Jump to content

ফোরাম ফিড

This stream auto-updates     

  1. Yesterday
  2. জার্মান ইকোনমিতে চলমান স্থবির অবস্থা বেশ উদ্ধিগ্নজনক, এর ফলে ইউরোর প্রাইস ক্রমাগত কমছে। ইসিবি ( ECB ) তাদের চলমান ইকোনমিক দুর্বল অবস্থা নিয়ে বুলেটিন প্রকাশ করবেন। ইউরো/ডলার পেয়ারটি গত ২২ মাসের নিন্মপ্রাইসে পৌঁছেছে। গত ঘন্টায় পেয়ারটি ১.১১৩০ প্রাইসে ছিল। এটা গত ২২ মাসের নিন্মপ্রাইস। আজকে পেয়ারটির প্রাইস ক্রমাগত কমছে। যার ফলে পেয়ারটির সেলিং প্রেসার বেড়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, পেয়ারটির প্রাইস আরও কমতে পারে। ইসিবি ( ECB ) এপ্রিল মাসে ইউরোজোনের ইকোনমিক দুর্বল অবস্থা নিয়ে একটি বুলেটিন প্রকাশ করবেন। এতে ইউরোজোনের ইকোনমিক স্থবিরতার কারণসমূহ উল্লেখ থাকবে।এছাড়াও জার্মানের বন্ড কম এসেছে। যার ফলে ইউরোজোনের ইকোনমি নিয়ে বেশ উদ্বিগ্নতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। এদিকে মার্কিন ডলার ২০১৭ সালের জুন মাসের সর্বোচ্চ প্রাইসে পৌঁছেছে। যুক্তরাষ্ট্রের ইকোনমি বেশ ভাল অবস্থানে রয়েছে। যার ফলে ডলারের প্রাইস ক্রমাগত বেড়ে চলেছে।
  3. XtreamForex Introducing Broker

    XtreamForex – Payment Methods At XtreamForex payment methods is fast, reliable and easy! XtreamForex has developed a custom made payment methods interface in member area to make account funding and payments simple and hassle-free using our pioneering sample portal, a single interface for all of your needs. Payment and funding authorization are fully automatic, XtreamForex portal allows deposits and withdrawals using a simple interface. XtreamForex offers its clients a wide variety of local and international payment options. Choose the payment option that most suits you in XtreamForex!!! https://xtreamforex.com/payment-method.html
  4. পাউন্ড/ডলার পেয়ারটির প্রাইস গত ১ থেকে ২ সপ্তাহ ধরে কমছে। বর্তমানে পেয়ারটি ১.২৯০০ প্রাইসের নিচে ট্রেড করছে। ২০০ দিনের এসএমএ ( SMA ) অনুযায়ী, পেয়ারটির জন্য বর্তমানে বিয়ারিশ ব্রেক খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তা না হলে পেয়ারটির বিয়ারিশ অবস্থান আরও বাড়তে পারে। পরবর্তীতে পেয়ারটি ১.২৮০০ প্রাইসের দিকে টেস্টিং করতে পারে। পাউন্ড/ডলারের ১ ঘন্টার চার্ট:
  5. এইচকেএম জোভেলন এবং ইন্সটাফরেক্স একটি সফল মৌসুম পার করেছে! স্লোভাকিয়া থেকে ইন্সটাফরেক্স এবং এইচকেএম জোভেলন ২০১৮-২০১৯ সিজন পার করলো! ২০১৮-২০১৯ মৌসুমে স্লোভাক আইস হকি চ্যাম্পিয়নশিপে এইচকেএম জোভেলন দলটির স্পনসর হিসাবে ইন্সটাফরেক্সে অনেক উন্নতি লক্ষ্য করেছে, যদিও ইন্সটাফরেক্স অনেকগুলো বছর থেকেই তাদের স্পনসর হিসাবে ঘনিষ্ঠভাবে পাশেই ছিল, তুবও এই টুর্নামেন্টটি ইউরোপীয় হকি টুর্নামেন্টগুলির মধ্যে অন্যতম একটি। পিছনে ফিরে দেখলে, এইচকেএম জোভেলনে এই নিয়মিত চ্যাম্পিয়নশিপ এর নেতৃত্ব অবস্থানের থেকে মাত্র এক ধাপ দূরে ছিল এবং দ্বিতীয় স্থানটি অধিকার গ্রহণ করেছে। উল্লেখযোগ্যভাবে এইচকেএম জোভেলন ডিফেন্সে সবচেয়ে ভালখেলা দেখিয়েছেন, কমপক্ষে (১২৮) টি গোল মিস করেছে। যাইহোক, নিয়মিত চ্যাম্পিয়নশিপের পরে স্লোভাক চ্যাম্পিয়নশিপের মূল অংশটি শুরু হতে চলেছে, প্লেঅফের অনেক সময় ছিল। তীব্র প্রতিদন্ধিতায়, জোভেলনে দলটি সেমিফাইনালে ভাল ফলাফল দেখায় তখন আবারও একটি মাত্র ধাপে পর হয়ে জোভেলনে ফাইনাল থেকে আলাদা করে ফেলে। যাইহোক, জোভেলনে বিজয়ীদের একটি মৌসুমে শেষ করতে পেরেছে এবং স্লোভাক চ্যাম্পিয়নশিপের ব্রোঞ্জ মেডেলটি পেয়েছে। কোন সন্দেহ নেই, হকি ক্লাব ভক্তদের কাছে এটি অনেক প্রশংসানীয়। সুতরাং, এই বছর এইচকেএম জোভেলন ভবিষ্যতে বড় আর একটি জয়ের জন্য ভিত্তি স্থাপন করেছে। সম্ভবত আমরা আগামী ২০১৯-২০২০ মৌসুমে তাদের সাথে থাকবো। পাশাপাশি, এইচকেএম জাভালেন প্রতিভাধর হকি খেলোয়াড় হিসাবে এই গ্যালাক্সিতে আত্বপ্রকাশ করছে, যারা আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ক্রীড়া তারকা হতে পারে। আগ্রহজনকভাবে, স্লোভাক আইস হকি ফেডারেশন কর্তৃক মে মাসের জন্য ব্র্যাডিস্লাভাতে ২০১৯ সালের আইএইচএফ আইস হকি ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপে দেশের সম্মান রক্ষা করার জন্য জাভালনের তিন খেলোয়াড়কে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। আমরা এইচকেএম জোভেলন হকি দলের সৌভাগ্য কামনা করছি এবং যা সকল ইন্সটাফরেক্স ট্রেডারদের কাছে মুল লক্ষ্য। বিস্তারিত: tiny.cc/rgwp5y
