৬২, ১.২৯৩৯ ২৪০ মিনিট (৪ ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল ( পরবর্তী ৩ সপ্তাহ ) পেয়ারটি ১.৩০৬৪ রেজিস্ট্যান্স লেভেলের দিকে একটি ঊর্ধ্বমূখী প্রাইস রিট্রেসমেন্টের সম্ভাবনা । সে ক্ষেত্রে সেল পজিশন নেওয়া যেতে পারে। ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট নিন্মমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল : ১.২৯৫৫, ১.২৮৪৭, ১.২৬৭২ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১.৩০৬৪, ১.৩১৩১, ১.৩২৩১ সেল এন্ট্রি :
  5. Yesterday
  6. Vai i need you help

    1. raihan000

      raihan000

      Please give me your Facebook id.  

  7. যুক্তরাষ্ট্রের রিটেইলস সেলস রিপোর্ট মোটামুটি ভাল এসেছে, যার ফলে ডলারের প্রাইস বেড়েছে। বৈশ্বিক প্রবৃদ্ধির উদ্ধিগ্নতার কারণে ডলার নিরাপধ কারেন্সি হিসেবে বিবেচিত হতে পারে। ট্রেডাররা বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের মাসিক রিটেইলস সেলস রিপোর্টের উপর ভিত্তি করে শর্ট টার্ম ট্রেড করতে পারে। পাউন্ড/ডলার পেয়ারটির প্রাইস যুক্তরাষ্ট্রের রিটেইলস সেলস রিপোর্টের কারণে কমেছে। পরবর্তীতে পেয়ারটির ১.৩০ প্রাইসের নিচে নামতে পারে। পেয়ারটির লক্ষ্য মাত্রা ছিল ১.৩১০০ কিন্তু হঠাৎ করে প্রাইস কমতে শুরু করে। যার ফলে আজকে দিনের মতো পেয়ারটি ১.৩১০০ প্রাইসে ওঠার সম্ভাবনা খুবই সংকীর্ন । বর্তমানে পেয়ারটি সেলিং প্রেসারে রয়েছে। পেয়ারটির প্রাইস গত দুই সপ্তাহের নিন্ম লেভেলকে স্পর্শ করেছে। অপর দিকে ডলারের প্রাইস বাড়ছে। আজকে ইউরোজোনের পিএমআই (PMI ) রিপোর্ট বেশ হতাশাজনক এসেছে, যার ফলে বৈশ্বিক ইকোনমিতে উদ্ধিগ্নতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফলশ্রুতিতে বিনিয়োগকারীরা পাউন্ডের বিপরীতে ডলারকে নিরাপধ কারেন্সি হিসেবে দেখতে পারেন। এছাড়াও ব্রেক্সিট অনিশ্চয়তা পাউন্ডের প্রাইস কমার প্রতি সহায়তা করছে। আগামী সপ্তাহে ব্রেক্সিট নিয়ে পার্লামেন্ট বসবেন এবং এটা পাউন্ডের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবেন। যার ফলে পাউন্ডের প্রাইস কিছুটা বৃদ্ধি পেতে পারে। আজকে যুক্তরাষ্ট্রের মাসিক রিটেইলস সেলস রিপোর্ট ভাল হওয়ার কারণে ডলার মোটামুটি ভাল অবস্থানে রয়েছে। এটা শর্ট টার্ম ট্রেডারদের জন্য একটি ভাল পয়েন্ট হতে পারে।
  8. পেয়ারটির প্রাইস যদিও কম ছিল, তবে বর্তমানে কিছুটা বেড়ে ০.৭১৫০ প্রাইসের উপরে ট্রেডিং করছে। ধারণা করা হচ্ছে, পেয়ারটির আপট্রেন্ড অবস্থান আরও কিছু সময় থাকতে পারে। এপ্রিলের শুরুর দিকে পেয়ারটির প্রাইস কিছুটা বেড়েছিল। তবে বর্তমানে পেয়ারটি ০.৭১৫০ প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করছে। ৫০ এসএমএ ( SMA ) ৪ ঘন্টার চার্ট অনুযায়ী পেয়ারটি ০.৭১৫৫ প্রাইসের কাছাকাছি যেতে পারে। তবে পরবর্তী সাপোর্ট লেভেল ০.৭১৪০ হতে পারে এবং ০.৭১১৫ ও ৭০৮৫ কে অনুসরণ করা যেতে পারে। এখন আমরা ০.৭১৭৫ ও ০.৭২১০ রেজিস্ট্যান্স লেভেলের জন্য অপেক্ষা করছি। চার্টে দুইটি ফান্ডামেন্টাল দিক দেখানো হয়েছে। একটি অস্টেলিয়ান জব রিপোর্ট, যার ফলে অস্ট্রেলিয়ান ডলারের প্রাইস বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। মার্চ মাসে অস্ট্রেলিয়ার ইকোনমিতে ২৫ হাজার ৭ শত জব সৃষ্টি হয়েছে, ‍এটা প্রত্যাশার তুলনায় অধিক। অপর দিকে অস্টেলিয়ায় বেকারত্বে হার শতকরা ৫ পার্সেন্ট রয়েছে। আরেকটি ক্যাবলে দেখানো হয়েছে, বৈশ্বিক প্রবৃদ্ধি সম্পর্কে উদ্ধিগ্নতা বৃদ্ধির দিক। ইউরোজোনের অর্থনৈতিক ইঞ্জিন হিসেবে পরিচিত জার্মানের মেনুফেকচারিং সেক্টর বেশ নাজেহাল অবস্থার মধ্যে রয়েছে। এদিকে পিএমআই ( PMI ) রিপোর্ট বেশ হতাশাজনক এসেছে। ইউরোজোনের এই স্থবির অবস্থা অন্য দিকেও পরিলক্ষিত হতে পারে।
  9. USD/JPY রেসিস্ট্যান্স লেভেলের দিকে অগ্রসর হচ্ছে, পতনের সম্ভাবনা রয়েছে! USDJPY আমাদের প্রথম রেসিস্ট্যান্স লেভেল 112.12 এর দিকে অগ্রসর হচ্ছে (আনুভূমিক সুইং হাই রেসিস্ট্যান্স, 76.4% ফিবোনাচি রিট্রেসমেন্ট, 61.8% ফিবোনাচি এক্সটেনশন) যেখানে আমাদের প্রধান সাপোর্ট লেভেল 111.35 তে একটি শক্তিশালী পতন হতে পারে (61.8% ফিবোনাচি রিট্রেসমেন্ট,আনুভূমিক সুইং লো রেসিস্ট্যান্স, 76.4% ফিবোনাচি রিট্রেসমেন্ট)। স্টচাস্টিক রেসিস্ট্যান্সলেভেলের দিকে অগ্রসর হচ্ছে যেখানে আমরা মুল্যের সংশ্লিষ্ট পতন দেখতে পাব । CFDs মার্জিন ট্রেডিং এর ক্ষেত্রে অধিক ঝুঁকি থাকে। ক্ষতি প্রাথমিক বিনিয়োগের থেকে অধিক হতে পারে, সেজন্য আপনি ঝুঁকি সম্পর্কে সম্পূর্ণরূপে নিশ্চিত হবেন। *মার্কেট বিশ্লেষণ ট্রেডিং সম্পর্কে আপনার সচেতনতা বৃদ্ধি করবে, কিন্তু আপনাকে ট্রেডিং সম্পর্কিত নির্দেশ প্রদান করবে না। বিভিন্ন পেয়ারের ফরেক্স আনাল্যসিসগুলো পেতে এই লিঙ্কটি ভিজিট করুন
  10. পেয়ারটি পুনরায় ১.১৩২০ থেকে ১৩২০ প্রাইসের কাছাকাছি ব্যর্থ হয়েছে , পেয়ারটি সেল প্রেসারে রয়েছে । এটা ইউরোজোনের সাপ্তাহিক পিএমআই ( PMI ) এর বিপর্যায়ের কারণে হয়েছে। ২০০ ঘন্টার এসএমএ ( SMA ) অনুযায়ী পেয়ারটিকে নেগেটিভ অবস্থানে দেখা যাচ্ছে। পরবর্তী টার্মেও এটা বিয়ারিশ অবস্থান থাকতে পারে। পেয়ারটিকে বিয়ারিশ অবস্থানে দেখা যাচ্ছে, যার ফলে পেয়ারটি ১.১২০০ প্রাইসের কাছাকাছি টেস্টিং করতে পারে। ইউরো/ডলারের এক ঘন্টার চার্ট
  11. যুক্তরাজ্যের খুচরা বিক্রয় প্রকাশের পর পাউন্ড আংশিক বৃদ্ধি পেয়েছে আজ বৃহস্পতিবার ET সময় ভোর ৪:৩০ জাতীয় পরিসংখ্যান কার্যালয় মার্চ মাসের খুচরা বিক্রয় এর ডাটা প্রকাশ করা হয়েছে। এই ডাটা প্রকাশের পরে, পাউন্ড তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী মুদ্রাগুলোর বিপরীতে আংশিক বৃদ্ধি পেয়েছে ET সময় ভোর ৪:৩২ এ পাউন্ড ইয়েনের বিপরীতে 145.67, ফ্রাঙ্কের বিপরীতে 1.3157, ইউরোর বিপরীতে 0.8640 এবং ডলারে বিপরীতে 1.3026 তে ট্রেডিং হয়েছিল ছিল। আরো ফরেক্স সংবাদঃ
