Jump to content

ফোরাম ফিড

This stream auto-updates     

  1. Past hour
  2. ইন্দোনেশিয়ার রফতানি প্রত্যাশার চেয়ে কম! আজ*মঙ্গলবার ইন্দোনেশিয়ার পরিসংখ্যান অফিসের*একটি পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, সেপ্টেম্বরে ইন্দোনেশিয়ার রফতানির হার*প্রত্যাশার চেয়েও*কমেছে।*রপ্তানি বছরে-সেপ্টেম্বরে 5.74 শতাংশ হ্রাস পেয়েছে। অর্থনীতিবিদরা 6.5 শতাংশ হ্রাস আশা করেছিলেন।*আমদানি 5.5 শতাংশ হ্রাসের পূর্বাভাসের তুলনায় সেপ্টেম্বরে বার্ষিক 2.41 শতাংশ হ্রাস পেয়েছে।*মাসিক ভিত্তিতে, সেপ্টেম্বর মাসে রফতানি 1.29 শতাংশ হ্রাস পেয়েছে, আমদানি 0.63 শতাংশ বেড়েছে।*বাণিজ্য ভারসাম্য গত বছরের একই মাসে $ 346.2 মিলিয়ন উদ্বৃত্তের তুলনায় সেপ্টেম্বরে 160.5 মিলিয়ন ডলার ঘাটতি দেখিয়েছে। অর্থনীতিবিদরা 124.0 মিলিয়ন ডলার উদ্বৃত্ত আশা করেছিলেন। এছাড়াও বিভিন্ন ফরেক্স নিউজগুলো দেখতে ভিজিট করুন:*https://www.instaforex.org/forex-news
  3. EUR/USD পেয়ারের টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস- ১৫ই অক্টোবর-২০১৯ বিশ্লেষণ করেছেন বিশেষজ্ঞ Arief Makmur (ইন্সটা ফরেক্স টিম) আজকের EUR/USD পেয়ারের টেকনিক্যাল লেভেলঃ ব্রেকআউন্ট বাই লেভেলঃ 1.1080 স্ট্রং রেসিস্ট্যান্সঃ 1.1074 অরিজিনাল রেসিস্ট্যান্সঃ 1.1063 ইনার সেল এরিয়াঃ 1.1052 টার্গেট ইনার এরিয়াঃ 1.1026 ইনার বাই এরিয়াঃ 1.1000 অরিজিনাল সাপোর্ট: 1.0989 স্ট্রং সাপোর্ট: 1.0978 ব্রেকআউট সেল লেভেল: 1.0972 মন্তব্য: ইউরোপিয়ান মার্কেটে ট্রেডিং শুরু হলে আজ জিও ইকোনমিক সেন্টিমেন্ট, জার্মান জিও ইকোনমিক সেন্টিমেন্ট এবং ফ্রেন্চ ফাইনাল সিপিআই এম/এম ইকোনোমিক ডাটা পাওয়া যাবে। এছাড়া আমেরিকান মার্কেটে ওপেন হলে আজ ফেডারেল বাজেট ব্যালান্স এবং এম্পায়ার স্টেট ম্যানুফ্যাকচারিং ইনডেক্স ইকোনমিক ডাটা পাওয়া যাবে।ফলে ফান্ডামেন্টাল বিশ্লেষন থেকে আশা করা যায় মার্কেটে EUR/USD পেয়ারটিতে থেকেনিন্ম মধ্যম মাত্রার ভোলাটিলিটি থাকতে পারে। আরো ফরেক্স দেখুন:বিশ্লেষন: https://www.instaforex.org/forex_analysis/154973 *মার্কেট বিশ্লেষণ ট্রেডিং সম্পর্কে আপনার সচেতনতা বৃদ্ধি করবে, কিন্তু আপনাকে ট্রেডিং সম্পর্কিত নির্দেশ প্রদান করবে না।
  4. Yesterday
  5. এমন ফোরকাস্ট ( বীশ্বের বাঘা বাঘা প্রাতিষ্ঠানিক এনালাইজারদের Price Forecast ) জীবনে ঘন ঘন মেলে না ! > http://prntscr.com/pj8f2d অবস্থা দেখুন > http://prntscr.com/pj8h0f একেই বলা হয় চাঁদের হাট > http://prntscr.com/pj8hu1 ইনশাল্লাহ্ W1 Time Frame এর ক্ষেত্রে পিস্তলের গুলি মিস করলেও, এই ধরনের Matching Combination Forecast সাধারণত Fail করে না বা Fail করার কথা না। ফলাফল >
  6. ALHAMDULILLAH, Signal success ! > http://prntscr.com/pj7o2f
  7. ৫৫ দিনের SMA অনুয়ায়ী,ইউরো/ডলার পেয়ারটি গত শুক্রবার ১.১০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল অতিক্রম করেছে। বর্তমানে পেয়ারটি অক্টোবর মাসের সর্বোচ্চ প্রাইস ১.১০৬০/৬৫ দিকে যাচ্ছে। ইউরো/ডলারের ঊর্ধ্বমূখী স্থায়ী হলে ৫৫ দিনের SMA অনুযায়ী,পেয়ারটি সেপ্টেম্বর মাসের সর্বোচ্চ প্রাইস ১.১১০৯ এর দিকে যেতে পারে। ১০০ দিনের এসএমএ অনুযায়ী ১.১১৩৯ প্রাইসে আসতে পারে। ইউরো/ডলারের প্রতিদিনের চার্ট
  8. EURUSD সিগন্যাল ৬০ মিনিট (১ঘন্টার) চার্টের সিগনাল (পরবর্তী ৩ দিন) ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট ঊর্ধ্বমূখীভাবে শক্তিশালী। মার্কেট ১.১০২০ সাপোর্ট লেভেলে টেস্টিং করছে। আমরা বাই পজিশন নেওয়ার জন্য কিছু সিগন্যালের অপেক্ষা করছি বা ১.১০৬৫ রেজিস্ট্যান্স লেভেলে ব্রেক হতে পারে। পরবর্তী গুরুত্বপূর্ণ সাপোর্ট লেভেল ১.১০০০। সাপোর্ট লেভেল : ১.১০২০,১.১০০০,১.০৯৬০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১.১০৬৫,১.১০৮৫,১.১১২০ টেক প্রফিট: ১.১০৮৫,১.১১২০ ২৪০ মিনিট (৪ ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল ( পরবর্তী ৩ সপ্তাহ ) ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট ঊর্ধ্বমূখীভাবে শক্তিশালী। পেয়ারটি ১.০৯৮০ সাপোর্ট লেভেলের দিকে একটি নিন্মমূখী প্রাইস রিট্রেসমেন্টের সম্ভাবনা রয়েছে। সে ক্ষেত্রে বাই পজিশন নেওয়া যেতে পারে। সাপোর্ট লেভেল : ১.০৯৮০,১.০৯৪০,১.০৮৭০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১.১১০০,১.১১৯০,১.১২৯০ GBPUSD সিগন্যাল ৬০ মিনিট ( ১ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল (পরবর্তী ৩ দিন ) ট্রেন্ডের ধরণ: মার্কেট ঊর্ধ্বমূখীভাবে শক্তিশালী। মার্কেট ১.২৫৬০ সাপোর্ট লেভেলে টেস্টিং করছে। আমরা বাই পজিশন নেওয়ার জন্য কিছু সিগন্যালের অপেক্ষা করছি বা ১.২৭০০ রেজিস্ট্যান্স লেভেলে ব্রেক হতে পারে। পরবর্তী গুরুত্বপূর্ণ সাপোর্ট লেভেল ১.২৪৬০। সাপোর্ট লেভেল : ১.২৫৬০,১.২৪৬০,১.২৩০০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১.২৭০০,১.২৭৭০,১.২৮৮০ ট্রেডের সম্ভাবনা: মাঝারি টেক প্রফিট: ১.২৭৭০,১.২৮৮০ ২৪০ মিনিট (৪ ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল ( পরবর্তী ৩ সপ্তাহ ) পেয়ারটি ১.২৫০০ সাপোর্ট লেভেলের দিকে একটি নিন্মমূখী প্রাইস রিট্রেসমেন্টের সম্ভাবনা রয়েছে। সে ক্ষেত্রে বাই পজিশন নেওয়া যেতে পারে। ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট ঊর্ধ্বমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল: ১.২৫০০,১.২৩৮০,১.২১৯০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল: ১.২৭৫০,১.৩০৯০,১.৩১৪০
  9. কমার্জব্যাংক অ্যানালাইসিস্ট কারেন জনের মতে, ইউরো/ডলারের প্রাইস বেড়ে ১.১১০০ এর দিকে যেতে পারে। গত সপ্তাহে ইউরো/ডলার পেয়ারটি চার মাসের ডাউনট্রেন্ড অতিক্রম করে ১.১০৬২ প্রাইসে উঠেছিল। বর্তমানে পেয়ারটির প্রাইস যদিও কমছে তবে পরবর্তীতে পেয়ারটির প্রাইস বাড়তে পারে। কমার্জব্যাংক অ্যানালাইসিস্ট কারেন জন বলেন, পেয়ারটি সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝির সর্বোচ্চ প্রাইস ১.১১১০ এর কাছকাছি যেতে পারে। ২০০ দিনের মুভিং অ্যাভারেজ অনুযায়ী বলেন, পেয়ারটির পরবর্তী টার্গেট ১.১২১৮ হতে পারে।অপরদিকে পেয়ারটির প্রাইস কমতে শুরু করলে ১.০৯৯০ এবং ১.০৯৪১ প্রাইসে যেতে পারে।
  10. টেকনিক্যাল আনাল্যসিসঃ USD/JPY এর জন্য ইনট্রাডে লেভেল, ১৪ অক্টোবর ২০১৯ এশিয়ায়, জাপান আজ কোন অর্থনৈতিক ডাটা প্রকাশ করবে না। অন্যদিকে আমেরিকা আজ কোন অর্থনৈতিক তথ্য প্রকাশ করবে না। সুতরাং, প্রতিবেদনগুলো থেকে দেখা যায়, আজ USD/JPY এর ভোলাটিলিটি নিম্ম থেকে মধ্যম মানের হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আজকের দিনের টেকনিক্যাল লেভেলঃ রেসিস্ট্যান্স. 3: 108.83 রেসিস্ট্যান্স . 2: 108.62 রেসিস্ট্যান্স. 1: 108.41 সাপোর্ট. 1: 108.14 সাপোর্ট 2: 107.93 সাপোর্ট. 3: 107.72. সতর্কতাঃ ফরেক্স ট্রেডিং (বৈদেশিক বিনিময়) এর ক্ষেত্রে মার্জিন উচ্চ ঝুঁকি বহন করে এবং সকল বিনিয়োগের জন্য উপযুক্ত নাও হতে পারে। অধিক লিভারেজ আপনার জন্য অধিক ঝুঁকি বহন করবে আবার অধিক লাভের উৎস হিসাবেও কাজ করবে। ফরেক্সে লেনদেন করার পূর্বে আপনি অবশ্যই আপনার বিনিয়োগের লক্ষ্য, অভিজ্ঞতার স্তর এবং ঝুঁকির প্রবন নির্ধারণ করবেন। এর ফলে লোকসান এবং প্রাথমিক বিনিয়োগ হারানোর সম্ভাবনা সম্পর্কে নিশ্চিত হতে পারবেন এবং এমন জায়গায় বিনিয়োগ করবেন না যেখানে সম্পূর্ণ মূলধন হারানোর সম্ভাবনা রয়েছে। আপনি বিনিয়োগ সম্পর্কিত সকল ঝুঁকি সম্পর্কে সচেতন থাকবেন এবং আপনার যদি কোন সমস্যা হয় তাহলে একজন অর্থ বিষয়ক পরামর্শকের কাছে পরামর্শ চাইতে দ্বিধা করবেন না। ফরেক্স বিশ্লেষকঃ Arief Makmur, *মার্কেট বিশ্লেষণ ট্রেডিং সম্পর্কে আপনার সচেতনতা বৃদ্ধি করবে, কিন্তু আপনাকে ট্রেডিং সম্পর্কিত নির্দেশ প্রদান করবে না। বিভিন্ন পেয়ারের ফরেক্স আনাল্যসিসগুলো পেতে এই লিঙ্কটি ভিজিট করুন