  6. টেকনিক্যাল আনাল্যসিসঃ USD/JPY এর জন্য ইনট্রাডে লেভেল, ২৫ এপ্রিল ২০১৯ এশিয়ায়, জাপান আজ BOJ পলিসি হার, আর্থিক নীতি বিবৃতি এবং BOJ আউটলুক এর অর্থনৈতিক ডাটা প্রকাশ করবে। অন্যদিকে আমেরিকা আজ কিছু অর্থনৈতিক তথ্য প্রকাশ করবে যেমন, জারি কারেন্সি রিপোর্ট, প্রাকৃতিক গ্যাস সংরক্ষণ, বেকারত্বের দাবি, টেকসই পণ্যের অর্ডার m/m এবং কোর টেকসই পণ্যের অর্ডার m/m। সুতরাং, প্রতিবেদনগুলো থেকে দেখা যায়, আজ USD/JPY এর ভোলাটিলিটি নিম্ম থেকে মধ্যম মানের হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আজকের দিনের টেকনিক্যাল লেভেলঃ রেসিস্ট্যান্স. 3 : 112.67. রেসিস্ট্যান্স. 2: 112.45. রেসিস্ট্যান্স. 1: 112.23. সাপোর্ট. 1: 111.97. সাপোর্ট. 2: 111.75. সাপোর্ট. 3: 111.52. সতর্কতাঃ ফরেক্স ট্রেডিং (বৈদেশিক বিনিময়) এর ক্ষেত্রে মার্জিন উচ্চ ঝুঁকি বহন করে এবং সকল বিনিয়োগের জন্য উপযুক্ত নাও হতে পারে। অধিক লিভারেজ আপনার জন্য অধিক ঝুঁকি বহন করবে আবার অধিক লাভের উৎস হিসাবেও কাজ করবে। ফরেক্সে লেনদেন করার পূর্বে আপনি অবশ্যই আপনার বিনিয়োগের লক্ষ্য, অভিজ্ঞতার স্তর এবং ঝুঁকির প্রবন নির্ধারণ করবেন। এর ফলে লোকসান এবং প্রাথমিক বিনিয়োগ হারানোর সম্ভাবনা সম্পর্কে নিশ্চিত হতে পারবেন এবং এমন জায়গায় বিনিয়োগ করবেন না যেখানে সম্পূর্ণ মূলধন হারানোর সম্ভাবনা রয়েছে। আপনি বিনিয়োগ সম্পর্কিত সকল ঝুঁকি সম্পর্কে সচেতন থাকবেন এবং আপনার যদি কোন সমস্যা হয় তাহলে একজন অর্থ বিষয়ক পরামর্শকের কাছে পরামর্শ চাইতে দ্বিধা করবেন না। ফরেক্স বিশ্লেষকঃ Arief Makmur, *মার্কেট বিশ্লেষণ ট্রেডিং সম্পর্কে আপনার সচেতনতা বৃদ্ধি করবে, কিন্তু আপনাকে ট্রেডিং সম্পর্কিত নির্দেশ প্রদান করবে না। বিভিন্ন পেয়ারের ফরেক্স আনাল্যসিসগুলো পেতে এই লিঙ্কটি ভিজিট করুন
  7. স্পেনের উৎপাদক মূল্য মুদ্রাস্ফীতি মার্চে বৃদ্ধি পেয়েছে গত দুই মাসে স্থিতিশীল থাকার পর চার মাসের মধ্যে স্পেনের উৎপাদক মূল্য মুদ্রাস্ফীতি মার্চে সর্বোচ্চ বেড়েছে । গত সপ্তাহে স্ট্যাটিস্টিকাল অফিস আইএনই থেকে এই তথ্য পাওয়া গেছে। উৎপাদক মূল্য মুদ্রাস্ফীতি সূচক মার্চ মাসে বছরের হিসাবে ২.৪ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে জা ডিসেম্বরে, জানুয়ারী এবং ফেব্রুয়ারিতে ১.৭ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছিল জ্বালানী ব্যতীত, উৎপাদক মূল্য মুদ্রাস্ফীতি মার্চ মাসে ০.১ শতাংশ ছিল, ফেব্রুয়ারীতেও একই রকম ছিল। উপাদানগুলির মধ্যে, গত বছরের থেকে জ্বালানির দাম ৭.৯ শতাংশ বেড়েছে। অ-টেকসই ভোগ্যপণ্য ও পুঁজি পণ্যের মুলধন যথাক্রমে ০.৯ শতাংশ এবং ০.৭ শতাংশ কমেছে। মাসিক ভিত্তিতে, উৎপাদক মূল্য মুদ্রাস্ফীতি গত মাসে শূন্যে থাকার পর মার্চ মাসে ০.২ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে। আরো ফরেক্স সংবাদঃ
  8. EROUSD সিগন্যাল ৬০ মিনিট ( ১ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল (পরবর্তী ৩ দিন ) মার্কেট ১ম টেক প্রফিটে পৌঁছেছে। আমরা ৫০% পজিশন ক্লোজ করবো এবং ১.১১৯০ প্রফিট লেভেলে স্টপ লস নেব। আমরা আশা করছি মার্কেট খুব তাড়াতাড়ি ২য় টেক প্রফিটে পৌঁছাবে। ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট নিন্মমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল : ১.১১৩৪, ১.১১০০, ১.১১৩৪ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১.১১৯০, ১.১২৩০, ১.১২৮০ সেল এন্ট্রি : ১.১১৯০ স্টপ লস : ১.১১৯০ ট্রেডের সম্ভাবনা : হাই টেক প্রফিট : ১.১১৬৯, ১.