  12. EROUSD সিগন্যাল ৬০ মিনিট ( ১ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল (পরবর্তী ৩ দিন ) মার্কেটে ১.১৩১৩ তে একটি রেজিস্ট্যান্স লেভেল দেওয়া আছে। ১.২২৭৮ প্রাইস লেভেল ভেঙ্গে ওপরে উঠলে বুলিশ ট্রেন্ড পরিবর্তন হতে পারে। ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট ঊর্ধ্বমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল : ১.১২৭৮, ১.১২৫১, ১.১২৩০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১.১৩৩১, ১.১৩৬৪, ১.১৩৪০ বাই এন্ট্রি : ১.১৩১৩ স্টপ লস : ১.১২৭৮ ট্রেডের সম্ভাবনা : মাঝারি টেক প্রফিট : ১.১৩৩১, ১.১৩৬৪ ২৪০ মিনিট (৪ ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল ( পরবর্তী ৩ সপ্তাহ ) মার্কেট আপট্রেন্ডে রয়েছে । আমরা সেল পজিশন নেওয়ার জন্য ১.১৩২৩ রেজিস্ট্যান্স লেভেলের উপরে কিছু সিগনালের অপেক্ষা করছি । ১.১২৮০ প্রাইস লেভেল ভেঙ্গে ওপরে উঠলে বুলিশ ট্রেন্ড পরিবর্তন হতে পারে । ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট ঊর্ধ্বমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল : ১.১২৮০, ১.১২৪০, ১.১১৮০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১.১৩২৩, ১.১৩৫১, ১.১৩৯৬ বাই এন্ট্রি : ১.১৩২৩ স্টপ লস : ১.১২৮০ ট্রেডের সম্ভাবনা : মাঝারি টেক প্রফিট : ১.১৩৫১, ১.১৩৯৬ GBPUSD সিগন্যাল ৬০ মিনিট ( ১ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল (পরবর্তী ৩ দিন ) মার্কেট আপট্রেন্ডে রয়েছে। ১.৩০৬৬ রেজিস্ট্যান্স লেভেলে একটি বাই সিগন্যাল দেওয়া আছে। ১.৩০৩১ প্রাইস লেভেল ভেঙ্গে নিচে নামলে বুলিশ ট্রেন্ড পরিবর্তন হতে পারে। সে ক্ষেত্রে সেল পজিশন নেওয়া যেতে পারে। ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট নিন্মমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল : ১.৩০৩১, ১.৩০০৯, ১.২৯৭৪ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১.৩০৬৬, ১.৩০৭৭, ১.৩১২৪ বাই এন্ট্রি : ১.৩০৬৬ স্টপ লস : ১.৩০৩১ ট্রেডের সম্ভাবনা : মাঝারি টেক প্রফিট : ১.৩০৭৭, ১.৩১২৪ ২৪০ মিনিট (৪ ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল ( পরবর্তী ৩ সপ্তাহ ) মার্কেটে অনিশ্চয়তা বিরাজ করছে। ট্রেন্ডগুলো খুব তাড়াতাড়ি পরিবর্তন হচ্ছে। মার্কেট স্থির হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করা ভাল হবে। ট্রেন্ডের ধরণ : অপেক্ষমান। সাপোর্ট লেভেল : ১.৩০২০, ১.২৯৬০, ১.২৮৭০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১.৩১২০, ১.৩২০০, ১.৩৩৪০ অপেক্ষমান এন্ট্রি :
  13. Market Analysis and News.

    Date : 18th April 2019. MACRO EVENTS & NEWS OF 18th April 2019. FX News Today 10-year Treasury yields corrected -2.7 bp to 2.567% and JGB yields are down -1.4 bp at -0.0033%. Asian bonds were generally supported, as stock markets sentiment turned sour again, with South Korean paper underperforming after the BoK left interest rates unchanged, but cut its growth and inflation forecast to 2.5% and 1.1% respectively. Record household debt was one of the factors holding the BoK back from cutting rates for now, and South Korea’s 10-year yield jumped 5.9 bp as the bank tried to calm recession fears. Stock markets generally corrected from the six months high seen yesterday with uninspiring corporate earnings and problems with a new Samsung phone preventing further gains for now. Topix and Nikkei lost -0.96% and -0.80% respectively, after Wall Street closed with slight losses. The Hang Seng is down -0.58%, CSI 300 and Shanghai Comp down -0.44% and -0.39% respectively. The ASX dropped -0.10% and US stock futures are also broadly lower, suggesting ongoing pressure on markets. The front end WTI future meanwhile is trading at USD 63.77 per barrel. Charts of the Day Technician’s Corner EURUSD is still trading around the 1.13 level, and in a channel with key Resistance at 1.1320 and Support at 1.1279. Both are still strong after having bounced yesterday. Indicators are issuing mixed signals. GBPUSD has been stable around the 1.30 level, still unable to break through, fluctuating between the 1.3067-1.3026 Resistance and Support levels. Indicators are giving positive signals. USDJPY started the day below 112.00 mark, as indicators are suggesting a downwards movement. Support remains at 111.80. XAUUSD is trading at year-to-date lows, after breaking through the 1275 Support level. 1270 is the next Support level, with indicators are showing signs of stabilization. Main Macro Events Today EU PMIs (EUR, GMT 08:00) – Manufacturing and Composite PMIs are expected to increase in April, to 47.9 and 51.8 respectively while the Services PMI is forecasted to have remained at 53.3. Retail Sales ex Fuel (GBP, GMT 08:30) – UK Retail Sales ex Fuel are expected to have increased to 4% y/y, compared to 3.8% y/y in March. Retail Sales ex Autos (USD, GMT 12:30) – Retail Sales are expected to have increased to 0.4% in March, up from the negative 0.2% surprise in February. Retail Sales (CAD, GMT 12:30) – Retail Sales are forecasted to have registered an increase in Canada as well, to 0.2% compared to 0.1% in January. Philly Fed Index (USD, GMT 12:30) – Philly Fed index is expected to have eased to 10.3 compared to 13.7 in March. Markit PMIs (USD, GMT 13:45) – Mixed signals are expected from the PMI release, as Manufacturing is expected to have increased to 52.8 from 52.4, while the Services PMI is expected to have declined to 55 from 55.3. Support and Resistance Always trade with strict risk management. Your capital is the single most important aspect of your trading business. Please note that times displayed based on local time zone and are from time of writing this report. Want to learn to trade and analyse the markets? Join our webinars and get analysis and trading ideas combined with better understanding on how markets work. Dr Nektarios Michail Market Analyst HotForex Disclaimer: This material is provided as a general marketing communication for information purposes only and does not constitute an independent investment research. Nothing in this communication contains, or should be considered as containing, an investment advice or an investment recommendation or a solicitation for the purpose of buying or selling of any financial instrument. All information provided is gathered from reputable sources and any information containing an indication of past performance is not a guarantee or reliable indicator of future performance. Users acknowledge that any investment in FX and CFDs products is characterized by a certain degree of uncertainty and that any investment of this nature involves a high level of risk for which the users are solely responsible and liable. We assume no liability for any loss arising from any investment made based on the information provided in this communication. This communication must not be reproduced or further distributed without our prior written permission.