  11. Market Analysis and News.

    Date : 14th October 2019. MACRO EVENTS & NEWS OF 14th October 2019. No-deal Brexit risks are looking more real than ever, with reports suggesting that talks will officially break down this week ahead of the upcoming EU summit on 17 and 18 October. Elsewhere, further US data and Fedspeak could provide more clues about the possibility of a Fed rate cut. Tuesday – 15 October 2019 Consumer Price Index (CNY, GMT 01:30) – September’s Chinese CPI is seen unchanged at 0.7% while the PPI figure is expected to decline further to -1.2%. The overall reading for CPI is estimated to post a gain up to 2.9% y/y. ILO & Average Earnings Index 3m/y (GBP, GMT 08:30) – UK Earnings with the bonus-excluded figure are expected to slip to 3.7% y/y in the three months to August, down from 3.8%y/y. UK ILO unemployment is expected steady at 3.8%, which was the lowest rate seen since December 1974. ZEW Economic Sentiment (EUR, GMT 09:00) – Economic Sentiment for October is projected at -27 from the -22.5 seen last month, as the current conditions indicator for Germany turned negative. The overall Eurozone reading though expected to declne further to -33.0 slightly from -22.4. A lower than expected outcome, ties in with the stagnation in market sentiment at the start of the month. Consumer Price Index (NZD, GMT 21:45) – One of the most important figures for FX markets, the y/y CPI for Q3 is expected to come out at 1.4%, compared to 1.7% in the previous quarter. Wednesday – 16 October 2019 Consumer Price Index (GBP, GMT 08:30) – The UK CPI is expected to rebound to a 1.8% y/y rate in September after dipping to 1.7% in August from 2.1% in July. Weakness in sterling from year-go levels should impact some offset to disinflationary forces. Consumer Price Index (EUR, GMT 09:00) – The Euro Area CPI is expected to be confirmed at just 0.9% y/y in the final release for September, although the deceleration in the headline rate over the month was largely due to base effects from energy prices, with core inflation actually moving up to 1.0% y/y from 0.9% y/y in August. Consumer Price Index (CAD, GMT 12:30) – The Canadian CPI index is expected to have increased to 2%y/y compared to 1.9%y/y in August. The core CPI measures remained near 2.0%. Retail Sales (USD, GMT 12:30) – Retail Sales are an important determinant of consumer spending thus making it a leading indicator for overall economic growth. Consensus expectations suggest that we should have increased by 0.2% in September, for both the retail sales headline and the ex-auto figure, following a 0.4% August headline rise with a flat ex-auto figure. Fedspeak: Fed Brainard (USD, GMT 19:00) Thursday – 17 October 2019 European Council Summit on Brexit Employment Data (AUD, GMT 01:30) – While the Unemployment Rate is projected to have flipped at 5.3% in September, Employment change is expected to have eased, increasing by 10K compared to 34.7K last month. Retail Sales ex Fuel (GBP, GMT 08:30) – Retail Sales in the UK are anticipated to increase in September, reaching 3.0% on a y/y basis, and 0.5% on a m/m basis, from the 2.7% and -0.2% respectively Housing Data and Building Permits (USD, GMT 12:30) – Housing starts should drop back to a 1.282 mln pace in September, after a sharp rise to a 1.364 mln clip in August with the help of lower mortgage rates. Permits similarly are expected to slow to 1.370 mln in September, after popping to 1.425 mln in September. Permits have shown a solid growth path into Q3 despite a July starts set-back. Philadelphia Fed Manufacturing Survey (USD, GMT 12:30) – The Philly Fed index is seen falling to 7.0 from 12.0 in September, versus a 1-year high of 21.8 in July and a 33-month low of -4.1 in February. The late-September producer sentiment surveys deteriorated significantly after firmness in the early-September reports, and the early-October data will be closely scrutinized to see if this pull-back continued. The “soft data” surveys are at risk of a possible impact from the UAW-GM strike, alongside the ongoing headwind from troubles abroad. Fedspeak: Fed Bowman and Fed Williams (USD, GMT 18:00 and 20:20) Friday – 18 October 2019 European Council Summit on Brexit China Gross Domestic Product (CNY, GMT 02:00)- Chinese GDP is projected to see additional moderation to a 6.1% y/y pace in Q3, from 6.2% in Q2. Industrial Production and Retail Sales (CNY, GMT 02:00) – The September industrial production is forecast at 4.5% y/y from 4.4% previously, while September retail sales likely improved to 7.7% y/y from 7.5%. Fedspeak: Fed Kaplan and Fed Clarida (USD, GMT 15:00 and 15:30) Always trade with strict risk management. Your capital is the single most important aspect of your trading business. Please note that times displayed based on local time zone and are from time of writing this report. Want to learn to trade and analyse the markets? Join our webinars and get analysis and trading ideas combined with better understanding on how markets work. Andria Pichidi Market Analyst HotForex Disclaimer: This material is provided as a general marketing communication for information purposes only and does not constitute an independent investment research. Nothing in this communication contains, or should be considered as containing, an investment advice or an investment recommendation or a solicitation for the purpose of buying or selling of any financial instrument. All information provided is gathered from reputable sources and any information containing an indication of past performance is not a guarantee or reliable indicator of future performance. Users acknowledge that any investment in FX and CFDs products is characterized by a certain degree of uncertainty and that any investment of this nature involves a high level of risk for which the users are solely responsible and liable. We assume no liability for any loss arising from any investment made based on the information provided in this communication. This communication must not be reproduced or further distributed without our prior written permission.