১১৩৪ ২৪০ মিনিট (৪ ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল ( পরবর্তী ৩ সপ্তাহ ) পেয়ারটি ১.১১৮০ রেজিস্ট্যান্স লেভেলের দিকে ঊর্ধ্বমূখী প্রাইস রিট্রেসমেন্টের সম্ভাবনা রয়েছে। সে ক্ষেত্রে সেল পজিশন নেওয়া যেতে পারে। ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট নিন্মমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল : ১.১১০০, ১.১০৭০, ১.১০৫০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১.১১৮০, ১.১২২০, ১.১২৮৫ সেল এন্ট্রি : GBPUSD সিগন্যাল ৬০ মিনিট ( ১ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল (পরবর্তী ৩ দিন ) পেয়ারটি ১.১৯২০ রেজিস্ট্যান্স লেভেলের দিকে একটি ঊর্ধ্বমূখী প্রাইস রিট্রেসমেন্টর সম্ভাবনা রয়েছে। সে ক্ষেত্রে সেল পজিশন নেওয়া যেতে পারে। ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট নিন্মমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল : ১.২৮৮০, ১.২৮৪০, ১.২৭৬০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১.২৯২০, ১.২৯৬০, ১.৩০০০ সেল এন্ট্রি : ২৪০ মিনিট (৪ ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল ( পরবর্তী ৩ সপ্তাহ ) পেয়ারটি ১.২৯৫০ রেজিস্ট্যান্স লেভেলের দিকে একটি ঊর্ধ্বমূখী প্রাইস রিট্রেসমেন্টর সম্ভাবনা রয়েছে। সে ক্ষেত্রে সেল পজিশন নেওয়া যেতে পারে। ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট নিন্মমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল : ১.২৮৩০, ১.২৭৯০, ১.২৭২০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১.২৯৫০, ১.৩০২০, ১.৩১০০ সেল এন্ট্রি :
  9. GBPJPY সিগন্যাল ৬০ মিনিট ( ১ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল (পরবর্তী ৩ দিন ) মার্কেট ডাউনট্রেন্ডে রয়েছে। আমারা ১২৪.০৬ সাপোর্ট লেভেলে সেল পজিশন নেওয়ার জন্য কিছু সিগন্যালের অপেক্ষা করছি। ১২৫.২৬ প্রাইস লেভেল ভেঙ্গে নিচে নামলে বিয়ারিশ ট্রেন্ড পরিবর্তন হতে পারে। সে ক্ষেত্রে বাই পজিশন নেওয়া যেতে পারে। ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট নিন্মমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল : ১২৪.৭৮, ১২৪.৫১, ১২৪.০৬ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১২৫.৩০, ১২৫.৮০, ১২৬.১০ সেল এন্ট্রি : ১২৪.৭৮ স্টপ লস : ১২৫.২৬ ট্রেডের সম্ভাবনা : হাই টেক প্রফিট : ১২৪.৫১, ১২৪.০৬ ২৪০ মিনিট (৪ ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল ( পরবর্তী ৩ সপ্তাহ ) পেয়ারটি ১২৫.২৬ রেজিস্ট্যান্স লেভেলের দিকে একটি ঊর্ধ্বমূখী প্রাইস রিট্রেসমেন্টর সম্ভাবনা রয়েছে। সে ক্ষেত্রে সেল পজিশন নেওয়া যেতে পারে। ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট নিন্মমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল : ১২৪.৭৭, ১২৩.৯৬, ১২২.৬৬ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১২৫.২৬, ১২৬.০৭, ১২৬.৮৭ সেল এন্ট্রি : EURJPY সিগন্যাল ৬০ মিনিট ( ১ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল (পরবর্তী ৩ দিন ) মার্কেটে অনিশ্চয়তা বিরাজ করছে। খুব তাড়াতাড়ি ট্রেন্ডগুলো পরিবর্তন হচ্ছে। এখন কোন এন্ট্রি না নেওয়া ভাল হবে। মার্কেট স্বাভাবিক অবস্থানে আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করা ভাল হবে। ট্রেন্ডের ধরণ : অপেক্ষমান। সাপোর্ট লেভেল : ১৪৪.৪০, ১৪৪.১০, ১৪৩.৮০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১৪৫.০২, ১৪৫.৪৯, ১৪৬.০০ অপেক্ষমান এন্ট্রি : ২৪০ মিনিট (৪ ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল ( পরবর্তী ৩ সপ্তাহ ) পেয়ারটি ১৪৫.২০ রেজিস্ট্যান্স লেভেলের দিকে একটি ঊর্ধ্বমূখী প্রাইস রিট্রেসমেন্টর সম্ভাবনা রয়েছে। সে ক্ষেত্রে সেল পজিশন নেওয়া যেতে পারে। ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট নিন্মমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল : ১৪৪.৩০, ১৪৩.৩০, ১৩৯.৪১ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১৪৫.২০, ১৪৫.৮৮, ১৪৭.০০ সেল এন্ট্রি :