  14. Market Analysis and News.

    Date : 18th April 2019. MACRO EVENTS & NEWS OF 18th April 2019. FX News Today 10-year Treasury yields corrected -2.7 bp to 2.567% and JGB yields are down -1.4 bp at -0.0033%. Asian bonds were generally supported, as stock markets sentiment turned sour again, with South Korean paper underperforming after the BoK left interest rates unchanged, but cut its growth and inflation forecast to 2.5% and 1.1% respectively. Record household debt was one of the factors holding the BoK back from cutting rates for now, and South Korea’s 10-year yield jumped 5.9 bp as the bank tried to calm recession fears. Stock markets generally corrected from the six months high seen yesterday with uninspiring corporate earnings and problems with a new Samsung phone preventing further gains for now. Topix and Nikkei lost -0.96% and -0.80% respectively, after Wall Street closed with slight losses. The Hang Seng is down -0.58%, CSI 300 and Shanghai Comp down -0.44% and -0.39% respectively. The ASX dropped -0.10% and US stock futures are also broadly lower, suggesting ongoing pressure on markets. The front end WTI future meanwhile is trading at USD 63.77 per barrel. Charts of the Day Technician’s Corner EURUSD is still trading around the 1.13 level, and in a channel with key Resistance at 1.1320 and Support at 1.1279. Both are still strong after having bounced yesterday. Indicators are issuing mixed signals. GBPUSD has been stable around the 1.30 level, still unable to break through, fluctuating between the 1.3067-1.3026 Resistance and Support levels. Indicators are giving positive signals. USDJPY started the day below 112.00 mark, as indicators are suggesting a downwards movement. Support remains at 111.80. XAUUSD is trading at year-to-date lows, after breaking through the 1275 Support level. 1270 is the next Support level, with indicators are showing signs of stabilization. Main Macro Events Today EU PMIs (EUR, GMT 08:00) – Manufacturing and Composite PMIs are expected to increase in April, to 47.9 and 51.8 respectively while the Services PMI is forecasted to have remained at 53.3. Retail Sales ex Fuel (GBP, GMT 08:30) – UK Retail Sales ex Fuel are expected to have increased to 4% y/y, compared to 3.8% y/y in March. Retail Sales ex Autos (USD, GMT 12:30) – Retail Sales are expected to have increased to 0.4% in March, up from the negative 0.2% surprise in February. Retail Sales (CAD, GMT 12:30) – Retail Sales are forecasted to have registered an increase in Canada as well, to 0.2% compared to 0.1% in January. Philly Fed Index (USD, GMT 12:30) – Philly Fed index is expected to have eased to 10.3 compared to 13.7 in March. Markit PMIs (USD, GMT 13:45) – Mixed signals are expected from the PMI release, as Manufacturing is expected to have increased to 52.8 from 52.4, while the Services PMI is expected to have declined to 55 from 55.3. Support and Resistance Always trade with strict risk management. Your capital is the single most important aspect of your trading business. Please note that times displayed based on local time zone and are from time of writing this report. Want to learn to trade and analyse the markets? Join our webinars and get analysis and trading ideas combined with better understanding on how markets work. Dr Nektarios Michail Market Analyst HotForex Disclaimer: This material is provided as a general marketing communication for information purposes only and does not constitute an independent investment research. Nothing in this communication contains, or should be considered as containing, an investment advice or an investment recommendation or a solicitation for the purpose of buying or selling of any financial instrument. All information provided is gathered from reputable sources and any information containing an indication of past performance is not a guarantee or reliable indicator of future performance. Users acknowledge that any investment in FX and CFDs products is characterized by a certain degree of uncertainty and that any investment of this nature involves a high level of risk for which the users are solely responsible and liable. We assume no liability for any loss arising from any investment made based on the information provided in this communication. This communication must not be reproduced or further distributed without our prior written permission.
  15. কমার্জব্যাংক অ্যানালাইসিস্টরা ধারণা করেছিলেন, ২০ দিনের মুভিং এভারেজ অনুযায়ী পেয়ারটি ১.৩০৯৬ প্রাইসে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। বর্তমানে পেয়ারটির প্রাইস ১.৩০৯৬ তে যাওয়ার সুযোগ কম। মূল উদ্ধিতি ২০০ দিনের মুভিং এভারেজ অনুযায়ী পরবর্তী টার্মে পেয়ারটি ১.২৯৬৯ প্রাইসে যেতে পারে। তবে যদি পেয়ারটির প্রাইস কোন নিউজের কারণে বাড়ে তাহলে ১.৩২১৭ প্রাইসে আসতে পারে। পেয়ারটির পরবর্তী টার্গেট হতে পারে ১.৩৩৫১/৮২ রেজিস্ট্যান্স লেভেলে। বর্তমানে পেয়ারটি ১.৩৩৮২ প্রাইসে রয়েছে। পেয়ারটির প্রাইস উর্ধ্বমূখী অবস্থানে থাকলে ৫৫ সপ্তাহের মুভিং এভারেজ অনুযায়ী পেয়ারটির পরবর্তী টার্গেট ১.৩৫৫২ এর কাছাকাছি হতে পারে। তবে পেয়ারটির প্রাইস কমার সম্ভাবনা বেশি। এছাড়াও ১৫ জানুয়ারির দিকে পেয়ারটিকে ১.২৭৭২ প্রাইস থেকে ১.২৬৬৯/৬২ কাছাকাছি অবস্থান করতে দেখা গিয়েছিল।