  12. জার্মান ডব্লিউপিআই প্রকাশের পরে ইউরোর মিশ্র প্রভাব ET সময় সোমবার 2:00 am, ডেস্টাটিস অগাস্ট মাসের জার্মান পাইকারি মুল্য এর তথ্য প্রকাশ করেছে। এই নিউজ প্রকাশের পর, প্রধান বিরোধী মুদ্রাগুলোর বিপরীতে ইউরোর ইউরোর মিশ্র প্রভাব পড়েছে। ইউরো যখন মার্কিন ডলার, ইয়েন এবং ফ্র্যাঙ্কের বিপরীতে স্থিতিশীল ছিল, এটি পাউন্ডের বিপরীতে বৃদ্ধি পেয়েছিল। ET সময় ভোর 2:03 am -তে ইউরো মূল্য ইয়েনের বিপরীতে ছিল 119.40, ডলারের এর বিপরীতে 1.1028, ফ্রাঙ্কের বিপরীতে 1.0985 এবং পাউন্ডের বিপরীতে ছিল 0.8756 । আরো ফরেক্স সংবাদঃ
  13. মেজর কারেন্সীগুলোর বিপরীতে ইউরো দুর্বল! ইউরো আজ সোমবার সাপ্তাহের প্রথম দিনেই ইউরোপীয় সেশনে মেজর কারেন্সীগুলোর বিপরীতে দরপতন অব্যবহত রয়েছে। ইউরো গ্রিনব্যাকের বিপরীতে 1.1013 এবং ইয়েনের বিপরীতে 119.19, যা প্রথম দিকেযথাক্রমে 1.1038 এবং 119.71 এর ঘরে ছিল। ইউরোর ফ্র্যাঙ্কের বিপরীতে 1.0972 তে নেমেছে, যা প্রথম দিকে সর্বোচ্চ 1.1010 তে ছিল। ইউরোর পরবর্তীতেগ্রিনব্যাকের বিপরীতে সম্ভাব্য সাপোর্ট 1.09 তে, ইয়েনের বিপরীতে 118.00 তে এবং ফ্র্যাঙ্কের বিরুদ্ধে 1.08 এর কাছাকাছি দেখা যায়। এছাড়াও বিভিন্ন ফরেক্স নিউজগুলো দেখতে ভিজিট করুন: https://www.instaforex.org/forex-news
  14. EUR/USD পেয়ারের টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস- ১৪ই অক্টোবর-২০১৯ বিশ্লেষণ করেছেন বিশেষজ্ঞ Arief Makmur (ইন্সটা ফরেক্স টিম) আজকের EUR/USD পেয়ারের টেকনিক্যাল লেভেলঃ ব্রেকআউন্ট বাই লেভেলঃ 1.1083 স্ট্রং রেসিস্ট্যান্সঃ 1.1077 অরিজিনাল রেসিস্ট্যান্সঃ 1.1066 ইনার সেল এরিয়াঃ 1.1055 টার্গেট ইনার এরিয়াঃ 1.1029 ইনার বাই এরিয়াঃ 1.1003 অরিজিনাল সাপোর্ট: 1.0992 স্ট্রং সাপোর্ট: 1.0981 ব্রেকআউট সেল লেভেল: 1.0975 মন্তব্য: ইউরোপিয়ান মার্কেটে ট্রেডিং শুরু হলে আজ ইন্ডাস্ট্রিয়াল প্রোডাকশন এম/এম এবং জার্মান ডাব্লুপিআই এম/এম ডাটা পাওয়া যাবে।এছাড়া আমেরিকান মার্কেটে হলে ওপেন আজ কোন ইকোনমিক ডাটা পাওয়া যাবে না।ফলে ফান্ডামেন্টাল বিশ্লেষন থেকে আশা করা যায় মার্কেটে EUR/USD পেয়ারটিতে নিন্ম থেকে মধ্যম মাত্রার ভোলাটিলিটি থাকতে পারে। আরো ফরেক্স দেখুন:বিশ্লেষন: https://www.instaforex.org/forex_analysis/154859 *মার্কেট বিশ্লেষণ ট্রেডিং সম্পর্কে আপনার সচেতনতা বৃদ্ধি করবে, কিন্তু আপনাকে ট্রেডিং সম্পর্কিত নির্দেশ প্রদান করবে না।
  15. A unique opportunity to open BullsEye Markets office in your city. Run BullsEye Markets regional office and earn a stable income. Regional Representative "Regional representative" program from BullsEye Markets Take advantage of a unique opportunity to represent the company in your region and manage your own local office. How it works • Apply for participation in the program. • Register partnership with BullsEye Markets. • Promote BullsEye Markets services in your region. • Get the agent's remuneration. Regional representative's income Earnings generated from standard affiliate remuneration is up to $15 from each referral trade and 10% on the income of sub-affiliates, and additional payments, the amount of which is discussed individually with the partner. How to get started? For more information about our Regional Partner Programs, please do not hesitate to contact us via email at Support@BullseyeMarkets.com, https://bullseyemarkets.com/ProgramsRegional
  16. গত সপ্তাহে ডলার/ইয়েনের প্রাইস ক্রমাগত বেড়ে ছিল। এ সপ্তাহে পেয়ারটির ক্ষেত্রে বিশেষ কোন ইভেন্ট নেই। তবে বিনিয়োগকারীরা যুক্তরাষ্ট্রের রিটেইল সেলস রিপোর্টের দিকে নজর রাখবেন। USDJPY ফান্ডামেন্টাল আলোচনা জাপানের কনজিউমার ডাটা মিশ্র অবস্থানে রয়েছে। এ সেক্টরটি গত দুইবার ধরে খারাপ অবস্থানে রয়েছে। গত রিপোর্টে এ সেক্টরে শতকরা -০.২% কমেছে। তবে জাপানে পারিবারিক ব্যয় বেড়েছে। গত রিপোর্টে দেখা যায়, জাপানে পারিবারিক ব্যয় শতকরা ১.০% বেড়েছে। গত সপ্তাহে সেপ্টেম্বর মাসের ফেডারেল রিজার্ভ মিটিং ছিল,এ মিটিংয়ে ফেড ইন্টারেস্ট রেট শতকরা ০.২৫% কমিয়েছিল। বৈশ্বিক ইকোনমি খারাপ থাকার কারণেই মূলত ফেড ইন্টারেস্ট রেট কমিয়েছিল। এর ফলে গত সপ্তাহে ডলারের প্রাইস কয়েক সপ্তাহের নিচে নেমেছিল।। এছাড়াও গত সপ্তাহে ডলারের প্রাইস কমার পিছনে যুক্তরাষ্ট্র এবং চীনের বানিজ্য আলোচনা ও মুদ্রাস্ফীতি রিপোর্ট কাজ করেছিল। CME গ্রুপের মতে, অক্টোবরে ফেড ইন্টারেস্ট রেট পুনরায় কমাতে পারে। তবে এটা সম্পর্কে এখনও নিশ্চিত নয়। যুক্তরাষ্ট্রের মুদ্রাস্ফীতি ডাটা সেপ্টেম্বরে বেশ হতাশাজনক এসেছিল। সেপ্টম্বরে এ সেক্টর প্রত্যাশিত লেভেলের বেশ নিচে এসেছিল। সেপ্টেম্বরের CPI গতবারের রিপোর্ট অনুযায়ী, অপরিবর্তনীয় ছিল। তবে Core CPI শতকরা ০.১% এসেছিল। যুক্তরাষ্ট্রের ইকোনমির ক্ষেত্রে এটা ভাল অবস্থান নয়। এটা ফেডারেল রিজার্ভের নির্ধারিত টার্গেট শতকরা ২.০% এর অনেক কম এসেছে। USDJPY টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস আমরা ১১১.৬২ রেজিস্ট্যান্স লেভেল থেকে শুরু করছি। এটা এপ্রিল মাসের সর্বোচ্চ প্রাইস ছিল। পরবর্তী লেভেল ছিল ১১০.৬২। মে মাসের শেষের দিকে ১০৯.৭৩ গুরুত্বপূর্ণ একটি রেজিস্ট্যান্স লেভেল ছিল। মে মাসে পেয়ারটি ১০৯.৩৫ প্রাইসের কাছকাছি ক্লোজ হয়। পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স লেভেল ছিল ১০৮.৭০। পেয়ারটির পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স লেভেল হিসেবে কাজ করেছিল ১০৮.১০। পরবর্তীতে ১০৭.৩০ সাপোর্ট লেভেল হিসেবে কাজ করে ছিল। পরবর্তী সাপোর্ট লেভেল ছিল ১০৬.৬১। আগস্ট মাসের শেষের দিকে ১০৫.৫৫ একটি গুরুত্বপূর্ণ সাপোর্ট লেভেল ছিল। বর্তমান সাপোর্ট লেভেল ১০৪.৬৫। USDJPY প্রতিদিনের সাপোর্ট এবং রেজিস্ট্যান্স লাইনগুলো দেওয়া হলো শেষ কথা ফরেক্স বিশেষজ্ঞদের মতে, এ সপ্তাহে USDJPY পেয়ারটির প্রাইস বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আগস্টের শেষের দিকে, ইয়েনের বিপরীতে মার্কিন ডলারের প্রাইস এক সপ্তাহে মতো কমেছিল। পরবর্তীতে পেয়ারটির প্রাইস ক্রমাগত বাড়তে থাকে। ফরেক্স বিশেজ্ঞদের মতে, এ সপ্তাহে পেয়ারটির প্রাইস বাড়তে পারে।