  10. ডলার ইউরোর তুলনায় বেশ ভাল অবস্থানে রয়েছে। বর্তমানে পেয়ারটি ২০১৯ সালের সর্বনিন্ম প্রাইস ১.১১৪০ লেভেলে অবস্থান করছে। পেয়ারটির বিয়ারিশ অবস্থান বেশ শক্তিশালী। যদি পেয়ারটি আপসাইড অবস্থানে আসে, তাহলে পেয়ারটি ১.১৩৩৬ রেশিস্ট্যান্স লেভেলে আসতে পারে। পেয়ারটি ২০১৭ সালের জুন মাসের সর্বনিন্ম প্রাইস ১.১১১৮ দিকে যেতে পারে। ইউরো/ডলারের প্রতিদিনের চার্ট
  11. ব্যাংক অফ কানাডার Dovish অবস্থানের ফলে কানাডিয়ান ডলারের প্রাইস কমছে এবং মার্কিন ডলারের প্রাইস বাড়ছে। সুতরাং মার্কিন ডলার/কানাডিয়ান ডলারের প্রাইস ঊর্ধ্বমূখী অবস্থানে রয়েছে। কানাডিয়ান ডাটা তেমন ভাল অবস্থানে নেই, তাই বিনিয়োগকারীরা যুক্তরাষ্ট্রের ইকোনমির দিকে নজর রাখবেন। আজ ইউরোপিয়ান সেশনে মার্কিন ডলার/কানাডিয়ান ডলারের প্রাইস ১.৩৪৯০ এর কাছাকাছি রয়েছে। কানাডা যেহেতু Dovish অবস্থানে রয়েছে। তাই বিনিয়োগকারীরা মার্কিন ডলারকে নিরাপরাদ কারেন্সি হিসেবে পছন্দ করছে। গতকাল ব্যাংক অফ কানাডা ( BOC ) তাদের মনেটারী পলিসি অপরিবর্তনীয় রেখেছে এবং ২০১৯ সালের শুরুর দিকে প্রবৃদ্ধি রেট কিছুটা কমেছে। কানাডা ব্যাংকের এ ধরণের Dovish অবস্থানের ফলে কানাডার ইকোনমি নিয়ে উদ্ধিগ্নতা বৃদ্ধি পাচ্ছে , যার ফলে কানাডিয়ান ডলারের দুর্বলতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। তবে গর্ভনর স্টিফেন পোলজ বর্তমান ইকোনমিক উদ্ধিগ্নতার বিষয়ে কিছু মন্তব্য করবেন। এটা কানাডিয়ান ডলারের প্রাইস বৃদ্ধির ক্ষেত্রে কিছুটা সহায়ক হতে পারে।
  12. টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস- EUR/USD পেয়ারের ইন্ট্রাডে লেভেল, ২৫শে এপ্রিল-২০১৯ বিশ্লেষণ করেছেন বিশেষজ্ঞ Arief Makmur (ইন্সটা ফরেক্স টিম) আজকের EUR/USD পেয়ারের টেকনিক্যাল লেভেলঃ ব্রেকআউট বাই লেভেল- 1.1207 স্ট্রং রেসিস্ট্যান্স- 1.1201 অরিজিনাল রেসিস্ট্যান্স- 1.1190 ইনার সেল এরিয়া- 1.1179 টার্গেট ইনার এরিয়া- 1.1153 ইনার বাই এরিয়া- 1.1127 ওরিজিনাল সাপোর্ট- 1.1116 স্ট্রং সাপোর্ট- 1.1105 ব্রেকআউট সেল লেভেল- 1.1099 মন্তব্য: আজ ইউরোপিয়ান মার্কেটে ট্রেডিং শুরু হলে ইকোনোমিক নিউজ রিলিজ করবে। যেমন: স্প্যানিশ বেকারত্ব হার। এছাড়াও আমেরিকান মার্কেটে ট্রেডিং শুরু হলে ইকোনমিক ডাটা রিলিজ করবে। কিছু যেমন: মার্কিন ট্রেজারি কারেন্সি রিপোর্ট, প্রাকৃতিক গ্যাস মজুদ, বেকারত্বের হার, টেকসই পণ্যের অর্ডার এম/এম এবং কোর টেকসই পণ্যের অর্ডার এম/এম। ফলে ফান্ডামেন্টাল বিশ্লেষন থেকে আশা করা যায় মার্কেটে EUR/USD পেয়ারটিতে নিন্ম থেকে মধ্যম মাত্রার ভোলাটিলিটি থাকতে পারে। আরো ফরেক্স বিশ্লেষন দেখুন: tiny.cc/koip5y *মার্কেট বিশ্লেষণ ট্রেডিং সম্পর্কে আপনার সচেতনতা বৃদ্ধি করবে, কিন্তু আপনাকে ট্রেডিং সম্পর্কিত নির্দেশ প্রদান করবে না।
  13. ব্যাংক অফ জাপান মনেটারী পলিসি অপরিবর্তনীয় রেখেছে। ধারণা করা হচ্ছে, প্রবৃদ্ধি এবং মুদ্রাস্ফীতি কম হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। বর্তমানে বিনিয়োগকারীদের সকলে চোখ , জাপান ব্যাংকের গর্ভনর কুরোদার বক্তব্যের দিকে থাকবে । ব্যাংক অফ জাপান ( BOJ ) তাদের মনেটারী পলিসি সিদ্ধান্ত ঘোষনা করার পরে, আজ ইউরো/ইয়েন পেয়ারটি ১২৫.০০ প্রাইসের কাছাকাছি ট্রেডিং করছে। জাপানের কনজিউমার প্রাইস ইনডেক্স ( CPI ) এবং ঘরোয়া পণ্যের চাহিদা তুলনামূলকভাবে খারাপ অবস্থানে রয়েছে। তাই জাপানের কেন্দ্রীয় ব্যাংক তাদের মনেটারী পলিসি অপরিবর্তনীয় রেখেছে। এদিকে জার্মান আইএফও ( IFO ) ডাটা এবং জার্মান বন্ড কিছুটা খারাপ অবস্থানে রয়েছে, যার ফলে ইউরোর সেলিং প্রেসার বৃদ্ধি পাচ্ছে। পেয়ারটির মধ্যে জাপানী ইয়েনকে নিরাপদ হিসেবে দেখা হচ্ছে ।ব্যাংক অফ জাপান ( BOJ ) চারমাসের রিপোর্ট প্রকাশ করেছেন। বর্তমানে বিনিয়োগকারীরা গর্ভনর হারুহিকো কুরোডার মন্তব্যের দিকে নজর রাখবেন। তার এ মন্তব্য জার্মান ইকোনমির জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।