  16. ইউরো/ডলারের টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস : ইউরোজোনের পিএমআই রিপোর্টের আগে পেয়ারটি ১.১৩২৫ প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করার দিকে অগ্রসর হচ্ছে আজ ইউরোপিয়ান সেশন ওপেন হওয়ার পূর্বে পেয়ারটি ১.১৩০০ প্রাইসের কাছাকাছি অবস্থান করেছিল। তবে পেয়ারটির প্রাইস কমে বর্তমানে ১.১৩১০ প্রাইসের কাছাকাছি রয়েছে। ফিবোনসি ৬১.৮% অনুযায়ী, পেয়ারটির পরবর্তী চ্যালেঞ্জ ১.১৩২৫। ১০০ দিনের এসএমএ ( SMA ) এবং প্রতিদিনের চার্ট অনুযায়ী, পেয়ারটির পরবর্তী টার্গেট ১.১৩৯০ হওয়া উচিত। তবে বর্তমানে পেয়ারটি ১.১৩২৫ প্রাইসের দিকে যাচ্ছে। সুতরাং পেয়ারটি ঊর্ধ্বমূখী অবস্থানে রয়েছে।
  17. ইউরো জার্মান পিপিআই রিলিজের পরে কিছুটা পরিবর্তন হয়েছে! মার্চ মাসের জন্য জার্মান প্রডিউসার প্রাইস ইনডেক্স আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১২ টার দিকে রিলিজ হয়েছে। এই ডাটা রিলিজ হবার পরে, ইউরো তার মুল কারেন্সীগুলোর বিপরীতে একটু পরিবর্তিত হয়েছে। সকাল ১২ টার দিকে ইউরো ইয়েনের বিপরীতে 126.42, পাউন্ডের বিপরীতে 0.8660, ফ্রাঙ্কের বিপরীতে 1.1412 এবং গ্রিনব্যাকের বিপরীতে 1.1299 টাকায় ট্রেডিং করেছিল। আরো ফরেক্স নিউজ দেখুন: https://goo.gl/FmCiZG
  18. টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস- EUR/USD পেয়ারের ইন্ট্রাডে লেভেল, ১৮ই এপ্রিল-২০১৯ বিশ্লেষণ করেছেন বিশেষজ্ঞ Arief Makmur (ইন্সটা ফরেক্স টিম) আজকের EUR/USD পেয়ারের টেকনিক্যাল লেভেলঃ ব্রেকআউট বাই লেভেল- 1.1352 স্ট্রং রেসিস্ট্যান্স- 1.1346 অরিজিনাল রেসিস্ট্যান্স- 1.1335 ইনার সেল এরিয়া- 1.1324 টার্গেট ইনার এরিয়া- 1.1298 ইনার বাই এরিয়া- 1.1272 ওরিজিনাল সাপোর্ট- 1.1261 স্ট্রং সাপোর্ট- 1.1250 ব্রেকআউট সেল লেভেল- 1.1244 মন্তব্য: আজ ইউরোপিয়ান মার্কেটে ট্রেডিং শুরু হলে ইকোনোমিক নিউজ রিলিজ করবে। যেমন: ফ্ল্যাশ সার্ভিসেস পিএমআই, ফ্ল্যাশ ম্যানুফ্যাকচারিং পিএমআই, জার্মান ফ্ল্যাশ সার্ভিসেস পিএমআই, জার্মান ফ্ল্যাশ ম্যানুফ্যাকচারিং পিএমআই, ফ্রেঞ্চ ফ্ল্যাশ ম্যানুফ্যাকচারিং পিএমআই, ফ্রেঞ্চ ফ্ল্যাশ সার্ভিস পিএমআই এবং জার্মান পিপিআই এম/এম। এছাড়াও আমেরিকান মার্কেটে ট্রেডিং শুরু হলে ইকোনমিক ডাটা রিলিজ করবে। কিছু যেমন: প্রাকৃতিক গ্যাস মজুদ, সিবি লিডিং ইনডেক্স এম/এম, বিজনেস ইনভেন্টরিস এম/এম, ফ্ল্যাশ সার্ভিসেস পিএমআই, ফ্ল্যাশ ম্যানুফ্যাকচারিং পিএমআই, বেকারত্ব দাবি, ফিলি ফেড ম্যানুফ্যাকচারিং ইনডেক্স, রিটেইলস সেলস এম/এম, এবং কোর রিটেইল সেলস এম/এম।। ফলে ফান্ডামেন্টাল বিশ্লেষন থেকে আশা করা যায় মার্কেটে EUR/USD পেয়ারটিতে নিন্ম থেকে মধ্যম মাত্রার ভোলাটিলিটি থাকতে পারে। আরো ফরেক্স বিশ্লেষন দেখুন: tiny.cc/zk6c5y *মার্কেট বিশ্লেষণ ট্রেডিং সম্পর্কে আপনার সচেতনতা বৃদ্ধি করবে, কিন্তু আপনাকে ট্রেডিং সম্পর্কিত নির্দেশ প্রদান করবে না।
  19. ব্রোকার নিয়ে অনেক ভ্রান্তি ও ভুল ধারনা রয়েছে অনেকের মাঝে। অনেকে আবার ভুল জানার কারনে অনেক ব্রোকারকেও ভুল বুঝে থাকেন। অনেকে আবার ভুল জানার কারনে অন্যদেরও ভুল জানাতে সাহায্য করছেন। যার ফলে ফরেক্স মার্কেটে ভাল ব্রোকার যে আসলেই কোনটা, এটা নিয়ে নতুন পুরাতন সকল ট্রেদারের মাঝেই এক ধরনের দুশ্চিন্তা বা উৎকন্ঠা কাজ করে। আজ ব্রোকার বিষয়ক অল্প কথায় সঠিকভাবে জানানোর চেষ্ঠা করব সবাইকে। যাতে এরপর হতে কেউ ভুল ধারনার স্বীকার না হতে পারেন। প্রথমে আসি মার্কেট মেকার ব্রোকার এর কথায়। সারা বিশ্বে ৯০% ব্রোকারই মার্কেট মেকার। এটা আপনাকে জানতে হবে ও মানতেই হবে। এখানে ডিলিং ডেস্ক সুবিধা থাকে। যার কারনে বড় বড় ইনভেস্টর বাই ফোনে ব্রোকারে থাকা ডিলারদের সাহায্যে ট্রেড ওপেন বা ক্লোজ করে থাকে উন্নত বিশ্বে। এটিই ফরেক্স মার্কেটের আদিমতম সিস্টেম। শুরুর দিকে যখন শুধু লাইসেন্সপ্রাপ্ত ব্যক্তিরা এই মার্কেটে ব্যবসা করার অনুমতি পেত, তখন এভাবেই তারা ব্রোকারদের সাহায্য নিয়ে তাদের ট্রেড পরিচালনা করত। আজও বিভিন্ন স্টক মার্কেটে এই সিস্টেম চালু আছে। অনেকেই এই ডিলিং ডেস্ককে নেগেটিভ ভাবে প্রচার করতে চেষ্ঠা করে। ফলে নো ডিলিং ডেস্ক ব্রোকারগুলো নিজেদের ফলাও করে প্রচার করে যে তারা ডিলিং ডেস্ক এর কল সিস্টেম এলাউ করে না। তবে বর্তমানে বিশ্বায়নের যুগে এমন পুরাতন সিস্টেমের দরকারও পড়ে না। বিশ্বে কোটি কোটি ট্রেদার, এদের ট্রেদ যথাসময়ে মার্কেটে প্লেস করতেও প্রচুর ব্রোকার ডিলার দরকার হত, যা বাস্তবে নিয়গ দেওয়া সম্ভব হবে না। তাই এমটি ফোর, বা বিভিন্ন প্লাটফর্ম দিয়ে তারা ট্রেডারদের অর্ডার রিসিভ করে। তবে এখান থেকে একটা বিষয় পরিস্কার যে, মার্কেট মেকার ব্রোকারে ট্রেদারের ট্রেড আগে নিজেদের কাছে রিসিভ করে, এরপর মার্কেটের ফান্ডে ফরওয়ার্ড করে দেয়। আর এটা করতে গিয়ে কখনো ট্রেড ওপেন হতে একটু সময় নেয়, কখনও মার্কেট ক্যান্ডেল স্পাইক মারে, আগের মুভমেন্ট চার্টে দেখাতে ফেইক ক্যান্ডেল তৈরি করা, এমন আরও কিছু সমস্যা দেখা যায়। বিশেষ করে নিউজ টাইমের ট্রেডের ক্ষেত্রে। মার্কেট এত দ্রুত মুভ করে যে, ক্লায়েন্টের ট্রেড রিসিভ করে প্লেস করতে করতে মার্কেট অনেক মুভ করে ফেলে। যার ফলে নিউজ টাইমে এসব ব্রোকারে ট্রেড করা নিয়ে অনেক অভিযোগ শোনা যায়। তবে বড় বড় ইনভেস্টর যখন এসব ব্রোকারের সাথে ডিল করে, তখন অনেক বিষয় তারা চুক্তিবদ্ধ হয়েই ডিল করে। আর সেখানেই তারা তাদের ফান্ড সিকিউরিটি নিয়ে রাখে। কিন্ত সমস্যা হয় এশিয়ান বা অন্য দেশের ব্যক্তিগত ট্রেডারদের ক্ষেত্রে। তারা তো এসব স্পাইক, ফেক ক্যান্ডেল প্রটেকশানের জন্য কোন ডিল করতে পারেনা ব্রোকারের সাথে, ফলাফল কি হয়? কোন অভিযোগ প্রমাণ সহ দেখালে তারা স্রেফ “we are Sorry” টাইপের বিনয় দেখিয়ে খালাস। আর আপনি কি করেন এমন ভুক্তভোগী হয়ে? দুই একদিন ফেসবুকে বিষেদাগার করে আবার ভুলে যান। সবাই ভুলে যায় সেই কথা। তাই না? আরও একটি অভিযোগ বারবার দেখা যায় মার্কেট মেকার ব্রোকারের বিরুদ্ধে। তা হচ্ছে, তারা ট্রেডারদের ট্রেডের বিরুদ্ধে ট্রেড নেয়। এজন্য নাকি ট্রেডারেরা ক্ষতিগ্রস্থ হয়। কিন্ত