  17. ইউরো/ডলারের প্রাইস গত দুই সপ্তাহ বেড়ে ছিল। তবে এ সপ্তাহে পেয়ারটির অবস্থান কি হতে পারে,তা ফান্ডামেন্টাল অ্যানালাইসিসের মাধ্যমে সংক্ষেপে আলোচনা করা হলো। এ সপ্তাহে যে ইভেন্টগুলো ইউরো/ডলারকে প্রভাবিত করতে পারে তার মধ্যে অন্যতম হলো জার্মান ZEW ইকোনমিক সেন্টিমেন্ট এবং ইউরোজোন মুদ্রাস্ফীতি। নিচে এ সপ্তাহের মার্কেট আউটলুক এবং ইউরো/ডলারের টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিসগুলো আলোচনা করা হলো। গত সপ্তাহে আগস্ট মাসের জার্মান মেনুফেকচারিং ডাটা প্রকাশিত হয়েছে। আগস্ট মাসের মেনুফেকচারিং ডাটা তেমন ভাল অবস্থানে ছিল না। ফ্যাক্টরি অর্ডার গত চার মাসে তিন বারের মতো খারাপ এসেছে। আগস্ট মাসের রিপোর্টে ফ্যাক্টরি অর্ডার শতকরা ০.৬% কমেছে। তবে ইন্ডাস্ট্রীয়াল প্রডাকশন ভাল অবস্থানে ছিল, এ সেক্টরটি ধারাবাহিকভাবে গত দুইবার খারাপ করার এ বার শতকরা ০.৩% বৃদ্ধি পেয়েছে। গতবার জার্মান CPI শতকরা ০.২% কমার পর, এ বার ০.০% অপরিবর্তনীয় রয়েছে। গত সপ্তাহে সেপ্টেম্বর মাসের ফেডারেল রিজার্ভ মিটিং ছিল,এ মিটিংয়ে ফেড ইন্টারেস্ট রেট শতকরা ০.২৫% কমিয়েছিল। বৈশ্বিক ইকোনমি খারাপ থাকার কারণেই মূলত ফেড ইন্টারেস্ট রেট কমিয়েছিল। এর ফলে গত সপ্তাহে ডলারের প্রাইস কয়েক সপ্তাহের নিচে নেমেছিল।। এছাড়াও গত সপ্তাহে ডলারের প্রাইস কমার পিছনে যুক্তরাষ্ট্র এবং চীনের বানিজ্য আলোচনা ও মুদ্রাস্ফীতি রিপোর্ট কাজ করেছিল। CME গ্রুপের মতে, অক্টোবরে ফেড ইন্টারেস্ট রেট পুনরায় কমাতে পারে। তবে এটা সম্পর্কে এখনও নিশ্চিত নয়। যুক্তরাষ্ট্রের মুদ্রাস্ফীতি ডাটা সেপ্টেম্বরে বেশ হতাশাজনক এসেছিল। সেপ্টম্বরে এ সেক্টর প্রত্যাশিত লেভেলের বেশ নিচে এসেছিল। সেপ্টেম্বরের CPI গতবারের রিপোর্ট অনুযায়ী, অপরিবর্তনীয় ছিল। তবে Core CPI শতকরা ০.১% এসেছিল। যুক্তরাষ্ট্রের ইকোনমির ক্ষেত্রে এটা ভাল অবস্থান নয়। এটা ফেডারেল রিজার্ভের নির্ধারিত টার্গেট শতকরা ২.০% এর অনেক কম এসেছে। ১.Industrial Production সোমবার, বিকাল ০৩:০০। মেনুফেকচারিং সেক্টর গত ছয় রিলিজে মধ্যে মাত্র একবার ভাল করেছে। প্রত্যাশা করা হচ্ছে,আগস্ট মাসে এ সেক্টরে শতকরা ০.৩% বৃদ্ধি পেতে পারে। ২.French Final CPI মঙ্গলবার, দুপুর ১২:৪৫। আগস্ট মাসে ইউরোজোনের দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনৈতিক দেশ ফ্রান্সের CPI শতকরা ০.৫% বেড়েছিল। বিনিয়োগকারীরা প্রত্যাশা করছেন, সেপ্টেম্বরের রিলিজে কিছুটা কমে ০.৩% আসতে পারে। ৩.German ZEW Economic Sentiment মঙ্গলবার, বিকাল ০৩:০০। ইকোনমি পর্যলোচনা করে দেখা যাচ্ছে, এবারও জার্মানের এ সেক্টরটি খারাপ অবস্থানে থাকতে পারে। ধারণা করা হচ্ছে,অক্টোবরে এ সেক্টর থেকে -২৭.০ পয়েন্ট আসতে পারে। ইউরোজোন ডাটাও দুর্বল অবস্থানে রয়েছে। যার ফলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে, এবার ইউরোজোন থেকে -২৬.৭ পয়েন্ট আসতে পারে। ৪.Eurozone Inflation বুধবার,বিকাল ০৩:০০। ইউরোজোন CPI গত দুই মাসে ১.০% এর কাছাকাছি ছিল। ধারণা করা হচ্ছে, সেপ্টেম্বরে শতকরা ০.৯% আসতে পারে। এটা ইসিবির নির্ধারিত টার্গেট ২.০% এর অনেক কম। EURUSD প্রতিদিনের সাপোর্ট এবং রেজিস্ট্যান্স লাইনগুলো দেওয়া হলো EURUSD টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস টেকনিক্যাল লাইনগুলো উপর থেকে নিচে দেওয়া হলো আমরা ১.১৩৯০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল থেকে শুরু করছি। পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স লেভেল ১.১৩৪৫। জুলাই মাসের প্রথম সপ্তাহে ১.১২৯ গুরুত্বপূর্ণ একটিরেজিস্ট্যান্স লেভেল ছিল। পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স লেভেল ছিল ১.১২১৫। সেপ্টেম্বরের ২৩ তারিখে ১.১০২৫ গুরুত্বপূর্ণ একটি রেজিস্ট্যান্স লেভেল ছিল। পরবর্তীতে ১.০৯৫০ সাপোর্ট লেভেল হিসেবে কাজ করে ছিল। ২০১৭ সালের এপ্রিল মাসে ১.০৮২৯ সাপোর্ট লেভেল হিসেবে কাজ করেছিল। বর্তমান সাপোর্ট লেভেল ১.০৬৯০। শেষ কথা ফরেক্স বিষেজ্ঞদের মতে, এ সপ্তাহে EURUSD পেয়ারটির প্রাইস কমতে পারে। ইউরোজোন ইকোনমি ক্রমাগত খারাপ করছে। যার ফলে পেয়ারটি গত কয়েক সপ্তাহ ১.১০ প্রাইসের নিচে ট্রেডিং করেছিল। গত সপ্তাহে পেয়ারটি যদিও ১.১০ প্রাইসের উপরে উঠে ছিল। বৈশ্বিক চাহিদা কম থাকায়, জার্মান মেনুফেকচারিং সেক্টরের চাহিদা ক্রমাগত কমছে। যার ফলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে, পেয়ারটির প্রাইস পুনরায় কমতে পারে।
  18. Stop Loss ( S / L ) = 1.28390
  19. Last week
  20. *** GBP / USD Sell 1st Take Profit ( T / P ) = 1.26400 2nd Take Profit ( T / P ) = 1.26050 Stop Loss ( S / L ) = এই সপ্তাহের সিডনী (AUD) সেশন শুরু হবার পরে দেয়া হবে ইনশাল্লাহ্ > http://prntscr.com/pis09j