  14. প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে তার চ্যালেঞ্জ পজিশন থেকে সরে যাচ্ছে। যার ফলে ব্রেক্সিট সম্পর্কে ভোট দেওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে এবং এটা পাউন্ডের প্রাইস বৃদ্ধিতে সহায়তা করেছে। যুক্তরাজ্য এবং যুক্তরাষ্ট্রের ইকোনমি পর্যালোচনা করে মনে হচ্ছে, যুক্তরাজ্যের ডাটা বর্তমানে কিছুা পরিবর্তন হওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। যার ফলে পাউন্ডের প্রাইস বাড়তে শুরু করেছে। আজ লন্ডন সেশনে পাউন্ড/ডলার পেয়ারটি ১.২৯০০ প্রাইসের উপরে রয়েছে। ব্রেক্সিট অনিশ্চয়তা এবং যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মের ভবিষ্যত নেতৃত্বর অনিশ্চয়তা বিরাজ করার কারণে পাউন্ডের প্রাইস কমেছিল। অপরদিকে যুক্তরাষ্ট্রের ডলার বেশ শক্তিশালী হয়েছিল। তবে আগামী সপ্তাহে ব্রেক্সিট নিয়ে ভোট হওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। যার ফলে যুক্তরাজ্যের ইকোনমি কিছুটা ভাল হতে পারে। এ সম্ভাবনাকে কেন্দ্র করে পাউন্ডের প্রাইস বাড়তে শুরু করেছে। বর্তমানে পেয়ারটি ১.২৯০০ প্রাইসের দিকে যাচ্ছে।
  15. ইউরো/ডলার পেয়ারটি ১.১০ প্রাইসের দিকে যাচ্ছে, গতকাল পেয়ারটি ১.১৭৬ প্রাইসের নিচে ট্রেডিং করেছিল। যুক্তরাষ্ট্র্য এবং ইউরোজোনের ইকোনমি বিবেচনা করে মনে হচ্ছে, ডলারের প্রাইস বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের টেকসই পণ্যের ( Durable goods ) অর্ডার রিপোর্ট প্রত্যাশার তুলনায় বেশি আসতে পারে। ইউরো/ডলার পেয়ারটির প্রাইস গতকালের মতো নিন্মগতি অব্যাহত রয়েছে। অপরদিকে ডলারের প্রাইস বাড়ছে। ২২ মার্চ থেকে পেয়ারটির প্রাইস বেশ ভালভাবেই কমেছে। ২০১৭ সালের জুন মাসে পেয়ারটির সর্বনিন্ম প্রাইস ছিল ১.১১৫৩ । আজ পেয়ারটি এ সাপোর্ট লেভেলকেও অতিক্রম করেছে। গতকাল পেয়ারটি ১.১১৭৬ প্রাইসের নিচে ক্লোজ হয়েছে। এটা ৭ মার্চের সর্বনিন্ম প্রাইস ছিল। তবে এ মাসের শুরুর দিকে পেয়ারটি ১.১৩২৪ প্রাইস থেকে কমতে শুরু করেছে। জার্মানের ১০ বছরের বন্ড পুনরায় খারাপ এসেছে, যার ফলে পেয়ারটির প্রাইস কমে ১.১০ এর দিকে আসতে পারে। গত দশ দিনে ১০ বছরের ট্রেসারি উৎপাদন বেসিক থেকে ১০ পয়েন্ট কমেছে। এটা ক্রমাগত আরও লসের দিকে যাচ্ছে, যার ফলে কেন্দ্রীয় ব্যাংক বর্তমানে Dovish অবস্থানে রয়েছে। ইউরো/ডলার পেয়ারটি ১.১০ প্রাইসের কাছাকাছি যাচ্ছে। আজ ‍যুক্তরাষ্ট্রের ডাটা রিলিজ হবে। আশা করা হচ্ছে, মার্চ মাসে ডিউরেবল পণ্যের অর্ডার কিছুটা রিবাউন্ড করতে পারে। এর ফলে ডলারের প্রাইস বাড়তে পারে।
  16. Last week
  17. ইউরো/ডলারের বর্তমান লেভেল ১.১২০০ গতকাল পেয়ারটির সর্বোচ্চ প্রাইস ছিল ১.১২৬০। পরবর্তীতে পেয়ারটির প্রাইস কমতে থাকে এবং পেয়ারটি ১.১১৭৫ প্রাইসে ব্রেক হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। পরবর্তীতেও যদি পেয়ারটি বিয়ারিশ অবস্থান থাকে তাহলে পেয়ারটির পরবর্তী টার্গেট হতে পারে ১.১০১০ লেভেল। রেজিস্ট্যান্স লেভেল ইন্ট্রাডে : ১.১২১৫, ১.১২৬০ ইন্ট্রাউইক/সপ্তাহ : ১.১৩৩০, ১.১৪৫০ সাপোর্ট লেভেল ইন্ট্রাডে : ১.১১৭৫, ১.১০১০ ইন্ট্রাউইক/ সপ্তাহ : ১.১১৭৫, ১.০৮৬০ ডলার/ইয়েন বর্তমান লেভেল : ১১১.৭৯ ডলার/ইয়েন পেয়ারটি ১১১.৫০ থেকে ১১২.১৫ প্রাইসের দিকে যাচ্ছে। মার্কেটের এ গতি যদি অব্যাহত থাকে তাহলে পেয়ারটি পরবর্তীতে ১১৩.২০ প্রাইসের দিকে যেতে পারে। রেজিস্ট্যান্স লেভেল ইন্ট্রাডে : ১১২.১৫, ১১৩.২০ ইন্ট্রাউইক/সপ্তাহ : ১১৩.২০, ১১৪.৫০ সাপোর্ট লেভেল ইন্ট্রাডে : ১১১.৫০, ১১০.৫০ ইন্ট্রাউইক/সপ্তাহ : ১০৮.৯০, ১০৭.৪০ পাউন্ড/ডলারের বর্তামান লেভেল : ১.২৯১৯ পেয়ারটি ১.২৯৬০ সাপোর্ট লেভেলে ব্রেক করেছিল। পরবর্তীতে পেয়ারটির প্রাইস কমতে থাকে, এ ধরণের নিন্মমূখী প্রাইস যদি অব্যাহত থাকে তাহলে পেয়ারটি ১.২৮১০ প্রাইসে যেতে পারে। অপরদিকে পেয়ারটি যদি আপসাইড মোমেন্টে আসে তাহলে সর্বোচ্চ ১.৩০১৫ প্রাইসে উঠতে পারে। রেজিস্ট্যান্স লেভেল ইন্ট্রাডে : ১.২৯৬০, ১.৩০১৫ ইন্ট্রাউইক/সপ্তাহ : ১.৩৪৫০, ১.৩৪৫০ সাপোর্ট লেভেল ইন্ট্রাডে : ১.২৯০০, ১.২৮১০ ইন্ট্রাউইক/সপ্তাহ : ১.২৮১০, ১.২৬১০