আসলে কি তাই? আসুন আমরা একটু দেখি বিষয়টাঃ মার্কেট মেকার ব্রোকার ট্রেদারদের ট্রেদ রিসিভ করে কোন লিকুইডিটি প্রোভাইডারের ফান্ডে ফরওয়ার্ড করে দেয়। এখানে লিকুইডিটি প্রোভাইডার বলতে বিভিন্ন ইন্তার ব্যাংক, বড় বড় ফাইন্যান্সিয়াল ফার্ম বা এমন বড় বড় ইনভেস্টর। এর অর্থ হচ্ছে, ঐ সব ইনভেস্টরদেরও বিজনেস আছে এখানে। আপনার ট্রেড তার একাউন্টে প্লেস হলে, আপনি লস করলে সেই লস এমাউন্ট তার ফান্ডে জমা হবে। আপনি প্রফিট করলে সেই এমাউন্ট তার ফান্ড থেকে আপনার একাউন্টে জমা হবে। এখন মার্কেট মেকার ব্রোকার অনেক সময় তাদের ব্যবসার অংশ হিসেবে এই লিকুইডিটি প্রোভাইডারের কাজ নিজেরাই করে। নিজেদের বড় এমাউন্ট রেডি করে ট্রেদারদের ত্রেড অর্ডার সেই ফান্ডে প্লেস করে দেয়। আপনি প্রফিট করলে তা ব্রোকারের সেই ফান্ড থেকে আপনার একাউন্তে আসে। আর লস করলে তা ব্রোকারের সেই ফান্ডে জমা হয়। আর স্প্রেড তো আছেই ব্রোকারের কমিশন হিসেবে। এটা তাদের ব্যবসা। তারা এই ব্যবসা করতেই পারে। আরা তাদের ট্রেদারদের ট্রেদ অর্ডার কোথায় প্লেস করলে তা তাদের ব্যাপার, ঠিকমত প্রফিট বা লস কাউন্ট ও উইথড্র ঠিকভাবে হলেই তো ঠিক আছে। তাই না? তবে এখানে একটু সমস্যা আছে। তা হচ্ছে, বিগ ফান্ড যখন ব্রোকারের নিজের থাকে, আর কোন ট্রেদার যখন হিউজ প্রফিট করতে থাকে, তখন বাড়তি একটু নজর রাখে ব্রোকার তার দিকে। কারন ট্রেডারের এই প্রফিট এমাউন্ট যে তাকে নিজেদের ফান্ড থেকেই দিতে হচ্ছে! আর তাই অনেক সময় স্পাইক দিয়ে, ফেক ক্যান্ডেল দিয়ে, স্লো এক্সিকিউশান দিয়ে হলেও চেষ্ঠা করে বাড়তি কিছু প্রফিট উঠিয়ে নিয়ে আসতে মার্কেট থেকে। কারন ২-৩ পিপ্স এর স্পাইক ফেইক দেওয়া মানে সেখান থেকেই কয়েক হাজার ডলার লস করানো যায় ট্রেদারদের। আর সেসব তাদের ফান্ডেই চলে আসে স্বভাবতই। বুঝতে পেরেছেন আশা করি। তবে এখানে অনেকমার্কেট মেকার ব্রোকার আছে যারা সত্যিই লিকুইডিটি প্রভাইডার বা ইনভেস্টরদের ফান্ডে ট্রেড প্লেস করে দেয় তাদের ট্রেডারদের। আর স্প্রেড তো তাদের কমিশন হিসেবে আসছেই। এর সাথেই তারা আরেকটি কাজ করে থাকে, তা হচ্ছে, যেহেতু ৯৫% লস করে এই মার্কেটে, সেহেতু তারা তাদের ক্লায়েন্ট এর ত্রেডগুলর বিপরিতে নিজেদের একাউন্ট থেকেই সেই লিকুইডিতি প্রভাইডারদের ফান্ডে উলটো ট্রেড ওপেন করে। অর্থাৎ আপনি আপনার একাউন্ট থেকে কোন পেয়ারে বাই ওপেন করলে, তারা তাদের সেই একাউন্ট থেকে একই পেয়ারে সেইম লটে একটি সেল ট্রেড ওপেন করে। এটা তারা এ জন্যই করে যে, ওরা জানে ৯৫% ট্রেডার লস করলে তাদের বিপরীতে ট্রেদ নিলে ৯৫% প্রফিট করা যায় সহজেই। আর এ জন্য ট্রেদারদের ত্রেদের কোন সমস্যাই হয় না। তারা এমনিতেই লস করত। ব্রোকার এর ফায়দা নেয় শুধু ট্রেদারদের উলটো ট্রেড ওপেন করে। আর এখানে পরিস্কার থাকবেন যে, মার্কেট মুভমেন্টকে কেউ ম্যানিপুলেট করতে পারে না। এটা সারা বিশ্বে একইভাবে চলে। সুতরাং আপনার ট্রেদের বিপরিতে কেউ ট্রেদ নিলে আপনার কিছুই যায় আসে না। কারন মার্কেট তার নিজের পথেই চলে সারা বিশ্বে একভাবে। সুতরাং এটা নিয়ে অযথা চিন্তা করবেন না। আরেকটা অভিযোগ জানা যায়, তা হচ্ছে মার্কেটে একজনের লস আরেকজনকে দেওয়া হয়। বিষয়টা কখনোই এমন নয়। প্রথমে আপনাকে বুঝতে হবে আপনি কি করছেন মার্কেটে। কম মুল্যে কারেন্সি কিনে বেশি মুলে বেচে দিচ্ছেন। এখানে আপনার সাথে অন্য ট্রেডারের কি সম্পর্ক? কম মুল্যে সারা বিশ্বের ট্রেডার কারেন্সী কিনে রাখলে কারেন্সি মূল বেশি হলে তা সবাই বেচে দিলে কি সবাই লাভবান হবে না? এটাই তো করছেন আপনি। তাহলে আপনার সাথে আরেকজনের ট্রেদের কি সম্পর্ক? আসলে কোন সম্পর্কেই নাই। আপনারা কেউ মার্কেটে না থাকলেও মার্কেট তার নিজের মতই চলবে। কারন সারাবিশ্বের অর্থনৈতিক লেনদেন চলবেই, মুদ্রার মুল্যমান উঠানামা করতেই থাকবে। তবে সমস্যা একটাই, আর তা হলে ইন্সট্যান্ত এক্সিকিউশান এর সময় মাঝে মাঝে দেরি করা, ট্রেড ওপেন বা ক্লোজ না হওয়া, অস্বাভাবিক স্প্রেড নিজেদের ইচ্ছেমত বাড়িয়ে দেওয়া, স্পাইক মারা, ফেইক ক্যান্ডেল দেখিয়ে ঘোরাবুঝ দেবার চেষ্ঠা করা, এসব সমস্যাই লোকাল ট্রেদারদের জন্য বেশ অসুবিধা হিসেবে দেখা যায়। মার্কেট মেকার নিয়ে অনেক ফিরিস্তি দিলাম, এবার আসি STP ব্রোকার নিয়ে। STP ব্রোকার ট্রেদারদের ট্রেদ রিসিভ করে ও ১০০% নিশ্চয়তার সাথে তা লিকুইডিটি প্রোভাইডারের ফান্ডে প্লেস করে দেয়, তাই ট্রেদারদের লাভ বা লসে ব্রোকারের কিছু যায় আসে না। তারা মাঝখান থেকে শুধু স্প্রেডই নেয়। আর তাই অনেক রিয়েল STP ব্রোকারে স্প্রেড তুলনামুলক অন্যান্য ব্রোকারের চেয়ে একটু বেশি থাকে। তবে স্প্রেড একটু বেশি হলেও এসব ব্রোকারে ট্রেড করাটাও মোটামুই নিরাপদ। এরা কখনোই নিজেদের ফান্ডে ত্রেদারদের ট্রেদ নিতে পারবে না, তাহলে এদের রেগুলেশন বাতিল হয়ে যাবে সাত্থে সাথেই। এবার বলি ECN ব্রকার নিয়ে। ECN ব্রোকারে ট্রেডারদের ট্রেড এক্সিকিউশান এর ব্যাপারে কারও কোন হাত থাকে না। এটি অটোমেটেড সফটওয়ার দ্বারা পরিচালিত হয়ে থাকে। ট্রেডারদের ট্রেড অটোমেটিক লিকুইডিটি প্রভাইডারদের ফান্ডে প্লেস হয়ে যায় ইন্সট্যান্টভাবেই। এজন্য ব্রোকারও কোনভাবেই ম্যানিপুলেট করতে পারেনা কারও ট্রেডে। ফেইক ক্যান্ডেল তো নয়ই। তবে হ্যা, এখানে একটি বিষয় পরিস্কার করে রাখি। প্রতিটি ECN ব্রোকারেই লোকাল মার্কেট মেকার অপশন চালু রেখে দেয় তারা। কারন স্বভাবতই অল্প ব্যালান্স দিয়ে ট্রেড করা কোন ECN ব্রোকারে সম্ভব না। আর সেই অবস্থায় ঐ ব্রোকারগুলো তাদের লোকাল মার্কেট মেকার অপশনে ট্রেড করার সুযোগ দেয় ট্রেডারদের। এজতন্য মনে রাখবেন, ব্রোকার যতো ভাল ইসিএন ব্রোকারই হোক না কেন, এদের সেন্ত একাউন্ট, মাইক্রো একাউন্ট বা মিনি একাউন্ট এর অপশনগুলো কখনই ECN এর আওতায় পড়ে না। এ জন্য আপনাকে স্ট্যান্ডার্ড একাউন্ট অবশ্যই ব্যবহার করতে হবে। আর যেহেতু এখানকার সকল প্রসেস সফটওয়ার সিস্টেমে চলে, সেহেতু এখানে স্প্রেড অন্যান্য ব্রোকারের তুলনায় অনেক কম পাবেন আপনি। এখানে লক্ষ্য রাখবেন, অনেকেই ইসিএন এর নাম করে নরমাল স্ট্যান্ডার্ড একাউন্টও কিন্ত প্রোভাইড করছে ট্রেদারদের। যার পিছনে আইবি হোল্ডারদের স্বার্থ জড়িত থাকে। কারন ECN একাউন্তের আইবি কমিশন একেবারেই নামমাত্র হয়ে থাকে, সেখানে