  21. গত সপ্তাহের শুরুর দিকে পেয়ারটির প্রাইস বাড়লেও পরবর্তীতে কমতে শুরু করে। সেপ্টেম্বরের পর থেকে প্রথম বারের মতো পেয়ারটির প্রাইস এত কমেছে। এখানে এ সপ্তাহের মার্কেট আউটলুক এবং USDCAD টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস আলোচনা করা হলো। গত সপ্তাহে কানাডিয়ান ডাটাগুলো বেশ শক্তিশালী ছিল। যার ফলে কানাডিয়ান ডলারের প্রাইস বেড়েছিল। অপরদিকে মার্কিন ডলারের প্রাইস কমেছিল। আগস্ট মাসে কানাডায় বিল্ডিং অনুমোধন বেড়ে শতকরা ৬.১% এসেছে। গত দুইবার ধরে এ সেক্টরটি ভাল অবস্থানে রয়েছে। গত সপ্তাহের শেষের দিকে কানাডার ইমপ্লোইমেন্ট ডাটা অপ্রত্যাশিতভাবে বেড়েছিল। সেপ্টেম্বরে কানাডায় ৫৩ হাজার ৭ শত জব তৈরি হয়েছে। যেখানে প্রত্যাশা করা হয়েছিল, মাত্র ১১ হাজার ২শত। সেপ্টেম্বরে বেকারত্বের হার ৫.৭% থেকে কমে ৫.৫% এসেছে। এর ফলে গত সপ্তাহে মার্কিন ডলারের বিপরীতে কানাডিয়ান ডলারের প্রাইস বেড়েছিল। গত সপ্তাহে সেপ্টেম্বর মাসের ফেডারেল রিজার্ভ মিটিং ছিল,এ মিটিংয়ে ফেড ইন্টারেস্ট রেট শতকরা ০.২৫% কমিয়েছিল। বৈশ্বিক ইকোনমি খারাপ থাকার কারণেই মূলত ফেড ইন্টারেস্ট রেট কমিয়েছিল। এর ফলে গত সপ্তাহে ডলারের প্রাইস কয়েক সপ্তাহের নিচে নেমেছিল।। এছাড়াও গত সপ্তাহে ডলারের প্রাইস কমার পিছনে যুক্তরাষ্ট্র এবং চীনের বানিজ্য আলোচনা ও মুদ্রাস্ফীতি রিপোর্ট কাজ করেছিল। CME গ্রুপের মতে, অক্টোবরে ফেড ইন্টারেস্ট রেট পুনরায় কমাতে পারে। তবে এটা সম্পর্কে এখনও নিশ্চিত নয়। যুক্তরাষ্ট্রের মুদ্রাস্ফীতি ডাটা সেপ্টেম্বরে বেশ হতাশাজনক এসেছিল। সেপ্টম্বরে এ সেক্টর প্রত্যাশিত লেভেলের বেশ নিচে এসেছিল। সেপ্টেম্বরের CPI গতবারের রিপোর্ট অনুযায়ী, অপরিবর্তনীয় ছিল। তবে Core CPI শতকরা ০.১% এসেছিল। যুক্তরাষ্ট্রের ইকোনমির ক্ষেত্রে এটা ভাল অবস্থান নয়। এটা ফেডারেল রিজার্ভের নির্ধারিত টার্গেট শতকরা ২.০% এর অনেক কম এসেছে। ১.Inflation Data বুধবার, সন্ধ্যা ০৬:২০। গত তিন মাসে কানাডার CPI দুইবারের মতো খারাপ করেছে। প্রত্যাশা করা হচ্ছে, সেপ্টেম্বরেও এ সেক্টটি দুর্বল অবস্থানে থাকতে পারে এবং আনুমানিক ০.৩% আসতে পারে। ২.Manufacturing Sales বৃহস্পতিবার, সন্ধ্যা ০৬:৩০। মেনুফেকচারিং সেক্টর তেমন ভাল অবস্থানে নেই। এ সেক্টরটি ধারাবাহিকভাবে গত দুইবার খারাপ করেছে। জুলাইতে এ সেক্টর থেকে ১.৩% এসেছিল। তবে এবারের রিপোর্টে আমরা রিবাউন্ড দেখতে পারবো কিনা সেটা দেখার বিষয়। ৩.ADP Nonfarm Employment Change বৃহস্পতিবার, সন্ধ্যা ০৬:৩০। আগস্টে এ সেক্টরটি মোটামুটি ভাল অবস্থানে ছিল। আগস্টে এ সেক্টরে ৪৯ হাজার ৩ শত জব তৈরি হয়েছিল। বর্তমানে আমরা সেপ্টেম্বরের ডাটার জন্য অপেক্ষা করছি। USDCAD পেয়ারটির প্রতিদিনের সাপোর্ট এবং রেজিস্ট্যান্স লাইগুলো দেওয়া হলো USDCAD টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস টেকনিক্যাল লাইনগুলো উপর থেকে নিচে দেওয়া হলো আমরা ১.৩৫৬৫ রেজিস্ট্যান্স লেভেল থেকে শুরু করছি। জুন মাসের প্রথম সপ্তাহে ১.৩৪৪৫ একটি গুরুত্বপূর্ণ রেজিস্ট্যান্স লেভেল ছিল। পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স লেভেল ছিল ১.৩৩৮৫। সেপ্টেম্বরের শুরুর দিকে ১.৩৩৫০ একটি গুরুত্বপূর্ণ রেজিস্ট্যান্স লেভেল ছিল। গত সপ্তাহে ১.৩১৭৫ গুরুত্বপূর্ণ একটি সাপোর্ট লেভেল ছিল। গত সপ্তাহের শেষের দিকে ১.৩১২৫ আরেকটি সাপোর্ট লেভেল ছিল। অক্টোবরে ১.২৯১৬ একটি গুরুত্বপূর্ণ সাপোর্ট লেভেল ছিল। বর্তমান এবং সর্বশেষ সাপোর্ট লেভেল ১.২৮৩০। শেষ কথা ফরেক্স বিশেষজ্ঞদের মতে, এ সপ্তাহে USDCAD পেয়ারটির প্রাইস কমার সম্ভাবনা রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের মেনুফেকচারিং এবং মুদ্রাস্ফীতি সেক্টরের কারণে যুক্তরাষ্ট্রের ইকোনমিতে কিছুটা মন্দাভাব বিরাজ করছে। তবে প্রত্যাশা করা হচ্ছে, খুব তাড়াতাড়ি যুক্তরাষ্ট্র এ মন্দাভাব কাটিয়ে উঠতে পারে। এদিকে কানাডার ইকোনমির দিকে তাকালে দেখা যাচ্ছে, আগামী সপ্তাহে তেলের প্রাইস কমতে পারে। তেলের দাম করলে কানাডিয়ান ডলারের প্রাইস কমতে পারে। তবে, যুক্তরাষ্ট্রের মন্দাভাব আগামী সপ্তাহেও বিরাজ করতে পারে।
  22. পাউন্ড/ডলারের প্রাইস গত সপ্তাহে বেড়েছিল। জানুয়ারির পর প্রথম বারের মতো পেয়ারটির প্রাইস এতবেশি বেড়েছে।পেয়ারটিকে প্রভাবিত করার মতো এ সপ্তাহের মূল ইভেন্টগুলো হলো যুক্তরাজ্যের ইমপ্লোইমেন্ট, সিপিআই এবং রিটেইল সেলস রিপোর্ট। নিচে এ সপ্তাহের মার্কেট আউটলুক এবং GBPUSD টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস আলোচনা করা হলো। গত সপ্তাহে যুক্তরাজ্যের ইকোনমিক ডাটাগুলো নমনীয় ছিল। প্রত্যাশা করা হয়েছিল, গত সপ্তাহে যুক্তরাজ্যের জিডিপি অপরিবর্তনীয় থাকবে। কিন্তু অপরিবর্তনীয় থাকার পরিবর্তে জিডিপি শতকরা ০.১% কমেছিল। গত সপ্তাহে বিনিয়োগকারীরা ইকোনমিক দুর্বলতা এবং ব্রেক্সিট চুক্তির দিকে নজর রেখেছিল। মূলত গত সপ্তাহে পাউন্ডের প্রাইস বৃদ্ধির পিছনে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন এবং আয়ারল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী লিও ভারাদকারের আলোচনা কাজ করেছিল। তদের আলোচনাটি ছিল গঠনমূলক এবং উৎপাদনশীল। যার ফলে পেয়ারটির প্রাইস বেশ ভালভাবেই বেড়েছিল। গত সপ্তাহে সেপ্টেম্বর মাসের ফেডারেল রিজার্ভ মিটিং ছিল,এ মিটিংয়ে ফেড ইন্টারেস্ট রেট শতকরা ০.২৫% কমিয়েছিল। বৈশ্বিক ইকোনমি খারাপ থাকার কারণেই মূলত ফেড ইন্টারেস্ট রেট কমিয়েছিল। এর ফলে গত সপ্তাহে ডলারের প্রাইস কয়েক সপ্তাহের নিচে নেমেছিল।। এছাড়াও গত সপ্তাহে ডলারের প্রাইস কমার পিছনে যুক্তরাষ্ট্র এবং চীনের বানিজ্য আলোচনা ও মুদ্রাস্ফীতি রিপোর্ট কাজ করেছিল। CME গ্রুপের মতে, অক্টোবরে ফেড ইন্টারেস্ট রেট পুনরায় কমাতে পারে। তবে এটা সম্পর্কে এখনও নিশ্চিত নয়। যুক্তরাষ্ট্রের মুদ্রাস্ফীতি ডাটা সেপ্টেম্বরে বেশ হতাশাজনক এসেছিল। সেপ্টম্বরে এ সেক্টর প্রত্যাশিত লেভেলের বেশ নিচে এসেছিল। সেপ্টেম্বরের CPI গতবারের রিপোর্ট অনুযায়ী, অপরিবর্তনীয় ছিল। তবে Core CPI শতকরা ০.