  18. Market Analysis and News.

    Date : 24th April 2019. MACRO EVENTS & NEWS OF 24th April 2019. FX News Today Australia’s bond as well as stock markets rallied after inflation came in lowerthan anticipated at 0.0% q/q, down from 0.5% in the previous period and versus median expectations of 0.1%. Markets are convinced that the inflation miss will make a rate cut all but inevitable and 10-year yields plunged 10.5 bp, while the ASX jumped as much as 1.1% to a more than 11 year high, after already outperforming yesterday. Elsewhere in Asia markets were under pressure, however, despite the strong close on Wall Street, where sentiment was boosted by upbeat earnings reports. The USA500 and USA100 closed at record highs Tuesday Twitter stock surged more than 15% on earnings beat, while the Coca-Cola share price is up 2% as Q1 earnings revenue was $8.02 billion, topping projections of $7.88 billion. The concerns that China may slow the pace of policy easing and stimulus measures continue to weigh on sentiment. WTI oil softer today after surge to 6-mth high at $66.60 yesterday. Charts of the Day Technician’s Corner USOIL softer at 66.00 hurdle after topping at a new nearly six-month high of $66.60. Overall, outlook holds to the upside as the asset is sloping within an uptrend, with small corrections to the downside. USDJPY has continued to oscillate in a narrow range in the 111.75-112.00 area. The focus this week will be on fresh signs that corroborate the return-to-growth picture in major global economies. A continuation of this theme would be supportive of currencies that performer with higher beta characteristics, such as the Dollar bloc units, while currencies of the low-yielding safe haven type, such as the Yen, would be apt to underperform. USDJPY has Support at 111.54-111.60, levels which encompass the prevailing position of the 200-day moving average. AUDUSD dove to 0.7026, just a breath above 3-year Support. It was driven by Aussie-specific losses following sub forecast CPI data out of Australia, which catalysed calls for the RBA to cut interest rates at its next policy review in May. A break of 0.7000 could open the way towards a December slip. Main Macro Events Today IFO (EUR, GMT 08:00) – Business climate in the largest EU country is expected to have grown marginally to 99.9 compared to 99.6 last month. Event of the week – BoC Interest Rate Decision (CAD, GMT 14:00) – At the BoC meeting, consensus expectations are that there should be no interest rate change. A sharper and more broadly based slowdown in the domestic economy, alongside a slowing in the global economy that has been more pronounced and widespread than anticipated saw the Bank state “the outlook continues to warrant a policy interest rate that is below its neutral range.” Support and Resistance Always trade with strict risk management. Your capital is the single most important aspect of your trading business. Please note that times displayed based on local time zone and are from time of writing this report. Click HERE to access the full HotForex Economic calendar. Want to learn to trade and analyse the markets? Join our webinars and get analysis and trading ideas combined with better understanding on how markets work. Click HERE to register for FREE! Click HERE to READ more Market news. Andria Pichidi Market Analyst HotForex Disclaimer: This material is provided as a general marketing communication for information purposes only and does not constitute an independent investment research. Nothing in this communication contains, or should be considered as containing, an investment advice or an investment recommendation or a solicitation for the purpose of buying or selling of any financial instrument. All information provided is gathered from reputable sources and any information containing an indication of past performance is not a guarantee or reliable indicator of future performance. Users acknowledge that any investment in FX and CFDs products is characterized by a certain degree of uncertainty and that any investment of this nature involves a high level of risk for which the users are solely responsible and liable. We assume no liability for any loss arising from any investment made based on the information provided in this communication. This communication must not be reproduced or further distributed without our prior written permission.