কমিশান বাড়ানোর জন্য ব্রোকারকে অফার করলে ব্রোকারও নরমাল স্ট্যান্ডার্ড একাউন্ট ECN এর নামে প্রোভাইড করে থাকে যাতে আইবি হোল্ডারও খুশি, আর ECN মনে করে ট্রেডারও খুশি! এগুলো লক্ষ্য রাখা জরুরী সকলেরই। ভাল ব্রোকার নির্বাচনঃ এবার আসি ব্রোকার নির্বাচনের ব্যাপারে। আপনি বাংলা ভাষার মানুষ। তারমানে আপনি পশ্চিমবঙ্গে অথবা বাংলাদেশে থাকেন। আপনাকে এমন ব্রোকার ব্যবহার করতে হবে যার রেগুলেশন আপনার ফান্ড পর্যন্ত নিরাপত্তা দেয়। কারন আপনার দেশের সেন্ট্রাল ব্যাংক এর রেগুলেশন কিন্ত আমার এখানে বা কানাডায় একদম খাটবে না। এখন যদি আপনার দেশের কোন ব্যাংক কানাডায় একটা অনলাইন সার্ভিস দিতে যেয়ে প্রতারনা করে, তাহলে আমি কি করতে পারি? চুপচাপ সয়ে যাওয়া ছাড়া। কারন আপনার দেশের রেগুলেশন তো আপনার লোকাল এলাকার জন্য প্রযোজ্য, কানাডায় তার কোন কর্মক্ষমতাই নেই। একই ভাবে যে সকল ব্রোকার শুধু লোকাল রেগুলেশন নিয়ে আপনাকে নিরাপত্তা দেবে ভেবেছেন, তাহলে আপনি ভুল করবেন। এক্ষেত্রে কি করবেন তাহলে আপনি? লক্ষ্য করবেন যে, সেই ব্রোকারে কি FCA UK রেগুলেশন আছে কি না। এখন প্রশ্ন করতে পারেন যে কেন এই রেগুলেশন। আপনি হয়তো জানেন, বৃটিশরা সারা বিশ্বে শাসন করেছে। আজও বিশ্বের অনেক প্রান্তে তাদের উপনিবেশ রয়েছে। আমাদের এই কানাডাতে আজও বৃটিশ কলোনি রয়েছে, যারা নিজেদের বৃটিশ বলে দাবী করে! বিশ্বের সকল জায়গায় এদের নিরাপত্তা দেবার জন্য বৃটিশদের রেগুলেশন সারা বিশ্বে সমানভাবে কার্যকরী করা সম্ভব হয়। অর্থাৎ আপনি ফান্ড ইস্যুতে কোন সমস্যা মনে করলে এদের রেগুলেটরি অথরিটির কাছে যথাযথভাবে অভিযোগ করলে এরা আপনার অভিযোগ এর ব্যাপারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবে। এক্ষেত্রে বলাই যায় আপনি যেখানেই থাকেন না কেন, আপনার ফান্ড সেইভ থাকবে এই রেগুলেশনের আন্ডারে একাউন্ত হবার কারনে। তবে মনে রাখবেন অনেক মার্কেট মেকার ব্রোকারও এমন রেগুলেশন নিয়েছে, তারা ফেইক ক্যান্ডেল, স্প্রেড বাড়িয়ে দেওয়া, স্পাইক মারা এসব ইস্যুতে আপনার ট্রেডকে লস করালে কিন্ত এসব এই রেগুলেশনের আয়ত্বে পড়বে না। কারন আপনার ডিপোজিত ও উইথড্র এর ব্যাপারে সমস্যা হলে তারা দেখবে। আপনার ট্রেড সংক্রান্ত ইস্যু নিয়ে ব্রোকার তার পক্ষে ব্যাখ্যা দেবেই, আর নিজেদের চার্টের মুভমেন্ট দেখাবে তারা। কোন মুভমেন্ট রিয়েল আর কোনটা ফেইক তা আপনার বুঝানোর কোন অপশন থাকবে না। সুতরাং এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত আপনার। তবে আপনার ডিপোজিট ও উইথড্র এর ব্যাপারে আপনি নিশ্চিন্ত থাকতে পারেন এই রেগুলেশনের আন্ডারে। অথবা আপনি আরেক ভাবেও ব্রোকারের ব্যাপারে নিশ্চিত হতে পারেন। তা হচ্ছে, আগেই জেনে নেবেন যে ব্রোকার ইউএস বা আমেরিকান ও কানাডিয়ান ট্রেডার সাপোর্ট করে কি না। যদি না করে তবে কোন কথা নেই, আর যদি করে তবে আশ্বস্ত হতেই পারেন। কারন যদি কোন ব্রোকার ইউএস ও কানাডিয়ান ক্লায়েন্ট একসেপ্ট করে, তয়াহলে নিশ্চিত হোন যে ব্রোকারটি যথাযোগ্য প্রমাণ দেখিয়েই এই দুই দেশে বিজনেস করার অনুমতি পেয়েছে। কারন এই দুই দেশে বিজনেস করার ব্যাপারে মানের কোয়ালিটির নিশ্চয়তা সবার আগে প্রাধান্য দেওয়া হয়। চায়না কে সস্তা বা কম দামী পন্যের বাজার বলা হয়, কিন্ত সেই চায়নাই যখন আমেরিকায় বিজনেস করতে আসে, তখন তারাই বেষ্ট কোয়ালিটির পণ্য আমেরিকার বাজারে দেয়। কারন বিজনেস পলিসিই আমেরিকায় এমন। সুতরাং নুন্যতম ঘাপলা থাকার সম্ভাবনা থাকলেই কেউই ইউএস এ বিজনেস করার সুযোগ পাবে না। অনেক বড় বড় ব্রোকারও ইউএস ক্লায়েন্ট একসেপ্ট করেনা, তাদের এত কন্ডিশন মানতে পারবে না বলে। এসবের মাঝে যদি কোন ব্রোকার তা করতে পারে, তবে বুঝে নেবেন তারা সাচ্চা কাম করত্যা হ্যায়। ব্যস, এগুলো মনে রাখবেন আর একটু যাচাই বাছাই করে ব্রোকার বেছে নিয়ে ট্রেড শুরু করে দিন। আমি যে ফাইন্যান্সিয়াল ফার্মে কাজ করছি, এখানেও একটি মার্কেট মেকার ব্রোকার একাউন্টে ট্রেড করা হয় ব্রোকারের সাথে ডিরেক্ট কন্ট্র্যাক্টের মাধ্যমে (যা আমার বা আপনার পক্ষে সিঙ্গেলভাবে করা সম্ভব না), আর একটা ECN ব্রোকারের একাউন্টে ট্রেড করা হয়। আপনিও সব দিক বিবেচনা করে ভাল কোন ECN ব্রোকারেই আশা করছি ট্রেড করবেন এটাই আমার সর্বশেষ মতামত। আমি এখানে কোন ব্রোকারের নামই উল্লেখ করলাম না, যাতে কেউ নুন্যতম কষ্ট পায় মনে। সবাইকে এবার বুঝে শুনে ভাল কিছু সাথে নিয়ে ফরেক্স মার্কেটে এগিয়ে চলার অনুরোধ করছি। সকলের জন্য আমার শুভকামনা রইল। Trade with full Trusted ECN broker:
  20. Last week
  21. মুল্যবান কমেন্টের জন্য ধন্যবাদ জানাই। আর নিউজের কথা যখন বলছেন, তখন ১ঃ৩ রেশিও তে স্টপ লস ও টেক প্রফিট তো দেওয়া থাকছেই।। সুতরাং একটা একটা করে ট্রেড না দেখে অন এভারেজ রেজাল্ট দেখার পক্ষপাতি আমি দাদা। মাস শেষে যার পকেটে কিছু প্রফিট আসে সেই সফল। ওনেক শুভকামনা রইল।
  22. EROUSD সিগন্যাল ৬০ মিনিট (১ঘন্টার) চার্টের সিগনাল (পরবর্তী ৩ দিন) বাই পজিশন নেওয়ার জন্য ১.১৩১৩ রেজিস্ট্যান্স লেভেলে একটি পূর্ণাঙ্গ ব্রেকের অপেক্ষা করছি। ১.১২৭৮ প্রাইস লেভেল অতিক্রম নিচে নামলে বুলিশ ট্রেন্ড পরিবর্তন হতে পারে। ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট ঊর্ধ্বমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল : ১.১২৭৮, ১.১২৫১, ১.১২৩০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১.১৩১৩, ১.১৩৩১, ১.১৩৬৪ বাই এন্ট্রি : ১.১৩১৩, স্টপ লস : ১.১২৭৮ ট্রেডের সম্ভাবনা : মাঝারি টেক প্রফিট : ১.১৩৩১, ১.১৩৬৪ ২৪০ মিনিট (৪ ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল ( পরবর্তী ৩ সপ্তাহ ) মার্কেট আপট্রেন্ডে রয়েছে। আমরা ১.১৩২৩ রেজিস্ট্যান্স লেভেলে বাই পজিশন নেওয়ার জন্য কিছু সিগন্যালের অপেক্ষা করছি। ১.১২৮০ প্রাইস লেভেল অতিক্রম করে নিচে নামলে বুলিশ ট্রেন্ড পরিবর্তন হতে পারে। ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট ঊর্ধ্বমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল : ১.১২৮০, ১.১২৪০, ১.১১৮০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১.১৩২৩, ১.১৩৫১, ১.১৩৯৬ বাই এন্ট্রি : ১.১৩২৩ স্টপ লস : ১.