১% এসেছিল। যুক্তরাষ্ট্রের ইকোনমির ক্ষেত্রে এটা ভাল অবস্থান নয়। এটা ফেডারেল রিজার্ভের নির্ধারিত টার্গেট শতকরা ২.০% এর অনেক কম এসেছে। ১.Employment Data মঙ্গলবার,দুপুর ০২:৩০। জুলাই মাসে যুক্তরাজ্যে বেতন (ওয়েজ) শতকরা ৪.০% বৃদ্ধি পেয়েছিল। এটা প্রত্যাশিত লেভেল ৩.৭% এর উপরে এসেছিল। প্রত্যাশা করা হচ্ছে, আগস্ট মাসেও বেতন(ওয়েজ) শতকরা ৪.০% বাড়তে পারে। ধারণা করা হচ্ছে, বেকারত্বের হার গতবারের ২৮.২ হাজার থেকে কমে ২১.৩ হাজার আসতে পারে। সুতরাং এবারের রিপোর্টে বেকারত্বের হার শতকরা ৩.৪% থাকতে পারে। ২.Inflation Data বুধবার,দুপুর ০২:৩০। জুলাই মাসে যুক্তরাজ্যে CPI শতকরা ২.১% এসেছিল। কিন্তু আগস্ট মাসে CPI ২.১% থেকে কমে ১.৭% এসেছিল। প্রত্যাশা করা হচ্ছে, সেপ্টেম্বরে CPI শতকরা ১.৮% আসতে পারে। Core CPI গতবারের ১.৫% থেকে বেড়ে ১.৭% আসতে পারে। ৩.Retail Sales বৃহস্পতিবার, দুপুর ০২:৩০। আগস্ট মাসে রিটেইল সেলস শতকরা ০.২% কমেছিল। মে মাসের পর প্রথমবারের মতো এ সেক্টরটি খারাপ করেছে। ধারণা করা হচ্ছে,সেপ্টেম্বরেও মন্দাভাব বিরাজ করতে পারে এবং ০.১% আসতে পারে। ৪.BoE Credit Conditions Survey বৃহস্পতিবার, ‍দুপুর ০২:৩০। ব্যাংক অব ইংল্যান্ড সাধারণত কোয়াটারলি রিপোর্ট বের করে থাকেন। এটা আগামী তিন মাসের জন্য কাজ করবে। সুতরাং ট্রেডারদের ব্যাংক অব ইংল্যান্ডের পরিসংখ্যানের দিকে নজর রাখা প্রয়োজন। ৫.CB Leading Index শুক্রবার,সন্ধ্যা ০৭:৩০। জুলাই মাসে এ সেক্টর থেকে ০.২% এসেছিল। তবে আগস্ট মাসের আরেকটি রিবাউন্ড দেখতে পারবো কিনা সেটা দেখার বিষয়। GBPUSD প্রতিদিনের রেজিস্ট্যান্স এবং সাপোর্ট লাইনগুলো দেওয়া হলো GBPUSD টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস টেকনিক্যাল লাইনগুলো উপর থেকে নিচে দেওয়া হলো: আমরা ১.৩০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল থেকে শুরু করছি। পরবর্তী রেজিস্ট্যান্স লেভেল ছিল ১.২৯১০। মে মাসের মাঝামাঝিতে ১.২৮৫০ গুরুত্বপূর্ণ একটি রেজিস্ট্যান্স লেভেল ছিল। জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে ১.২৭২৮ গুরুত্বপূর্ণ একটি সাপোর্ট লেভেল ছিল। জুলাইয়ের শুরুর দিকে ১.২৬১৬ একটি রেজিস্ট্যান্স লেভেল হিসেবে কাজ করেছিল। গত সপ্তাহে ১.২৫৩৫ সাপোর্ট লেভেল হিসেবে কাজ করেছিল। পরবর্তী সাপোর্ট লেভেল ছিল ১.২৪২০। সেপ্টেম্বরের শেষের দিকে ১.২৩৩০ আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ সাপোর্ট লেভেল ছিল। ২০১৬ সালের ডিসেম্বরে ১.২২ সাপোর্ট লেভেল ছিল। বর্তমান এবং সর্বশেষ সাপোর্ট লেভেল ১.২২। শেষ কথা ফরেক্স বিশেষজ্ঞদের মতে, এ সপ্তাহে GBPUSD পেয়ারটি নিরপেক্ষ অবস্থানে থাকতে পারে। ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের সাথে যুক্তরাজ্যের ব্রেক্সিট চুক্তি কার্যকর করার শেষ সময় অক্টোবরের শেষের দিকে। সুতরাং ব্রেক্সিটকে কেন্দ্র করে এ সপ্তাহে পেয়ারটি মুভমেন্ট বৃদ্ধি পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে চুক্তি কার্যকর করার কোন ঘোষণা আসলে পাউন্ডের প্রাইস আরও বাড়তে পারে। সুতরাং এ সপ্তাহে পেয়ারটি নিরপেক্ষ অবস্থানে থাকতে পারে।
  23. গত সপ্তাহে AUDUSD পেয়ারটির প্রাইস বেড়েছিল। এ সপ্তাহে পেয়ারটিকে প্রভাবিত করার মতো, পাচঁটি ইভেন্ট রয়েছে। এর মধ্যে রিজার্ভ ব্যাংক অব অস্টেলিয়ার মিটিং মিনিটস এবং ইমপ্লোইমেন্ট ডাটা অন্যতম। এখানে এ সপ্তাহের মার্কেট আউটলুক এবংAUDUSD টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস আলোচনা করা হলো। গত সপ্তাহে অস্টেলিয়ার NAB বিজনেস সেক্টর বেশ খারাপ অবস্থানে ছিল। এটা গত পাচঁ মাসের সবথেকে খারাপ রিপোর্ট ছিল। গত সপ্তাহে অস্টেলিয়ার ওয়েস্টপ্যাক কনজিউমার সেন্টিমেন্ট তেমন ভাল অবস্থানে ছিল না। গত সপ্তাহে এ সেক্টরে শতকরা ৫.৫% কমেছে। এটা গত চার মাসে তৃতীয় বারের মতো খারাপ করেছে। গত সপ্তাহে সেপ্টেম্বর মাসের ফেডারেল রিজার্ভ মিটিং ছিল,এ মিটিংয়ে ফেড ইন্টারেস্ট রেট শতকরা ০.২৫% কমিয়েছিল। বৈশ্বিক ইকোনমি খারাপ থাকার কারণেই মূলত ফেড ইন্টারেস্ট রেট কমিয়েছিল। এর ফলে গত সপ্তাহে ডলারের প্রাইস কয়েক সপ্তাহের নিচে এসেছিল।। এছাড়াও গত সপ্তাহে ডলারের প্রাইস কমার পিছনে যুক্তরাষ্ট্র এবং চীনের বানিজ্য আলোচনা ও মুদ্রাস্ফীতি রিপোর্ট কাজ করেছিল। CME গ্রুপের মতে, অক্টোবরে ফেড ইন্টারেস্ট রেট পুনরায় কমাতে পারে। তবে এটা সম্পর্কে এখনও নিশ্চিত নয়। যুক্তরাষ্ট্রের মুদ্রাস্ফীতি ডাটা সেপ্টেম্বরে বেশ হতাশাজনক এসেছিল। সেপ্টম্বরে এ সেক্টর প্রত্যাশিত লেভেলের বেশ নিচে এসেছিল। সেপ্টেম্বরের CPI গতবারের রিপোর্ট অনুযায়ী, অপরিবর্তনীয় ছিল। তবে Core CPI শতকরা ০.১% এসেছিল। যুক্তরাষ্ট্রের ইকোনমির ক্ষেত্রে এটা ভাল অবস্থান নয়। এটা ফেডারেল রিজার্ভের নির্ধারিত টার্গেট শতকরা ২.০% এর অনেক কম এসেছে। ১.RBA Monetary Policy Meeting Minutes মঙ্গলবার, ভোর ০৫:৩০। রিজার্ভ ব্যাংক অব অস্টেলিয়া জুন মাসের পর থেকে তৃতীয় বারের মতো ইন্টারেস্ট রেট কমিয়েছে। এ বারের মটিংয়ে ব্যাংক ইন্টারেস্ট রেট কমানোর বিষয় গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করবেন। এ আলোচনা থেকে কোন ধরণের ডভিশ মন্তব্য আসলে অস্টেলিয়ান ডলারের প্রাইস পুনরায় কমতে পারে। সুতরাং অস্টেলিয়ান ডলারের জন্য এটা গুরুত্বপূর্ণ ইভেন্ট। ২.MI Leading Index মঙ্গলবার, ভোর ০৪:৩০। এপ্রিলের পর থেকে প্রথম বারের মতো,অক্টোবরে মেল বোর্ন লেডিং ইনডেক্স ভাল এসেছে। তবে সেপ্টম্বরের রিপোর্টে এ ধরণের আরেকটি রিবাউন্ড দেখা যাবে কিনা সেটা দেখার বিষয়। ৩.Chinese New Loans মঙ্গলবার। আগস্ট মাসে চীন নতুন ব্যাংক গুলোকে ১২১০ বিলিয়ন ইউয়ান লোন দিয়েছিল। প্রত্যাশা করা হচ্ছে, সেপ্টেম্বরে গত বারের থেকে আরও বাড়তে পারে এবং আনুমানিক ১৩৫০ বিলিয়ন ইউয়ান হতে পারে। ৪.Employment Data বৃহস্পতিবার, ভোর ০৫:৩০। গত দুই মাস অস্টেলিয়ার লেবার মার্কেট বেশ ভাল অবস্থানে ছিল। গত দুই মাসের অস্টেলিয়ায় ৭৫ হাজার জব তৈরি হয়েছিল। প্রত্যাশা করা হচ্ছে, অস্টেলিয়ার ইকোনমিতে সেপ্টেম্বরে আরও ১৫ হাজার ৩ শত জব যোগ হতে পারে। গত বারের রিপোর্টে অস্টেলিয়ায় বেকারত্বের হার ছিল শতকরা ৫.