  19. এ সপ্তাহে ইউরো/ডলার পেয়ারটির সেলিং প্রেসার বৃদ্ধি পাচ্ছে। বর্তমানে পেয়ারটি ১.১২০০ প্রাইসের কাছাকাছি রয়েছে। পেয়ারটির পরবর্তী অবস্থান ১.১১৯৫/৯০ লেভেল। গত সপ্তাহে পেয়ারটি ১.১৩০০ প্রাইসে ছিল। সেখান থেকে কমতে শুরু করে এবং ধারণা করা হচ্ছে, পেয়ারটি ২০১৯ সালের সর্বনিন্মপ্রাইস ১.১১৭৬ প্রাইসে যেতে পারে। ৬ মাসের রেজিস্ট্যান্স লাইন অনুযায়ী, আজ পেয়ারটির সর্বোচ্চ রেজিস্ট্যান্স লেভেল ১.১৩৭৫। তবে পেয়ারটির সাপোর্ট লেভেল শক্তিশালী অবস্থানে রয়েছে। ইউরো/ডলারের প্রতিদিনের চার্ট :
  20. GBPJPY সিগন্যাল ৬০ মিনিট ( ১ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল (পরবর্তী ৩ দিন ) পেয়ারটি ১৪৪.৯০ রেজিস্ট্যান্স লেভেলের দিকে একটি ঊর্ধ্বমূখী প্রাইস রিট্রেসমেন্টর সম্ভাবনা রয়েছে। সে ক্ষেত্রে সেল পজিশন নেওয়া যেতে পারে। ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট নিন্মমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল : ১৪৪.৪৫, ১৪৪.০০, ১৪৩.৫০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১৪৪.৯০, ১৪৫.২০, ১৪৫.৬০ সেল এন্ট্রি : ২৪০ মিনিট (৪ ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল ( পরবর্তী ৩ সপ্তাহ ) পেয়ারটি ১৪৫.২০ রেজিস্ট্যান্স লেভেলের দিকে একটি ঊর্ধ্বমূখী প্রাইস রিট্রেসমেন্টর সম্ভাবনা রয়েছে। সে ক্ষেত্রে সেল পজিশন নেওয়া যেতে পারে। ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট নিন্মমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল : ১৪৪.৪০, ১৪৩.৩০, ১৩৯.৪১ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১৪৫.২০, ১৪৫.৮৮, ১৪৭.০০ সেল এন্ট্রি : EURJPY সিগন্যাল ৬০ মিনিট ( ১ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল (পরবর্তী ৩ দিন ) মার্কেট ডাউনট্রেন্ডে রয়েছে। আমরা ১২৫.২০ সাপোর্ট লেভেলে বাই পজিশন নেওয়ার জন্য কিছু সিগন্যালের অপেক্ষা করছি্ । ১২৫.৬০ প্রাইস লেভেল ভেঙ্গে নিচে নামলে বিয়ারিশ ট্রেন্ড পরিবর্তন হতে পারে। ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট নিন্মমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল : ১২৫.২০, ১২৫.০০, ১২৪.৭০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১২৫.৬০, ১২৫.৮০, ১২৬.১০ সেল এন্ট্রি : ১২৫.২০ স্টপ লস : ১২৫.৬০ ট্রেডের সম্ভাবনা : হাই টেক প্রফিট : ১২৫.০০, ১২৪.৭০ ২৪০ মিনিট (৪ ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল ( পরবর্তী ৩ সপ্তাহ ) পেয়ারটি ১২৬.০৭ রেজিস্ট্যান্স লেভেলের দিকে একটি ঊর্ধ্বমূখী প্রাইস রিট্রেসমেন্টর সম্ভাবনা রয়েছে। সে ক্ষেত্রে সেল পজিশন নেওয়া যেতে পারে। ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট নিন্মমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল : ১২৫.২০, ১২৪.৫০, ১২৩.১০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১২৬.০৭, ১২৬.৪৫, ১২৭.০০ সেল এন্ট্রি :
  21. EUR/JPY বেয়ারিশ চ্যানেলের চাপে প্রধান সাপোর্ট ভেঙেছে! এন্ট্রি: 125.60 এটি ভালো কেন: আনুভূমিক ওভারল্যাপ রেসিস্ট্যান্স, 23.6% ফিবনাচি রিট্রেসমেন্ট স্টপ লস: 126.10 এটি ভালো কেন: আনুভূমিক সুইং হাই রেসিস্ট্যান্স, 50% ফিবনাচি রিট্রেসমেন্ট টেক প্রফিট: 124.83 এটি ভালো কেন: আনুভূমিক সুইং হাই লো সাপোর্ট, 61.8% & 100% ফিবনাচি এক্সটেনশন, 61.8% ফিবনাচি রিট্রেসমেন্ট *মার্কেট বিশ্লেষণ ট্রেডিং সম্পর্কে আপনার সচেতনতা বৃদ্ধি করবে, কিন্তু আপনাকে ট্রেডিং সম্পর্কিত নির্দেশ প্রদান করবে না। বিভিন্ন পেয়ারের ফরেক্স আনাল্যসিসগুলো পেতে এই লিঙ্কটি ভিজিট করুন
  22. যুক্তরাজ্যের সরকারি খাতের আর্থিক তথ্য, প্রকাশের পরে পাউন্ডের আংশিক পরিবর্তন বুধবার ET সময় ভোর 4.30 am জাতীয় পরিসংখ্যান কার্যালয় মার্চ মাসের যুক্তরাজ্যের সরকারি খাতের আর্থিক তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে। এই ডাটা প্রকাশের পরে, পাউন্ড তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী মুদ্রাগুলোর আংশিক পরিবর্তন হয়েছে ছিল। ET সময় 4:34 am পাউন্ড ডলারের বিপরীতে 1.2927, ইয়নের বিপরীতে 144.54, ফ্রাংকের বিপরীতে 1.3170 এবং ইউরো এর বিপরীতে 0.8676 এ লেনদেন হয়েছিল। আরো ফরেক্স সংবাদঃ
  23. EROUSD সিগন্যাল ৬০ মিনিট ( ১ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল (পরবর্তী ৩ দিন ) মার্কেট ডাউনট্রেন্ডে রয়েছে। আমরা সেল পজিশন নেওয়ার ১.১১৯০ সাপোর্ট লেভেলে কিছু সিগন্যালের অপেক্ষা করছি। ১.১২২৭ প্রাইস লেভেল ভেঙ্গে নিচে নামলে বিয়ারিশ ট্রেন্ড পরিবর্তন হতে পারে। ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট নিন্মমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল : ১.১১৯০, ১.১১৬৯, ১.১১৩৪ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১.১২২৭, ১.১২৫০, ১.১২৮০ সেল এন্ট্রি : ১.১১৯০ স্টপ লস : ১.১২২৭ ট্রেডের সম্ভাবনা : হাই টেক প্রফিট : ১.১১৬৯, ১.১১৩৪ ২৪০ মিনিট (৪ ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল ( পরবর্তী ৩ সপ্তাহ ) মার্কেট ১ম টেক প্রফিটে পৌঁছেছে। আমরা ৫০% তে পজিশন ক্লোজ করবো এবং ১.১২৪৫ লেভেলে স্টপ লস নেব। মার্কেট খুব তাড়াতাড়ি ২য় টেক প্রফিটে পৌঁছাবে। ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট নিন্মমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল : ১.১১৬৬, ১.১১০০, ১.১০১০ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১.১২২৪, ১.১২৭০, ১.১৩২৩ সেল এন্ট্রি : ১.১২২৪ স্টপ লস : ১.১২২৪ ট্রেডের সম্ভাবনা : মাঝারি টেক প্রফিট : ১.১২০২, ১.১১৬৬ GBPUSD সিগন্যাল ৬০ মিনিট ( ১ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল (পরবর্তী ৩ দিন ) ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট নিন্মমূখীভাবে শক্তিশালী। পেয়ারটি ১.২৯৬০ রেজিস্ট্যান্স লেভেলের দিকে একটি ঊর্ধ্বমূখী প্রাইস রিট্রেসমেন্টর সম্ভাবনা রয়েছে। সে ক্ষেত্রে সেল পজিশন নেওয়া যেতে পারে। সাপোর্ট লেভেল : ১.২৯২০, ১.২৮৯০, ১.২৭৯৫ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১.২৯৬০, ১.২৯৮০, ১.৩০২০ সেল এন্ট্রি : ২৪০ মিনিট (৪ ঘন্টার ) চার্টের সিগনাল ( পরবর্তী ৩ সপ্তাহ ) পেয়ারটি ১.২৯৬৪ রেজিস্ট্যান্স লেভেলের দিকে একটি ঊর্ধ্বমূখী প্রাইস রিট্রেসমেন্টর সম্ভাবনা রয়েছে। সে ক্ষেত্রে সেল পজিশন নেওয়া যেতে পারে। ট্রেন্ডের ধরণ : মার্কেট নিন্মমূখীভাবে শক্তিশালী। সাপোর্ট লেভেল : ১.২৯১০, ১.২৮৭৫, ১.২৭৮৭ রেজিস্ট্যান্স লেভেল : ১.২৯৬৪, ১.৩০১৮, ১.৩০৭৩ সেল এন্ট্রি :
  24. জার্মান আইএফও ( IFO ) বিজনেস ক্লাইমেন্ট ইনডেক্স এ বারের রিপোর্টে ৯৯.২ পয়েন্ট এসেছে। যেখানে গত মাসে ৯৯.৬ পয়েন্ট ছিল। তবে প্রত্যাশা করা হয়েছিল ৯৯.৯ পয়েন্ট আসবে। এটা তাদের প্রত্যাশার তুলনায় খারাপ এসেছে। জার্মান আইএফও ( IFO ) রিপোর্ট খারাপ আসার কারণে ইউরোর প্রাইস আরও কমতে পারে।
  25. গতকাল পাউন্ড/ডলারের প্রাইস গত দুই মাসের সর্বনিন্ম লেভেলে গিয়েছিল। অপর দিকে ডলারের প্রাইস বেড়েছিল। ইন্ট্রাডেতে পেয়ারটির প্রাইস বেড়ে ১.৩০ তে আসার পর,পুনরায় আবার কমতে শুরু করে। যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মের বক্তব্যকে কেন্দ্র করে ডলারের প্রাইস ২০১৭ সালের জুন মাসের সর্বোচ্চ প্রাইসকে স্পর্শ করেছিল এবং পাউন্ডের প্রাইস কমতে শুরু করেছিল। ডলারের প্রাইস বাড়ার পিছনে বেশ কিছু কারণ রয়েছে, যেমন তেলের দাম বৃদ্ধি, কোর মুদ্রাস্ফীতি এবং ফেডের ইন্টারেস্ট রেট বাড়ানো। যার ফলে ডলারের প্রাইস বেড়ে চলেছে। যুক্তরাষ্ট্রে নুতুন বাড়ি সেল গত ১ বছর ৪ মাসের মধ্যে ভাল এসেছে। এটাও ডলারের প্রাইস বাড়ার ক্ষেত্রে সহায়তা করেছে। পেয়ারটিকে এশিয়ান সেশনে বিয়ারিশ অবস্থানে দেখা যাচ্ছে। তবে বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্র এবং যুক্তরাজ্যের ইকোনমিতে তেমন বড় কোন ইভেন্ট না থাকার কারণে ব্রেক্সিট সম্পর্কিত যে কোন ধরণের নিউজ পেয়ারটির প্রাইস বাড়তে এবং কমতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।
  26. মার্চ মাসে মালয়েশিয়াতে দ্রব্যমুল্য বেড়েছে! মালয়য়েশিয়ার জাতীয় পরিসংখ্যান বিভাগের একটি পরিসংখ্যানে আজ বুধবার জানা যায়, মালয়েশিয়ার ভোক্তাদের কাছে দ্রব্যমুল্য গত মাসে হ্রাসের পর মার্চ মাসে বার্ষিক হিসাবে বেড়েছে। ফলে ভোক্তাদের মূল্য সূচক মার্চ মাসে বছরে 0.2 শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে, যা আংশিকভাবে ফেব্রুয়ারিতে 0.4 শতাংশে নেমে এসেছে। অর্থনীতিবিদদের দাম 0.3 শতাংশ বৃদ্ধির আশা করেছিল। আরো ফরেক্স নিউজ দেখুন: https://goo.gl/FmCiZG
  27. টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস- EUR/USD পেয়ারের ইন্ট্রাডে লেভেল, ২৪শে এপ্রিল-২০১৯ বিশ্লেষণ করেছেন বিশেষজ্ঞ Arief Makmur (ইন্সটা ফরেক্স টিম) আজকের EUR/USD পেয়ারের টেকনিক্যাল লেভেলঃ ব্রেকআউট বাই লেভেল- 1.1279 স্ট্রং রেসিস্ট্যান্স- 1.1273 অরিজিনাল রেসিস্ট্যান্স- 1.1262 ইনার সেল এরিয়া- 1.1251 টার্গেট ইনার এরিয়া- 1.1225 ইনার বাই এরিয়া- 1.1199 ওরিজিনাল সাপোর্ট- 1.1188 স্ট্রং সাপোর্ট- 1.1177 ব্রেকআউট সেল লেভেল- 1.1171 মন্তব্য: আজ ইউরোপিয়ান মার্কেটে ট্রেডিং শুরু হলে ইকোনোমিক নিউজ রিলিজ করবে। যেমন: বেলজিয়ান NBB বিসনেস ক্লাইমেট, জার্মান ১০-ওয়াই বন্ড অকশন এবং জার্মান ইফ বিসনেস ক্লাইমেট। এছাড়াও আমেরিকান মার্কেটে ট্রেডিং শুরু হলে ইকোনমিক ডাটা রিলিজ করবে। কিছু যেমন: ক্রুড অয়েল ইনভেনটরি। ফলে ফান্ডামেন্টাল বিশ্লেষন থেকে আশা করা যায় মার্কেটে EUR/USD পেয়ারটিতে নিন্ম থেকে মধ্যম মাত্রার ভোলাটিলিটি থাকতে পারে। আরো ফরেক্স বিশ্লেষন দেখুন: tiny.cc/o5jn5y *মার্কেট বিশ্লেষণ ট্রেডিং সম্পর্কে আপনার সচেতনতা বৃদ্ধি করবে, কিন্তু আপনাকে ট্রেডিং সম্পর্কিত নির্দেশ প্রদান করবে না।
  1. Load more activity

বিডিপিপস কি এবং কেন?

বিডিপিপস বাংলাদেশের সর্বপ্রথম অনলাইন ফরেক্স কমিউনিটি এবং বাংলা ফরেক্স স্কুল। প্রথমেই বলে রাখা জরুরি, বিডিপিপস কাউকে ফরেক্স ট্রেডিংয়ে অনুপ্রাণিত করে না। যারা বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, শুধুমাত্র তাদের জন্যই বিডিপিপস একটি আলোচনা এবং অ্যানালাইসিস পোর্টাল। ফরেক্স ট্রেডিং একটি ব্যবসা এবং উচ্চ লিভারেজ নিয়ে ট্রেড করলে তাতে যথেষ্ট ঝুকি রয়েছে। যারা ফরেক্স ট্রেডিংয়ের যাবতীয় ঝুকি সম্পর্কে সচেতন এবং বর্তমানে ফরেক্স ট্রেডিং করছেন, বিডিপিপস শুধুমাত্র তাদের ফরেক্স শেখা এবং উন্নত ট্রেডিংয়ের জন্য সহযোগিতা প্রদান করার চেষ্টা করে।

×