১২৮০ ট্রেডের সম্ভাবনা : মাঝারি টেক প্রফিট : ১.১৩৫১, ১.১৩৯৬ GBPUSD সিগন্যাল ৬০ মিনিট ( ১ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল (পরবর্তী ৩ দিন ) পেয়ারটি ১.৩০৮০ রেজিস্ট্যান্স লেভেলে একটি ঊর্ধ্বমূখী প্রাইস রিট্রেসমেন্টের সম্ভাবনা রয়েছে বা ১.৩০৩১ সাপোর্ট লেভেলে ব্রেক হতে পারে। সে ক্ষেত্রে সেল পজিশন নেওয়া যেতে পারে। ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট নিন্মমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল : ১.৩০৩১, ১.৩০০৯, ১.২৯৭৪ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১.৩০৮০, ১.৩১২২, ১.৩১৫১ সেল এন্ট্রি: টেক প্রফিট : ১.৩০০৯, ১.২৯৭৪ ২৪০ মিনিট (৪ ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল ( পরবর্তী ৩ সপ্তাহ ) মার্কেটে অনিশ্চয়তা বিরাজ করছে। খুব তাড়াতাড়ি ট্রেন্ড পরিবর্তন হচ্ছে, তাই আমরা মার্কেট স্থির হওয়ার জন্য অপেক্ষা করছি। ট্রেন্ডের ধরণ : অপেক্ষমান। সাপোর্ট লেভেল : ১.৩০২০, ১.২৯৬০, ১.২৮৭০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১.৩১২০, ১.৩২০০, ১.৩২৪০ অপেক্ষমান এন্ট্রি :
  23. Market Analysis and News.

    Date : 17th April 2019. MACRO EVENTS & NEWS OF 17th April 2019. FX News Today 10-year Treasury yields are up 0.7 bp at 2.598% and JGB yields climbed 1.8 bp to -0.015%, as stock market sentiment got a boost from Chinese data releases that beat expectations. Chinese GDP growth came in at 6.4% y/y, in the first quarter, unchanged from Q4, while production surged 8.5% y/y and retail sales 8.7% y/y. Data were taken as a sign that the government’s stimulus measures are starting to take effect. While it may be too early to call the all clear on the world economy, together with signs that US-Sino trade talks are making progress, the data will go some way to bolster confidence, especially after positive surprises on credit and housing data last week. The data underpinned Asian stock markets, as Topix and Nikkei posted gains of 0.29% and 0.27% respectively. The Hang Seng is up 0.01% and CSI 400 and Shanghai Comp gained 0.11% and 0.34%. Broader Asian indices are at the highest level since last July, even as the ASX underperformed and closed with a loss of -0.35%, dragged down by the materials sector. US futures are also posting broad gains and the front end WTI future has moved up to now USD 64.50 per barrel. Charts of the Day Technician’s Corner EURUSD moved past 1.13 early today and has been moving towards the 1.1315 Resistance level. Key Resistance remains at 1.1320 while the Support at 1.1279 is still strong after being hit twice yesterday. Indicators support an upwards move. GBPUSD has been moving downwards but is so far unable to break through the psychological 1.30 level, fluctuating around the 1.3067-1.3026 levels. Indicators are giving mixed signals. USDJPY found support again under the 112.00 mark, and continued to trade there yesterday, with the Japanese data releases causing only some volatility. Indicators are showing mixed signals. XAUUSD is trading at lows, after breaking through the 1285 Support level. Gold appears unable to break through the 1275 level, with the MACD and Stochastics showing upwards signals. Main Macro Events Today UK RPI and CPI inflation (GBP, GMT 08:30) – Both the RPI and the CPI are expected to have declined in March, reaching 2.1% and 1.6% respectively, down from 2.5% and 1.9% respectively. EU CPI inflation (EUR, GMT 09:00) – Both the core and the overall CPI inflation rates are expected to have remained at the same levels, at 0.8% and 1.4% respectively. Canada CPI Inflation (CAD, GMT 12:30) – The BoC Core price index is expected to have remained at 1.3% y/y, while the overall CPI index is forecast to rise to 1.9% y/y in March compared to 1.5% in February. Support and Resistance Always trade with strict risk management. Your capital is the single most important aspect of your trading business. Please note that times displayed based on local time zone and are from time of writing this report. Want to learn to trade and analyse the markets? Join our webinars and get analysis and trading ideas combined with better understanding on how markets work. Dr Nektarios Michail Market Analyst HotForex Disclaimer: This material is provided as a general marketing communication for information purposes only and does not constitute an independent investment research. Nothing in this communication contains, or should be considered as containing, an investment advice or an investment recommendation or a solicitation for the purpose of buying or selling of any financial instrument. All information provided is gathered from reputable sources and any information containing an indication of past performance is not a guarantee or reliable indicator of future performance. Users acknowledge that any investment in FX and CFDs products is characterized by a certain degree of uncertainty and that any investment of this nature involves a high level of risk for which the users are solely responsible and liable. We assume no liability for any loss arising from any investment made based on the information provided in this communication. This communication must not be reproduced or further distributed without our prior written permission.