৩%। ৫.Chinese GDP শুক্রবার,সকাল ০৮:০০। চীনা ইকোনমি ক্রমাগত খারাপ করছে এবং তৃতীয় প্রান্তীকে জিডিপি শতকরা ৬.২% এসেছিল। প্রত্যাশা করা হচ্ছে, ডাউনট্রেন্ড অব্যাহত থাকবে। এবার চীরা জিডিপি শতকরা ৬.১% আসতে পারে। AUDUSD টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস টেকনিক্যাল লাইনগুলো উপর থেকে নিচে দেওয়া হলো: আমরা ০.৭১৬৫ রেজিস্ট্যান্স লেভেল থেকে শুরু করছি। এপ্রিলের শুরুর দিকে এটা গুরুত্বপূর্ণ রেজিস্ট্যান্স লেভেল ছিল। সেপ্টেম্বরে পেয়ারটির সর্বনিন্ম প্রাইস ছিল ০.৭০৮৫ এবং পরবর্তী প্রাইস ছিল ০.৭০২২। এপ্রিলে ০.৬৯৮৮ সর্বনিন্ম প্রাইস ছিল। সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝিতে ০.৬৮৬৫ গুরুত্বপূর্ণ একটি রেজিস্ট্যান্স লেভেল হিসেবে কাজ করেছিল। গত সপ্তাহে ০.৬৮২৫ আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ রেজিস্ট্যান্স লেভেল ছিল। পরবর্তীতে ০.৬৭৪৪ গুরুত্বপূর্ণ একটি সাপোর্ট লেভেল ছিল। ২০০০ সালের জানুয়ারিতে ০.৬৬৮৬ গুরুত্বপূর্ণ একটি সাপোর্ট লেভেল ছিল। ২০০৯ সালের মার্চ মাসে ০.৬৬২৭ আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ সাপোর্ট লেভেল ছিল।পরবর্তী সাপোর্ট লেভেল ছিল ০.৬৫৩২। বর্তমান এবং সর্বশেষ সাপোর্ট লেভেল ০.৬৪৫৬। AUDUSD প্রতিদিনের সাপোর্ট এবং রিজিস্ট্যান্স লাইনগুলো দেওয়া হলো শেষ কথা বিশেষজ্ঞদের মতে, এ সপ্তাহে AUDUSD পেয়ারটির প্রাইস কমতে পারে। রিজার্ভ ব্যাংক অব অস্টেলিয়া ইকোনমিকে সচল করার জন্য যদিও গত সপ্তাহে ইন্টারেস্ট কমিয়ে ছিল। তবে ইকোনমি এখনও তেমন সচল হয়নি। বৈশ্বিক ইকোনমিতে স্থিতিশীলতা বিরাজ করার কারণে অস্টেলিয়ার মেনুফেকচারিং এবং রপ্তানি সেক্টর খারাপ করছে। এর প্রভাব অস্টেলিয়ান ডলারের উপর পড়তে পারে।
  24. গত সপ্তাহে ফেডের পরবর্তী রেট ডিসিশন সম্পর্কে আগাম কিছু তথ্য এবং যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের বানিজ্য আলোচনা মার্কেটে মুভমেন্ট তৈরি করেছিল এ সপ্তাহে মার্কেটে মুভমেন্ট তৈরি করার ক্ষেত্রে চলমান ব্রেক্সিট আলোচনা এবং যুক্তরাষ্ট্রের কনজিউমার ডাটা প্রভাব ফেলতে পারে। নিচে চলতি সপ্তাহের গুরুত্বপূর্ণ ইভেন্টগুলো সম্পর্কে সংক্ষেপে আলোচনা করা হলো। ১.German ZEW Economic Sentiment মঙ্গলবার, দুপুর ০৩:০০। প্রতি মাসে ৩০০ অ্যানালাইসিস্ট এবং বিনিয়োগকারীরা মিলে জার্মানের ইকোনমিক সেন্টিমেন্ট নিয়ে একটি রিপোর্ট প্রকাশ করেন। নীতিনির্ধারকরা এটা গুরুত্বের সাথেই দেখে থাকেন। গত কয়েক মাস এ সেক্টরে স্থবিরতা পরিলক্ষিত হলেও, সেপ্টেম্বরে বেড়ে ২২.৫ এসেছে। প্রত্যাশা করা হচ্ছে, অক্টোবরেও একই ধরণের রেজাল্ট আসতে পারে। ২.UK Inflation বুধবার,দুপুর ০২:৩০। গত কয়েক মাস যুক্তরাজ্যের মুদ্রাস্ফীতি ব্যাংক নির্ধারিত টার্গেট ২% এর আশেপাশে ঘোরাঘুরি করছে। আগস্ট মাসের রিপোর্টেও একই অবস্থা পরিলক্ষিত হয়, আগস্ট মাসে বাৎসরিক মুদ্রাস্ফীতি কমে শতকরা ১.৭% এসেছিল। তবে যুক্তরাজ্যের মুদ্রাস্ফীতি এভাবে আসতে থাকলে,ব্যাংক ব্রেক্সিটের নমনীয়তার দিক বিবেচনা করে ইন্টারেস্ট রেট বাড়াতে পারে। সুতরাং ট্রেডারদের এ ইভেন্টের প্রতি নজর রাখা প্রয়োজন। ৩.US Retail Sales বুধবার,সন্ধ্যা ০৬:৩০। আগস্ট মাসের রিটেইল সেলস রিপোর্টের দিকে তাকালে আমরা দেখতে পাচ্ছি। আগস্ট মাসে রিটেইল সেলস শতকরা ০.৪% বৃদ্ধি পেয়ে ছিল। তবে কোর রিটেইল সেলস আগের অবস্থানে অপরিবর্তনীয় ছিল। এবারের রিপোর্টেও একই অবস্থা পরিলক্ষিত হতে পারে, যা ডলারকে প্রভাবিত করতে পারে। ৪.Australian Employment বৃহস্পতিবার, ভোর ০৫:৩০। গত কয়েক মাস ধরে অস্টেলিয়ার এ সেক্টরটি ভাল অবস্থানে রয়েছে। আগস্ট মাসে অস্টেলিয়ায় ৩৪ হাজার ৭ শত জব তৈরি হয়েছিল। প্রত্যাশা করা হচ্ছে, সেপ্টেম্বরেও একই ধরণের রেজাল্ট আসতে পারে। আগস্টে বেকারত্বের হার শতকরা ৫.৩% ছিল। ধারণা করা হচ্ছে,এবারও বেকারত্বের হার ৫.৩% এর কাছাকাছি থাকতে পারে। ৫.EU Summit on Brexit বৃহস্পতিবার, শুক্রবার। ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের নেতারা বৃহস্পতিবার এবং শুক্রবার সামিটে একত্রিত হবেন এবং সেখানে গুরুত্বপূর্ণ ইভেন্টগুলো আলোচনা করবেন। এদিকে যুক্তরাজ্য কর্তৃক ব্রেক্সিটের সময়সীমার মাত্র দু’সপ্তাহ বাকি। সুতরাং এ আলোচনায় বেক্সিট ইস্যুর সাথে জড়িত আয়ারল্যান্ড এবং উত্তর আয়ার‌ল্যান্ডের আলোচনা হতে পারে। সুতরাং এ সপ্তাহে এটা একটি গুরুত্বপূর্ণ ইভেন্ট। ৬.Chinese GDP শুক্রবার,সকাল ১০:০০। বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনৈতিক দেশ চীন এ সপ্তাহে জিডিপি প্রকাশ করবেন। বাংসরিক হিসেবে অনুযায়ী গতবার চীনের জিডিপি শতকরা ৬.২% আসতে পারে। তবে এ বারের রিপোর্টে কি আসতে পারে সেটা দেখার বিষয়।