  24. Daily Forex News By XtreamForex

    Technical Overview of USD/CAD, GBP/USD and USD/JPY Currency Pairs USD CAD The USD traded lower against the CAD and closed at 1.335. Consumer Price Index Core is released by the Bank of Canada. “Core” CPI excludes fruits, vegetables, gasoline, fuel oil, natural gas, mortgage interest, intercity transportation, and tobacco products. These volatile core 8 are considered as the key indicator for inflation in Canada. Generally speaking, a high reading anticipates a hawkish attitude by the BoC, and that is said to be positive (or bullish) for the CAD. According to the Analysis, The pair is expected to find support at 1.33294, and a fall through could take it to the next support level of 1.33094. The pair is expected to find its first resistance at 1.33861, and a rise through could take it to the next resistance level of 1.34228. Previous Day range was 56.7 and Current Day Range is 44.2. GBP USD The GBP traded higher against the USD and closed at 1.3043. Mark Carney is Governor of the Bank of England and Chairman of the Monetary Policy Committee, Financial Policy Committee and the Board of the Prudential Regulation Authority. His appointment as Governor was approved by Her Majesty the Queen on 26 November 2012. The Governor joined the Bank on 1 July 2013. The Consumer Price Index released by the National Statistics is a measure of price movements by the comparison between the retail prices of a representative shopping basket of goods and services. The purchase power of GBP is dragged down by inflation. The CPI is a key indicator to measure inflation and changes in purchasing trends. Generally, a high reading is seen as positive (or bullish) for the GBP, while a low reading is seen as negative (or Bearish). The pair is expected to find support at 1.30231, and a fall through could take it to the next support level of 1.30031. The pair is expected to find its first resistance at 1.30812, and a rise through could take it to the next resistance level of 1.31193. GBP USD previous Day range was 58.1 and Current Day Range is 34.7. USD JPY The USD traded lower against JPY and closed at 112.012. James Bullard is the President of the Federal Reserve Bank of St. Louis. Dr. Bullard took office on April 1, 2008, as the twelfth chief executive of the Eighth District Federal Reserve Bank, at St. Louis. He is currently serving a full term that began March 1, 2011. In 2013, he serves as a voting member of the Federal Open Market Committee. According to the analysis, pair is expected to find support at 111.892, and a fall through could take it to the next support level of 111.772. The pair is expected to find its first resistance at 112.087, and a rise through could take it to the next resistance level of 112.162. USD JPY previous day range was 1950 and current day range is 2410.
  25. GBP/USD এর সাপোর্ট লেভেলের দিকে অগ্রসর হচ্ছে, বাউন্সের সম্ভাবনা রয়েছে! GBPUSD এর প্রথম সাপোর্ট লেভেল1.3000 এর দিকে অগ্রসর হচ্ছে (অনুভূমিক সুইং লো সাপোর্ট, 61.8% ফিবোনাচি এক্সটেনশন, 61.8% ফিবোনাচিরিট্রেসমেন্ট) যেখানে আমাদের প্রথম সাপোর্ট লেভেল1.3136 তে এই লেভেলের নীচে একটি শক্তিশালী ড্রপ হতে পারে (অনুভূমিক সুইং হাই রেসিস্ট্যান্স, 38.2% ফিবোনাচিরিট্রেসমেন্ট)। স্টচাস্টিক এর সাপোর্ট লেভেলের দিকে অগ্রসর হচ্ছে যেখানে আমরা মুল্যের সংশ্লিষ্ট বাউন্স দেখতে পারি। CFDs মার্জিন ট্রেডিং এর ক্ষেত্রে অধিক ঝুঁকি থাকে। লস প্রাথমিক বিনিয়োগের থেকে অধিক হতে পারে, সেজন্য আপনি ঝুঁকি সম্পর্কে সম্পূর্ণরূপে নিশ্চিত হবেন। *মার্কেট বিশ্লেষণ ট্রেডিং সম্পর্কে আপনার সচেতনতা বৃদ্ধি করবে, কিন্তু আপনাকে ট্রেডিং সম্পর্কিত নির্দেশ প্রদান করবে না। বিভিন্ন পেয়ারের ফরেক্স আনাল্যসিসগুলো পেতে এই লিঙ্কটি ভিজিট করুন
  26. চীনের জিডিপি ১ম কোয়ার্টারে Q1 তে 1.4% বৃদ্ধি পেয়েছে! চীনের গ্রস ডোমেস্টিক প্রডাক্ট ২০১৯ সালের প্রথম ত্রৈমাসিক এর এই মৌসুমে বা কোয়ার্টারে 1.4 শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে, আজ বুধবার জাতীয় পরিসংখ্যান ব্যুরো জানিয়েছে যে- এটা তিন মাসের হিসাবে প্রত্যাশিত এবং যা 1.5 শতাংশের নিচে। বার্ষিক ভিত্তিতে, জিডিপি 6.4 শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে - Q4 থেকে অপরিবর্তিত রয়েছে এবং অনুমানের 6.3 শতাংশকে ছাড়িয়ে গেছে।। আরো ফরেক্স নিউজ দেখুন: https://goo.gl/FmCiZG
  27. EUR/USD পেয়ারের প্রতিদিনের টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস (১৭ই এপ্রিল, ২০১৯) বিশ্লেষণ করেছেন বিশেষজ্ঞ Alexandros Yfantis (ইন্সটা ফরেক্স টিম) মন্তব্য: EURUSD পেয়ারটি গতকাল থেকে 1.1280 তে একটি প্রত্যাশিত পুলব্যাক ছিল তবে এটি এখনও শর্টটার্ম বুলিশ চ্যানেলের ভিতরে রয়েছে। দাম এখনও আবার উপরের সীমানায় বেয়ারিশ মিডটার্ম চ্যানেলটি চ্যালেঞ্জিং হয়ে গেছে। ব্লু বা নীল লাইনগুলো বুঝাচ্ছে - বুলিশ শর্টটার্ম চ্যানেল সবুজ লাইনগুলো বুঝাচ্ছে - মেজর সাপোর্ট এড়িয়া। লাল লাইনগুলো বুঝাচ্ছে - উপরের সীমানায় বেয়ারিশ মিডটার্ম চ্যানেল। কাল লাইনগুলো বুঝাচ্ছে - মেজর রেসিস্টেন্স এড়িয়া। EURUSD গতকাল থেকে একটি পুলব্যাক করেছে কিন্তু এটি এখনও 1.13 উপরে ট্রেডিং করছে। প্রাইস আবারও চ্যানেলের রেসিস্টেন্সে চ্যালেঞ্জিং হযয়ে গেছে। সাপোর্ট 1.1270 তে এবং রেসিস্টেন্স1.1310 তে। প্রাইস বরাবরের মত উপরের দিকে এবং সর্বোচ্চ এর দিকে মুভ করছে এবং যদি এটি চলতে থাকে, তবে আমরা এই সপ্তাহে উপরের দিকে এবং 1.1350 এর দিকে অগ্রসর হতে পারে। 1.1250 এর নিচে ব্রেক হলে একটি বেয়ারিশ সাইন হতে পারে। আরো ফরেক্স বিশ্লেষন দেখুন: tiny.cc/rmib5y
  28. জাপানে মার্চ মাসে বাণিজ্য উদ্বৃত্ত ৫২৮.৫ বিলিয়ন ইয়েন অর্থ মন্ত্রণালয় বুধবার জানিয়েছে, জাপানের মার্চ মাসে ৫২৮.৫ বিলিয়ন ইয়েন বিলিয়ন ইয়েনের পণ্যদ্রব্য বাণিজ্য উদ্বৃত্ত করেছে, এটি ৩৬৩.২ বিলিয়ন ইয়েনের উদ্বৃত্তের প্রত্যাশাকে অতিক্রম করেছে এবং ফেব্রুয়ারির ৩৩৪.৯ বিলিয়ন ইয়েন থেকে বেশি বেড়েছে। বছরের হিসাবে রপ্তানি ২.৪ শতাংশ কমেছে জা ২.৬ শতাংশ পতনের প্রত্যাশাকে পার করেছে, যা গত মাসে ১.২ শতাংশ পতন পতন হয়েছিল আমদানি বছরের হিসাবে ১.১ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে যার বিপরীতে প্রত্যাশা ছিল ২.৮ শতাংশ বৃদ্ধি, যা গত মাসে ৬.৬ শতাংশ কমে ছিল। আরো ফরেক্স সংবাদঃ
  1. Load more activity

বিডিপিপস কি এবং কেন?

বিডিপিপস বাংলাদেশের সর্বপ্রথম অনলাইন ফরেক্স কমিউনিটি এবং বাংলা ফরেক্স স্কুল। প্রথমেই বলে রাখা জরুরি, বিডিপিপস কাউকে ফরেক্স ট্রেডিংয়ে অনুপ্রাণিত করে না। যারা বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, শুধুমাত্র তাদের জন্যই বিডিপিপস একটি আলোচনা এবং অ্যানালাইসিস পোর্টাল। ফরেক্স ট্রেডিং একটি ব্যবসা এবং উচ্চ লিভারেজ নিয়ে ট্রেড করলে তাতে যথেষ্ট ঝুকি রয়েছে। যারা ফরেক্স ট্রেডিংয়ের যাবতীয় ঝুকি সম্পর্কে সচেতন এবং বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, বিডিপিপস শুধুমাত্র তাদের ফরেক্স শেখা এবং উন্নত ট্রেডিংয়ের জন্য সহযোগিতা প্রদান করার চেষ্টা করে।

×