  25. ইউরো/ডলার পেয়ারটি গত কয়েক সপ্তাহ ডাউনট্রেন্ডে ছিল।তবে এ সপ্তাহে পেয়ারটির প্রাইস বাড়তে শুরু করেছে । বিশেষ করে আজ পেয়ারটির প্রাইস সবথেকে বেশি বেড়েছে। বর্তমানে পেয়ারটি ১.১০৪৫ প্রাইসকে অতিক্রম করে গত তিন সপ্তাহের সর্বোচ্চ প্রাইস ১.১০৮৬ এর দিকে যাচ্ছে। তবে আজ পেয়ারটি প্রাইস বাড়ার পিছনে বেশ কয়েকটি ইভেন্ট কাজ করেছে।বিকাল ০৪:০০ দিকে ইউরোপিয়ান কেন্দ্রীয় ব্যাংকের চেয়ারম্যান মারিও দ্রাঘির কনফারেন্স ছিল।এ কনফারেন্সে তিনি ইউরোজোনের ইকোনমি স্থবিরতার বেশ কয়েকটি কারণ উল্লেখ করেছন এবং তিনি বলেনে ইউরোজোন খুব তাড়াতাড়ি ইকোনমিক স্থবিরতা কাটিয়ে উঠবে। এছাড়াও তিনি ইউরোজোনের ইকোনমি পর্যবেক্ষণের বেশ কয়েকটি দিক আলোচনা করেছেন। আজ ইউরোর প্রাইস বৃদ্ধিতে সবথেকে বেশি সহায়তা করেছে যুক্তরাষ্ট্রের ডাটাগুলো। যুক্তরাষ্ট্রের অধিকাংশ ডাটা মার্কিন ডলারের বিপরীতে কাজ করেছে।আর কিছুক্ষণের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের মেশিগান কনজিউমার সেন্টিমেন্ট ডাটা রিলিজ হতে যাচ্ছে।গত রিলিজে এ সেক্টর থেকে ৯৩.২ পয়েন্ট এসেছিল। প্রত্যাশা করা হচ্ছে, এবারের রিলিজে ৯২.০ পয়েন্ট আসতে পারে। সুতরাং এ ডাটাটি মার্কেটে মুভমেন্ট বৃদ্ধি করতে পারে।
  26. AUDUSD সিগন্যাল ৬০ মিনিট ( ১ ঘন্টার ) চার্টের সিগন্যাল ( পরবর্তী ৩ দিন ) মার্কেট ০.৬৭৫৫ রেজিস্ট্যান্স লেভেলে টেস্টিং করছে। আমরা সেল পজিশন নেওয়ার জন্য কিছু সিগন্যালের অপেক্ষা করছি। পরবর্তী গুরুত্বপূর্ণ রেজিস্ট্যান্স লেভেল ০.৬৭৭৫। ট্রেন্ডের ধরণ: মার্কেট নিন্মমুখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল: ০.৬৭০০,০.৬৬৭০,০.৬৬২০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল: ০.৬৭২৫,০.৬৭৭৫,০.৬৮০৫ ২৪০ মিনিট (৪ ঘন্টার ) চার্টের সিগন্যাল ( পরবর্তী ৩ দিন ) পেয়ারটি ০.৬৭০০ সাপোর্ট লেভেলের দিকে একটি নিন্মমূখী প্রাইস রিট্রেসমেন্টের সম্ভাবনা রয়েছে বা ০.৬৭৭৫ রেজিস্ট্যান্স লেভেলে ব্রেক হতে পারে। সে ক্ষেত্রে বাই পজিশন নেওয়া যেতে পারে। ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট ঊর্ধ্বমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল: ০.৬৭০০,০.৬৬৭০,০.৬৫২০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল: ০.৬৭৭৫, ০.৬৮১০,০.৬৮৭০ টেক প্রফিট: ০.৬৮১০,০.৬৮৭০ USDJPY সিগন্যাল ৬০ মিনিট ( ১ ঘন্টার ) চার্টের সিগন্যাল ( পরবর্তী ৩ দিন ) ট্রেন্ডের ধরণ: মার্কেট ঊর্ধ্বমূখীভাবে শক্তিশালী। পেয়ারটি ১০৭.৩০ সাপোর্ট লেভেলের দিকে একটি নিন্মমূখী প্রাইস রিট্রেসমেন্টের সম্ভাবনা রয়েছে। সে ক্ষেত্রে বাই পজিশন নেওয়া যেতে পারে। সাপোর্ট লেভেল: ১০৭.৩০,১০৭.০০,১০৬.৫০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল: ১০৭.৮০,১০৮.১০,১০৮.৬০ ২৪০ মিনিট (৪ ঘন্টার ) চার্টের সিগন্যাল ( পরবর্তী ৩ দিন ) ট্রেন্ডের ধরণ: মার্কেট ঊর্ধ্বমূখীভাবে শক্তিশালী। মার্কেটের ১০৭.৫০একটি বাই সিগন্যাল দেওয়া হয়েছে। ১০৬.৮০ প্রাইস লেভেল ভেঙ্গে নিচে নামলে বুলিশ ট্রেন্ড পরিবর্তন হতে পারে। সাপোর্ট লেভেল: ১০৬.৮০,১০৫.৩০,১০৪.৭০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল: ১০৭.৮৫,১০৮.৫০,১০৯.৫০ বাই এন্ট্রি: ১০৭.৫০ স্টপ লস: ১০৬.৮০ ট্রেডের সম্ভাবনা: মাঝারি টেক প্রফিট: ১০৭.৮৫,১০৮.৫০
  27. EURUSD সিগন্যাল ৬০ মিনিট (১ঘন্টার) চার্টের সিগনাল (পরবর্তী ৩ দিন) ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট ঊর্ধ্বমূখীভাবে শক্তিশালী। মার্কেটের ১.০৯৯০ একটি বাই এন্ট্রি দেওয়া হয়েছে।১.০৯৭০ প্রাইস ভেঙ্গে নিচে নামলে বুলিশ ট্রেন্ড পরিবর্তন হতে পারে। সাপোর্ট লেভেল : ১.০৯৭০,১.০৯৫০,১.০৯২০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১.১০০০,১.১০২৫,১.১০৫৫ বাই এন্ট্রি: ১.০৯৯০ স্টপ লস: ১.০৯৭০ টেক প্রফিট: ১.১০০০,১.১০২৫ ২৪০ মিনিট (৪ ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল ( পরবর্তী ৩ সপ্তাহ ) ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট ঊর্ধ্বমূখীভাবে শক্তিশালী। পেয়ারটি ১.০৯৫০ সাপোর্ট লেভেলের দিকে একটি নিন্মমূখী প্রাইস রিট্রেসমেন্টের সম্ভাবনা রয়েছে। সে ক্ষেত্রে বাই পজিশন নেওয়া যেতে পারে। সাপোর্ট লেভেল : ১.০৯৫০,১.০৯১০,১.০৮৫০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১.১০০০,১.১০৫০,১.১১৩০ GBPUSD সিগন্যাল ৬০ মিনিট ( ১ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল (পরবর্তী ৩ দিন ) মার্কেট ডাউনট্রেন্ডে রয়েছে। আমারা ১.২১৯০ সাপোর্ট লেভেলে সেল পজিশন নেওয়ার জন্য কিছু সিগন্যালের অপেক্ষা করছি। ১.২২৯০ প্রাইস লেভেল অতিক্রম করে উপরে উঠলে বিয়ারিশ ট্রেন্ড পরিবর্তন হতে পারে। সে ক্ষেত্রে বাই পজিশন নেওয়া যেতে পারে। ট্রেন্ডের ধরণ: মার্কেট নিন্মমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল : ১.২১৯০,১.২১৪০,১.২০৪০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১.২২৯০,১.২৩৪০,১.২৪৪০ সেল এন্ট্রি: ১.২১৯০ স্টপ লস: ১.২২৯০ ট্রেডের সম্ভাবনা: মাঝারি টেক প্রফিট: ১.২১৪০,১.২০৪০ ২৪০ মিনিট (৪ ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল ( পরবর্তী ৩ সপ্তাহ ) পেয়ারটি ১.২৩০০ রেজিস্ট্যান্স লেভেলের দিকে একটি ঊর্ধ্বমূখী প্রাইস রিট্রেসমেন্টের সম্ভাবনা রয়েছে। সে ক্ষেত্রে সেল পজিশন নেওয়া যাবে। ট্রেন্ডের ধরণ: মার্কেট নিন্মমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল: ১.২১০০,১.২০২০,১.১৯০০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল: ১.২৩০০,১.২৩৮০,১.২৫০০
  1. Load more activity

বিডিপিপস কি এবং কেন?

বিডিপিপস বাংলাদেশের সর্বপ্রথম অনলাইন ফরেক্স কমিউনিটি এবং বাংলা ফরেক্স স্কুল। প্রথমেই বলে রাখা জরুরি, বিডিপিপস কাউকে ফরেক্স ট্রেডিংয়ে অনুপ্রাণিত করে না। যারা বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, শুধুমাত্র তাদের জন্যই বিডিপিপস একটি আলোচনা এবং অ্যানালাইসিস পোর্টাল। ফরেক্স ট্রেডিং একটি ব্যবসা এবং উচ্চ লিভারেজ নিয়ে ট্রেড করলে তাতে যথেষ্ট ঝুকি রয়েছে। যারা ফরেক্স ট্রেডিংয়ের যাবতীয় ঝুকি সম্পর্কে সচেতন এবং বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, বিডিপিপস শুধুমাত্র তাদের ফরেক্স শেখা এবং উন্নত ট্রেডিংয়ের জন্য সহযোগিতা প্রদান করার চেষ্টা করে।

×